নিপু: একটি বেশব্লগ লিখেছে

নভেম্বরের ৩ তারিখ রনি ভাইয়ের বেশব্লগ "শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র প্রদান" পড়ে বেশ ভালো লাগলো, নিজেকে বললাম আমিও এই উদ্যোগের অংশ হবো ! কিন্তু কাজের চাপে প্রথম মিটিংটা মিস করলাম... 
নিজের অফিসের কিছু কলিগদের কাছে বললাম আমাদের এই উদ্যোগের বিষয়ে সবাই তাদের মত করে হেল্প করলো.... এর পর বিস্তারিত আমি জানতে পারলাম অপু ভাই, সালাম ভাই এর পোস্ট থেকে 
এর পরের ধাপে আমরা রাজশাহীতে বিতরণের  জন্য কম্বল, কান টুপি আর মাফলার কিনি- আমি সঙ্গী ছিলাম- অপু ভাই, সালাম ভাই, মুকতাদির ভাইএর- 
বেশ মজা করতে করতে অনেক "খোঁজ দ্যা সার্চ" এবং মুলামুলি করার পর আমরা সব কিছু কিনতে সফল হই। সেই রাতেই কম্বল গুলো পাঠিয়ে দেয়া হয় রাজশাহী...
প্রথমবার নতুন একটা  জায়গায় যাবো ভেতরে বেশ উত্তেজনা কাজ করছিলো, অপু ভাই আমাদের সবার জন্য ট্রেনের টিকেটের ব্যবস্থা করেন...
 যাই হোক অপেক্ষার পালা শেষ হয়- ৪ ডিসেম্বর রাত ১১ টায় আমরা সবাই রাজশাহী গামী ধূমকেতু ট্রেনে উঠে পরি ।
ট্রেনে উঠার পর থেকে শুরু হয় ভিন্ন ভাবে খুনসুটি আর মজা । 
ভোঁর ৫.৪৫ এর দিকে আমরা রাজশাহী রেলওয়ে ষ্টেশনে পোঁছাই এবং হোটেল "ডালাসে" উঠি, রুমে কিছু ক্ষণ রেস্ট নেবার পর নাস্তা সেরে নেই " বিন্দুর " হোটেলে...
এর পর আমরা যাত্রা শুরু করি, গন্তব্য জগপুর ( গোদাগাড়ী ) আমরা নতুন ৪  জন সঙ্গী পাই এখানে, যারা আমাদের যাত্রাপথ মসৃণ করে রেখেছিলেন- রিঙ্কু, সাদিয়া আপু এবং উনার দুই ছোট ভাই ।
আমরা গ্রামে পৌছাই দুপুর ১২ টার দিকে... যা দেখতে পাই, বহু বয়স্ক মানুষ অপেক্ষা করছিলেন আমাদের আগমনের, বিতরণের প্রথম পর্ব থামাতে হয়, নামাজের বিরতির কারনে। 
জম্পেশ দুপুরের খাবারের পর আমরা এবং স্থানীয় ভলেন্টিয়াররা ঝাঁপিয়ে পরি বিতরন কার্যক্রমে, বয়স্কদের জন্য কম্বল আর মাফলার, 
বাচ্চাদের জন্য কানটুপি । বিতরন শেষে আমরা রওনা দেই আধাকাচা আর আধাপাকা রাস্তা ধরে চারপাশের সরিষার ক্ষেত আর সবুজ তার সাথে সালাম ভাইয়ের গান এবং শীতের কাঁপুনি । 
সাদিয়া আপু এবং স্থানীয়দের দক্ষতায় আমরা রাজশাহীর বিতরণ কার্যক্রম সফলভাবে শেষ করতে পারি ।

এই পুরো কার্যক্রমে আমাদের সাথে অদৃশ্য ভাবে ছিলেন মারগুব ভাই, কখনো ফোনে কখনো অন্যকোন ভাবে সবার মনবল বাড়িয়ে দিয়েছেন উনি ! 
আলদা করে বলতে চাই রিঙ্কুর কথাও,  ও চুপচাপ কাজ করে গেছে সবার পাশে ! 
কেমন ছিলো- জগপুর ( গোদাগাড়ী )? আমি যখন ভাবতে বসি, অধিকাংশ ঘড় মাটির,  চাষাবাস ছাড়া মনে হয় না আর কোন ইনকাম সোর্স আছে গ্রামে বসবাস কারীদের ! মাটির ওই ঘড়ের শীতের তীব্রতা আমার নিজের কল্পনার
বাইরে, কম্বল আর গরম কাপড় পাবার পর কিছু বৃদ্ধ মানুষের চোখের ভাষা আর মুখের অভিব্যক্তি ছুঁয়ে গেছে আমাদের মন !
হুম ! আপনি সেই মানুষ... জী আপনার জন্যেই আমরা পেরেছি, এই মানুষ গুলোর জন্য রাতের উষ্ণতা তাদের হাতে তুলে দিতে, আমরা সবাই মিলে ছুঁয়ে দিতে চাই আরও এমন মানুষদের যারা একটু উষ্ণতার জন্য রাতের ঘুম,  
দিনের স্বাভাবিক কাজ করতে পারেন না। আশা করি আজ রাত থেকে সেই মানুষগুলোর তৃপ্তির নিঃশ্বাস আপনাকে স্পর্শ করবে, যদি আপনি একটু ভাবেন !
*শীতার্তদের-জন্য* *সাহায্য* *মানবিক-আহবান* *শীতার্ত* *এগিয়েআসুন* *শীতবস্ত্র*
কমেন্ট
আরও টি কমেন্ট সবগুলো দেখো

★ছায়াবতী★: (জোস)(কান্না২)

1418561841000 ভালো ২

মি"ল"ন: (শ্রদ্ধা-১)(শ্রদ্ধা-২)(খুকখুকহাসি)

1418562133000 ভালো ০

মারগুব: (জোস)

1418574264000 ভালো ০

......: শেষ প্যারাটাই আসল বাকি সব কিছু না...(খুকখুকহাসি)

1418625983000 ভালো ২

নিপু: হা হা হা অপু ভাই !

1418628032000 ভালো ২

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

বেশতো বিজ্ঞাপন