আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

একাত্তরের গণহত্যা নিয়ে ভারতে তৈরী হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘চিলড্রেন অফ ওয়ার’। ‘চিল্ড্রেন অফ ওয়ার' যার বাংলা অর্থ হচ্ছে যুদ্ধাহত শিশু। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে নির্মিত ভারতীয় এ চলচিত্রটি পরচালনা করেন মৃতুঞ্জয় দেবরথ। প্রথম দিকে সিনেমাটির নাম ছিল বাস্টার্ড চাইল্ড কিন্তু পরবর্তীতে সেন্সর বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী এর নাম পরিবর্তন করে ‘চিলড্রেন অফ ওয়ার’ রাখা হয়। তবে বাংলাদেশে এই সিনেমাটি ‘যুদ্ধশিশু’ নামে মুক্তি পেয়েছে। এটি ১৬ মে ২০১৪ সালে প্রথম মুক্ত পায়।

কাহিনীসূত্র ও দৃশ্যপটঃ
ছবির পরিচালক মুম্বাইবাসী মৃত্যুঞ্জয় ছোটবেলায় বাংলাদেশে এসেছিলেন। তার বাবা-মা এখানে গ্রামীণ হস্তশিল্পের উন্নতির জন্য এক প্রকল্পের কাজে নিযুক্ত ছিলেন। ছিলেন ঢাকার ধানমন্ডিতে। তখন ছোট্ট মৃত্যুঞ্জয়ের মন নিংড়ে নিয়েছিল বাংলাদেশের আকাশ-বাতাস। তবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের করুন চিত্র এখনো তার মনে পড়ে। আর মুক্তি যুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়েই তিনি এই সিনেমাটি নির্মান করেছেন।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ভারতীয় পরিচালক মৃত্যুঞ্জয় দেবব্রতের সিনেমা ‘চিলড্রেন অফ ওয়ার’-এ উঠে এসেছে কীভাবে নিপীড়ণের অন্যতম অস্ত্র হিসেবে ধর্ষণকে ব্যবহার করেছে পাকিস্তানি সেনারা। চলচ্চিত্রটিতে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানের সৈনিকদের বাংলাদেশি মহিলাদের ধর্ষণ ও তার প্রতিবাদের গল্প তুলে ধরা হয়েছে। এই ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন রাইমা সেন। আর সাংবাদিকের চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত। সিনেমায় বীরাঙ্গনার চরিত্র রূপদানকারী রাইমা সেন এবং তিলোত্তমা সোম বলছেন, ধর্ষণের দৃশ্যগুলো চিত্রায়নের পর মানসিকভাবে রীতিমতো বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন দুজনই।

ছবিটির গল্পে রাইমার চরিত্রের নাম ফিজা। সে এক যুদ্ধ-পীড়িত নারী, যাকে পাকিস্তানি সেনারা অপহরণ করে। পরে অন্যান্যদের সঙ্গে কনসেন্ট্রশন ক্যাম্পে নিয়ে গিয়ে তার ওপর বীভৎস অত্যাচার চালানো হয়।

সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন ভিক্টর ব্যানার্জি, পাভান মালহোত্রা, ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত, ঋদ্ধি সেন এবং রুচা। প্রয়াত অভিনেতা ফারুখ শেখকেও দেখা যাবে গুরুত্বপূর্ণ এক ভূমিকায়। ‘দ্য বাস্টার্ড চাইল্ড’ নামে নির্মিত ছবিটি ‘দ্য চিলড্রেন অফ ওয়ার’ নামে মুক্তি পেয়েছে বাংলা এবং হিন্দি দুই ভাষাতেই।
*মুক্তিযুদ্ধেরচলচ্চিত্র* *চলচ্চিত্র* *বাংলাসিনেমা* *মুভি*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত