বিম্ববতী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আমরা, আমাদের মতো দরিদ্র দেশের মধ্যবিত্তদের, তথাকথিত প্রগতিশীল মধ্যবিত্তদের কথা বলছি- এহেনও মধ্যবিত্তদের কিছু অদ্ভুদ দোদ্যুলমান  গুনের মধ্যে একটা হলো এরা ঢালাওভাবে মাদ্রাসাকে মৌলবাদী বা জঙ্গি তৈরির কারখানা বলতে দ্বিধা করেনি! তবে খুব বেশি নড়ে চড়েও যে বসেছে তাও নয়! ঐটুক বলেই এক পংক্তিতেই ডুব!! কিন্তু তার চেয়েও অদ্ভুদ একটা মনোভাব হলো প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে তাদের একটা কেমন দনো -মনো ভাব! যদিও এখন প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে মধ্যবিত্তরাও পড়াশোনা করছে,,,তবে কিছু প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় এখনো বেশিরভাগ মানুষের নাগালের বাইরেই রয়ে গেছে! যার মধ্যে অন্যতম হলো নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি! কিন্তু মজা হোক বা নিষ্ঠুরতা ই হোক না কেন প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া ছেলে-মেয়েরাই কিন্তু বেশি এগিয়ে যাচ্ছে এই কর্পোরেট যুগে,,শুধু তা নয় প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা সাংস্কৃতিক ক্ষেত্র থেকে শুরু করে দেশ বিদেশের মাটিতে উজ্জ্বল ছাপ রেখে চলেছে যা অনেক ক্ষেত্রেই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেশি অগ্রগামী,,,যেখানে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হয়ে গ্যাছে তথাকথিত রাজনৈতিক দলগুলোর অপ-ব্যবহারের জঘন্যতম আখঁড়া,,,,মনের দরজা খুলে আকাশ স্পর্শে দেয়ার মতো বিশ্ববিদ্যালয় (পাবলিক কিংবা প্রাইভেট), দুঃখজনক হলেও সত্যি যে এখন আমাদের এই অভাগা দেশে রূপকথা ই হয়ে গ্যাছে!

নাহ আমি পাবলিক আর প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে প্রতিযোগিতা করতে বসিনি,,,আমি শুধু আমাদের মধ্যবিত্তদের একটা দোদ্যুলমান নগ্নতা বলতে চাইছি,,,যখন জানা গেলো শুধু মাদ্রাসা নয় নর্থ সাউথ এর মতো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া কেউ জঙ্গিতে নাম লিখিয়েছে, তখন যেন আমাদের এই তথাকথিত শিক্ষিত মধ্যবিত্ত সমাজ খুব আয়েশ করে পায়েস খাওয়ার অবস্থায় বিরাজ করছেন! কিন্তু ভুলে যাচ্ছেন ঐ বিশ্ববিদ্যালয়টা পাড়ার নয়, আমাদের ঘরের! কোনো নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানের উপর আঙ্গুল না উঁচিয়ে ব্যবস্থার বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলুন,,,জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলুন,,,,সোচ্চার হোন অপ-রাজনীতির বিরুদ্ধে!,,,ইতিহাস থেকে সহজেই অনুমেয় শিক্ষিত তরুণরাই এইসব পথে আগে অগ্রসর হয়! কারণ সেখানে যেমন ই হোক একটা আদর্শ তুলে ধরা হয় সে যে নষ্ট পথেই আদর্শ তোলা হোক না কেন! আমরা কি পেরেছি পাল্টা কোনো আদর্শ তাদের সামনে বা আপনারা কি পেরেছেন আমাদের সামনে তুলে ধরতে? আমরা কাজ চাই,,,,আমাদের রক্ত টগবগ করে কিছু করার নেশায়,,,নেশাই বলবো , আকাঙ্খা তো আরো পরিণত বয়সের ব্যাপার!,,,নেশার মধ্যে তুলে দিলেন মাদক-দ্রব্য আর ভারতীয় সেইসব সংস্কৃতি যা নষ্ট (ভালো টা নয়) ! নতুবা আজকে এই যে সুন্দরবন বাঁচাও সুন্দরবন বাঁচাও বলে চিৎকার করছি তবু তো কই কিছু হচ্ছে না তো?,,,আমাদের শক্তি কোথায়! আমরা নিজেদের শক্তিহীন দেখছি আবার তা মেনে নিতেও পারছি না! আমরা আপনাদের নষ্ট রাজনীতি করতে পারছি না,,,সঠিক দাবি করলে গলা চেপে ধরা হচ্ছে,,,,,আমাদের তাহলে কাজটা কি??,,,পাঠ্যবই এ মুখ ডুবিয়ে রাখা! প্রতিবাদের জায়গাগুলো আমরা ভুলে যাচ্ছি,,,,আমরা নষ্ট মিডিয়া দ্বারা এতোটাই মোহ গ্রস্থ হয়ে পড়ছি যে বুঝে উঠতে পারছি না কোথায় প্রতিবাদ করতে হবে! হয়ে পড়ছি দিক-হারা! আর এটাও সত্য যে- যে দেশে বিরোধী দলকে অকার্যকর করে দেয়া হয় সে দেশে জঙ্গি তৈরি হবেই,,,,এটা একটা ক্রোধ! গণতন্ত্রের ন্যূনতম অনুপস্থিতির ক্রোধ!,,যেটা দেখা যায় না,,,ধীরে ধীরে মানুষে মানুষে ছড়িয়ে পরে গভীরে,,,,

আমি একটা দিক আকর্ষণ করতে চাই এহেনও মধ্যবিত্ত মানুষদের মানসিকতা নিয়ে,,,এই যে জঙ্গি ইস্যু নিয়ে কথা হলেই বারবার নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিকে ঢালাওভাবে দোষারোপ করছেন, এর ফলাফলটা ভেবে দেখেছেন?,,,যদিও জীবন ধারণ করতেই আমাদের নাভিশ্বাস উঠে যাচ্ছে ভাবনার জায়গা কোথায়! তবু আমাদের ই ভাবতে হবে! ইতিহাসে উজ্জ্বল - যে কোনো সমস্যায় এই দোদ্যুলমান মধ্যবিত্তরাই আগে প্রতিবাদ করেন, এদের মাঝ থেকেই বুদ্ধিজীবীরা উঠে আসেন!,,,একটা প্রতিষ্ঠানকে যখন ঢালাও ভাবে দোষারোপ করা হয় তখন সেই প্রতিষ্ঠানের মেধাবী ছাত্র-শিক্ষকদের কথা ভেবে দেখেছেন কখনো?,,,তারা দেশ বিদেশে এখন কিভাবে দিন কাটাচ্ছে?,,,,যেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে পড়ুয়া হলেই জঙ্গি!! আশ্চর্য!! এইসব মেধাবী  ছাত্ররা যখন দেশের বাইরে উচ্চ শিক্ষার জন্য বা ভালো কোনো প্রতিষ্ঠানে বা গবেষণার জন্য যেতে চাইছে তাদের কি ধরণের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে?,,,,জানার প্রয়োজন বোধ করেন নি!,,,,কেননা নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিকে এখনো আমরা প্রাশ্চাত্য সংস্কৃতি বলে যেভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে চাই তা আসলে কিছু ঠিক মতো জানতে না চেয়ে নিজের দুর্বলতা ঢাকার ই অভিপ্রায় মাত্র,,,,অনেকেই মুখ ফুটে বলেন আর অনেকে বলেন না,,,কিন্তু প্রতিটা মধ্যবিত্ত মানুষের ভিতর ই একটা কি যেন ক্ষোভ কাজ করে এইসব ইউনিভার্সিটি নিয়ে,,,,এইসব দৌন্যতা দূর করতে হবে!,,এই মেধাবী প্রতিষ্ঠানের পাশে এসে দাঁড়াতে হবে নিজেদের স্বার্থে!,,,অন্যথায় এইভাবে দোষারোপ করতে থাকলে বিদেশের মাটিতে আমরা হেয় প্রতিপন্ন হবো,,,মাথা নিঁচু হয়ে আসবে!,,, হয়তো এইসব মানুষদের ধারণাতেই নেই বিদেশের মাটিতে দেশের এহেনও অবস্থায় কিভাবে দিন কাটাতে হয়!,,,অথচ তারাই দেশের মুখ বিদেশে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে,,,অন্ধকারে কিছুটা হলেও আলো ফোটাচ্ছে!

আসুন একটু ভেবে নিয়ে কথা বলি,,,আপনি হয়তো নিজেকে খুব ক্ষুদ্র ভাবছেন! ভাবছেন আমার একটা কথায় কি এসে যায়! এসে যায় অনেক কিছুই,,,,মানুষের মুখের কথাতেই এক সময় সব ধ্বংস করার মতো মারণাস্ত্র তৈরি হয়ে যায়,,,,আর আপনি আমি হলাম সমাজের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ - শিক্ষিত মধ্যবিত্ত অংশ,,,,

নিজেকে ঊর্ধ্বে তুলে ধরুন,,,,নিজেকে শ্রদ্ধা করুন!,,,,,(বৃষ্টি),,

অশ্রদ্ধা দৃঢ় কণ্ঠে জানান অন্যায়ের!,,,(বৃষ্টি),,,,,,

কোনো কথা বলার আগে ভেবে নিন - সব কিছুর আগে দেশপ্রেমকে ঊর্ধ্বে তুলে ধরুন!,,,,,,,,(বৃষ্টি),,,

কোনো নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানের উপর আঙ্গুল না উঁচিয়ে ব্যবস্থার বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলুন!,,,,(বৃষ্টি),,

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলুন!,,,,(বৃষ্টি),,,

সোচ্চার হোন অপ-রাজনীতির বিরুদ্ধে!,,,(বৃষ্টি),,,,,

 

(বৃষ্টি),,কে আছেন?
দয়া করে একটু আকাশকে বলুন-
সে যেন আর একটু উপরে উঠে
আমি আর দাঁড়াতে পারছি না",,,(বৃষ্টি),,,

------------------------হেলাল হাফিজ

 

*মুখের-কথা* *তরুণ* *মধ্যবিত্ত* *জঙ্গি* *প্রাইভেট-বিশ্ববিদ্যালয়* *সুন্দরবন-বাঁচাও* *গণতন্ত্র* *অপ-রাজনীতি* *রাজনীতি* *মিডিয়া* *প্রতিবাদ* *ছাত্র* *বিদেশ* *বোধোদয়* *শ্রদ্ধা*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

এক্ষনি একাউন্ট তৈরী কর

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত