উদ্ভট কিন্তু সত্যি

@StrangeButTrue

আজব আর অদ্ভুতুড়ে
business_center প্রফেশনাল তথ্য নেই
school এডুকেশনাল তথ্য নেই
location_on লোকেশন পাওয়া যায়নি
1353929495000  থেকে আমাদের সাথে আছে
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

সম্পর্কের ২৪ ঘণ্টা আগে জানাতে হবে পুলিশকে!

ধর্ষণের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন, এমন একজন ব্রিটিশ নাগরিকের প্রতি সেদেশের আদালত আদেশ দিয়েছে যে, কোনো নারীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করার অন্তত ২৪ ঘণ্টা পূর্বে তাকে পুলিশকে জানাতে হবে। সেখানে সেই নারীর নাম, বয়স এবং ঠিকানাও জানাতে হবে। না হলে তাকে পাঁচবছরের জন্য কারাগারে যেতে হবে। আইনগত কারণে ৪০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ করা হয়নি। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা হলেও, ২০১৫ সালে তিনি সেই অভিযোগ থেকে মুক্তি পান। কারণ তিনি আদালতে প্রমাণ করতে পেরেছেন যে, ওই নারীর সম্মতিতেই তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক হয়েছিল।-ইত্তেফাক

*মজারখবর*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

চিকিৎসকের ঘুষিতে প্রাণ হারালেন রোগী!

মরা সবাই জানি মানুষ অসুস্থ হলে মানুষ হাসপাতালে যায় চিকিৎসার জন্য। কিন্তু হাসপাতালে গিয়ে যদি চিকিৎসকের হাতে মারধোর খেয়ে মরে যেতে হয় তবে? সম্প্রতি রাশিয়ায় এমনই এক ঘটনা ঘটেছে। রাশিয়ার এক হাসপাতালে ডাক্তারের ঘুষিতে প্রাণ হারিয়েছেন চিকিৎসার জন্য ভর্তি হওয়া এক রোগী। তাঁর নাম ইয়েভজেনি বাখতিন (৫৬)। এই গোটা ঘটনার ভিডিও ইউটিউবে আসার পর থেকে বিশ্বজুড়ে বেশ আলোড়ন তৈরি হয়েছে। ভিডিওটিতে দেখা গিয়েছে, হাসপাতালের এক নার্স ওই রোগীকে প্রথমে লাথি মারেন। এরপরই সেখানকার এক চিকিৎসক এসে অনবরত তার মাথায় ঘুষি চালান। এতে ওই ব্যক্তি অচেতন হয়ে পড়েন এবং পরে মারা যান। ভিডিও লিংক: https://www.youtube.com/watch?v=G6X5DloGfHk

*চটখবর*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

যৌন মিলনে আগ্রহী নন সাদা বাঘ(চিন্তাকরি)

সাদা বাঘের বংশবৃদ্ধি নিয়ে চিন্তিত ভারতের আলিপুর চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। চিড়িয়াখানার একটি সাদা বাঘের বংশবৃদ্ধির জন্য কর্মকর্তাদের নেয়া পরিকল্পনা কোনো কাজে আসছে না। কারণ দুর্লভ এই বাঘটি যৌনমিলনে আগ্রহী নয়। এজন্য তাকে যৌন ইচ্ছা বাড়ানোর ওষুধও সেবন করিয়েও কোন কাজ হচ্ছে না। চিড়িয়াখানা কর্মকর্তারা ১০ বছর বয়স্ক বাঘটিকে যৌনমিলন করানোর জন্য গত ছয় মাস ধরে চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন। বাঘটির নাম `বিশাল`। তার খাঁচার পাশেই এনে রাখা হয়েছে বাঘিনী `রূপা`কে। কর্মকর্তারা জানান, রূপা এর মধ্যে বিশালের সাথে মিলিত হবার জন্য কয়েকবার চেষ্টা করেছে, কিন্তু `লাজুক` বিশাল তাতে সাড়া দেয়নি।

*চটখবর*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

বয়স ৮১ বছর, ম্যাট্রিক দিয়ে ফেল করেছেন ৪৬ বার!

৮১ বছর বয়সেও দশম শ্রেণির ছাত্র শিবচরণ যাদব। এ পর্যন্ত তিনি ৪৬ বার ম্যাট্রিক দিয়ে ফেল করেছেন। তবে, পাশ না করা পর্যন্ত পরীক্ষা চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন যাদব। পরীক্ষায় পাশ না করায় এখনো তিনি বিয়েটা পর্যন্ত করেন নি। ৮১ বছর বয়সে ৪৬ বার পরীক্ষায় ব্যর্থ হলেও চেষ্টা চালিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর ভারতের রাজস্থানের আলওয়ার জেলার অশীতিপর বাসিন্দা। ২০১৪ সালের পরীক্ষায় প্রত্যেকটি বিষয়ে ফেল করেছিলেন শিবচরণ। এবারের ফল অবশ্য তার তুলনায় ভালো। কারণ সমাজ বিজ্ঞানে ১০০-এর মধ্যে ৩৪ নম্বর পেয়ে উতরে গিয়েছেন তিনি। এছাড়া হিন্দিতে ৩, ইংরেজিতে ০, অঙ্কে ৯ এবং সংস্কৃতে ৭ নম্বর পেয়েছেন তিনি। তবে ফেল করলেও নিয়ম করে প্রতিবছর রাজস্থান মধ্যশিক্ষা পর্ষদের দশম শ্রেণির পরীক্ষায় বসেন এই বৃদ্ধ। ইন্ডিয়ান টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ খবর জানা গেছে।

*লেখাপড়া* *পরীক্ষা* *চটখবর* *আজবখবর* *মজারখবর*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

নেচে গেয়ে ব্যাঙের বিয়ে!

পাঁচ শতাধিক অতিথির আপ্যায়ন, নাচ-গান, মাইকের বাজনা আর ধুমধাম আয়োজনের মধ্যদিয়ে দিনাজপুরে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো ব্যাঙের বিয়ে। এ বিয়েকে ঘিরে যেমন ছিলো উৎসবের আমেজ তেমনি ছিলো বেদনার নীল। অনাবৃষ্টির কারণেই এই বিয়ের আয়োজন। একটু বৃষ্টির আশায় পৌরানিক গল্পে অবতীর্ণ। কেউ কেউ বলছে আবহমান গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য। এ ব্যতিক্রমী ব্যাঙের বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিলো বিরল উপজেলার বেতুরা পশ্চিমপাড়া গ্রামে। শনিবার দিনব্যাপী চলে এ বিয়ের আয়োজন। বিয়েতে গ্রামবাসীসহ ৫ শতাধিক আমন্ত্রিত অতিথি উপস্থিত ছিলেন। রং মেখে নেচে-গেয়ে আনন্দ-ফুর্তির মাধ্যমে ব্যাঙের বিয়ে দেয়া হয়।

*চটখবর* *মজারখবর*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

মশলাদার খাবার মানুষের মৃত্যু-ঝুঁকি কমায় (ইয়েয়ে)(কিমজা)(জোস)

মশলাদার খাবার, বিশেষ করে তাজা মরিচ মানুষের মৃত্যুর ঝুঁকি কমায় এবং আয়ু বাড়াতে সাহায্য করে। এক চীনা গবেষণায় এই দাবি করা হচ্ছে। চীনা গবেষকরা সাত বছর ধরে সেদেশের প্রায় পাঁচ লাখ মানুষের খাদ্যাভ্যাস পর্যবেক্ষণ করেন। গবেষণায় তারা দেখেছেন, যারা প্রায় প্রতিদিন মশলাদার খাবার খায় তাদের মৃত্যুর ঝুঁকি যারা সপ্তাহে একদিনেরও কম খায় তাদের তুলনায় ১৪ শতাংশ কম। মশলাদার খাবারের সঙ্গে মৃত্যুর ঝুঁকি কমার রহস্যটা কোথায় সেটা গবেষকরা একেবারে সুনির্দিষ্ট করে বলতে পারছেন না। তারা ধারণা করছেন, রহস্যটা হয়তো লুকিয়ে আছে মরিচের মধ্যে।

*চটখবর* *মরিচ* *মজারতথ্য*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

কবর থেকে লাশ গায়েব (চিন্তাকরি)(ব্যাপকটেনশনেআসি)(চিন্তাকরি)(ব্যাপকটেনশনেআসি)

আদালতের নির্দেশে দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের জন্য কবর খুঁড়ে লাশ তুলতে যেয়ে সেখানে কোনো লাশ পায়নি পুলিশ। কবরে লাশ পাওয়া না গেলেও সেখানে মিলেছে কাফনের কাপড়, পলিথিন আর কয়েক টুকরো পাটের ক্ষুদ্রাকৃতির রশি। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।মঙ্গলবার (৪আগস্ট) দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে জেলার বিশ্বনাথ উপজেলার খাজাঞ্জি ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের কবরস্থান থেকে আব্দুল মনাফ নামে এক ব্যক্তির মরদেহ তুলতে যায় পুলিশ। বিশ্বনাথ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

*চটখবর* *কবর* *লাশগায়েব* *অদ্ভুত*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

সমুদ্রে মোটরসাইকেল চালিয়ে বিস্ময় তৈরি করলেন যুবক

মোটরসাইকেল নিয়ে সমুদ্রে সার্ফিং করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন রব্বি ম্যাডিসন নামের এক বাইকার। তিনি অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক। ৩৪ বছর বয়সী রব্বি অন্যদের তাক লাগিয়ে দিতে পছন্দ করেন। এই কাজে তার সুনামও রয়েছে। তাইতো টানা দুই বছর ধরে পানির ওপর দিয়ে মোটরসাইকেল চালানোর কৌশলটা রপ্ত করেছেন। রব্বি জানান, তিনি পদার্থবিজ্ঞান পড়েননি। তাই পদার্থবিজ্ঞানের ভরবেগকে তিনি তোয়াক্কা না করেই পানির ওপর দিয়ে মোটরসাইকেল চালান। পানির ওপর দিয়ে মোটরসাইকেল চালানোর জন্য তিনি তার বাইকটিকে বিশেষ ভাবে তৈরি করেছেন। এটি একটি এক্সএল ঘরানার স্পোর্টস বাইক। ফলে ওজনেও কিছুটা হালকা-পাতলা।

*চটখবর* *আজবখবর* *দুর্ধর্ষ* *সাহসী*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

ইঁদুরও মানুষের মতো ভবিষ্যত নিয়ে চিন্তা করে

কে বলে কেবল আমরাই শুধু স্বপ্ন দেখি? আমাদের মতো স্বপ্ন দেখে ইঁদুরেরাও। আমাদের থেকে বুদ্ধিতে হয়তো অনেক পিছিয়ে ইঁদুর, তবে আমাদের মতো তারাও নিজেদের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে ভাবে, এমনকী স্বপ্নও দেখে। সদ্য প্রকাশিত ব্রিটিশ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় বলা হয়েছে, মানুষের মতো হিপোক্যাম্পাস দিয়ে ইঁদুরও মানচিত্র অংকন করে। স্বল্পস্থায়ী স্মৃতি দিয়ে দীর্ঘস্থায়ী স্মৃতি তৈরি করার চেষ্টা করে তারা। আসলে স্বপ্ন কী সেই উত্তর খুঁজতে একসময় ইঁদুরের উপর পরীক্ষা করা হয়েছিল। দেখা গিয়েছিল ইঁদুর যখন কোনও কারণে গন্তব্যে পৌঁছতে পারে না তখন তারা মানুষের মতো মস্তিষ্কে একটা মানচিত্র একে নেয়। এবং সেই মানচিত্র দিয়েই তৈরি করে স্বপ্ন। মানুষও অনেকটা এভাবেই স্বপ্ন বানায়। তবে এখানেই শেষ নয়। কেবল অতীত নয়, আগামী বাঁ ভবিষ্যতের স্বপ্নও দেখে ইঁদুর।-কলকাতা ২৪

*খবর* *জানো* *চটখবর*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

মশার চাষ শুরু করেছে চীন! কিন্তু কেন(প্রশ্ন)

চীন এবার শুরু করছে মশার চাষ। বিন্দুমাত্র হেঁয়ালি নয়। রীতিমতো কারখানা তৈরি করে চলবে মশার উত্‍‌পাদন। সেই কারখানাটি আবার বিশ্বের বৃহত্তম কারখানার তকমা পেয়ে গিয়েছে ইতোমধ্যেই। প্রতি সপ্তাহে লাখ লাখ মশা ছাড়বে ওই কারখানা। উদ্দেশ্য, ডেঙ্গু প্রতিরোধ। এই কারখানায় জীবানুমুক্ত মশা তৈরি করা হবে। অর্থাত্‍‌ ডেঙ্গু-সহ নানা মশাবাহী রোগের নানা জীবানু মশার শরীর থেকে বের করে ছাড়া হবে। তাতে সাপও মরবে, লাঠিও ভাঙবে না। 'বিশুদ্ধ' মশা উড়বে। কামড়াবে, কিন্তু রোগের ভয় নেই। বাস্তুতন্ত্রেও বিঘ্ন ঘটছে না। উল্লেখ্য, গত বছরই চীনে প্রায় ৫০ হাজার মানুষ মশাবাহীত রোগে আক্রান্ত হন। প্রায় ২২ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়। বেশির ভাগই গুয়ানঝাউ প্রদেশে।

*চটখবর* *জানো* *মজারখবর*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

স্টিফেন হকিং ও বিল গেটসকে পেছনে ফেললো ১২ বছরের নিকোলা

বয়স মাত্র ১২ বছর। অথচ এই বয়সেই জার্মান বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইন, শতাব্দীর সেরা জীবন্ত ইংলিশ বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং কিংবা সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি বিল গেটসকে মেধায় ছাড়িয়ে গেছে নিকোলা বার! ইংল্যান্ডের এসেক্সের হার্লোয়ারের এই মেয়ে ইংলিশ প্রতিষ্ঠান মেনসার আইকিউ টেস্টে স্কোর করেছে ১৬২’র মধ্যে ১৬২! আইনস্টাইন, হকিং আর বিল গেটসের স্কোর ছিল ১৬০। নিকোলাকে নিয়ে তাই মাতামাতি চলছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমে। গত সপ্তাহে আইকিউ টেস্টের ফল পাওয়ার পর নিজের চোখকেই নাকি বিশ্বাস হচ্ছিল না নিকোলার। বিস্মভরা কণ্ঠে নিকোলঅ ইংলিশ দৈনিক মিররকে বলেন ‘১৬২-র মধ্যে ১৬২, সত্যিই অবিশ্বাস্য। বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছিলাম কিছুক্ষণ।’

*চটখবর* *জানো*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

গ্রামের প্রহরী মৃত্ মানুষের শুকনো শরীর (ভয়পাইসি)(ব্যাপকটেনশনেআসি)

সাগরের পাড়ে মাছের শুটকি দেয়ার প্রচলন থাকলেও দ্বীপদেশ পাপুয়া নিউগিনির মোরোবে গ্রামে প্রচলন রয়েছে অন্য কিছুর। যা দেখলে চোখ কপালে উঠবে আপনার। সারা বিশ্বে যেখানে মাছ-মাংসের শুঁটকি দেয়া হয় সেখানে মোরোবে গ্রামে দেয়া হয় আস্ত মানুষের শুঁটকি! মোরোবে গ্রামে কেউ মারা গেলে মৃত মানুষটির শরীর থেকে সব চর্বি বের করে নেয়া হয়। এরপর মৃতদেহটিকে শুটকি করার সমস্ত প্রাথমিক কাজ সম্পন্ন করে একেবারে গ্রামের সামনে নিয়ে লম্বা বাঁশের তৈরি কোনো মঞ্চে সুন্দর করে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। আর মৃতদের দেহ থেকে বের করে আনা চর্বি ব্যবহার করা হয় রান্নাবান্নার কাজে! পাপুয়া নিউগিনির সরকার ১৯৭৪ সালে এইভাবে মানুষ শুটকি দেয়ার প্রথাটি সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। কিন্তু সরকারের কথা অমান্য করে এখনও এই নিয়ম মেনে চলে আঙ্গা জনগোষ্ঠি।

*চটখবর* *মৃত* *মানুষশুকানো* *আজবরীতি*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

প্রাইভেট কারে চড়ে ভিক্ষা, মাসে আয় লাখ টাকা (ব্যাপকটেনশনেআসি)(ব্যাপকটেনশনেআসি৩)(বেইলনাই)

আমাদের দেশের একটা ভাল চাকরীর বেতন প্রতিমাসে ৩০ হাজার টাকা বা তার চেয়ে একটু বেশি কিংবা কম, এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে। তবে ভিক্ষা করে এর চেয়ে চারগুণ আয় করা সম্ভব তার জ্বলন্ত উদাহরণ রফিক নামে এক ভারতীয় ভিক্ষুক। এই ভিক্ষুক ভিক্ষা করে মাসে আয় করেন এক লাখ টাকারও বেশি। এখানেই শেষ নয়, পায়ে হেঁটে নয় প্রাইভেটকারে চড়ে ভিক্ষা করতে আসেন। এমন অভিনব ঘটনা অহরহ তো দেখতে পাওয়া যায় না। দেখতে হলে আপনাকে যেতে হবে ভারতের মধ্যপ্রদেশের খারগাঁও শহরে। সেখানেই দেখা মিলবে এই কর্পোরেট ভিখারির।

*ভিক্ষুক* *চটখবর* *আজবদুনিয়া* *ফকির* *কোটিপতিফকির*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

রসগোল্লা নিয়ে বাংলা-ওড়িশার টানাটানি (চিন্তাকরি)(ব্যাপকটেনশনেআসি)(ব্যাপকটেনশনেআসি)(ব্যাপকটেনশনেআসি৩)

এবার ভারতে দেখা দিয়েছে নতুন বিতর্ক। এতে রস ঢালছে রসগোল্লা। আর ইতিহাস নিজেদের করে নিতে শুরু হয়েছে রীতিমতো টানা হেঁচড়া। এই নয়া বিতর্কের মূলে রয়েছে- রসগোল্লার উৎপত্তি কোথায়? বাংলায় না ওড়িশায়? এই নিয়ে এখন নতুন এক 'পেটেন্ট বিতর্ক' শুরু হতে যাচ্ছে ভারতে। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কলকাতার ময়রা নবীনচন্দ্র দাশ ১৮৬৮ সালে প্রথম রসগোল্লা উদ্ভাবন করেন বলে অনেক ইতিহাসবিদই স্বীকৃতি দিয়েছেন, তবে এখন ভারতের ওড়িশা সরকার রসগোল্লার জন্য ‘ভৌগোলিক সূচকে’র দাবি পেশ করতে চলেছে – যা পেটেন্টের সমতুল্য।

*রসগোল্লা* *চটখবর* *রসবিতর্ক* *ইতিহাস* *মিষ্টি*
ছবি

উদ্ভট কিন্তু সত্যি: ফটো পোস্ট করেছে

রক্তপিপাসু ভয়ংকর এক গাছের কথা (ব্যাপকটেনশনেআসি)(ভয়পাইসি)(নাআআআ)(ঘটনাটাকি)

এই পাতাহীন গাছ মূলত সোমালিয়ার পুন্তল্যান্ড অঞ্চলের বোসাও শহরে জন্মায়। দেশটির এই প্রান্তে যদি কাউকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয় তাহলে প্রথমেই অভিযুক্ত ব্যক্তিকে ওই গাছের সঙ্গে বাধা হয়। অভিযুক্তের হাত গাছটির পেছনে বেধে এরপর গুলি করে হত্যা করা হয়। কেউ বলতে পারে না, কখন এবং কে এই গাছটি এখানে লাগিয়েছিলেন। কিন্তু এখন এই গাছটিকে সোমালিয়ায় অভিশপ্ত গাছ হিসেবেই ধরা হয়। অগুনতি মানুষের রক্তের দাগ লেগে আছে এই গাছেদের শরীরে। যে কারণে সোমালিয়ার বয়স্ক ব্যক্তিরা এই গাছটিকে রক্তপিপাসু গাছ বলেও অভিহিত করেন।

*চটখবর* *মৃত্যুবৃক্ষ* *রক্তপিপাসু* *আজবগাছ*

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

আজকের
গড়
এযাবত
৫৯১

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত