উদয়: একটি বেশব্লগ লিখেছে

১০ বছর, ১০ মাস, ১০ দিনের দীর্ঘ যাত্রায় এসব অর্জন আর্জেন্টিনার ১০ নম্বর জার্সিধারী মেসিকে যতটা পুলকিত করে, চারটি ফাইনালে পরাজয় (তিনবার কোপা আমেরিকা ও একবার বিশ্বকাপ) তার চেয়ে বেশি যন্ত্রণা দেয় তাঁকে। সেই যন্ত্রণার ভার বইতে না পেরেই গত পরশু কোপা আমেরিকার ফাইনালে চিলির কাছে হেরে আন্তর্জাতিক ফুটবলকেই বিদায় জানিয়েছেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক।

২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট থেকে ২০১৬ সালের ২৭ জুন—সময়ের হিসেবে ১০ বছর, ১০ মাস, ১০ দিন। লিওনেল মেসির আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের দৈর্ঘ্য। আর্জেন্টিনা ফরোয়ার্ডের জাদুকরি সব গোলের মতো সংখ্যাতাত্ত্বিক মিলটাও বেশ বিস্ময়কর!

হাঙ্গেরির বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ফুটবলে তাঁর অভিষেক অবশ্য হয়েছিল ভুলে যাওয়ার মতোই। দ্বিতীয়ার্ধে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে নেমেই দেখেছিলেন লাল কার্ড! অভিষেক ম্যাচে তাঁর বিচরণ ক্ষণিকের জন্য হলেও ক্যারিয়ারটা হয়েছে দীর্ঘ সময়ের। এ সময়ে একমাত্র আর্জেন্টাইন খেলোয়াড় হিসেবে কনমেবল অঞ্চলের বাকি ৯ দলের বিপক্ষেই গোল করার রেকর্ড গড়েছেন লিওনেল মেসি। আর্জেন্টিনার হয়ে এক বছরে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ডও তাঁর ১২ (গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতার সঙ্গে যৌথভাবে)। হয়েছেন বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার সবচেয়ে কম বয়সী গোলদাতা (২০০৬ বিশ্বকাপে সে সময়ের সার্বিয়া ও মন্টেনেগ্রোর বিপক্ষে)। কনমেবল অঞ্চলে সবচেয়ে কম, ২৭ বছর ৩৬১ দিন বয়সে ১০০ ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়েছেন। জিতেছেন পাঁচবার ব্যালন ডি’অর (২০০৯, ২০১০, ২০১১, ২০১২ ও ২০১৫)। হয়েছেন ২০১৪ ফিফা বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড়।

*মেসি* *আর্জেন্টিনা*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

বেশতো বিজ্ঞাপন