নিউজ ফ্ল্যাশ

@NewsFlash

এমন সংবাদ যা আপনাকে চমকে দিবে
business_center প্রফেশনাল তথ্য নেই
school এডুকেশনাল তথ্য নেই
location_on লোকেশন পাওয়া যায়নি
1349805600000  থেকে আমাদের সাথে আছে

নিউজ ফ্ল্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাংলাদেশের প্রথম ও বাংলা ভাষার একমাত্র সামাজিক যোগাযোগ ও প্রশ্নোত্তরের সবচেয়ে বড় মাধ্যম বেশতো (www.beshto.com) ৬ষ্ঠ বছরে পা রাখলো। বাংলায় সামাজিক যোগাযোগ ও প্রশ্ন উত্তরের সর্ববৃহৎ এই মাধ্যমটি ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি অফিসিয়ালি যাত্রা শুরু করে। আজ ঢাকার কাওরান বাজাওে বেশতোর কার্যালয়ে কেক কেটে বেশতোর পঞ্চম বর্ষপূর্তি উদযাপন করা হয়।


বিশ্বের খ্যাতনামা সব নেটওয়ার্কের জনপ্রিয়তার মধ্যেও গত পাঁচ বছরে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের নজর কেড়েছে বেশতো। বেশতো মাইক্রোব্লগিং ও প্রশ্নোত্তর সেবার বাড়তি রূপ নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। বেশতোর প্রধান সেবা হচ্ছে প্রশ্নোত্তর যেখানে একজন ব্যবহারকারী তার অজানা বিষয়ে প্রশ্ন করতে পারে এবং কৌতূহল মেটাতে উত্তর দিতে পারে। বর্তমানে বেশতোর প্রশ্ন সংখ্যা ৭০ হাজার এবং উত্তর প্রায় ৩ লাখ।


বেশতোর আরেকটি সেবা হচ্ছে আড্ডা যেখানে ব্যবহারকারীরা কথা, ছবি, জোকস, খবর শেয়ার করার পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে পারেন। বেশতোর আড্ডা সেকশনে সবমিলিয়ে প্রায় ৮ লাখের অধিক পোষ্ট রয়েছে।


বেশতোর সহ প্রতিষ্ঠাতা ও বিডি জবসের সিইও এ কে এম ফাহিম মাশরুর জানান, “বাংলা ভাষার এই সামাজিক মাধ্যমটি ইতিমধ্যে বেশ সাড়া জাগিয়েছে। গত ৫ বছরে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছে বেশতো। এখন বেশতোর নিবন্ধনকৃত ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১ লাখের অধিক। সাইটটিতে প্রতিদিন ৩০ হাজারের মত ভিজিটর প্রতিদিন ভিজিট করে এবং বিভিন্ন ফিচারে কন্ট্রিবিউট করে। উইকিপিডিয়ার পরে ইউজার জেনারেটেড বাংলা কনটেন্ট এর দিক থেকে বেশতো সর্ববৃহৎ প্লাটফর্ম। বর্তমানে প্রতিমাসে ৫ লাখেরও বেশি ব্যবহারকারী বেশতো ব্যবহার করছে।”

 যে কোন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী বেশতো সাইটে প্রবেশ করে নতুন একাউন্ট খোলার মাধ্যেমে বেশতোতে যুক্ত হতে পারবে। যে কেউ ইচ্ছে করলে ফেসবুক থেকেও লগইন করে বেশতোতে প্রবেশ করতে পারবেন।

*বেশতো* *বেশতোবর্ষপূর্তি* *বেশতোরজন্মদিন*

নিউজ ফ্ল্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

স্মার্ট শপিংয়ে ভিন্নতা মানেই আজকের ডিল। প্রতিনিয়ত আকর্ষণীয় অফার আর বিশেষ সব সুবিধা নিয়ে গ্রাহকদের সামনে হাজির হয় দেশের সবেচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকেরডিল ডটকম (https://ajkerdeal.com/)। সেই ধারাবাহিকতায় এবার দেশে প্রথমবারের ফেসবুক লাইভ শপিং নিয়ে এসেছে প্রতিষ্ঠানটি। ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে ক্রেতাদের কাছে আকর্ষণীয় সব প্রোডাক্ট নিয়ে হাজির হয় আজকেরডিল। ফেসবুক লাইভ চলাকালীন সময়ে দশর্ক ক্রেতারা ৫০-৮০% পর্যন্ত ছাড়ে পণ্য কিনতে পারে।

শুক্রবার বাদে সপ্তাহের অন্য ৬দিন এই সন্ধ্যা ৭.০০ টা থেকে রাত ১০.০০ টা পর্যন্ত এই 'লাইভ শপিং' অনুষ্ঠিত হয়। ফেসবুক লাইভ ১ ঘন্টা হলেও এই লাইভের সুবাদে ক্রেতারা ৩ ঘন্টা ধরে পণ্য অর্ডার করার সুযোগ পায়। আর এই সময়ের মধ্যে যারা অর্ডার করে তারা আকর্ষণীয় ছাড়া পায়।

প্রতি অনুষ্ঠানে নতুন নতুন কিছু প্রোডাক্ট নিয়ে আসা হয়। 'লাইভ' প্রোগ্রামে উপস্থাপক প্রোডাক্টগুলোর বিভিন্ন ফিচার তুলে ধরে এবং লাইভে থাকা দর্শকদের প্রশ্নের উত্তর দেন তাৎক্ষণিকভাবে।এছাড়াও লাইভ চলাকালীন সময়ে আজকেরডিলের ওয়েবসাইটে ফেসবুক লাইভের একটি কাউন্ট ডাউন শুরু হয়। সেই কাউন্ট ডাউন চলাকালীন সময়েই মধ্যে পণ্য অর্ডার করলেই ক্রেতারা ইউনিক সব পণ্য ছাড়ে কিনতে পারে।

এই অনুষ্ঠানে প্রতিদিন নতুন নতুন মার্চেন্ট তাদের পণ্য নিয়ে হাজির হয়। উল্লেখ্য, যে ২ হাজার মার্চেন্টের এক লক্ষেরও বেশি প্রোডাক্ট নিয়ে আজকের ডিল বর্তমানে দেশের অন্যতম বড় মার্কেট-প্লেস এবং অন্যতম জনপ্রিয় ই-কমার্স সাইট। এই মার্কেট-প্লেসে কোনো প্রোডাক্টের অর্ডার করলে দেশের যে কোনো প্রান্তে ২ থেকে ৫ দিনের মধ্যে 'ক্যাশ ও ডেলিভারি' পদ্ধতিতে প্রোডাক্ট পৌঁছে দেওয়া হয়; প্রোডাক্টের কোনো সমস্যা থাকলে তাৎক্ষণিকভাবে রিপ্লেস বা টাকা রিফান্ড দেওয়া হয়।

*লাইভশপিং* *আজকেরডিল* *স্মার্টশপিং*

নিউজ ফ্ল্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

স্বপ্ন যখন ফটোগ্রাফি তবে স্বপ্নতেই হোক ক্যারিয়ার!

(আপনি কি ফটোগ্রাফিতে আপনার ক্যারিয়ার গড়বার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন, তাহলে এই ফেসবুক লাইভ সেশনটি আপনারই জন্য )

ফটোগ্রাফি একটা শখের বিষয়। ফটোগ্রাফির মতো বিজ্ঞানভিত্তিক শিল্প পৃথিবীতে বিরল। এই শখটাকেই আজকাল অনেকে পেশা বানিয়ে নিচ্ছেন। শখের সঙ্গে যদি পেশার সামঞ্জস্য হয়ে যায় তাহলে ক্ষতি কি? এমন খুব কম পেশাই আছে যেখানে বয়স আর ডিগ্রী খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ নয়। দরকার প্রখর দৃষ্টিশক্তি, কাজটির জন্যে ভালোবাসা আর সৃজনশীল চিন্তাভাবনা। অনেকেরই একটি ভুল ধারণা রয়েছে প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার হওয়ার জন্যে প্রথমেই একটি দামি DSLR ক্যামেরা কিনলেই সব হয়ে যাবে। বিষয়টি ঠিক নয়। এর জন্য আপনাকে ফটোগ্রাফি সমন্ধে জানতে হলে, পড়তে হবে।বই পড়ে, ইন্টারনেট ঘেঁটে, ছবি দেখে, অভিজ্ঞ কোনো আলোকচিত্রীর সঙ্গে থেকে কিংবা কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি হয়ে শেখা যায় ফটোগ্রাফি।এরকম একজন বিশিষ্ট আলোকচিত্রী নিয়ে এবার হাজির বেশতো। ফটোগ্রাফির মৌলিক ধারণাগুলি নিতে যোগ দিন বেশতো ফেসবুক লাইভে ফটোগ্রাফিগুরু ইহতিশাম কবীরের সাথে। ফটোগ্রাফির A টু Z বিষয়গুলো জানার জন্যে এই ফেসবুক লাইভ সেশনটি সাহায্য করতে পারে আপনাকে।


এক নজরে জেনে নিন ফটোগ্রাফিগুরু ইহতিশাম কবীর সমন্ধে :


বাংলাদেশে ফিরে নিজেকে একজন স্বনামধন্য ফটোগ্রাফার এবং লেখক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার আগে প্রায় দুই দশকেরও বেশি সময় আগে ইহতিশাম কবীর সিলিকন ভ্যালিতে সফ্টওয়্যার ডিজাইন করেছিলেন। তার সাপ্তাহিক কলাম Tangents, প্রায় সাত বছর ধরে ডেইলি স্টারে প্রতি শনিবার প্রকাশিত হয়ে থাকে।


তিনি বাংলাদেশের একজন বিখ্যাত ফটোগ্রাফার ও লেখক, যিনি মোট পাঁচটি বই লিখেছেন (Sundarban, Chasing Paradise, Sylhet, Colours of Bangladesh and Pakhi: Beautiful Birds of Bangladesh) সেই সাথে ডিজিটাল ইমেজিং আলগোরিদিম উপর একটি প্রকৌশল রেফারেন্স বইও (High Performance Computer Imaging) তিনি লিখেছেন।


সফ্টওয়্যার আলগোরিদিম উপর মোট ছয়টি পেটেন্ট তার ঝুলিতে। ফটোগ্রাফিতে তার নিজের দক্ষতার পাশাপাশি রয়েছে অঢেল শৈল্পিক জ্ঞান। ৩৫ বছরের ফটোগ্রাফির অভিজ্ঞতার আলোকে তিনি বিশ্বাস করেন গতানুগতিক চাকরির বাইরেও ফটোগ্রাফি এমন এক পেশা, যেখানে ভালোভাবে উপার্জন ও সম্মান আদায় করা সম্ভব। এখানে নিজের দক্ষতার পাশাপাশি শৈল্পিক জ্ঞানের সমন্বয়ে যে কেউ গড়তে পারেন উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ। ফটোগ্রাফি তার অন্যতম প্যাশন, তার কাছে ফটোগ্রাফির কাজটি অনেক আকর্ষণীয়, অ্যাডভেঞ্চারমূলক একটি কাজ।


আগামী ২৮ শে ফেব্রুয়ারি, দুপুর ১ টায় তিনি থাকছেন আমাদের সাথে বেশতো ফেসবুক লাইভে ...

*ফটোগ্রাফি* *ফটোগ্রাফিটিপস* *ফেসবুকলাইভ* *প্রশ্নলাইভ*

নিউজ ফ্ল্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মো. সামসুল ইসলাম:
সম্প্রতি মাহবুবুল হক, প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা-কে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের সর্ববৃহৎ গবেষণা প্রতিষ্ঠান সাভারস্থ পরমাণু শক্তি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালক হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। মাহবুবুল হক ১৯৮৫ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারী তারিখে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনে বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন। জনাব হক ১৯৭৫ সালে ঢাকা কলেজিয়েট স্কুল থেকে এস.এস.সি, ১৯৭৭ সালে ঢাকা কলেজ থেকে এইচ.এস.সি এবং ১৯৮০ ও ১৯৮১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যাপ্লাইড ফিজিক্স ও ইলেকট্রনিক্স বিভাগ থেকে কৃতিত্বের সাথে যথাক্রমে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন।


ইন্সট্রুমেন্টেশন বিষয়ে বিষেশজ্ঞ মাহবুবুল হক সমগ্র কর্মজীবনে সাভারস্থ ইন্সটিটিউট অব ইলেকট্রনিক্স এর রিপেয়ার এন্ড মেইনটেন্যান্স বিভাগে এবং পরবর্তিতে নিউক্লিয়ার ইলেকট্রনিক্স বিভাগে কর্মরত ছিলেন। পাশাপাশি ২০১১ সাল থেকে তিনি উক্ত ইন্সটিটিউটের পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি আমেরিকা, জার্মানি, অষ্ট্রিয়া, ভিয়েতনাম, কোরিয়া, সিংগাপুর, ভারতের বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানে নানারকম গবেষণা এবং প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। এছাড়াও তিনি বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সহ দেশের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন কমিটিতে বিষয় বিশেষজ্ঞ হিসেবে কাজ করছেন।


বর্তমানে তিনি “Radiation effect on semiconductor devices” এবং “Increase the efficiency of solar cell” এর উপর গবেষণা করছেন। মাহবুবুল হক ১৯৬১ সালের ২ জানুয়ারী রাজশাহীতে একটি সম্ভ্রাšত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পূর্বপুরুষের আদি নিবাস পাবনার বেড়া উপজেলার চাকলা গ্রামে, পিতার নাম মোজাম্মেল হক এবং মাতার নাম রিনি মমতাজ হক।

নিউজ ফ্ল্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

দেশের সবচেয়ে বড়  'ডিজিটাল স্টার্টআপ সম্মেলন' আজ ১১ই ডিসেম্বর (রবিবার) বিকেল ৩টা থেকে  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে অনুষ্ঠিত হবে। এটিই হতে যাচ্ছে স্টার্ট-আপদের নিয়ে এই পর্যন্ত অনুষ্ঠিত সবচেয়ে বড় আয়োজন।

তথ্য প্রযুক্তি খাতের দেশীয় তরুণ উদ্যোক্তাদের নিয়ে এই সম্মলনে আয়োজন করেছে গত মাসে নতুন আত্মপ্রকাশ করা বাণিজ্য সংগঠনগুলোর নতুন ঐকবদ্ধ প্লাটফর্ম BAFCOM (বাংলাদেশ এলায়েন্স ফর ফেয়ার কম্পিটিশন)। সহযোগিতা করছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আই টি সোসাইটি (DUITS)।

দুই পর্বের এই অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে ২০ জন সফল তরুণ ডিজিটাল উদ্যোক্তা তাদের অভিজ্ঞতার কথা বলবেনI দ্বিতীয় পর্বে আলোচনা হবে আগামীতে নতুন ও তরুন ডিজিটাল উদ্যোক্তাদের জন্য নতুন কি ধরণের চ্যালেঞ্জ আসছে এবং কি ধরণের সরকারি নীতি কাঠামো দরকার যাতে ডিজিটাল সার্ভিস ইন্ডাস্ট্রিতে আরো অনেক সফল উদ্যোক্তা তৈরী হয়।

সর্বমোট ৩০জন বক্তা উপস্থিত থাকবেন সম্মেলনে। প্রযুক্তিক্ষেত্রের বেশ কয়েকজন পরিচিত মুখ উপস্থিত থাকবেন। বেসিসের সভাপতি ও বাফকমের আহবায়ক মোস্তাফা জব্বার, বিকাশ -এর প্রধান নির্বাহী কামাল কাদির, বিডিজবস ডট কমের প্রধান নির্বাহী ফাহিম মাশরুর, ফেনক্স ক্যাপিটালের জেনারেল ও পার্টনার শামীম আহসান, গ্রীণ ডেল্টা ইন্সুরেন্সের প্রধান নির্বাহী ফারজানা চৌধুরী, প্রথম আলোর যুব সমন্বয়ক মুনির হাসান, বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি. আহমেদ, ই-ক্যাবের সভাপতি রাজিব আহমেদ, এমসিসিআই এর পরিচালক হাবিবুল্লাহ এন. করিম, ডিইউআইটিএস -এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরান প্রমুখ বক্তব্য দিবেন কিভাবে ডিজিটাল স্টার্ট-আপ সহায়ক নীতিমালা তৈরী করা যায়।

 সম্মেলনে রকমারি ডট কমের প্রতিষ্ঠাতা মাহমুদুল হাসান সোহাগ, চালডাল ডট কমের প্রধান নির্বাহী ওয়াসিম আলিম, বাগডুম ডট কমের প্রধান নির্বাহী সৈয়দা কামরুন আহমেদ, টিম ইঞ্জিনের প্রধান নির্বাহী সামিরা জুবেরী হিমিকা, ফিফোটেক -এর প্রধান নির্বাহী তৌহিদ হোসেন, প্রিয়শপ ডট কমের প্রতিষ্ঠাতা আশিকুল আলম খাঁন, আইটি বাজারবিডি -এর প্রতিষ্ঠাতা শাহাবুদ্দিন রিয়াদ, এসো -এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক দিদারুল আলম, বন্ডস্টেইন -এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা মীর শাহরুখ ইসলাম, বিল্যান্সার -এর প্রতিষ্ঠাতা শফিউল আলম, চলো ডট কমের প্রধান নির্বাহী দেওয়ান শুভ, ডক্টোরোলার প্রতিষ্ঠাতা মোঃ আব্দুল মতিন ইমন, থার্ডবেল এর প্রতিষ্ঠাতা সাব্বির রহমান তানিম, হাঙ্গরিনাকি ডট কমের প্রধান নির্বাহী তাউসিফ আহমেদ, সিন্দাবাদ ডট কমের প্রধান নির্বাহী জিসান কিংসুক হক, চালডাল ডট কমের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জিয়া আশরাফ ও প্রেনিউর ল্যাবের প্রধান নির্বাহী আরিফ নেজামী বলবেন তাদের সফলতার গল্প ও অভিজ্ঞতা।

বেলা ৩টা থেকে শুরু হওয়া এই সম্মেলন চলবে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত। আগ্রহী যে কেউ এতে রেজিস্ট্রেশন ছাড়াই অংশ নিতে পারবেন।

সম্মেলনে দেশের সবচেয়ে বড় অনলােইন শপিংমল আজকেরডিল সহ আরও ২৫টির মত স্টার্ট-আপ প্রতিষ্ঠান তাদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করবেন। 

কনটেন্ট সহযোগিতা: আজকেরডিলডটকম

*সম্মেলন* *স্টার্ট-আপ-সম্মেলন*

নিউজ ফ্ল্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনে অত্যান্ত শ্রদ্ধেয় এবং জনপ্রিয় ক্রীড়া সাংবাদিক ও কলাম লেখক জনাব ইকরামুজ্জামান খুব সম্প্রতি বাংলাদেশের প্রতিনিধি হিসেবে বাংলাদেশের ক্রীড়া সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদানের জন্য এআইপিএস এশিয়া এ্ওয়ার্ড অর্জন করায় বাংলাদেশ স্পোর্টস কমেন্টেটরস ফোরামের (বিএসসিএফ) পক্ষ থেকে তাঁকে অভিনন্দন জানান হচ্ছে। এক অভিনন্দন বার্তায় ফোরামের সভাপতি আলফাজ উদ্দিন আহমেদ, শামিম আশরাফ চৌধুরী, ডা. অনুপম হোসেন, সাঈদুর রহমান, সামসুল ইসলাম এবং জৈষ্ঠ ক্রীড়া ভাষ্যকারগণ ক্রীড়া সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে জনাব ইকরামুজ্জামানের  কৃতিত্বপূর্ণ অবদানকে কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেন এবং দেশের জন্য সম্মান বয়ে নিয়ে আসায় তাঁকে বিশেষ অভিনন্দন জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তুর্কেমেনিস্তানের রাজধানী আসখাবাদে তুর্কেমেনিস্তান স্পোর্টস  মিডিয়া ফোরামের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং ইন্টারন্যাশনাল স্পোর্টস প্রেস এসোসিয়েশন (AIPS) এশিয়ার আয়োজনে অনুষ্ঠিত এক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ স্পোর্টস প্রেস এসোসিয়েশনের প্রতিনিধি হিসেবে বাংলাদেশের ক্রীড়া সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ জনাব ইকরামুজ্জামান এ সম্মাননা অর্জন করেন। এশিয়া, অফ্রিকা এবং ইউরোপের প্রায় ২৯টি দেশের বেতার, টেলিভিশন এবং প্রিন্ট মিডিয়ার স্পোর্টস ব্রডকাস্টার এবং ক্রীড়া সাংবাদিকগণ এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এর আগে ইকরামুজ্জামান AIPS এশিয়ার নির্বাহী কমিটির সদস্য এবং সহ-সভাপতি হিসেবে ২০০২-২০১০ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, AIPS ১৯২৪ সালে এর যাত্রা শুরু করে কিন্তু AIPS-এশিয়া তাদের কার্যক্রম শুরু করে ১৯৭৮ সাল থেকে।

ইকরামুজ্জামান ১৯৬৭ সালে দৈনিক আজাদের মাধ্যমে ক্রীড়া বিষয়ক লেখালেখি শুরু করেন। পরবর্তিতে তিনি দেশের একাধিক প্রথম শ্রেণীর পত্র-পত্রিকায় বাংলা এবং ইংরেজিতে ক্রীড়া বিষয়ক কলাম লিখতেন। ইকরামুজ্জামান কৃতজ্ঞতার সাথে আরো জানান ১৯৬২ সালে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ঢা.বি সাংবাদিকতা বিভাগের প্রফেসর, ক্রীড়া লেখক এবং ক্রীড়া ভাষ্যকার আতিকুজ্জামান খাঁনের সভাপতিত্বে পূর্ব পাকিস্তান ক্রীড়া লেখক সমিতির যাত্রা শুরু হয়েছিল এবং স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালে বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ, ক্রীড়া লেখক, সাংবাদিক এবং জনপ্রিয় ক্রীড়া ভাষ্যকার আবদুল হামিদের সভাপতিত্বে বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতির যাত্রা শুরু হয়েছিল। একই বছর বন্দর নগরী চট্রগ্রামের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট ক্রীড়া লেখক, সাংবাদিক, ক্রিকেট সাহিত্যিক এবং জনপ্রিয় ক্রীড়া ভাষ্যকার বদরুল হুদা চৌধুরীর সভাপতিত্বে বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতি চট্রগ্রাম বিভাগীয় শাখার কার্যক্রম শুরু হয়েছিল। এই তিনজন বিশিষ্ট ব্যাক্তির নিকট ইকরামুজ্জামান বিশেষভাবে কৃতজ্ঞ কারন এদের সান্নিধ্যেই তিনি তৎকালীন সময়ে তাঁর ক্রীড়া সাংবাদিকতা ক্যারিয়ার শুরু করে এগিয়ে নিতে পেরেছিলেন। 

*ক্রীড়াসাংবাদিক* *পুরস্কার* *খেলাধূলা*

নিউজ ফ্ল্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বিশিষ্ট ক্রীড়া ভাষ্যকার, ভাষা সৈনিক, সাংবাদিক ও ক্রীড়ালেখক বদরুল হুদা চৌধুরীর ২য় মৃত্যুবার্ষিকী আজ (১০ আগস্ট ২০১৬)। ৮২ বছর বয়সে ২০১৪ সালের এইদিনে বার্ধক্যজনিত রোগে চট্রগ্রামের নিজ বাসভবনে মারা যান তিনি। তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে ও ২ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। ১৯৩0 সালের ৯ সেপ্টেম্বর চট্রগ্রামের মিরেরসরাইয়ে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫৪ সালে দৈনিক আজাদের উপ-সম্পাদক হিসেবে তিনি শুরু করেছিলেন সাংবাদিকতা। এরপর বিভিন্ন সময়ে তিনি কাজ করেছেন ইত্তেফাক, দৈনিক বাংলা, ইনকিলাব, সংবাদ, বাংলার বাণী ও দৈনিক পূর্বদেশের মতো দেশের বড় বড় পত্রিকায়। সংস্কৃতিমনা এই মানুষটি বেতারে নিয়মিত সংবাদ পাঠ করতেন, রম্য রচনা লিখতেন এবং পাঠ করতেন।


পাকিস্তান আমলে ষাটের দশকে বাংলাদেশের ক্রীড়া ধারাবর্ণনা ও ক্রীড়া সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে এক উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন বদরুল হুদা চৌধুরী। চট্রগ্রামের এই কৃতি সন্তান ছিলেন ভাষা সৈনিক। ক্রিকেট, ফুটবল ও হকির জাতীয় ও আন্তর্জাতিক খেলায় বেতার এবং টেলিভিশনে তাঁর সুমিষ্ট কন্ঠে ক্রীড়া ধারাবর্ণনা শুনেছেন দেশবাসী। হয়তো নতুন প্রজন্মের অনেকেই তাঁর নাম শোনেননি কিন্তু মধ্য বয়সী ও প্রবীনরা যারা তাঁর ধারাভাষ্য শুনেছেন, সবাই তাঁকে শ্রদ্ধাভরে মনে রেখেছেন।

ক্রিকেটই ছিল তাঁর ভাললাগা এবং ভালবাসা। তাইতো তাঁর রচিত তিনটি উপন্যাসের প্রত্যেকটিই ক্রিকেট কেন্দ্রিক। তার রচিত গ্রন্থ তিনটি হলো- তবু ক্রিকেট ভালবাসি (১৯৬৬), দুটি ব্যাট একটি বল (১৯৬৭) এবং রুপে-রসে ক্রিকেট (১৯৯৪)। মুল ধারার সাংবাদিকতাই ছিল তার পেশা। তবে নিয়মিত ক্রিকেট ও ক্রীড়াঙ্গন নিয়ে কলাম লিখতেন। বেতারে সংবাদ পাঠক হিসেবেও কাজ করেছেন দীর্ঘদিন। ষাটের দশকে যাদের হাত ধরে এ অঞ্চলে বাংলা ক্রীড়া ধারাবর্ণনা শুরু হয়েছিল তাদের অন্যতম হলেন আবদুল হামিদ, আতিকুজ্জামান খাঁন এবং বদরুল হুদা চৌধুরী। পরবর্তিতে ১৯৬৩-৬৪ সালে বেতারে শুরু করেন ক্রীড়া ধারাবর্ণনা। একইসাথে বেতার ও টিভিতে ক্রীড়া ভাষ্যকার হিসেবে সুনামের সাথে প্রায় ৩০ বছরব্যাপী কাজ করেছেন বদরুল হুদা। ১৯৬৭ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত এমসিসি বনাম পাকিস্তান একাদশের তিনদিনের আনঅফিসিয়াল টেষ্ট ম্যাচে এবং ১৯৬৯ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত নিউজিল্যান্ড এবং পাকিস্তানের টেষ্ট ম্যাচে ধারাভাষ্য প্রদান করেন তিনি।


বাংলাদেশে স্পোর্টস কমেন্টেটরস ফোরামের সভাপতি আলফাজ উদ্দিন আহমেদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি শামিম আশরাফ চৌধুরী, সহ-সভাপতি ডা. অনুপম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ড. সঈদুর রহমান, সিনিয়র সদস্য নিখিল রঞ্জন দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সামসুল ইসলাম, সদস্য পলাশ খাঁন, ফোরামের সকল সদস্যবৃন্দ এবং খোদা বকস মৃধা ফ্যান ক্লাবের সদস্যবৃন্দ বদরুল হুদা চৌধুরীর ২য় মৃত্যুবার্ষিকীতে তাঁর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছেন।

লিখেছেন:

সামসুল ইসলাম

ক্রীড়া ধারাভাষ্যকার 

নিউজ ফ্ল্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

গুলশনে জঙ্গি হামলার পর থেকে নিরাপত্তা নিয়ে যথেষ্ট কঠোর হয়েছে সরকার। এবার কোনও ছাত্র স্কুল বা কলেজে একনাগাড়ে বেশিদিন অনুপস্থিত থাকলেও নেওয়া হবে রিপোর্ট। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোনও ছাত্র বা ছাত্রী ১০ দিন বা তারও বেশি অনুপস্থিত থাকলে তার পরিচয় যেন অবশ্যই শিক্ষামন্ত্রণালকে জানানো হয়।

শিক্ষা মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, “ইসলাম যে শান্তির পথ সে পথে ইসলামের প্রচার করুন, ছেলেমেয়েরা যেন ইসলামের কথা বোঝে।” তিনি বলেন, “আমরা চাই আমাদের ছেলেমেয়েদের ভালোবাসা দিয়ে স্নেহ-মমতা দিয়ে আকৃষ্ট করে ভালো পথে চালিত করা হোক”। এছাড়া পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের অন্যান্য কার্যক্রমের দিকেও খেয়াল রাখার জন্য শিক্ষকদের প্রতি আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী।

সম্প্রতি জঙ্গিবাদে জড়ানো ছাত্রদের পরিচয় পাওয়ার পর সরকারের পক্ষ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বেশিদিন অনুপস্থিত ছাত্রদের তথ্য চাওয়া হলো। গুলশন হামলায় জড়িত পাঁচ হামলাকারীর তিনজনই ছিল ঢাকার নামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। ওই হামলার কয়েকদিন পর ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া তিন জঙ্গির এক ভিডিওতে দেখা যায় ঢাকার এক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকে যিনি টেলিভিশনের জনপ্রিয় অনুষ্ঠানে গান গেয়েছেন। আর শোলাকিয়ার ঈদের জামায়াতে হামলাকারীদেরও একজন ছিল ঢাকার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। সেই ছাত্রও দীর্ঘদিন নিখোঁজ ছিল বলে পরিবার জানিয়েছে।

*গুলশানহামলা* *নজরদারী*

নিউজ ফ্ল্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বিশ্বখ্যাত ব্রান্ডেড পণ্যসমূহ বিশাল সমাহার নিয়ে ফ্যাশন হাউজ ‘এসএ ওয়ার্ল্ড’এর দ্বিতীয় এক্সক্লুসিভ শাখা উদ্বোধন হবে ঢাকার মিরপুরে আজ ২৪ জুন বিকাল ৪টায়। উদ্বোধন করবেন সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, এসএ গ্রুপ অব কোম্পানিজ ও এসএ ওয়ার্ল্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সালাহউদ্দিন আহমেদ এবং জনপ্রিয় মডেল নোবেল ও মৌ।


এসএ ওয়ার্ল্ডের প্রথম শাখা আত্মপ্রকাশ করেছে গত ৪ জুন চট্ট্রগ্রামের পূর্ব নাসিরাবাদে এসএ পরিবহন পার্সেল ও কুরিয়ার সার্ভিসের ভবনে।
এসএ গ্রুপ অব কোম্পানিজের সাফল্যের ধারাবাহিকতায় যুক্ত হয়েছে এসএ ওয়ার্ল্ড। এসএ ওয়ার্ল্ড মূলত আন্তর্জাতিক মানের একটি লাইফ স্টাইল শপ। বিশ্বখ্যাত ব্রান্ডেড পণ্যসমূহ বাংলাদেশের মানুষের হাতের নাগালে এনে দিতেই এসএ ওয়ার্ল্ডের যাত্রা। ঢাকার মিরপুর ৬ নম্বরে এসএ ওয়ার্ল্ড এর নিজস্ব ভবনে এই দ্বিতীয় শাখায় থাকছে নারী, পুরুষ ও শিশুদের জন্য আন্তর্জাতিকমানের আকর্ষণীয় পণ্য। গত ২২ জুন দুপুর ১.০০ টায় দ্বিতীয় শো রুম এর শুভ উদ্বোধন উপলক্ষে ২২ কাকরাইল এসএ পয়েন্ট এর ১৮ তলায় প্রেস কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন এসএ গ্রুপ অব কোম্পানিজ ও এসএ ওয়ার্ল্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সালাহউদ্দিন আহমেদ , এস গ্রুপের ডিরেক্টর সামসুল আলম পান্থ, এসএ চ্যানেলের সিওও সৈয়দ সালাহ উদ্দিন জাকী , এস এ গ্রুপের কো-অর্ডিনেটর হাসান মঞ্জুর এবং এসএ ওয়ার্ল্ডের জিএম পিনাকী চক্রবর্তী।

ছবি

নিউজ ফ্ল্যাশ: ফটো পোস্ট করেছে

সুশীল কৈরালা আর নেই

নেপালের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও নেপালি কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট সুশীল কৈরালা চলে গেলেন না ফেরার দেশে। মঙ্গলবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে নিজ বাসভবনে তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। কৈরালা ‘জিহ্বার ক্যান্সার’ ও ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ (সিওপিডি) রোগেও ভুগছিলেন। কিছুদিন আগেই ফুসফুসের ক্যান্সারের চিকিৎসা নিতে তিনি যুক্তরাষ্ট্রেও গিয়েছিলেন। চিকিৎসা সফল হয়েছে বলেও জানিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তিনি আর লড়ায়ে জয়ী হতে পারলেন না হার মানতে হলো মৃত্যুর কাছে। আগামীকাল বুধবার তার অন্তেষ্ট্যিক্রিয়া অনুষ্ঠিত হবে।

*চটখবর*
ছবি

নিউজ ফ্ল্যাশ: ফটো পোস্ট করেছে

বিলীন হয়ে যাবে সুন্দরবনের ‘সুন্দরী’গাছ

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে বিপদের মুখে সুন্দরবনের সুন্দরী গাছ। এমনটাই সতর্কবার্তা দিচ্ছেন পরিবেশবিদরা। আগামী ২০ বছরের মধ্যে এই গাছ সম্পূর্ণ বিলীন হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। গবেষকরা বলছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সঠিকভাবে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করতে না পারা ও সমন্বিত উদ্যোগের অভাবই এর জন্য দায়ী। এমনকি, সমুদ্রের উপকূলে তীব্রভাবে লবণাক্ততা বাড়ছে যার ফলে শুধু সুন্দরী গাছ নয় পুরো সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে পড়তে পারে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ বিষয়ে দুদিনব্যাপী একটি আন্তর্জাতিক কর্মশালায় এই সর্তক বার্তা দেওয়া হয়।

*সুন্দরবন* *সুন্দরীগাছ*
ছবি

নিউজ ফ্ল্যাশ: ফটো পোস্ট করেছে

মহাকাশেও যুদ্ধের প্রস্তুতি রাশিয়া-আমেরিকা-জাপান-চিনের

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এবার মহাকাশেও যুদ্ধ হওয়ার সম্ভবনা৷ এমনই এক চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ করল ওয়াশিংটন৷ তাদের অভিযোগ, রাশিয়া নাকি আমেরিকার বিরুদ্ধে মহাকাশ যুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে৷ সম্প্রতি পুতিন সরকারের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ তুলে ওবামা সরকার৷ মার্কিন সামরিক পর্যবেক্ষকদের মতে, ২০১৪ সালে মে মাস থেকে তিনটি কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠিয়েছে ক্রেমলিন। কিন্তু, সেগুলিকেই পরীক্ষামূলক অস্ত্র হিসেবে মনে করছে মার্কিন সামরিক বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের দাবি, কসমম-২৪৯১, ২৪৯৯ ও ২৫০৪ নামের এই তিন কৃত্রিম উপগ্রহকে যোগাযোগ উপগ্রহ হিসেবে মহাকাশে পাঠানো হয়েছে। এগুলি ‘গোয়েন্দা’ অর্থাৎ মার্কিন মুলুকে নজরদারির জন্য পাঠিয়েছে ক্রেমলিন। মহাকাশ যুদ্ধের প্রস্তুতি নেওয়ার জন্যই রাশিয়া উপগ্রহগুলি পাঠিয়েছে৷

*চটখবর*
ছবি

নিউজ ফ্ল্যাশ: ফটো পোস্ট করেছে

দিনাজপুরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে কয়লা খনি এলাকায় ট্রাক খাদে পড়ে ৪ জন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও ৫ জন। বুধবার ভোর ৪ টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের পরিচয় পাওয়া যায় নি। বড়পুকুরয়িয়া কয়লাখনি পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই ফেরদৌস জানান, কাঠ বোঝাই একটি ট্রাক ভোর ৪টার দিকে ফুলবাড়ী যাচ্ছিল। এ সময় ঘন কুয়াশা ও ঠান্ডার কারণে চালক ট্রাকটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। এতে ট্রাকটি রাস্তার ধারে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ৪ জন নিহত হয়। আহত হয় আরও ৫ জন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহত ও আহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

*দুর্ঘটনা* *চটখবর*
ছবি

নিউজ ফ্ল্যাশ: ফটো পোস্ট করেছে

অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৬

আগামীকাল থেকে শুরু হবে মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৬। বইমেলাকে ঘিরে বাংলা একাডেমী প্রাঙ্গণে চলছে শেষ মহুর্তের প্রস্তুতি। আয়োজকরা জানিয়েছে, অমর একুশে গ্রন্থমেলার পরিধি গতবারের তুলনায় এবার আরো বেড়েছে। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান জানান, এ বছর মেলায় সর্বমোট ৪০২টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে। গতবার অংশ নিয়েছিল ৩৫১টি প্রতিষ্ঠান। এবারে ১ ইউনিটের ১৯৮টি, ২ ইউনিটের ২৬৬টি এবং ৪ ইউনিটের ৭৬টি স্টল থাকছে। গতবছর ১ ইউনিটের ১৬৯টি, ২ ইউনিটের ২৪০টি এবং ৪ ইউনিটের ৪টি স্টল ছিল।

*বইমেলা* *বইমেলা২০১৬*
ছবি

নিউজ ফ্ল্যাশ: ফটো পোস্ট করেছে

বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০১৫

২০১৫ সালের বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছে। এ বছর বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন সাহিত্যের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখা ১১ জন বিশিষ্ট কবি, লেখক ও গবেষক। এবারের পুরস্কারপ্রাপ্তরা হচ্ছেন- কবিতায় আলতাফ হোসেন, কথাসাহিত্যে শাহীন আখতার, প্রবন্ধে যৌথভাবে আবুল মোমেন ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গর্ভনর আতিউর রহমান, গবেষণায় অধ্যাপক মনিরুজ্জামান, অনুবাদে আবদুস সেলিম, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সাহিত্যে তাজুল মোহাম্মদ, আত্মজীবনী/স্মৃতিকথা/ভ্রমণ সাহিত্যে সাবেক পররাষ্ট্র সচিব ফারুক চৌধুরী, নাটকে মাসুম রেজা, বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ও পরিবেশ বিভাগে শরীফ খান এবং শিশুসাহিত্যে সুজন বড়ুয়া। বিজয়ীরা প্রত্যেককে এক লাখ টাকা, ক্রেস্ট ও সনদপত্র প্রদান করা হবে।

*পুরস্কার* *সাহিত্যপুরস্কার* *চটখবর* *বাংলাএকাডেমি*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

আজকের
গড়
এযাবত
৩,৩৭৫

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

+ আরও