দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বৃষ্টির দিনে স্যাঁতসেতে আবহাওয়ায় চুল অনেকটা নিস্তেজ হয়ে পড়ে। কাজের ব্যস্ততার জন্য পার্লারে যাওয়ার সময়ও মেলেনা অনেকের। তাই এই মৌসুমে ঘরে বসেই নিন চুলের বিশেষ যত্ন। ঈদের সময় শখ করে স্ট্রেইট চুল কার্লি, কেউ হাইলাইট, আবার কেউ কালার করেছেন। এসবের কারণে চুল রুক্ষ ও প্রাণহীন হয়ে গেছে অনেকের, তার উপরে আবার বর্ষাকাল, 'ফুটেছে বর্ষার প্রথম কদম ফুল।' গ্রীষ্মের গরম থেকে একটু প্রশান্তির জন্য আমরা আনন্দের সঙ্গে বরণ করছি বর্ষা। বর্ষাকালে বৃষ্টির দিনে মনটা যেন খুশি-খুশি হয়ে ওঠে। কিন্তু মন খুশি হলেও চুল কিন্তু একটুও খুশি হয় না। কারণ বৃষ্টির জল মাথায় পড়তেই চুল হয়ে যায় রুক্ষ, শুষ্ক ও অনুজ্জ্বল। বর্ষায় চুলের সমস্যা দূর করার জন্য রইল কয়েকটা সমাধান।

♦ ঈদের সময় করা চুলের কালার বহু দিন ভালো রাখতে সানস্ক্রিনের সঙ্গে কন্ডিশনার মিশিয়ে ব্যবহার করুন। কারণ অতিরিক্ত সূর্যরশ্মি কালার করা চুল আরো খারাপ করে দেয়। ও দ্রুত কালার নষ্ট হয়ে যায়।

♦ অতিরিক্ত স্টেইটনার ব্যবহারে চুল শুষ্ক ও ভঙ্গুর হয়ে গেলে, কুসুম-গরম নারিকেল তেল মাথার স্কাল্পে ম্যাসাজ করুন, যা চুলের গভীরে পৌঁছে ভেতর থেকে পুষ্টি জোগাবে। স্কাল্পের রক্ত প্রবাহ বৃদ্ধি করবে। সপ্তাহে অন্তত তিন দিন নারিকেল তেল ম্যাসাজ করতে হবে।

♦ চুলে প্রসাধনীতে কেমিক্যালের ব্যবহার থাকে , যা চুলের ক্ষতি করে। তাই ঘরে তৈরি হেয়ার প্যাক ব্যবহার করুন। এ ছাড়া স্টেটনার ব্যবহারের পর অবশ্যই হিট স্টাইলিং লোশন বা স্প্রে ব্যবহার করবেন।

♦ চুল থেকে হেয়ার মুজ ও হেয়ার স্প্রে চুলের সাজ থেকে ছাড়িয়ে নেওয়ার সময় চুলের অনেক ক্ষতি হয়। অনেক সময় চুল ছিঁড়ে যায়। কেমিক্যাল দূর করতে চুলে নারিকেল তেল ম্যাসাজ করে নিন। এর ফলে ক্ষতিকর কেমিক্যাল তেল শুষে নেবে এবং একই সঙ্গে চুল কন্ডিশনিং হবে। এরপর মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

♦ ক্ষতিগ্রস্ত চুল ঠিক করতে প্রতিদিন চুল শ্যাম্পু করা থেকে বিরত থাকুন। কেননা স্কাল্পের প্রাকৃতিক তেল চুলের জন্য ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। প্রতিদিন শ্যাম্পু করার ফলে ময়েশ্চারাইজার হারাবে। তাই সপ্তাহে তিন দিনের বেশি শ্যাম্পু ব্যবহার না করাই ভালো। তবে শ্যাম্পু ব্যবহারের সময় অবশ্যই সঙ্গে পানি মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করতে হবে। এভাবে প্রায় প্রতিদিন শ্যাম্পু ব্যবহার করা যেতে পারে। 

♦ বর্ষাকালে অনেক সময় স্ক্যাল্প খুব অয়েলি হয়ে যায়। এর সমাধানের জন্য একটা পাতিলেবুর রস স্ক্যাল্পে ভাল করে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে নিতে হবে।

♦ মেথি চুলের জন্য খুব উপকারী। এর জন্য সারারাত একটা পাত্রে মেথি ভিজিয়ে রেখে সকালে ছেকে নেওয়া পানিটা আলাদা করে রাখযে হবে। এর পর শ্যাম্পু করে চুল ধোওয়ার পর সবশেষে ওই মেথি ভেজানো পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিতে হবে। এর ফলে চুল পড়া কমে, খুসকি দূর হয় এবং চুলের উজ্জ্বলতাও বাড়ে।

 

*বর্ষাকাল* *চুলেরযত্ন* *বিউটিটিপস*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর
বেশতো বিজ্ঞাপন