বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

কি ভাবছো ?

চটপোস্ট

ছবি

প্রশ্ন

পোস্টটি শেয়ার করা হয়েছে

সাহিত্য---------মেঘনাদ বধ মহাকাব্যে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্য প্রভাব...... ....২ সৈয়দা মকসুদা হালিম মাইকেল মধুসূদন দত্তের ‘মেঘনাদ বধ’ কাব্যের ভাবাকাশ, চরিত্র সৃজন, ও গঠনকৌশলে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্য প্রভাব । ইংরেজী ভাষায় ও সাহিত্যে মাইকেলের অধিকার ছিলো প্রশস্ত, অনুরাগও ছিলো গভীর। সেই সঙ্গে গ্রিক, ল্যাটিন আয়ত্বকরে ইউরোপীয় সাহিত্যের অমরাবতীতে তিনি আমন্ত্রিত হয়েছেন, তৃপ্ত হয়েছেন সেখানকার অমৃতরস ভোগে! “মাতৃভাষায় তিনি এমন একটি আবাহন করলেন যে কাব্যে স্খলিত জাতির প্রথম পদচারনার ভীরু সতর্কতা নেই। এই কাব্যের বাহিরের গঠনে আছে –বিদেশীয় আদর্শ, অন্তরে আছে কৃত্তিবাসী বাঙ্গালির কল্পনার সাহায্যে মিল্টন-হোমারের প্রতিভার অতিথি সৎকার।”—রবীন্দ্রনাথের এ সুচিন্তিত মন্তব্যে আমরা আমাদের প্রয়োজনীয় কয়েকটি সূত্র পেয়ে থাকি। মেঘনাদ বধ কাব্যে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্য উভয়ের প্রভাব পড়েছে। সে প্রভাব সর্বব্যাপী কাব্যের বিষয়বস্তুর উপস্থাপনে, প্রকাশণে ও কবির মানসিকতায়। এর সাহায্যে কবি ‘মধুচক্র’ রচনা করেছেন যা ‘ম্যাকানিক্যাল মিক্সচার না হয়ে ক্যামিক্যাল মিক্সচার হয়েছে। মেঘনাদ বধ কাব্যের কাহিনী রামায়ণ থেকে গৃহীত। লঙ্কার যুদ্ধে মেঘনাদের পতনই এ কাব্যের উপজীব্য। এ কাহিনী বাল্মীকিতে আছে, কৃত্তিবাসেও আছে। মধুসূদন এ বিষয়বস্তুর কোনো পরিবর্তন করেন নি কিন্তু এর অন্তরধর্মে অনেক পরিবর্তন এনেছেন। সে পরিবর্তন পাশ্চাত্যপ্রভাব জাত। গ্রীক ট্র্যাজেডির ভক্ত পাঠক মাইকেল রাবণের মধ্যে আবিষ্কার করেছেন দৈবাহত মানুষের তিলে তিলে পরাজয়! রামায়ণেও রাবণ সবংশে নিহত হন এবং তার পতনে পাঠক আনন্দবোধ করে। কারণ সে দেখে পাপী তার সমুচিত ফল ভোগ করছে। কিন্তু মাইকেলের রাবণকে এক কথায় পাপী বলার জো নেই। এ রাবণ কেবল রাজা নন, সুকৌশলী শাসক। বাৎসল্যময় পিতা, স্নেহার্দ্র ভ্রাতা, দৈব-বিনীত মর্তের মানুষ, নিষ্ঠাবান গৃহস্থ ও সর্বোপরি এক অসীম শক্তিশালী পুরুষ! মধুসূদন রাবণকে কাঁদিয়েছেন, কিন্তু তা অনুতপ্ত পাপীর বিলাপ নয়, তা নিয়তি তাড়িত ভাগ্যাহত মানুষের ক্রন্দন। তার শক্তি ও পৌরুষের সীমা নাই, অনন্ত সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও তাকে দিন দিন হীনবল হতে হয়েছে, চোখের সামনে সাজানো বাগান শুকিয়ে যাচ্ছে। রাবণ বুঝতে পারছে ,এটা নিয়তির লীলা। এই অদৃশ্য বিধি বিধানকে সে গভীর দীর্ঘশ্বাসে মর্মে মর্মে উপলব্ধি করছে। রাবণের এই ব্যর্থতাজণিত ক্ষোভ- তার এই নিদারুণ ট্র্যাজেডি; দৈব ও

বেশতো বিজ্ঞাপন

বেশতো বিজ্ঞাপন