জান্নাতুল ফিরদৌস: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপরের টাইটেল দেখেই বোঝা যাচ্ছে বিষয়টা তুলনামূলক আলোচনা হবে | আর যেহেতু তুলনামূলক কাজেই,দোষ সংক্রান্ত বিষয় নিয়েই নিশ্চয় হবে !!
একটা ছোট্ট প্রশ্ন দোষ বলতে আমরা আসলে কি বুঝি ? একটা উদাহরণ দেই - একটা লোক রাতে তার বাসার দরজা-জানলা খোলা রেখে ঘুমায় তো এক চোর এসে সব কিছু চুরি করে নিয়ে গেল | কাজেই, এই চুরি হওয়ার জন্য কে দায়ী ? বা কে দোষী ? সেই চোর ? নাকি যেই লোকটা ঘর খোলা রেখে ঘুমাচ্ছে ? কেউ হয়ত বলবে লোকটাই দায়ী কারণ,এরকম বোকার মত ঘর খোলা রেখে ঘুমাচ্ছে ,চোরতো চুরি করবেই ! আবার কেউ বলবে চোরটাই দায়ী কারণ,ঘর খোলা রেখে ঘুমালে চুরি করতে হবে নাকি ? আবার কেউ কেউ দুইজনকেই সমান সমর্থন দিতে পারে ,যদিও বিষয়টা কিভাবে সম্ভব আমি নিশ্চিত নই ! এখন আবার ও পুরনো সেই প্রশ্ন করছি দোষ বলতে আমরা আসলেই কি বুঝি ? আর অপরাধ জিনিসটাই বা কি ? আর সমাধান বলতে কি বুঝি ? বলছি কারণ এই ৩টা বিষয় ক্লিয়ার হয়ে নেয়া উচিত | এইখানে চুরি করা একটা অপরাধ ,তার মানে চোর হলো একজন দোষী | আর দরজা না খোলা রেখে ঘুমানোটা হলো সেই চুরি বন্ধের সমাধান ! (অনেকসময় এই সমাধান কাজ নাও করতে পারে !) কিন্তু,আমরা ভুলেও বলতে পারিনা দরজা খোলা রেখে ঘুমানোটা একইসাথে দোষ এবং সে একজন দোষী !! এগুলোর মাঝে সুক্ষ কিছু পার্থক্য আছে |

আমরা মানুষ হবার সাথেসাথে রাষ্ট্র কর্তৃক কিছু সুযোগ-সুবিধা লাভ করি ,এবং সেইসাথে কিছু নিয়ম-কানুনের সম্মুখীন হই | এই যেমন -অপরাধ কি ? কিংবা এর সাজা কি ? একজন মানুষ স্বাধীনভাবে সর্বোচ্চ কি করতে পারবে ? এরকম অনেক কিছুই সুনির্দিষ্টভাবে সংজ্ঞাইত করা হয়েছে | উপরের চুরির ঘটনার সাথে যদি তুলনা করি তাহলে কিন্তু এরকম কিছু পাওয়া যাবেনা যে ঘর খোলা রেখে ঘুমানো একটা অপরাধ এবং সে দোষী !! আমরা বড়জোর বলতে পারি ঘর খোলা না রেখে ঘুমানো চুরি বন্ধের একটা সমাধান !
এখন আলোচ্য বিষয়ে যাই ,ইভটিজিং কিংবা ধর্ষণ দুইটা আমার কাছে খুব সিমিলার | যারা উপরের বিষয়গুলো মনোযোগ দিয়ে পরে আসছে তারা হয়ত বুঝতে পারবে কি বলতে চাচ্ছি ! আসলেই তাই ! ইভটিজিং করা (কিংবা ধর্ষণ) অপরাধ এবং খুব শালীন জামাকাপড় পরে বের হওয়া যাতে তাকে উত্যক্ত না করে তা হলো একটা সমাধান ! (যদিও যদ্দুর জানি শালীন পোশাকও এখন মুক্ত করতে পারেনা যার প্রমান পাওয়া যায় ছোট মেয়ে কিংবা বোরকা পরা মেয়েরা এসবের শিকার হয় | হয়তবা সে ততটা শালীন পোশাক পরেনি কে জানে !!!)এইখানে আমরা ভুলেও সেই মেয়েকে দোষী বলতে পারিনা ,কক্ষনো না !
সে যা ইচ্ছে জামা-কাপড় পরুক সেইটা সে অপরকে যৌন-উত্তেজনা সৃষ্টির জন্যই হোক কিংবা নিজের শখের জন্যই হোক ! (আমার দৃঢ় বিশ্বাস একটা মেয়ে নিজের শখের জন্যই উদ্ভট জামা কিংবা সাজগোজ করে থাকে ! আর আমার এই বিশ্বাসের পিছনে অনেক সুন্দর আর চমত্কার কারণ রয়েছে !) আমরা বড়জোর তার দিকে তাকিয়ে থাকতে পারি সেইটা ড্যাবড্যাব করেই হোক কিংবা সরু চোখেই হোক অসুবিধা নেই কিন্তু তাকে ধরে উত্যক্ত বা ধর্ষণ কিন্তু করতে পারিনা ! আমাদের বাউন্ডারী সেই তাকিয়ে থাকা পর্যন্তই | এর বাইরে যদি কিছু করি তাই হবে অপরাধ !
এখন কিছু হালকা কথা বলি কোথায় জানি শুনেছি যারা ধর্ষণ বা ইভটিজিং এর সাথে জড়িত তাদেরকে যখন কাঠগড়ায় জিজ্ঞেস করা হয় কেন তুমি এই কাজ করলা ? তার সোজা-সাপ্টা উত্তর -মেয়েরা যৌন উদ্দীপক জামা পরিহিত অবস্থায় ছিল তাই নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি !! আর এতে আমার দোষ কিসে ? সম্ভবত এর থেকেই যৌন উদ্দীপক জামা পড়াটাকে এইসব অপরাধের জন্য দায়ী করা হয় ! কাজেই, যারা একে সমর্থন করে তারা অতি দ্রুত নিজের অবস্থান সেই ধর্ষকের কাতারে ফেলানোর জন্য প্রস্তুত হোক এবং একইসাথে সেই ধর্ষক যারা এই কাজগুলো করে টালবাহানা মার্কা উত্তর দেই তারা প্রস্তুত হোক এই উত্তর দেবার "কেন ছোট মেয়েকে কিংবা বোরকা পরা নারীকে কিংবা .........আপনারা ধর্ষণ বা ইভটিজিং করে থাকেন ?"

এখন শেষ করব একট ছোট প্রশ্নের উত্তর দিয়ে অনেকেই হয়ত আমার উপরের চোরের গল্প শুনে মহাবিরক্ত তাদের বলছি কেন এইটা করা | একবার এক ব্লগে এক মানুষ এই ঘটনার সাথে চোরের ঘটনার তুলনা করেন আর তার বক্তব্য মোটামুটি এরকম "ঘর খোলা রেখে ঘুমালেত চুরি হবেই ! এইখানে দোষটা হলো সেই লোকের চোরের না !!" কাজেই যারা এখনো এই বিচিত্র জিনিস বিশ্বাস করে তাদের প্রতি আমার বদদোয়া হলো আপনাদের বাসায় অনেক বেশি চুরি হোক এবং আরো বেশি চুরি হোক !!


*ইভটিজিং* *ধর্ষণ* *ধর্ষক*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত