সমুদ্র তীর

@somudraTir

সমুদ্র তীর এ হাটছি একা ...
business_center প্রফেশনাল তথ্য নেই
school এডুকেশনাল তথ্য নেই
location_on লোকেশন পাওয়া যায়নি
1407152102000  থেকে আমাদের সাথে আছে

সমুদ্র তীর: [বসন্ত-একতোড়াফুল] আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ ঈদ মুবারক! "তাকাব্বাল আল্লাহু মিন্না ওয়া মিনকুম" আল্লাহর অশেষ রহমতে রমজানের এক মাস তাকওয়া অর্জন করার ট্রেনিং শেষ করে বাকি এগারো মাস চলার চার্জ নিয়ে পথ চলতে শুরু করলাম I বেশতো বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন ?

সমুদ্র তীর: বেশি আয়ের মাস, বেশি কামাই করার মাস, নিজেকে তৈরী করার মাস, শৃঙ্খলা জীবন গড়ার মাস, কুরআন শিক্ষা করার মাস, গুনাহ মাফ করার মাস, নামাজ প্রতিষ্ঠার মাস,পরবর্তী ১১মাস ভালো ভাবে জীবন চালানোর কোচিং I এই রমজান মাসে শুধুই ইবাদত I বোনাস লুফে নেউ.. *রোজারপ্রস্তুতি*

জোকস

সমুদ্র তীর: একটি জোকস পোস্ট করেছে

গতকালকের পত্রিকার প্রধান শিরোনাম ........... পার্কে মর্নিং ওয়ার্ক করতে আসা এক ভদ্র মহিলাকে কতগুলো যুবক ডিস্টাব করেছে .....(ব্যাপকটেনশনেআসি) আজকের পত্রিকার প্রধান শিরোনাম ........... সেই পার্কে মহিলাদের কি ভীর..কি ভীর..কি ভীর ... (খিকখিক)
জোকস

সমুদ্র তীর: একটি জোকস পোস্ট করেছে

একদিন যোগ বেয়ামাগার এর সামনে দিয়ে যাবার সময় দেখি একটি চিরকুট পরে আছে , চিরকুট টা তুলে দেখি তাতে লেখা .... " মেয়েরা ছোট ছোট পোশাক পরে যোগ বেয়াম করবেননা " ইতি--- অতি অল্প বয়সের জেলে যেতে না চাওয়া এক যুবক (খিকখিক)

সমুদ্র তীর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আইরিন আসাদ : বিয়ের ২১ বছর পর আমার স্ত্রী আমাকে বলল অন্য একজন মহিলাকে নিয়ে বাইরে বেড়াতে ও খেতে নিয়ে যেতে। সে বলল, “আমি তোমাকে ভালবাসি, কিন্তু আমি জানি এই মহিলাটিও তোমাকে ভালবাসেন এবং তিনি তোমার সাথে একান্তে কিছু সময় কাটাতেও ভালবাসবেন।”

আমার স্ত্রী যার সাথে আমাকে বাইরে যেতে বলছিল, তিনি ছিলেন আমার মা, যিনি ১৯ বছর আগে বিধবা হয়ে গেছেন; কিন্তু আমার কাজের চাপ আর তিন সন্তানের দায়িত্বের কার…নে শুধু কোন উপলক্ষ হলেই তার সাথে আমার দেখা হওয়া সম্ভব হত।

সেই রাতে আমি মাকে ফোন করে একসাথে বাইরে বেড়াতে ও খেতে যাওয়ার আমন্ত্রন জানালাম। তিনি প্রশ্ন করলেন, ‘কি ব্যপার বাবা, তুমি ভাল আছ তো?’

আমার মা হলেন এমন একজন মানুষ যিনি গভীর রাতে ফোন কল বা আকস্মিক দাওয়াতকে কোন দুঃসংবাদ বলে আগাম আশঙ্কা করেন। মায়ের প্রশ্নে আমি বললাম, ‘ভাবছি তোমার সাথে কিছু ভাল সময় কাটাবো মা। শুধু তুমি আর আমি।’ তিনি এক মুহূর্ত ভাবলেন, তারপর বললেন, “এমন হলে আমার খুবই ভাল লাগবে বাবা।”

কাজ শেষে সেদিন যখন ড্রাইভ করে মাকে তুলে নিতে গেলাম, কিছুটা নার্ভাস বোধ করছিলাম। যখন সেখানে পৌঁছলাম, খেয়াল করলাম, তিনিও যেন এভাবে দেখা করার জন্য কিছুটা নার্ভাস। তিনি রেডি হয়ে দরজার কাছেই অপেক্ষা করছিলেন। তার চেহারা ছিল দ্যুতিময় হাসি।

গাড়িতে উঠতে উঠতে তিনি বললেন, ‘আমি আমার বন্ধুদের বলেছি যে আমি আমার ছেলের সাথে বেড়াতে যাচ্ছি; তারা শুনে খুবই খুশী হয়েছে। আমাদের সাক্ষাতের বর্ণনা শোনার জন্য তারা অধীর ভাবে অপেক্ষা করছে।’

আমরা যে রেস্তোরাঁয় গেলাম, সেটা খুব দামী না হলেও বেশ ভাল আর আরামদায়ক ছিল। আমার মা আমার বাহু ধরে ছিলেন, যেন তিনি একজন ‘ফার্স্ট লেডী’। বসার পরে আমাকেই মেনু পড়ে শোনাতে হল। তিনি শুধু বড় লেখা পড়তে পারতেন। অর্ধেক পড়ে শোনানোর পর মুখ তুলে তাকিয়ে দেখলাম, তিনি তাকিয়ে শুধু আমাকে দেখছেন। তার ঠোঁটে এক নস্টালজিক হাসি। তিনি বললেন, ‘তুমি যখন ছোট ছিলে, আমাকে মেনু পড়ে শোনাতে হত।’ আমি বললাম, ‘এখন তাহলে সময় এসেছে যেন তুমি আরাম কর আর আমাকে সুযোগ দাও তোমার সেই কষ্টের প্রতিদান কিছুটা হলেও দেওয়ার।’

খেতে খেতে আমরা সাধারন নিত্যনৈমিত্তিক কথা বার্তা বললাম- বিশেষ কিছু না, জীবনের নতুন নতুন ঘটে যাওয়া ঘটনাবলী একজন আরেকজনকে জানালাম। আমরা অনেকক্ষন গল্প করলাম। পরে যখন মাকে তার বাসায় নামিয়ে দিচ্ছিলাম, তিনি বললেন- “আমি তোমার সাথে আবার বেড়াতে যাব, কিন্তু দাওয়াতটা আমি দেব।” আমি রাজী হলাম।

যখন ঘরে ফিরলাম, আমার স্ত্রী প্রশ্ন করল, ‘তোমার সাক্ষাত কেমন কাটল?’ জবাব দিলাম, ‘ভীষণ ভাল, আমি যেমন ভেবেছিলাম তার চেয়েও অনেক ভাল।’

কিছুদিন পর আমার মা হঠাৎ হার্ট অ্যাটাকে মারা গেলেন। এটা এমন আকস্মিকভাবে ঘটলো যে তার জন্য আমার কোন কিচ্ছু করার সুযোগও হল না। কিছুদিন পর একটা খাম আসলো আমার কাছে। ভেতরে একটা সেই রেস্তোরাঁর রিসিট যেখানে মাকে নিয়ে খেতে গিয়েছিলাম। সাথে একটি ছোট্ট চিঠি, তাতে লেখা-

‘আমি এই বিলটি অগ্রিম আদায় করে দিয়েছি, জানিনা তোমার সাথে আবার সেখানে যেতে পারতাম কিনা; যাইহোক আমি দুই জনের খাবারের দাম দিয়ে দিয়েছি- একটা তোমার আরেকটা তোমার স্ত্রীর জন্য। তুমি কখনও বুঝবে না সেই রাতটি আমার জন্য কত বিশেষ ছিল। তোমাকে অনেক ভালবাসি বাবা।’

সেই মুহূর্তে আমি বুঝতে পারলাম, সময়মত ‘ভালোবাসি’ কথাটা বলতে পারা এবং প্রিয় মানুষগুলোকে কিছুটা একান্ত সময় দেওয়া কতটা জরুরী। জীবনে নিজের পরিবারের চেয়ে বেশী গুরুত্বপূর্ণ আর কিছুই নেই। তাদেরকে তাদের প্রাপ্য সময়টুকু দিন, কারন এগুলো কখনও ‘পরে কোন এক সময়’ এর জন্য ফেলে রাখা যায় না।

আল্লাহ যেন আমাদের সবার মাদেরকে যারা জীবিত আছেন এবং মারা গেছেন, তাদের উপর রহমত বর্ষণ করেন। আল্লাহ যেন আমাদের সবাইকে তাদের জন্য দয়া, ধৈর্য এবং ভালবাসা দান করেন। “রব্বির হামহুমা কামা রব্বায়া-নি সগীরা” (ফেসবুক হতে সংগৃহিত)

 

*মা* *সন্তান*

সমুদ্র তীর বেশব্লগটি শেয়ার করেছে
"হে আল্লাহ বিতারিত শয়তান থেকে রক্ষা করুন....."

ইবলিশ শয়তান আল্লাহকে ৬ লক্ষ বছর ইবাদত করেছিল, আর যখন তাকে শয়তান বলে আরশ থেকে বের করে বা নিক্ষিপ্ত করা হচ্ছিল তখন সে বলেছিল, আমি যত বছর আপনার ইবাদত করেছি এর পরিবর্তে আমি যা চাই তা দিতে হবে । আল্লাহ বললে তুই কি চাস, উত্তরে সে বলল...
.
শয়তানঃ- হে আল্লাহ! আপনি আমাকে পৃথিবীতে মারদুদ হিসেবে নিক্ষেপ করছেন। আমার জন্য একটি ঘর বানিয়ে দিন...
.
আল্লাহ পাক বলেনঃ- তোমার ঘর হাম্মাম খানা!
.
শয়তানঃ- একটি বসার জায়গা দিন...
.
আল্লাহ পাক বলেনঃ তোমার বসার জায়গা বাজার ও রাস্তা!
.
শয়তানঃ- আমার খাওয়া প্রয়োজন...
.
আল্লাহ পাক বলেনঃ তোমার খাওয়া ঐ সব জিনিস যাতে আল্লাহর নাম নেওয়া হয় না!
.
শয়তানঃ- আমার পানীয় প্রয়োজন...
.
আল্লাহ পাক বলেনঃ নেশাদ্রব্য তোমার পানীয় !
.
শয়তানঃ আমার দিকে আহবান করার কোন মাধ্যম দিন...
.
আল্লাহ পাক বলেনঃ নাচ গান বাদ্য/বাজনা তোমার দিকে আহবান করার মাধ্যম !
.
.
শয়তানঃ- আমাকে লিখার কিছু দিন...
.
আল্লাহ পাক বলেনঃ শরীরে দাগ দেওয়া (উল্কি / ট্যাটু অংকন করা)!
.
শয়তানঃ- আমাকে কিছু কথা দিন...
.
আল্লাহ পাক বলেনঃ মিথ্যা বলা তোমার কথা!
.
শয়তানঃ- মানুষকে বন্দি করার জন্য একটি জাল/ফাঁদ দিন...
.
আল্লাহ পাক বলেনঃ তোমার জাল/ ফাঁদ হলো বেপর্দা নারী।
.
রেফারেন্সঃ
গ্রন্থঃ তিবরানী, অধ্যায় : মাজমাউজ্জা ওয়ায়েদ হাদিস নম্বরঃ ২/১১৯

ছবি

সমুদ্র তীর: ফটো পোস্ট করেছে

বাহ্ বাহ্ ..কেয়া শায়েরী ...

(হাসি২)

সমুদ্র তীর বেশব্লগটি শেয়ার করেছে

হজরত ফাতিমা (রাঃ) এর ইন্তেকালের পর
তাঁর লাশের খাটিয়া বহন করার মানুষ মাত্র তিনজন। হজরত
আলী (রাঃ) এবং শিশু হাসান ও হোসাইন (রাঃ)। হজরত আলী
(রাঃ) ভাবছিলেন যে, খাটিয়া বহন করার জন্য মানুষ আরও একজন প্রয়োজন তবেই চার কোনায় চারজন কাঁধে নিতে
পারবেন।
,
এমন সময় হজরত আবু জর গিফারী (রাঃ) এলেন ও খাটিয়ার এক
কোনা বহন করলেন।
হজরত আলী প্রশ্ন করলেন, আমি তো কাউকে জানাইনি, আপনি জানলেন কিভাবে ?
,,
হজরত আবু জর গিফারী (রাঃ) বলেন, আমি
আল্লাহর রসূল (সঃ) কে স্বপ্নে দেখেছি।
তিনি বললেন, হে আবু জর ! আমার ফাতিমার
লাশ বহন করার লোকের অভাব, তুমি গিয়ে একটু ধর। ,,,
হজরত আবু জর গিফারী (রাঃ) কবরের কাছে
গিয়ে বললেন, "হে কবর, আজ তোমার মধ্যে কে আসছে জান ?
দো জাহানের বাদশাহের মেয়ে, হজরত আলীর স্ত্রী, হাসান ও
হোসাইনের মা,
জান্নাতের সর্দারনী, খবরদার কবর বেয়াদবি করোনা। ,,,,
আল্লাহ্ কবরের জবান খুলে দিলেন,
কবর বলল, "আমি দো জাহানের বাদশাহের
মেয়েকে চিনিনা, হজরত আলীর স্ত্রীকে
চিনিনা, হাসান ও হোসাইনের মাকে চিনিনা, জান্নাতের
সর্দারনীকে চিনিনা, আমি শুধু চিনি- ঈমান আর আমল।"
,,,,
একটু চিন্তা করে দেখুন-
যদি নবী (সঃ) এর আদরের মেয়ে যাকে
জান্নাতের সর্দারনী বলা হয়েছে। তার জন্য যদি কবর এমন
হয় ! তাহলে আমরা কিসের আশায় কি চিন্তা করে আল্লাহর হুকুম থেকে এতো গাফেল (ভুলে) আছি।
আল্লাহ্ আমাদের ঈমান ও নেক আমল নিয়ে
কবরে যাবার তৌফিক দান করুন।
(আমীন
খবর

সমুদ্র তীর খবরটি শেয়ার করেছে
"[বাঘমামা-হাহাহা] কোনো মামলা নাই ...কোনো তত্পরতা নাই ..কোনো ধরপাকর নাই ..মন্ত্রীর মন্তব্য নাই ...কোনো টকশো নাই.. রেবের কোনো অভিযান নাই ..."

বাংলাদেশ ব্যাংকের টাকা ফিলিপাইনের জুয়ার বাজারে! - BBC বাংলা
http://www.bbc.com/bengali/news/2016/03/160309_bangladesh_bank_money_hacking_philipines?SThisFB
এই চুরি যাওয়া অর্থ কিভাবে হাত বদল হয়েছে তার একটা মোটামুটি চিত্র দিয়েছে ফিলিপাইনের একটি পত্রিকা । ‌কিভাবে ঘটলো এটি? ...বিস্তারিত
১৯৮ বার দেখা হয়েছে
ছবি

সমুদ্র তীর ফটোটি শেয়ার করেছে
"মানতে হবে , মানতে হবে (চিৎকার) "

এক দফা

এক দাবী

ছবি

সমুদ্র তীর: ফটো পোস্ট করেছে

?

জোকস

সমুদ্র তীর: একটি জোকস পোস্ট করেছে

মানুষের জীবন দুঃক্ষ কষ্টে মিশে আছে .. অনেক বড় বড় ঘটনা যেমন আপনাদের দুঃক্ষকে বাড়িয়ে দেয় ঠিক তেমনি অনেক ছোট ঘটনাও আপনাদের জীবনেও দুঃক্ষ ডেকে আনতে পারে .. - - - একটা আলপিনের উপর বসে দেখুননা .... (খিকখিক)(খিকখিক)
জোকস

সমুদ্র তীর: একটি জোকস পোস্ট করেছে

(হাসি২)

সমুদ্র তীর: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

অপ্রিয় সত্য
জ্যামের সময় যখনি বাস থেকে নামতে যাবেন তখনি বাস টা চলতে শুরু করে ...

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

আজকের
গড়
এযাবত
৮,৩৯৮

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

+ আরও