আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাংলাদেশে ও বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে নির্মিত যতগুলো মুভি বা চলচ্চিত্র রয়েছে তার মধ্যে জহির রায়হান নির্মিত ১৮ মিনিটের প্রামান্যচিত্র স্টপ জেনোসাইড অন্যতম। স্টপ জেনোসাইড প্রামান্যচিত্রটি নির্মিত  হয় ১৯৭১ সালে।
১৯৭১ এ বাংলাদেশে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর বর্বরতার নির্মম ইতিহাস নিয়ে প্রামান্যচিত্রটির গল্প রচনা করা হয়েছে। 
১৯৭১ সালে পাকিস্তানি আর্মি বাংলাদেশে যে নারকীয় হত্যাযজ্ঞ ও নির্যাতন চালায়, তা বিশ্ববাসীর কাছে জানাতে স্বাধীনতা যুদ্ধর সময় জহির রায়হান এই প্রামান্যচিত্রটি তৈরী করেন। স্টপ জেনোসাইড তৈরীতে জহির রায়হানের ভারতীয় কিছু বন্ধু আর্থিক সহায়তায় প্রদান করেছিলেন। প্রামান্যচিত্রটি দেখে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী এতটাই মুগ্ধ হয়েছিলেন যে তিনি তার ফিল্ম ডিপার্টমেন্টকে সিনেমাটির স্বত্ব কিনে নিয়ে সেটিকে সারাবিশ্বে প্রচারের নির্দেশ দেন।
পটভূমিঃ
স্টপজেনোসাইড ছবিটি শুরু হয় মহামতি লেনিনের বাণী দিয়ে। শুরুতে গ্রামীণ পটভূমিতে দেখা যায়, একজন কিশোরী ঢেঁকিতে ধান ভানছে। সে ঢেঁকিতে পাড় দিয়ে চলেছে। গ্রাম্য সেই কিশোরীর কোন কষ্ট নেই, কোন যন্ত্রণা নেই, নেই কোন উদ্বেগ এবং উৎকণ্ঠাও। মুখাবয়বে সরল হাসি। নিরুদ্বিগ্নভাবে সে ধান ভেনে চলেছে। দৃশ্য পরিবর্তন হতেই সহজ-সরল গ্রাম্য লাজুক সেই সরল কিশোরীর হাসির রেশ মিলিয়ে যায়- সাউন্ডট্র্যাকে ঢেঁকির পাড়ের শব্দ কানে বাজে, দূরে কুকুরের ঘেউ ঘেউ। কাকের কা-কা ডাক, গুলি, ব্রাশফায়ার, বুলেটের শব্দ- গগনবিদারী আর্তচিৎকার ধ্বনি। মুহূর্তে অন্ধকারে চারদিক ছেয়ে যায়- পর্দায় ভেসে ওঠে নারকীয় দৃশ্য লাশ, লাশ আর লাশ। যেদিকে তাকানো যায় শুধু লাশ। সামনে-পেছনে, ডানে-বামে লাশের স্তূপ, গলিত লাশ, বুলেটবিদ্ধ লাশ। চোখ উপড়ানো, মাথার খুলি উপড়ানো লাশ এবং মগজ বেরিয়ে যাওয়া লাশ। সাউন্ড ট্র্যাকে কখনো ব্রাশফায়ারের প্রচণ্ড শব্দ আশপাশের বাতাসকে ভারী করে রাখে। এরপরে দেখা যায়, বার্লিনের একটি প্রাচীর গৃহ আস্তে আস্তে ধসে পড়ছে। পর্দায় আস্তে আস্তে ভেসে উঠে ‘স্টপ জেনোসাইড’ শব্দ দুটি। এ ছবির মধ্য দিয়ে জহির রায়হান বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে সামনে রেখে গোটা বিশ্বে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি চমৎকারভাবে তুলে ধরেছিলেন।
*পুরানোদিনেরসিনেমা* *বাংলামুভি* *মুভি* *মুক্তিযুদ্ধেরচলচ্চিত্র* *প্রামান্যচিত্র* *বাংলাসিনেমা* *সিনেমা*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত