শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

রসে ডোবা রসালো মিষ্টির নাম রসগোল্লা। বাংলাদেশের মিষ্টিকুলের মধ্যে রসগোল্লা খুবই জনপ্রিয়। রসে ভরা রসালো রসগোল্লা দেখলে যে কোন বাঙ্গালির জিহবায় জল আসবে এতে কোন সন্দেহ নেই! বাঙালিদের যেকোন অনুষ্ঠান রসগোল্লা ছাড়া অপূর্ণ থেকে যায়। সামনে আসছে ভালোবাসা দিবস ও বসন্তবরণ উৎসব। তাই বাঙ্গালির বসন্ত বরণের উৎসবে মিষ্টি মুখ করুন রসে ভরা রসগোল্লা দিয়ে। চলুন রসেভরা রসগোল্লা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই। 
 
রসগোল্লা প্রাচীন ইতিহাস
পাবনার বিখ্যাত রসগোল্লা কিনতে ক্লিক করুন
চিনির সঙ্গে ছানার রসায়নে আধুনিক সন্দেশ ও রসগোল্লার উদ্ভাবন অষ্টাদশ শতকের শেষভাগে। রসগোল্লার নাম আদিতে ছিল গোপাল গোল্লা। রসের রসিক বাঙালি চিনির সিরায় ডোবানো বিশুদ্ধ ছানার গোল্লাকে নাম দিয়েছে রসগোল্লা। ওডিশা না পশ্চিমবঙ্গ? রসগোল্লার দুই যোগ্য হকদার। এ নিয়ে ভারতের দুই রাজ্যের মধ্যে বেশ গণ্ডগোলও হয়ে গেছে। ওডিশা রসগোল্লার আবিষ্কার ভূমি হিসেবে স্বীকৃতি পেতে আবেদন জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে। তবে কলকাতাও নাছোড়বান্দা। কিছুতেই দাবি ছাড়বে না রসগোল্লার ওপর। বিখ্যাত মিষ্টি প্রস্তুতকারক নবীন চন্দ্র দাসের পরিবারও কেন্দ্রের দ্বারস্থ হয়েছে। 
 
গাইবান্ধার বিখ্যাত রসগোল্লা কিনতে ক্লিক করুন
১৮৬৮ সালে বাগবাজারে (তত্কালীন সুতানুটি) ছিল নবীন ময়রার মিষ্টির দোকান। তিনিই নাকি প্রথম ছানার মণ্ড চিনির সিরায় ডুবিয়ে তৈরি করেন রসগোল্লা। এ মিষ্টি আবিষ্কারের কাহিনী রয়েছে ওডিশায়ও। লক্ষ্মী দেবীর অভিমান ভাঙানোর জন্য জগন্নাথ দেব তাকে খাইয়েছিলেন ক্ষীরমোহন। সেই ক্ষীরমোহনই পরিচিতি পায় রসগোল্লা হিসেবে। আবার নথি ঘেঁটে পাওয়া গেছে অনেক তথ্য। তা হচ্ছে, রসগোল্লা আবিষ্কারে জড়িত অন্য কেউ। দাস শুধু তা জনপ্রিয় করে তুলতে সাহায্য করেছেন। খাদ্যবিশারদ প্রণব রায়ের এ-সংক্রান্ত এক প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছিল ১৯৮৭ সালে ‘বাংলার খবর’ পত্রিকায়। জানা যায়, ১৮৬৬ সালে কলকাতা হাইকোর্টের কাছেই ছিল ব্রজ ময়রার মিষ্টির দোকান। নবীন ময়রা রসগোল্লা বিক্রি শুরুর দুই বছর আগে সেখানে নাকি রসগোল্লা পাওয়া যেত। শুধু কি তাই! পশ্চিমবঙ্গের নদীয়ার হারাধন ময়রা উনিশ শতকে রসগোল্লা প্রথম তৈরি করেন বলে বিশ শতকের গোড়ার দিকে জানিয়েছেন পঞ্চানা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি রানাঘাটের পাল চৌধুরীদের জন্য কাজ করতেন। রসগোল্লার সর্বশেষ সংস্করণ স্পঞ্জের রসগোল্লা।
 
বাঙ্গালির রসগোল্লা
পোড়াবাড়ির বিখ্যাত রসগোল্লা কিনতে ক্লিক করুন
বিখ্যাত মিষ্টি রসগোল্লা বাংলাদেশের সব জায়গায় পাওয়া যায়। রেসিপিটা সহজ হওয়াই সবাই রসগোল্লা বানাতে পারে। কিন্তু সবার মিষ্টির স্বাদ একরকম হয় না। যেমন, বাংলাদেশের মৌলভীবাজার, মাদরীপুর, পাবনা, গাইবান্ধা, টাঙ্গাইল ইত্যাদি জেলা সমূহের রসগোল্লা খুবই বিখ্যাত।
 
 
 
 
 
মৌলভীবাজারের ঝান্ডুদা'র রসগোল্লা কিনতে ক্লিক করুন
জনপ্রিয় এই মিষ্টির দাম অবশ্য খুব একটা বেশি না। ১৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৭০০ টাকার মধ্যে দেশের যে কোন মিষ্টির দোকানে রসগোল্লা কিনতে পাবেন। যারা ঢাকার মধ্যে রয়েছেন তারা বাড়তি কষ্ট না করে দেশের জনপ্রিয় সব অনলাইন শপ গুলোর মিষ্টির কালেকশন থেকে  রসগোল্লা কিনে নিতে পারেন। রসগোল্লা কেনার সুবিধার্থে আপনার  জন্য নিচের লিংকটি শেয়ার করলাম।
 
বিভিন্ন জেলার ঐতিহ্যবাহী রসগোল্লা কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
*মিষ্টি* *রসগোল্লা* *লাড্ডু* *শপিং* *ইতিহাস* *স্মার্টশপিং*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

বেশতো বিজ্ঞাপন