এ. আর. খান

@sopnoki

আমি......আমিই!!!!!
business_center প্রফেশনাল তথ্য নেই
school এডুকেশনাল তথ্য নেই
location_on লোকেশন পাওয়া যায়নি
1367846498000  থেকে আমাদের সাথে আছে
৫/৫

এ. আর. খান: আর কোনদিন সকাল দেখব না.. দেখব না ব্যাস্ত দুপুর পড়ন্ত বিকেল একলা সন্ধ্যা অথবা নির্ঘুম রাত.. কারণ.. আমার রাত দিন হয়ে যাবে এক চোখ মেলতে হবে না আর শেষ ঘুমেই শেষ হবে নির্ঘুম রাত.. হয়তো এই আমার বলা শেষ সুপ্রভাত!! সুপ্রভাত!!...সুপ্রভাত!!...সুপ্রভাত!!

এ. আর. খান: পৃথিবীতে সবচেয়ে দূর্লভ বস্তু হল নিঃশর্ত স্নেহ-ভালোবাসা মাতৃতুল্য সেই ভালোবাসা হারিয়ে যাওয়ার উপক্রম হলে মনোঃকষ্ট এতটাই হয় যে অসহ্য শারীরিক যন্ত্রনাও এই কষ্টের কাছে কিচ্ছু না.. আজকের সকালটা আমার জন্য শুভ হবে কিনা জানি না.. ্তবু বাকি সবাইকে শুভসকাল!

৫/৫

এ. আর. খান: সারাক্ষণই হাহা হেহে হিহি করতে থাকি,সে যা কিছু হোক না কেনো.. কি অফিসে, কি ভার্চুয়ালে...সব জায়গায়..হাহাহা.. এজন্যই বোধহয় দুঃখ-কষ্ট গুলোও সাইকেল পুরণ করার জন্য সাথে সাথে ঘোরে! হাহাহা. ঐ যে কথায় আঠছে না- "যত হাসি তত কান্না!" হাহাহা স্বভাবটা বদলানোর সময় এসেছে বোধ হয় এবার! তার আগে শেষবার হেসে নিই! হেহহে..হিহিহি..হাহাহা..হোহোহো(খুশী২)(হাসি২)(হাসি-৩)

*নোদাইসেলফ*
৫/৫

এ. আর. খান: [গ্রীষ্ম-কিগরম] আমি একখান সার্টিফেয়েড(বস) মস্ত বড় হতচ্ছাড়া(ছাগল) স্বভাব হইল নিজের পায়ে(রাগী) নিজে নিজে কুড়াল মারা(চাপাতি) উল্টাসিধা কয়া ফালাই(রাগারাগি) হইলে বেরেন আউট(মাইরালা২) আপন মানুষ মুখ ফিরায়(বেইলনাই) লাগে দিলে বাউট(মাইরালা) (নাআআআ)(আম্মুউউউ)

*নোদাইসেলফ*

এ. আর. খান পোস্টটি শেয়ার করেছে ""নামহীন অধিকার"....দারুন কথা!...আসলেই...নামহীন অধিকার গুলোই সম্পর্কের শেকড়.."

মৃন্ময়ী সাবিহা: নামহীন কিছু অধিকারবোধ আছে,,সময়ের সাথে যা কারো কারো জন্য তৈরী হয়ে যায়! আমি চাই,সেই নামহীন অধিকার গুলো বেচেঁ থাকুক সারাজীবন (খুবকিউটলাগছে)

এ. আর. খান: জোকারি করে মানুষকে হাসানো যায়..কিছু সময়ের জন্য তার হাসি-আনন্দের সামগ্রী হয়ে থাকা যায় বটে.. কিন্তু স্নেহের দাবি নিয়ে দাঁড়ানো যায় না আনন্দের উপলক্ষ বদলে গেলে জোকারের প্রতি আগ্রহ সেখানেই শেষ! এরপর চোখের পানিতে মুখের রংচং সব ধুয়ে যেতে শুরু করে(হাসি২)

৫/৫

এ. আর. খান: মানুষ মাত্রই অতৃপ্তি নিয়ে মরে যায়(দুঃখ) কিন্তু কারো কারো জন্য অতৃপ্তির মাত্রাটা বেশিই...বিশষ করে, যে জানে তার হাতে সময় বড্ড অল্প!!(মনখারাপ) বাকিরা তো তবু কোন এক সময়ের আশায় বাঁচে.. কিন্তু ঐ মানুষটার তো আর আশা করার মত সময়ই থাকে না.. নির্মম!(কান্না)

এ. আর. খান বেশব্লগটি শেয়ার করেছে

 রাফিন প্লাজার বাইরে এসে ইচ্ছে হল একটু সিড়িতে বসে জাহাঙ্গীর ভাইয়ের সাথে গল্প করি। কোচিং শেষ করে বের হওয়ার পর এটা এখন আমার নিয়মিত কাজই বলতে হবে। গিয়ে দেখি তার বড় ভাই দোকান সামলাচ্ছে। অবশ্য একটু পরই তিনি হাজির হলেন। পেশায় তিনি সিগারেট বিক্রেতা। সাথে লাইটার সহ ধূমপানের আরো অন্যান্য অনুষঙ্গিক বিষয়। আজকে যখন বসে আমি তখন দেখি এক ছেলে এসে "সিগারেট পেপার" চাইছে। আমি ধূমপান করি না। তার পরও এর অনেক কিছুই জানি। কিন্তু সিগারেট পেপার শব্দটা আমার কাছে নতুন লাগল। তাই জানতে চাইলাম বিষয়টা কি? তিনি যা বললেন তার সারমর্ম করলে দাঁড়ায়, "এটা নিয়ে বেশীর ভাগ মানুষ গাজা বানিয়ে খায়। অন্যরা একটু করা তামাক পাতা মিশিয়ে খায়। সিগারেট খুলে বের করে আাবর ঢুকানো ঝামেলার তাই এটা ব্যবহার করা হয়।' বুঝে একটু আহত হলাম। ধূমপানের ক্ষতি সম্পর্কে আমরা বুঝার পরও এর প্রতি আমাদের আসক্তি বাড়তেই আছে। আমাদের বোধ বলতে কি কিছু নেই। এরপরও আমাদের গল্প চলতে থাকে। তিনি একসময় হাসি মুখেই বললেন, "এখনতো আমাদের ব্যবসা আরও ভাল। মেয়েরাও সিগারেট খাওয়া শুরু করেছে। আমাদের এখানে এসে মেয়েরা ওপেন সিগারেট কিনছে, নিজেরা কিনছে, বয়ফ্রেন্ডকে কিনে দিচ্ছে। আমাদের এখানেই ওপনে সিগারেট ধরিয়ে টানতে টানতে চলে যাচ্ছে।" মেয়েদের সিগারেট খাওয়ার বিষয়টা আমি নিজেও লক্ষ্য করেছি। সত্যি বলতে কি ছেলেদের সিগারেট খাওয়াটাই আমার কাছে চির অসহ্য। সিগারেট খোরদের আমি কি পরিমানে ঘুরিয়ে অপমান করি তা বুঝতে হলে আমার সাবেক পরিচালককে জিজ্ঞাসা করতে হবে। তার উপর মেয়েদের সিগারেট খাওয়া বেড়ে যাচ্ছে। তারাও এই গু খাওয়া শুরু করেছে! কি আর বলবো। নিজের বুকের কষ্ট নিজের ভিতর রেখেই সেখান থেকে উঠে গেলাম। আর কথা বলতে ইচ্ছে করছিল না। ----------------------------- ইটিভি যখন প্রথমবার চালু হয় তখন এর কয়েকটা অনুষ্ঠান আমি মনোযোগ দিয়ে দেখতাম। তার মধ্যে বিশ্বের ইতিহাস নিয়ে একটা অনুষ্ঠান হত। সেখানে শিল্প বিপ্লবের পর নারীদের ক্ষমতায়ন নিয়ে দেখানো হয়েছিল। আমার এখনো স্পষ্ট মনে আছে নারীদের বিষয়ে বলতে গিয়ে বলেছিল্, "নারীরা পুরুষের সমকক্ষ হতে গিয়ে শুধু তাদের ভাল গুণগুলোই নেইনি। তাদের খারাপ গুণগুলোও নিজেদের মাঝে নেওয়া শুরু করে। যেমন ধূমপান, মদ পান ইত্যাদি। পরবর্তীতে নারীদের জন্য এই জিনিষগুলোর ক্ষতির দিক বিবেচনা করে এগুলোর প্রতি তাদের ঝোঁককে অনুৎসাহিত করা হয়।" যে কারণেই হোক পরবর্তীতে নারীদের সিগারেট খাওয়াটা প্রায় ছিল নাই বলতে গেলে। কিন্তু বর্তমানে আধুনিক, শিক্ষিত নারীদের যখন সিগারেট খেতে দেখছি তখন কি কষ্ট অনুভব করি তা বলে বুঝাতে পারবো না। এমনিতেই ছেলেদের সিগারেট খেতে মানা করতে করতে ক্লান্ত। তার উপর যখন দেখবো আশে পাশের মেয়েরাও সিগারেট খাচ্ছে তখন সেটাকে আমি কিভাবে নিব ভেবে পাচ্ছেলাম না। এটাই কি আমাদের মূল্যবোধ! আমরা আধুনিকতার নামে যা করবো তাই কী সঠিক হবে?

এ. আর. খান: রুনা লায়লার জন্মদিন আজ...তাঁর ক্যারিয়ারে শুরুর দিককার একটি বিরল টেলিভিশন প্রোগ্রাম দেখে নিন! http://www.youtube.com/watch?v=Jnbf6m51AaU

৫/৫

এ. আর. খান: অর্ডার দিয়েছিলাম লাল চা আর খাচ্ছি কন্ডেন্সড মিল্ক(ভেঙ্গানো২) মানুষ আজব প্রাণী! সুনসান,বিপদ ভরা রাতের হাইওয়েতে টং দোকানে বসে কন্ডেন্সড মিল্কে আঙুল মাখিয়ে হারানো শৈশব খোঁজে(হাসি২) অথচ যাদের স্নেহ মনে মেখে শৈশব ফিরে আসে তারা অকারণে দেয় পর করে(কান্না২)

এ. আর. খান: একটি প্রশ্ন শেয়ার করেছে "থামমমমমমমমমম..দাগ লাগাইলি কেমতে হেইডে ক..কার লগে আচারের বয়াম লয়া আছাড় খাইছিলি অ্যাঁঅ্যাঁঅ্যাঁ??????!!!!!(শয়তানিহাসি)"

 শার্টে আচারের দাগ পরেছে। দাগ দূর করার জন্য কি করতে পারি?

১ টি উত্তর আছে

এ. আর. খান: আমি আছি চারপাশে দৃশ্য কিংবা অদৃশ্য জানি যদিও,বাকিদের ভীড়ে আমি এক অস্পৃশ্য সকাল বিকাল বা রাতের খেলনা এখন আর আমি নই স্নেহময়ী তবু তোমার আশায় চোখ ভিজিয়ে বসেই রই চোখ কখনো দেখেনি শুধু অনুভব করেছে রক্ত স্নেহময়ী তুমি ছাড়া তাই নিঃশ্বাস নেওয়া শক্ত

এ. আর. খান: যাকে বড্ড প্রয়োজন,মাথা কুটে মরেও তার কাছে যাওয়া যায় না..কিন্তু বাকি দুনিয়ার জন্য তার দরজা খোলা(দুঃখ) অথচ বাকিদের কাছে তার এই দরজা খোলা বা বন্ধ থাকার কোন মানেই নেই! সৃষ্টিকর্তার এ কেমন বিচার?(মনখারাপ) তারপরও বেঁচে থাকতে হবে আবার ভালও থাকতে হবে!!!??

এ. আর. খান: ছোট্ট বেলার আহ্লাদের লাল রং বয়স বাড়ার সাথে সাথে লাল কালি,লাল বাতি,লাল দালান..প্রভৃতি কারণে আতংকের রংএ রুপ নেয় লাল গোলাপ বা লাল বেনারসী হয়তো সাময়িক আনন্দ দেয়,শেষে হয় কষ্টের কারণ.. কিন্তু মাঝে মাঝে লাল হয় প্রচন্ড আবেগ আর অনিন্দ্য সুন্দর অপেক্ষার রং!

এ. আর. খান: ব্যাটসম্যান অব বেঙ্গলও টেস্ট খেলা শিখা ফেলল..আমি শিখতে পারলাম না(নাআআআ) বারবার মাথা হট কইরা অফস্টাম্পের বাইরের বল কাট করতে যাই আর পিছন দিয়া কট খাই(আম্মুউউউ) বল সুইং করতে করতে এখন বাউন্সও খাইতেসে সেরকম(ভয়পাইসি) চেইতা মেইতা হুক করতে গিয়া খাইলাম মাথায় একটা(ফুঁপিয়েকান্না) রিটায়ার্ড আউট হওয়া দরকার..মাগার হমু না(বেইলনাই) (বস)ক্রিজেই পইড়া থাকুম(কান্না)

*আবোলতাবোল*

এ. আর. খান: হে বোকা হে গাধা হে নির্লজ্জ হে বেহায়া.. কেনো চোখের জল ফেলো?..যে জলের ২পয়সার মূল্য নেই! কেনো বুক ভাঙা আবেগ পোষ?..যে আবেগের নূন্যতম সম্মান নেই! কিসের জন্য অপেক্ষা কর?..যা তোমার দিকে ফিরে দেখারও প্রয়োজন বোধ করে না! হাহাহা হাহাহা.. বোকা গাধা নির্লজ্জ!!!

এ. আর. খান: কেনো সবকিছু বদলে যাওয়াটা এত জরুরি? কিছু কিছু জিনিস একই রকম কেনো থাকতে পারে না? স্নেহ-মায়া-মমতা-ভালোবাস এসব বদলে যাওয়ার কি প্রয়োজন আছে? কেনো প্রিয়মুখগুলো এভাবে বদলে যায়? সর্বশক্তিমানের এ কেমন অবিচার? যেখানে প্রিয়জনের কাছে চোখের পানিও মূল্যহীন?(দুঃখ)

এ. আর. খান: যারা অন্যের সাজানো গোছানো পৃথিবীটা ছাড়খাড় করে দেয় তারাই ভালো থাকে যে সুখের মর্যাদা তারা বোঝে না সেটা এক সময় নিজ থেকেই তাদের কাছে চলে যায়! আর যে পরম মমতা আর সম্মান দিয়ে আগলে রেখেছিল সুখটাকে..তাকে শুধু চেয়ে চেয়ে দেখতে হয়(মনখারাপ) এ কেমন বিচার(দুঃখ)

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?


অথবা,

আজকের
গড়
এযাবত
৩,৬৫৭

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

+ আরও