ভলিবল

ভলিবল নিয়ে কি ভাবছো?
ছবি

নাহিন: ফটো পোস্ট করেছে

ভলিবল

*ভলিবল*

যারিন তাসনিম বেশটুনটি শেয়ার করেছে

যারিন পিচ্চি আর সেজুতি স্টেডিয়ামে
গতকাল স্টেডিয়ামে ক্রিকেট খেলা দেখতে গেছিলেন আমাদের যারিন মানে পিচ্চি আর সেজুতি l খেলা চলছে . . . . . কিছুক্ষন পর এক ব্যাটসম্যান ছক্কা মারল. . সঙ্গে সঙ্গে পিচ্চি চিৎকার করে বলল গোল! গোলললল!
এইবার পিচ্চিকে থামিয়ে দিয়ে সেজুতি বলল. . . . . আরে বোকা! গোল কী এই খেলায় হয় নাকি? গোল তো হয় ক্রিকেট খেলায় হয়!
*ভলিবল*

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে


ভলিবল খেলা আমাদের অনেকের কাছেই খুব জনপ্রিয়। বিভিন্ন ধরনের ভলিবল খেলা রয়েছে যার মধ্যে বীচ ভলিবল একটি। সমদ্র তীরে অথবা বালুর মাঠের উপরে ভরিবল মাঠ তৈরী করে ভলিবল খেলা হয়। এর ইংরেজী নাম ( Beach volleyball, Sand volleyball)।



বীচ ভলিবলের ইতিহাসঃ

১৯২০ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা মনিকায় বৃহৎ বালুকাময় এলাকায় নির্মল আনন্দলাভের উদ্দেশ্যে বীচ ভলিবল খেলার উৎপত্তি হয়েছে। এখানে বালুর মাঠের উপর স্থায়ী জালের ব্যবস্থা করা হয় এবং জনগণও বিনোদনমূলক খেলা হিসেবে এতে অংশগ্রহণ করে। ফলশ্রুতিতে ব্যক্তি উদ্যোগে ক্লাব গড়ে উঠে।

১৯২২ সালের শেষদিকে এগারটি এ ধরনের ক্লাব দেখা যায়। ১৯২৪ সালে প্রথমবারের মতো আন্তঃক্লাব প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ইনডোর ভলিবলের ন্যায় শুরুর দিকে বীচ ভলিবল খেলায়ও প্রতি দলে কমপক্ষে ছয়জন খেলোয়াড় থাকতো। বর্তমান কালের দুইজন-খেলোয়াড়বিশিষ্ট বীচ ভলিবল খেলার ধারনাটির ব্যুৎপত্তি ঘটে পল পাবলো জনসন নামীয় সান্তা মনিকা এথলেটিক ক্লাবের একজন খেলোয়াড়ের মাধ্যমে।

১৯৩০ সালের গ্রীষ্মকালে তিনি ছয়-জন খেলোয়াড়বিশিষ্ট দলের সদস্যদের উপস্থিতির জন্যে অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু তারা আসতে বিলম্ব করায় দুইজন ব্যক্তির উপস্থিতিতেই খেলার সিদ্ধান্ত নেন। পরবর্তীকালে খেলাটি পরিবর্তিত হয়। চিত্তবিনোদনমূলক খেলা হিসেবে এতে আরো খেলোয়াড়ের অংশগ্রহণ ঘটে। বিশ্বব্যাপী খেলার উপযোগী করে নতুন সংস্করণ তৈরী হয়েছে এবং একমাত্র শীর্ষস্থানীয় প্রতিযোগিতায় প্রতি দলে দুইজন খেলোয়াড়ের অংশগ্রহণ থাকে। বর্তমানে এ খেলাটি বিশ্বের সর্বত্র জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। (সূত্রঃ উইকিপিডিয়া)

ভলিবল খেলার নিয়ম কানুনঃ
ভলিবল খেলার ন্যায় বীচ ভলিবল খেলারও প্রধান উদ্দেশ্য থাকে বলকে জালের উপর দিয়ে বিপক্ষের সীমানাস্থিত ভূমি স্পর্শ করা। প্রতিপক্ষও আন্তরিকভাবে চেষ্টা করে বলকে ভূমির স্পর্শ থেকে রুখতে। একটি দল বলকে নিজ সীমানায় সর্বাধিক তিনবার স্পর্শ করে প্রতিপক্ষের সীমানায় প্রেরণ করতে পারে। কোর্টের পেছনের অংশে সীমানার বাইরে থেকে সার্ভারের মাধ্যমে বলে আঘাতের মাধ্যমে খেলা শুরু হয়। উভয় দল কর্তৃক বল প্রতিপক্ষের সীমানায় প্রেরণ করে কাবু করার চেষ্টারত থাকে। কোন কারণে বল ভূমিতে স্পর্শ কিংবা সীমানার বাইরে প্রেরণের মাধ্যমে অথবা সঠিকভাবে ফেরত না পাঠালে তা ধারাবাহিকভাবে চলতে থাকে।

বীচ ভলিবলের মৌলিক নিয়ম-কানুনগুলো ইনডোর ভলিবলের ন্যায়। বল ভূমিতে স্পর্শের ফলে প্রতিপক্ষ এক পয়েন্ট লাভ করে এবং অপর খেলোয়াড় বলে আঘাতের মাধ্যমে খেলা চালু করবে। এভাবে চারজন খেলোয়াড়ই বলে আঘাতের সুযোগ পায়।

বীচ ভলিবল এবং ইনডোর ভলিবলে কিছু প্রধান পার্থক্য রয়েছে যা নিম্নরূপ:-
-খেলার স্থান হিসেবে বালুময় এলাকা হতে হবে।
-দলীয় সদস্য হবে দুই জন; কোন অতিরিক্ত খেলোয়াড় থাকবে না।
-পয়েন্ট পদ্ধতিতে ৩টি সেট থাকবে। প্রত্যেক সেটে ২১ পয়েন্ট থাকবে। সিদ্ধান্তমূলক সেটে ১৫ পয়েন্ট থাকবে। খেলা চলাকালীন কোনরূপ পরামর্শ প্রদান করা যাবে না।
-স্থান পরিবর্তন সংক্রান্ত কোনরূপ ভুল-ভ্রান্তি বীচ ভলিবলে নেই। ইচ্ছেমাফিক খেলোয়াড়েরা স্থান পরিবর্তন করতে পারবে। দলীয় স্থান পরিবর্তন প্রতি সাত পয়েন্ট অন্তর পরিবর্তনযোগ্য। (সূত্রঃ উইকিপিডিয়া)


*ভলিবল* *খেলাধুলা* *বীচভলিবল*
ছবি

আমানুল্লাহ সরকার: ফটো পোস্ট করেছে

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ভলিবল আমাদের দেশের জনপ্রিয় খেলাগুলোর মধ্যে একটি। বিশ্বের সব স্থানেই ভলিবল খেলা হয়। ভলিবল খেলাটি ১৯৬৪ সালে অলিম্পিক গেমসের  অন্তরর্ভূক্ত হয়। এই খেলার পরিচালনা পরিষদের নাম এফ আই ভি বি। মূলত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকেই এই খেলার উৎপত্তি হয়েছে বলে ধারনা করা হয়।
এই খেলায় দুই দলেরই ছয় জন করে খেলোয়াড় থাকে। নেট দিয়ে বিভক্ত করা কোর্টের দুই প্রান্তে খেলোয়াড়েরা থাকে এবং তাদের উদ্দেশ্য থাকে প্রতিপক্ষ দলের সীমানার মধ্যে বলকে ভূমিতে স্পর্শ করার মাধ্যমে পয়েন্ট অর্জন করা। নির্দিষ্ট পয়েন্ট তালিকার মধ্যে যে দল আগে নির্ধারিত পয়েন্ট অর্জন করতে পারবে তারা জয়ী হবে।

ভলিবল খেলার নিয়ম কানুনঃ
ভলিবল ১৮ মিটার(৫৯ ফুট) লম্বা ও ৯ মিটার(২৯.৫ ফুট) চওড়া কোর্টে খেলা হয় যা একটি নেট দ্বারা দুটি ৯মি×৯মি অর্ধে বিভক্ত। নেটটি চওড়ায় ১ মিটার এবং এর শীর্ষ প্রান্ত কোর্টের কেন্দ্রের ভূমি থেকে ২.৪৩মি(পুরুষদের জন্যে) ও ২.২৪মি(নারীদের জন্যে) উচ্চতায় অবস্থিত।যদিও শিশু- কিশোর ও বয়স্কদের জন্যে উচ্চতার প্রয়োজন মতো পরিবর্তন ঘটে।

ভলিবল খেলার স্থানঃ
ভলিবল খেলা বিভিন্ন স্থানে হয়ে থাকে তবে আন্তর্জাতিক ভাবে তিনটি মাঠে এই খেলা হয়ে থাকে। এর মধ্যে রয়েছেঃ
১. বীচ ভলিবল
২. ইনডোর ভলিবল
৩. ঘাস ভলিবল।

*ভলিবল* *খেলাধুলা*

খুশি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 আমার প্রিয় খেলা ক্রিকেট। আপনার প্রিয় খেলা কোনটি?

উত্তর দাও (২ টি উত্তর আছে )

*খেলাধুলা* *ক্রিকেট* *ফুটবল* *ভলিবল* *হকি* *টেনিস* *খেলাধূলা* *দাবা*

খুশি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 আমার প্রিয় খেলা ক্রিকেট। আপনার প্রিয় খেলা কোনটি?

উত্তর দাও (৫ টি উত্তর আছে )

*খেলাধুলা* *ক্রিকেট* *ফুটবল* *ভলিবল* *হকি* *টেনিস*

আমানুল্লাহ সরকার: খেলা দেখতে আমার খুব ভাল লাগে। তবে যদি কেউ বলে কোন ধরনের খেলা তাহলে বলবো ক্রিকেট ও ফুটবল। তবে ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা আমার কাছে খুব বেশী। ক্রিকেট- ফুটবল ছাড়াও টেনিস, ভলিবল, হ্যান্ডবল, হকি ও সবধরনের অ্যাথলেটিক্স বেশ উপভোগ করি।আপনারা কে কি খেলা পছন্দ করেন?

*খেলাধূলা* *ফুটবল* *ক্রিকেট* *হকি* *ভলিবল* *টেনিস* *অ্যাথলেটিক্স* *খেলাধুলা*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★