ট্রাভেলার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আসন্ন বিশ্বকাপ ক্রিকেট উপলক্ষে স্বপ্নের দেশ অস্ট্রেলিয়া সেজেছে নতুন সাজে। এমনিতেই রূপ রসের কমতি নেই তারপরে আবার ক্রিকেট বিশ্বকাপ। বুঝতেই পারছেন অস্ট্রেলিয়ার আসল সৌন্দর্য্য উপভোগ করার এটাই উপযুক্ত সময়। ভ্রমন পিপাসু পর্যটকদের বলছি,  বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সুবাদে অস্ট্রেলিয়া ভ্রমনের সুযোগ হাতছাড়া করা একদম ঠিক হবে না।



স্বপ্নের দেশ অস্ট্রেলিয়াঃ
অস্ট্রেলিয়া একটি দ্বীপ-মহাদেশ। এটি এশিয়ার দক্ষিণ-পূর্বে ওশেনিয়া অঞ্চলে অবস্থিত। কাছের তাসমানিয়া দ্বীপ নিয়ে এটি কমনওয়েল্‌থ অফ অস্ট্রেলিয়া গঠন করেছে। দেশটির উত্তরে তিমুর সাগর, আরাফুরা সাগর, ও টরেস প্রণালী; পূর্বে প্রবাল সাগর এবং তাসমান সাগর; দক্ষিণে ব্যাস প্রণালী ও ভারত মহাসাগর; পশ্চিমে ভারত মহাসাগর। দেশটি পূর্ব-পশ্চিমে প্রায় ৪০০০ কিমি এবং উত্তর-দক্ষিণে প্রায় ৩৭০০ কিমি দীর্ঘ। অস্ট্রেলিয়া বিশ্বের ক্ষুদ্রতম মহাদেশ, কিন্তু ৬ষ্ঠ বৃহত্তম দেশ। অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরা। সিডনী বৃহত্তম শহর। দুইটি শহরই দক্ষিণ-পূর্ব অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থিত।

গ্রেট ব্যারিয়ার রিফ বিশ্বের বৃহত্তম প্রবাল প্রাচীর। এটি অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পূর্ব সীমান্ত ধরে প্রায় ২০১০ কিমি জুড়ে বিস্তৃত। এটি আসলে প্রায় ২৫০০ প্রাচীর ও অনেকগুলি ছোট ছোট দ্বীপের সমষ্টি। কুইন্সল্যান্ডের তীরের কাছে অবস্থিত ফেয়ারফ্যাক্স দ্বীপ গ্রেট ব্যারিয়ার রিফের অংশ।

অস্ট্রেলিয়া ৬টি অঙ্গরাজ্য নিয়ে গঠিত নিউ সাউথ ওয়েল্স, কুইন্সল্যান্ড, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া, তাসমানিয়া, ভিক্টোরিয়া, ও পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া। এছাড়াও আছে দুইটি টেরিটরি অস্ট্রেলীয় রাজধানী টেরিটরি এবং উত্তর টেরিটরি। বহিঃস্থ নির্ভরশীল অঞ্চলের মধ্যে আছে অ্যাশমোর ও কার্টিয়ার দ্বীপপুঞ্জ, অস্ট্রেলীয় অ্যান্টার্কটিকা, ক্রিসমাস দ্বীপ, কোকোস দ্বীপপুঞ্জ, কোরাল সি দ্বীপপুঞ্জ, হার্ড দ্বীপ ও ম্যাকডনাল্ড দ্বীপপুঞ্জ, এবং নরফোক দ্বীপ।


সৌন্দর্য্যমণ্ডিত অস্ট্রেলিয়াঃ
বিশ্বের পর্যটকদের কাছে অস্ট্রেলিয়া কোয়ালা, ক্যাংগারুর দেশ হিসেবে পরিচিত। অস্ট্রেলিয়াতে রয়েছে মনকাড়া সুন্দর্য্যমণ্ডিত বড় বড় কয়েকটি শহর । অস্ট্রেলিয়ার অন্যতম শহরগুলো হল: সিডনি, মেলবোর্ন, ব্রিসবেন, এডেলেইড, তাসমানিয়া, ডার‌উইন, পার্থ, গোল্ডকোষ্ট।শ হর জুড়ে আছে নানা রকম সমু্দ্র, নদি, যেগুলির দিকে চোখ গেলে ফেরানো মুসকিল হয়ে পড়বে, ইচ্ছা হবে ঘন্টার পর ঘন্টা ঐ সমুদ্রের পাড়ে বসে সময় কাটিয়ে দিতে

কোয়ালা, অস্ট্রেলিয়ার বিশেষ বিখ্যাত প্রাণী। প্রায়ই দেখা যায় জংগলে গাছের ভেতর চুপটি মেড়ে বসে আছে আর মাঝে মাঝে এক গাছ থেকে আর এক গাছে বেয়ে উঠছে। কোয়ালার লাফালাফি আর ছুটাছুটি দেখে আপনি মগ্ধ হয়ে যাবেন। ক্যাঙ্গারু অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় পশু। যা অস্ট্রেলিয়ার সৌন্দর্যের প্রতীক।

অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরা। অস্ট্রেলিয়ার সাথে বাংলাদেশের অনেক ক্ষেত্রেই মিল পাওয়া যায়, যেমন, এখানে বলতে গেলে সবরকম দেশী ফুল, ফল, মাছ পাওয়া যায়। এখানকার আবহাওয়ার ধরনটাও অনেকটা বাংলাদেশের মত, এটা অবশ্য সব যায়গায় না, বিশেষ কিছু শহরে, যেমন ব্রিজবেনে।

অস্ট্রেলিয়ার ফুল এর কথা না বল্লেই নয়, শহরের বিভিন্ন যায়গা গুলি নানান রকম সুন্দর সুন্দর ফুল ও লতা পাতায় সাজানো, যেখানে বসে, হাটাহাটি করে চমৎকার সময় কাটাতে পারবেন।

অস্ট্রেলিয়ার মাটির নীচে পাওয়া গেছে মূল্যবান ধাতব ঐশ্বর্য্য। বনে গাছপালা ছাড়াও নানান রকম জীব জন্তু আর পানিতে মাছের প্রাচুর্য্য।

বর্ণনায় বলে দিচ্ছে 
অস্ট্রেলিয়া কতটা সৌন্দর্য্যমণ্ডিত দেশ। বন্ধুরা, অপরূপ সৌন্দর্যে ভরা এই দেশটিতে ভ্রমনের এখনি উপযুক্ত সময়। আর দেরী না করে ক্রিকেট বিশ্বকাপ উপলক্ষে ঘুরে আসুন স্বপ্নের দেশ অস্ট্রেলিয়া থেকে।

*ভ্রমন* *ট্রাভেল* *অস্ট্রেলিয়া* *বিদেশভ্রমন* *ভ্রমনগাইড*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

বেশতো বিজ্ঞাপন