Preview
প্রশ্ন করুন

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

বেশতো বিজ্ঞাপন

Preview প্রাইভেট টিউশনি ছাড়া একজন স্টুডেন্টের বিকল্প আয়ের উপায় কি হতে পারে?

*ফ্রিল্যান্সিং* *ক্যারিয়ার* *টিউশনি* *পার্টটাইমজব*
( ২০ টি উত্তর আছে )

( ৩৩,৭৮১ বার দেখা হয়েছে)

ফাহিম মাশরুর  গড়াতে আনন্দ পাই . .

মহাগুরু

ফ্রীলান্সিং একটি ভালো বিকল্প। odesk, ফ্রীলান্সিং ডট কম, elance.com, 99design.com সাইটগুলাতে আজকাল কয়েক হাজার তরুণ তরুণী কাজ করছে। মাসে রোজগার ৫০০০ থেকে ৫০০০০ হতে পারে।

Latif Hossain  :-)

মহাগুরু

আশি আর নব্বইএর দশকেও স্কুল-কলেজে ছাত্রাবস্থায় (এবং মফস্বল শহরে) পত্রিকা অফিসে অনুবাদের কাজ আর বিভিন্ন ধরনের ফটোগ্রাফী এ্যাসাইনমেন্ট করে আয় করতাম। তারপর ইউনিভার্সিটতে পড়াকালীন কাজ করলাম প্রোগ্রমিং ইনস্ট্রকটর হিসেবে। এখনতো আয়ের সুযোগে আরো বৈচিত্র থাকারই কথা, অন্তত ঢাকায়। ভারতে ইঞ্জিনিয়ারিংএর কয়েকজন ছাত্রকেই দেখলাম পার্টটাইম সেলসম্যানের কাজ করতে। আমাদের ছাত্ররা কি এমন কিছুকে সম্মানজনক হিসেবে দেখবেন? এক্সট্রাকারিকুলার স্কিল থাকার ওপরও নির্ভর করে আয়ের পথ। আমার ছোট্ট প্রতিষ্ঠানে একজন ইংরেজী সাহিত্যের ছাত্র দীর্ঘদিন কাজ করেছেন ডি.টি.পি অপারেটর হিসেবে। চমৎকার কাজ করতেন তিনি তার ভূমিকায়।

Mahadi Hasan Sagor  

বিশারদ

ইদানিং টিউশনির বাইরে স্টুডেন্টদের আয়ের একটি অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে কল সেন্টারগুলোতে চাকরি করা। অনেকেই আবার oDesk এ ফ্রিল্যান্সিং করে থাকে। তবে, এর জন্য অবশ্য নির্দিষ্ট কিছু দক্ষতা লাগে। বর্তমানে অনেকে আবার ফেসবুক মার্কেটিং করেও আয় করে থাকে।

তাওহীদুর রহমান  জীবনের বাস্তবতা বড়ই নির্মম...!

গুরু

বিভিন্ন এনজিও, ডেভেলপমেন্ট এজেন্সি, রিসার্চ ফার্ম স্টুডেন্টদের দিয়ে অনেক প্রজেক্ট ওয়ার্ক করায়। একটু খোঁজ খবর রাখতে পারলে এসব প্রজেক্টে কাজ করার সুযোগ পেয়ে যেতে পারেন।

জামান  অন্তর-দৃষ্টির-সন্ধানে

গুরু

একজন ছাত্রকেই আগে ঠিক করতে হবে কোন বিষয় তার ভালো লাগে, সে বিষয়ে তার ভালো করার প্রাথমিক যোগ্যতা আছে কিনা এবং বর্তমান দুনিয়ায় সেটার চাহিদা আছে কিনা। যে কোন বিষয়ের ছাত্র-ছাত্রীকেই আমি প্রোগ্রামিং-টা শিখে ফ্রি-ল্যান্সিং-এ নেমে পড়তে বলবো, কারণ সারা দুনিয়ায় এখনো প্রোগ্রামারদের ব্যাপক চাহিদা আছে। আর প্রায় প্রত্যেক বিষয়ের সাথেই প্রোগ্রামিং-টা জুড়ে দেয়া যায়। আর অন্য উত্তরগুলোর মতো নানা কাজেও টিউশনির চেয়ে ভালো আয় ও পেশাগত দক্ষতা বাড়ানো যায়।

Maruf  Master of own fate

গুণী

আজকাল বিভিন্ন ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট ফার্মে কাজ করেও অনেক স্টুডেন্ট হাতখরচ যোগাড় করে থাকে।

Ernst Stavro Blofeld  I hate 007

গুরু

ট্যুর গাইড হওয়া যেতে পারে। নিজে ট্যুর প্ল্যানিং করে ট্যুর কনসালটেন্ট হিসেবে কিছু করতে পারেন। পরিচিত কিছু NGOর সাথে পার্টনার হয়ে ওদের কনসালটেন্ট হতে পারেন।

ক্রান্তি...  অলস জীবন...চিন্তাশীল মন।

বিশারদ

ফ্রীল্যান্সিং।কোন রকম দক্ষতা ছাড়াই শুধু ইন্টারনেট ব্রাউজিং ভালভাবে জানা থাকলেই একটু পরিশ্রম করেই আপনি শিখে ফেলতে পারেন অনলাইন থেকে আয় করা...২/৩ টা একাউন্ট খুলে (https://www.microworkers.com/) ৩/৪ ঘন্টা কাজ করলেই আপনি প্রতিমাসে ৪০০০-৫০০০ টাকা উত্তোলন করতে পারেন।এছাড়া আপনি Odesk এ একাউন্ট খুলে দেখতে পারেন যে,সেখানে আপনার দক্ষতার সাথে কোন কাজ মিলে কিনা।মিললে প্রোফাইল সম্পূর্ণ করে কাজে লেগে যান।আশা করি সফলতা লাভ করবেন।

মো আকছাদুর রহমান  যে এখনও নিজেকে চিনেনা...........

মহাগুরু

ডেটা এন্ট্রি হতে পারে বিকল্প। অনেক প্রতিষ্ঠান এখন পার্ট টাইম ডেটা এন্ট্রি লোক নিয়োগ দিচ্ছে।

শ্যামল মিত্র  সাদাসিদা আর ভাবুক একজন মানুষ

পন্ডিত

আপনার কাছে যদি ৫০০০ থেকে ১০ হাজার টাকা থাকে এবং নেট কানেকশন যুক্ত একটি ফোন বা পিসি থাকে তবে ইচ্ছে করলে বিক্রয় বা এখানেই ডট কমের মতো ক্লাসিফায়েড সাইটের থেকে বিভিন্ন মডেলের ফোন কিংবা গ্যাজেট কমদামে কিনে সেটা ২০০ থেকে ৩০০ টাকা লাভে বিক্রয় করে দিতে পারেন ঐ একই সাইটে বিজ্ঞাপন দিয়ে। এভাবে মাসে যদি ১০ টি ফোন বা গ্যাজেট কেনাবেচা করাতে পারেন তাহলে দেখা যাবে মাস শেষে ছোট হলেও একটি অংকের টাকা আপনি ইনকাম করতে পারছেন। এর জন্য আপনাকে খুব বেশি পরিশ্রমও করতে হচ্ছে না। কিছু টেকনিক এপ্লাই করে এভাবেও একজন স্টুডেন্ট তার হাতখরচ বের করতে পারে সহজেই।

মাহমুদুল ইসলাম শুভ  অনুষ্ঠান প্রযোজক, রেডিও আহা!!! [www.radioaha.com]

গুরু

ফ্রীল্যান্সিং করতে পারেন। তবে কোন একটা বিষয়ে দক্ষ না হলে ভালো টাকা কামানো সম্ভব না।

Shahriar Islam  চেষ্টা করছি ভালো মানুষ হতে , সবাইকে নিয়ে ভালো থাকতে , প্রকৃত ধার্মিক সুন্নি মুসলিম হিসেবে, আল্লাহ পাকের একজন গোলাম হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে

পন্ডিত

আমার মনে হযে কবুতর পালন করে এখন ভালো করা যাবে বিশাহ্স না হযে ৪/৫ টা খাচা আর ৪/৫ জোড়া ভালো কবুতর কিনে দেখুন মনে শান্তি পাবেন আর ইনকাম খুব সহজে বাড়বে কিসুটা কষ্ট হলেও প্রাপ্তি অনেক বেশি , বিনিযোগ ও অনেক কম

Md. Imran Dewan  আমি জানতে ও জানাতে ভালবাসি।

বিশারদ

ভাই, আমি ক্লাস নাইনে থাকা অবস্থায় কম্পিউটার প্রশিক্ষণ নেই। এসএসসি পরীক্ষার পর বাড়িতে ব্যবহারের জন্য কম্পিউটার কিনি। এরপর থেকে বাড়িতেই প্রতি মাসে গড়ে ৪-৫ জন স্টুডেন্টকে প্রতিদিন ১ ঘন্টা করে প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু করি। এতে মাসে ১০-১৫ হাজার টাকা নিশ্চিত আয় শুরু হয়। এখনআমি মাস্টার্সে ভর্তি হয়েছি পাশাপাশি আমার ১৭টি কম্পিউটারের এক বিশাল ল্যাবে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ চলছে। আমার বলছি, সময় নস্ট না করে আপনিও আন্তরিকতার সাথে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ সেন্টার চালু করতে পারেন। এতে করে ছাত্র জীবনে পার্ট টাইম ও ভবিষ্যতের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাবে ইনশাআল্লাহ।

Md. Siddiqur Rahman  কম জানি, তবে যা জানি তা নিয়েই লিখতে ভালবাসি

গুণী

আমার মতে, একজন স্টুডেন্ট এর জন্য ফ্রিলান্সিং এর চেয়ে ভাল কোন বাড়তি আয়ের রাস্তা হতেই পারেনা। এইটা এই কারণে বলছি যেঃ ১) এতে তেমন কোন আর্থিক পুঁজির দরকার নেই, শুধু ল্যাপটপ / কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেই হয়। ২) এর জন্য কোন বাধা ধরা নিয়ম নেই, পড়াশুনার ব্যস্ততার সাথে সংগতি রেখে ফ্রিলান্সিং এর ব্যাস্ততা বাড়ানো / কমানো সম্ভব। ৩) ফ্রিলান্সিং করতে গেলে নির্দিষ্ট একটি কাজের জন্য অনেকগুলো বিষয়ের উপর চর্চার দরকার হয়ে থাকে, যা আপনার সার্বিক জ্ঞানের পরিধিকে অনেক বিস্তৃত করবে। ৪) ফ্রিলান্সিং এমন একটি পেশা, যা চাইলেই আপনি পার্ট টাইম থেকে ফুল টাইম হিসেবে শুরু করতে পারবেন। ৫) একজন ফ্রিলান্সার সর্বজন স্বীকৃত একজন আন্তর্জাতিক কর্মী, কারণ তিনি আন্তর্জাতিক বাজার থেকেই তার রুটি-রুযী নিশ্চিত করে থাকেন। ৬) ছাত্রাবস্থায় একজন ফ্রিলান্সার মাসে ১০,০০০-২৫,০০০ টাকা অনায়াসেই উপার্জন করতে পারে (যদি তিনি কাজে দক্ষ হয়ে থাকেন)। আর যদি এই পেশাকে ফুল টাইম হিসেবে নেয়া যায় তবে মাসে ৫০,০০০- ১০০,০০০ টাকাও উপার্জন খুব কঠিন কিছুনা। শেষ কথায় বলব, একজন সফল ফ্রিলান্সার হতে গেলে হয়ত দীর্ঘ সময় অতিক্রম করতে হবে, কিন্তু মাসে ১০,০০০ টাকার লেভেলে উঠার জন্য ২-৩ মাস সময়ই যথেষ্ট। এখন আপনার চাহিদা কততে মিটবে সেটা আপনিই ভাল জানেন। আর আপনার চাহিদা মিটাতে ফ্রিলান্সিং যথেষ্ট কিনা সেই সিদ্ধান্তও আপনাকেই নিতে হবে।

Md. Nahidul Islam  

গুণী

অনেক কাজ আছে স্টুডেন্টদের জন্য । ফ্রিল্যান্সিং, পোল্ট্রি ফার্ম, মোবাইল সার্ভিসিং, এন জি ও জব, সর্ট টাইম সরকারি/বেসরকারি প্রজেক্ট, ইন্সট্রাকটর, একমালিকানা ব্যবসায়, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প, মৌমাছি পালন, গরু মোটাতাজা করন, কবুতর পালন হাস মুরগি পালন, কোয়েল পালন, নার্সারি, প্রজনন, আর্ট, ফটোগ্রাফি, ক্যাম্পাস রিপোর্টিং (সাংবাদিকতা), সাইবার ক্যাফে, ডিস চ্যানেলের ক্যাবল লাইনের তদারকি, ব্রডব্যান্ড সেবা প্রদান আরো এত এত কাজ আছে যা লিখে শেষ করতে সকাল হয়ে যাবে । তবে ছাত্র যেহেতু, বইয়ের রিভিউ লিখে আয় করতে পারেন ।

Rafiq Khandaker  সামাজিক মানুষ

গুণী

এখন সব চেয়ে সুবিধা জনক বিকল্প আয়ের উৎস হচ্ছে  ইউ টিউব মার্কেটিং। বিস্তারিত জানাতে আগ্রহি আছি। 

সালমান শিহাব  আমি একজন সরল মানুষ ।

বিশারদ

পার্টটাইম এর চাকরী করতে পারেন ।

অথবা. ইন্টারনেটে এ খন্ডকালীন কাজ করতে পারেন অনলাইনে ।

ধন্যবাদ ।

Tariqul Islam Raju  

গুণী

সবচেয়ে ভালো হয় আপনি ফ্রিল্যান্সিং এ কাজ শিখতে পারেন। যেমন, বর্তমানে জনপ্রিয় ইউটিউব মার্কেটিং।

Tanjil Ahmed  

গুণী

Online Earn

Youtubeing করা

App  তৈরি করা

 অনেক App  অাছে যেগুলো তে দিনে এক ঘন্্ট্টা্ কাজ করলে ৫০-৬০ টাকা  earn  করা যায়

একটু বেশি বেশি কাজ করলে দেেেে যায় ভালো একটা টাকা চলে অাসে

DCash

Admin

আমি নিজে

নামহীন  বিশেষত্বহীন

বিশারদ

প্রাইভেট টিউশনি ছাড়া লেখালেখি একজন স্টুডেন্টের আয়ের বিকল্প হতে পারে। আপনি নিজের ওয়েবসাইটেও লিখতে পারেন, আবার অন্য ওয়েবসাইটে লিখেও আয় করতে পারেন। নিজের ওয়েবসাইটে লিখলে জনপ্রিয়তা পেতে একটু বেশী সময় লাগবে, অন্য ওয়েবসাইটে লিখলে এটা দ্রুত হবে। বাংলা কিছু কিছু সাইট আছে যারা টাকা দেয়ঃ কেউ শর্তসাপেক্ষে নির্বাচিত কয়েকজন মানুষকে দেয়, আবার কেউ সবাইকে দেয়। লেখক ডট ক্লাব নামে একটা সাইট আছে যারা সবাইকে টাকা দেয়। ঐ সাইটে চাইলে লিখতে পারেন।

১ টি উত্তর লুকিয়ে রাখা হয়েছে
আর অ জানতে www.z5skypehot.blogspot.com

অথবা,

বেশতো বিজ্ঞাপন