Preview
প্রশ্ন করুন

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

বেশতো বিজ্ঞাপন

Preview ঘরয়া পদ্ধতিতে কিভাবে কোল্ড এলার্জি দূর করা যায়?

*সর্দি* *ঠান্ডাসমস্যা* *শীতেরসমস্যা* *স্বাস্থ্যতথ্য*
( ২ টি উত্তর আছে )

( ৭,৪২৫ বার দেখা হয়েছে)

মাহমুদ অনি  নিজের সম্পর্কে আমি নিজেই কিছু জানিনা। সবাইকে কি জানাবো !!

বিশারদ

এটি শীতকালীন একটা সমস্যা। ঠাণ্ডা বাতাস, সিগারেটের ধোঁয়া, সুগন্ধি, তীব্র গন্ধ, পুরনো পত্রিকা বা বইখাতার ধুলা যাতে মাইট থাকে, ফুলের রেণু, মোল্ড ইত্যাদির উপস্থিতি অনেকেই একেবারে সহ্য করতে পারেন না। এসবের উপস্থিতি শ্বাসকষ্ট, হাঁপানি বা অ্যাজমা, সর্দি ইত্যাদি দেখা দেয়। এসব বিষয়কে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় অ্যালারজেন বলা হয়। এসব অ্যালারজেনজনিত উপসর্গকে আমরা অ্যালার্জি বলে থাকি। সুতরাং প্রচণ্ড শীতও অনেকের জন্য অ্যালারজেন হিসেবে কাজ করে এবং এ কারণে সৃষ্ট উপসর্গকে কোল্ড অ্যালার্জি বলা হয়। আমাদের নাসারন্ধ ও শ্বাসনালিতে স্নায়ুকোষের কিছু রিসেপ্টর আছে। এ রিসেপ্টরগুলো আবার ভ্যাগাস নার্ভ (এ জোড়া নার্ভ যা শ্বাসনালি ও কণ্ঠনালির মাংসপেশির সঙ্কোচন ও প্রসারণকে উদ্দীপ্ত করে) এর সঙ্গে সংযুক্ত। ইতোপূর্বে উলিস্নখিত অ্যালারজেনগুলো শ্বাসনালির রিসেপ্টর নার্ভকে উদ্দীপ্ত করে। ফলে শ্বাসনালির মাংসপেশির সঙ্কোচন ঘটে এবং শ্বাসনালি সরম্ন হয়ে যায় তখন রোগীর শ্বাসকষ্ট বা হাঁপানি দেখা দেয়। সাধারণত খুব কম বয়সী বাচ্চাদের মধ্যে এর প্রকোপ বেশি দেখা দেয়, তবে যে কোনো বয়সেই হতে পারে। যে কারণে এ উপসর্গগুলো দেখা দেয়, অ্যালার্জি টেস্ট করে কারণ নির্ণয় করে তা পরিহার করে চলা উচিত। ঠাণ্ডা বাতাস থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য এক ধরনের মুখোশ (ফিল্টার মাস্ক) বা মুখবন্ধনী ব্যবহার করা যেতে পারে। যা ফ্লানেল কাপড়ের তৈরি এবং মুখের অর্ধাংশসহ মাথা, কান ঢেকে রাখে। ফলে ব্যবহারকারীরা উত্তপ্ত নিঃশ্বাস গ্রহণ করতে পারেন। শীতপ্রধান দেশ সাধারণত তাদের শীতকালীন বিশেষ পোশাকের সঙ্গে এ মাস্ক বা মুখোশ ব্যবহার করে থাকেন। নিম্নোক্ত নিয়মগুলো আশা করি উপকারে আসবে। বাড়ি ফিরে গোসল করার অভ্যাস থাকলে ঠান্ডা পানিতে গোসল করবেন না। উষ্ণ গরম পানি ব্যবহার করুন। হাতমুখ ধুলে তাতেও গরম পানি ব্যবহার করুন। বৃষ্টিতে ভিজে গেলে বাড়ি ফিরে দ্রুত গোসল করুন। এবং অবশ্যই গরম পানিতে। চুল ভালো করে শুকান। খুশখুশে কাশি সারাতে মুখের ভেতরে লবঙ্গ রেখে দিন।কাশি বেশি হলে আদার রস একটু গরম করে তাতে মধু মিশিয়ে খান। লবঙ্গ পানিতে ভালো করে ফুটিয়ে সেই পানি চায়ের মতো গরম গরম একটু একটু করে খান। কাশি দ্রুত সেরে যাবে। বাসক পাতা বা তুলসী পাতার রস গরম করে খেলেও খুশখুশে কাশি কমে যায়। প্রচুর পরিমাণে পানি ও ভিটামিন সি জাতীয় খাবার খান। পানি উষ্ণ গরম করে খান।

দীপ্তি  আমি শান্ত, সাম্য, আহ্লাদী, মিশুক, পরিপাটি, গোছালো, খুব নরম মনের একজন সাধারণ মানুষ :)

মহাগুরু

শীতে কোল্ড অ্যালার্জি একটি প্রচলিত সমস্যা। এই সমস্যা বিভিন্ন কারণে হয়। এর ফলে নাক দিয়ে পানি পড়ে, নাক চুলকায়, কাশি ও শ্বাসকষ্ট হয়, বুকে ও গলায় ঘড়ঘড় আওয়াজ হয়। ঠাণ্ডা বাতাস, সিগারেটের ধোঁয়া, সুগন্ধির তীব্র গন্ধ, পত্রিকা বা বইখাতার ধুলা, ফুলের রেণু, মোল্ড, ঘরের চুনকাম ইত্যাদি থেকে এ ধরনের সমস্যা হয়। এ উপাদানকে অ্যালারজেন বলে। ঠাণ্ডা বাতাস থেকে পরিত্রাণ পেতে মুখে ফিল্টার মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। গোসল ও হাতমুখ ধোয়ার ক্ষেত্রে ঈষদুষ্ণ পানি ব্যবহার করুন। ভেজা চুল দ্রুত শিক্যে ফেলুন। কাশি সারাতে মধু, লবঙ্গ, আদা দিয়ে রং চা বানিয়ে খেতে পারেন। তুলসী পাতার রসও দারুন কার্যকরী। প্রয়োজনে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে পারেন।


অথবা,

বেশতো বিজ্ঞাপন