পূজা: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রথমত কী ধরনের রেস্তোরাঁয় যাচ্ছেন তার ওপর নির্ভর করবে আপনি কী পরবেন। যদি ফাইভস্টার হোটেলের রেস্তোরাঁয় খেতে যান তাহলে ওয়েল-ড্রেসড হয়ে যাওয়াটা বাঞ্ছনীয়। সেক্ষেত্রে গর্জিয়াস শাড়ি বা সালোয়ারকামিজ হতে পারে ফার্স্ট চয়েস। সঙ্গে মানানসই জুতা আর ব্যাগ। ছেলেরা ফর্মাল সুট-টাই পরতে পারেন। পায়ে ক্খেত্ক্ষেত্রেএমনিতে রেস্তোরাঁর জন্য ক্যাজুয়াল পোশাক আদর্শ। জিন্স, ট্রাউজারের সঙ্গে শর্ট কুরতি বা টপ, এমনকি শর্ট ড্রেসে নিজেকে সাজিয়ে নিতে পারেন। অ্যাকসেসরিজ যত কম থাকে ততই ভালো। মেক-আপেও ন্যাচারাল লুক মেইনটেইন করুন। ছেলেরা ডেনিম, টি-শার্ট এবং পায়ে স্নিকার্স পরতে পারেন। হাতে বড় ডায়ালের ঘড়ি বা স্পোর্টস ওয়াচ ভালো মানাবে।


পোশাক নির্বাচনের ক্ষেত্রে কোন সময় রেস্তোরাঁয় যাচ্ছেন, সেটা মাথায় রাখা জরুরি। যদি দিনের বেলা হয় তাহলে হালকা রং ভালো। রাতের জন্য ডার্ক কালার। যদি রিল্যাক্স মুডে থাকেন তাহলে যে পোশাকে আপনি কমফোর্ট ফিল করেন সেই পোশাক বেছে নিন। হালকা সুতির চুড়িদার কুরতি বা কাপরি হতে পারে আপনার প্রথম পছন্দ। সাদা বা প্যাস্টেল শেডের পোশাক এ ক্ষেত্রে একেবারে পারফেক্ট। খোলা চুল বা উঁচু পনিটেল আর চোখে সানগ্লাস আপনার লুককে আরও ডিফাইন করবে।

অনেক সময় রেস্তোরাঁয় বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকে। তা হতে পারে বিবাহবার্ষিকী বা জন্মদিনের সেলিব্রেশন। অনুষ্ঠানের যদি কোনো ড্রেসকোড থাকে তাহলে তা মেনেন চলুন। নাহলে উপলক্ষ বুঝে পোশাক বেছে নিন।টেবিলে সোজা হয়ে বসবেন। টেবিলের ওপর কোনোভাবেই ঝুঁকবেন না। যতক্ষণ না খাবার সার্ভ করা হচ্ছে। হাত দুটো কোলের ওপর রাখুন। খাওয়ার সময় হাত টেবিলের ওপর রাখতে পারেন। মোবাইল ফোন হোক বা পার্স সেটা নাকি খাবার টেবিলে রাখাটা অভদ্রতা। কেননা এটি শুধু অন্যদেরই নয় বরং ওয়েটারকেও কিছুটা বিভ্রান্ত করবে। তাই পার্স বা মোবাইল না হয় হাত বা পকেটেই থাক।

খাবার আগে কোলে ন্যাপকিন পেতে নিন। শার্টে ন্যাপকিন গুঁজবেন না। যদি কোনো কারণে আপনাকে টেবিল ছেড়ে উঠতে হয় ন্যাপকিন আলতোভাবে ভাঁজ করে প্লেটের ডানদিকে বা বামদিকে রাখুন। প্লেটের তলায় বা চেয়ারে রাখবেন না।

ডিনার টেবিলে যদি কোনও খাবার পরিবেশন করতে চান, তা হলে আগে অন্যদের প্লেটে খাবারটা দিয়ে তবে নিজের প্লেটে নিন। পানীয়র ক্ষেত্রেও একই জিনিস প্রযোজ্য। যদি নিজের পছন্দ মতো কোনও খাবার অর্ডার দেন, তা হলেও অন্যদের জিজ্ঞেস করে নেবেন তাঁরা চেখে দেখতে ইচ্ছুক কি না। এর পর খাওয়া শুরু করবেন।

চামচ দিয়ে স্যুপ খাওয়ার সময় পুরো চামচটাই মুখে ঢুকিয়ে দেবেন না। মুখের সামনে চামচ-ভর্তি স্যুপ এনে চামচের পাশ থেকে স্যুপ খেতে থাকুন। চামচ টি দিয়ে সুপ মুখে দেবার পুরবে বাটির উল্টো দিকে মুছে নিন। নিজের দিকে নয়।
  • খাওয়ার সময় পা নাচাবেন না।
  • সুপের সাথে দেয়া স্ন্যাক টি বা হাতে ধরে বা পাশের ছোটো প্লেট এ রেখে ভেঙ্গে অল্প অল্প করে খান।
  • অযথা তাড়া হুড়া করে স্যুপ মুখে দেবেন না। এতে আপনার জিব পুরে যেতে পারে। ফু দিয়ে কিছু ঠান্ডা করার চেস্টা করবেন না।
(ইন্টারনেট)
*বাইরেখাওয়া* *আউটলুক* *হালেরফ্যাশন* *রেস্টুরেন্ট* *টেবিলম্যানার*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

বেশতো বিজ্ঞাপন