আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

হিমোগ্লোবিন হচ্ছে মানবদেহের রক্তের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। শরীরের রক্তে যখন হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ স্বাভাবিকের চেয়ে কমে যায় তখন এক ধরনের রোগ হয় যাকে রক্তস্বল্পতা বা এনিমিয়া বলে। বিভিন্ন কারনে রক্তস্বল্পতা রোগ হতে পারে। তবে একটু সতর্কতা অবলম্বন করলে এ রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

রক্তস্বল্পতার লক্ষণঃ
১) শরীর বিশেষত মুখমন্ডল ফ্যাকাশে বা সাদা হয়ে যায়;
২) সামান্য কাজ করলেই ক্লান্ত হয়ে যায় এবং হাঁপাতে থাকে;
৩) বুক ধড়ফড় করে;
৪) শ্বাস কষ্ট হয়;
৫) শরীর দুর্বল হয়ে যায় বলে বসা থেকে উঠে দাঁড়ালে মাথা ঘুরায় এবং বমি ভাব হয়;
৬) জিহ্বা মসৃন এবং সাদা হয়ে যায়;
৭) চোখের কোটরির উপরের শিরাগুলোর রক্ত হালকা লাল রং এর দেখা যায়; এবং
৮) মারাত্বক রক্তস্বল্পতায় হাতের নখ চা চামচের ন্যয় উপরের দিকে উল্টে যায় এবং শরীরে পানি জমা হতে পারে।

রক্তস্বল্পতা রোগের কারণঃ
যদি খাবারে প্রধানত লৌহের ঘাটতি হয় এবং সাথে সাথে আমিষেরও ঘাটতি হয় তবে শরীরে প্রয়োজন মত রক্ত তৈরি হতে পারে না ফলে রক্তস্বল্পতা হয়। কৃমিতে আক্রান্ত হলে, দুর্ঘটনায় অত্যধিক রক্তক্ষরণ হলে, গর্ভাবস্থায় এবং বাচ্চা প্রসবের পর ঠিকমত লৌহ সমৃদ্ধ খাবার না খেলেও রক্তস্বল্পতা রোগ হয়।

রক্তস্বল্পতা রোগ প্রতিকারঃ
রক্তস্বল্পতা রোগে আক্রন্ত হলে প্রাথমিক অবস্থায় প্রচুর পরিমাণে লৌহ সমৃদ্ধ ও আমিষ জাতীয় খাদ্য এবং সাথে সাথে ভিটামিন ‘সি’ সমৃদ্ধ টক জাতীয় ফল খেতে হবে। এর সাথে কৃমিরও চিকিৎসা করাতে হবে। মারাত্বক অবস্থায় লৌহ ও আমিষ সমৃদ্ধ খাবারের পাশাপাশি ডাক্তারের পরামর্শমত লৌহ ঘটিত ঔষধও খেতে হবে। পরিষ্কার পরিছন্ন পরিবেশে প্রতিদিন প্রয়োজনীয় পরিমাণ শাক সবজি তথা সুষম খাদ্য খেলে রক্তস্বল্পতা রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

রক্তস্বল্পতা রোগ সম্পর্কে জানতে বাংলাদেশ ফলিত পুষ্টি গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনষ্টিটিউট এর ম্যানুয়েল পড়তে পারেন।
*রক্তস্বল্পতা* *হেলথটিপস* *এনিমিয়া* *স্বাস্থ্যতথ্য*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

বেশতো বিজ্ঞাপন