শুধু আফরিন: একটি বেশব্লগ লিখেছে

১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৪
অন্যান্য শীতের সকালে মতো সেদিনও সূর্যের দেখা যাচ্ছিল না । ঘড়ির কাঁটা তখন প্রায় ১২টা ছুই ছুই । হাতিরঝিল থেকে আমরা আমাদের যাত্রা শুরু করলাম। গন্তব্য ছিল “শক্তি বিদ্যালয়”, করাইল বস্তি। নৌকা দিয়ে জাবার সময় কেউ একজন হয়ত বলেছিল যে, আজ কি সূর্যের দেখা পাওয়া যাবে?
 দূরে তখনো আবছা কুয়াশার আভাস আর বাতাসটাও কনকনে ছিল। আর আমরা একটু উষ্ণতাও প্রয়োজন অনুভব করছিলাম। তবে আমাদের বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি। বস্তির গলি-ঘুপচি পেরিয়ে যখন আমরা “শক্তি বিদ্যালয়” এর ছোট্ট ঘরটিতে ঢুকলাম তখন একঝাক ছোট ছোট উদীয়মান সূর্য তাদের নিষ্পাপ হাসির উষ্ণতা দিয়ে আমাদেরকে ভরিয়ে দিল। তাদের কলকাকলি আর আধো আধো কথা আমাদেরকে যে অভ্যর্থনা দিলো তার সামনে কোন রাজকীয় অভ্যর্থনা তুচ্ছ। ঘুপচির সেই ঘরটিতে হয়তো বিদ্দুতের আলো কম, কিন্তু তাতে কি ঘর ভর্তি একঝাক আলোর পথের পাখি, উড়ে যাবার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এটা ছিল দিনের শুরু, দিন শেষ হলো মোহাম্মদপুরের “শক্তি বিদ্যালয়” এর আরেকটি শাখায়। তখনো আকাশে সূর্যের দেখা মেলেনি, তবে আমাদের আর তখন সূর্যের পয়জন নেই। স্কুলের বাচ্চাদেরকে উপহারগুলো দেবার পর তাদের স্বপ্নময় চোখগুলো আমাদের পৃথিবিতে হাজারো সূর্যের আলো ছড়িয়ে দিলো। কে জানতো, বস্তির গলি-ঘুপচির আড়ালে এই অপরাজেয় শিশুরা এতো আলো নিয়ে বসে আছে। তাদের শৃঙ্খলা দেখে অবাক হয়ে ভাবলাম যে, উন্নত জাতি সৃষ্টি করার জন্য প্রথমে আধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োজন এই ধরনা ভুল। প্রথমে প্রয়োজন অদম্য প্রয়াস। আর তাই আমি একান্ত ধন্যবাদ জানাই “শক্তি বিদ্যালয়” এর প্রতিষ্ঠাতা আহমেদ জাভেদ চৌধুরি ভাইকে এবং তার সহযোগীদেরকে, যারা এই অদম্য প্রয়াসকে পুরনের জন্য এগিয়ে এসেছেন।
আমাদের উদ্দেশ্য ছিল এই আলোর পাখিদেরকে শীতের মাঝে একটু উষ্ণতার উপহার দেয়া। এই উদ্দেশ্য পুরনের জন্য ০৪ নভেম্বর, ২০১৪ থেকে বেশতো এর ভাইয়া আপুরা ফান্ড কালেকশন শুরু করেন। বেশতো পরিবারের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহনের ফলে তাদের উদ্যোগ সফল হল। সবাইকে আলাদা আলাদা করে ধন্যবাদ দিতে চাই না, শুধু এতটুকু বলতে চাই, আপনারা সার্থক করলেন এই স্লোগানটিকে,
 “বেশতো, যুক্ত করে বাংলাদেশের প্রতিটি হৃদয়কে”

আপনাদের সকলের স্বতঃস্ফূর্ত প্রয়াস ছোট ছোট বাচ্চাদের মুখে যে হাসি ফোটাল তা হয়তো আমরা ভালোভাবে ক্যামেরাবন্দী করতে পারিনি, কিন্তু আমাদের মনে তার ছবি রয়ে গেছে। সবশেষে শুধু এতটুকু বলতে চাই এই হৃদয়ের বন্ধন টিকিয়ে রাখুন, এগিয়ে আসুন আপনাদের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রয়াশগুলো নিয়ে। যেভাবে আজ থেকে ৪৩ বছর আগে বাংলার সংগ্রামী মানুষ বিজয় ছিনিয়ে এনেছিল তেমনিভাবে, আপনাদের এই হৃদয়ের বন্ধন আর ছোট ছোট প্রয়াস আগামীতে আমাদের আলোর পাখিদের বিশ্বজয়ী করবে।
*শীতার্ত* *শীতার্তদের-জন্য* *বেশতো*
কমেন্ট

......: অসাধারন লিখেছেন আপু! অনেক অনেক ভাল লাগলো...

1418624212000 ভালো ১

সাদমান রহমান: এক বাক্যে অসাধারণ! (জোস) (লজ্জা২)

1418626472000 ভালো ০

শুধু আফরিন: অনেক অনেক ধন্যবাদ অপূর্ব ভাই @apurbo

1418632723000 ভালো ১

শুধু আফরিন: অনেক অনেক ধন্যবাদ সাদমান ভাই @shadman

1418632886000 ভালো ১

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

বেশতো বিজ্ঞাপন