খুশি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

সিগারেট মৃত্যু নিশ্চিত জেনেও আমরা প্রতিনিয়তই সিগারেট খাই। সিগারেট খাবার পর অনেকের শরীর ও মুখ থেকে বিরক্তিকর গন্ধ বের হয়। কেউ বার গন্ধ দূর করতে  সিগারেট খেয়ে বাড়ি ঢোকার আগে চুউইগাম, সোজা বাথরুমে গিয়ে ব্রাশ সেরে নেন। কিন্তু তাতেও তো কি মুক্তি হয়? আসলে ধূমপান করলে শুধু মুখ থেকেই যে গন্ধ বেরোয় এমনটা নয়। চুল, জামাকাপড়, গোটা শরীর, হাত, নিশ্বাস সব কিছু থেকেই গন্ধ বেরোয়। তাই সিগারেট খেলে এই সব কিছুরই খেয়াল রাখতে হবে। জেনে নিন কী ভাবে গন্ধ দূর করবেন।

টুপিতে ‘টুপি’:
 সিগারেট খেলে সবচেয়ে বেশি গন্ধ বেরোয় চুল থেকে। চুল বড় হলে ধূমপান করার সময় তাই চুল বেঁধে নিন। না হলে মাথায় টুপি পরে নিন। পরে টুপিতে ডিওড্রেন্ট স্প্রে করে নিলেই হবে। যদি এর কোনওটাই সম্ভব না হয় তবে চেষ্টা করুন ধোঁয়া চুল থেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখতে। সিগারেট খাওয়ার পর চুলে সাইট্রাস স্প্রে করে নিন।

পোশাকে আড়ালে: 
সবচেয়ে ভাল হয় ধূমপানের পর যদি পোশাক বদলে নেওয়া যায়। কিন্তু তা সব সময় সম্ভব হয় না। তবে ধূমপানের সময় কোনও জ্যাকেট বা স্কার্ফ পরে নিতে পারেন বুদ্ধি করে। পোশাক থেকে ধোঁয়ার গন্ধ বেরোলে ড্রায়ার বা অডার এলিমিনেটর স্প্রে করে নিন।


যাক ধুঁয়ে আজি পানিতে: 
অনেক সময়ই ধূমপানের পর আমরা গন্ধ নিয়ে বেশি সচেতন হয়ে যাই। যতটা গন্ধ বেরোয় তার থেকে অনেক বেশি আমরা ভাবি, এমনটা মনে হলে ভাল করে স্নান করে লোশন বা ডিওডর্যা ন্ট লাগিয়ে নিন।

নিশ্বাসে গন্ধ আছে:
নিশ্বাসের গন্ধ দূর করার সহজ উপায় চিউইং গাম বা মিন্ট। তবে বেশি বেশি করে ফেলবেন না। তাহলে বোঝা যাবে আপনি কোনও কিছু লুকোতে চাইছেন। বেশি ধূমপান করলে মুখে চিউইং গাম রাখলেও নিশ্বাসে গন্ধ ছড়াতে পারে। কারণ, মুখ ও নাক সংযুক্ত।

হাত ছাড়া হওয়ার উপায় নাই:
যারা ধূমপান করেন তারা জানেন হাত থেকে গন্ধ বেরোয়। বিশেষ করে ধোঁয়া টানার সময় আঙুলে গন্ধ ছড়ায়। তাই সিগারেট খাওয়ার সময় কোনও কাগজ বা র্যা পার দিয়ে মুড়ে ধরতে পারেন। হাতে স্যানিটাইজার লাগাতে পারেন ধূমপানের পর।

সমাধানে বাথরুমে আমি আছি :
যদি টয়েলট পেপার টিউব বা ড্রায়ার শিট রোল টিউবের মধ্যে থেকে ধূমপান করেন তবে কোনওভাবেই ধোঁয়ার গন্ধ ছড়াবে না।
(সংকলিত)
*সিগারেট* *ধূমপান* *টিপস* *লাইফস্টাইলটিপস*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত