ছুটিতে ভ্রমন

চটপোস্ট

নিপু: ঘুরে এলাম মেঘের দেশে- অসাধারণ নীলগিরি সফল বান্দরবন ট্রিপ শেষ হয়েছে .... ঢাকায় পৌঁছেছি আজ ভোর ৫ টায় কিন্তু চোখে এখনো সবুজ, নীল আর সাদা মেঘ লেগে রয়েছে ...

শ্যামল মিত্র: বৈদেশিক শ্রমবাজারে নতুন দেশ হিসেবে আসছে দণি-পূর্ব এশীয় রাষ্ট্র থাইল্যান্ড। সরকারের পরামর্শে সম্প্রতি থাইল্যা- ঘুরে এসে এমনই আভাস দিয়েছে জনশক্তি রপ্তানিকারকদের একমাত্র সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিজ (বায়রা) নেতৃবৃন্দ।

শ্যামল মিত্র: সমুদ্রতীরের ছিমছাম শহর পাতায়া ব্যাংকক থেকে মাত্র ২০০ কিলোমিটার দূরে। মূলত রাতের অাঁধারে জেগে ওঠা যে কয়টি শহর রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম এটি। এশিয়ার অন্যতম হানিমুন স্পট পাতায়া। রাতের গভীরতা যত বাড়ে, আলোর ঝলকানিও সেই সঙ্গে পাল্লা দেয়। তালে তালে চলে সংগীতের মূর্ছনা। (মাইরালা২)

শ্যামল মিত্র: দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ থাইল্যান্ড সব সময় পরাধীনতার আগল থেকে মুক্ত ছিল। থাইল্যান্ডে সাংবিধানিক রাজতন্ত্র বিদ্যমান। ১৯৩২ সালে এক অভ্যূত্থানের মাধ্যমে গণবান্ধব সংবিধান প্রবর্তন করে রাজার একচ্ছত্র ক্ষমতা বিলোপ করা হয়। ১৯৩১ থেকে ১৯৭২ পর্যন্ত মোটামুটি সামরিক শাসন চলে। এরপর গণতন্ত্রের দিকে অভিযাত্রা শুরু হয়।

আমানুল্লাহ সরকার: সেই ছোট বেলায় বিমান বা হেলিকপ্টর দেখলেই আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকতাম। এখনো বিমান দেখার নেশাটা কাটেনি। মনে হয় কবে যে বিমানে উঠতে পারব আর যেতে পারব বিদেশ ভ্রমণে। আমার অনেক সখ বিশ্বের সব দেশ গুলো ঘুরে দেখা নিজের মত করে।সত্যিই আমার যতি পাখির মত ডানা থাকত আমি উড়ে উড়ে বিদেশ ভ্রমণ করতাম।

নাহিন: নেপাল ভ্রমনে হোটেলের ভীড় আপনাকে প্রকৃতির সাথে একাত্ম হতে দেবে না । একটু নিরিবিলিতে থাকার জন্য কটেজ বা লগহাট বা টেন্ট খুঁজুন । দেখবেন হানিমুনে দুজনে দুজনকে নতুন করে ফিরে পেয়েছেন । পারলে পোখরা ঘুরবেন ।আর আপার নেপালে যাবেন....ব্যারেন বিউটিটা ওখানেই ...জনপদ পেরিয়ে । বলে রাখি কম করে ১০-১২ দিনের কমে নেপাল ভ্রমন হয় না

নাহিন: ভ্রমনে আমরা কমবেশী সবাই আনন্দ পাই । বিশেষ করে যারা দেশকে জানতে আগ্রহী, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অবলোকন করে মনকে উতফুল্ল করতে চান, ইচ্ছে করলে আপনারা সিলেটে বেড়ায়ে যেতে পারেন । শহরে এসে প্রথমেই হযরত শাহজালাল (রঃ)এবং হযরত শাহপরাণ (রঃ)-এঁর মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে শূরু করতে পারেন সিলেট ভ্রমন ।

শ্যামল মিত্র: নেপালের সবচেয়ে শান্তিময় শহর মনে হয় পোখারা! স্বাপ্নিক একটা শহর। বিশাল ফেওয়া লেক গভীর মমতায় শহরটাকে জড়িয়ে রেখেছে। কাঠমান্ডু থেকে পোখারায় ঢোকামাত্র মনে হল যেন হাতে আঁকা ছবির ফ্রেমে আমরা ঢুকে পড়েছি। মূল শহরটা বেশী বড় নয়, রাস্তাঘাট ও কম। চিনতে বেশী কষ্ট নেই। বাড়িগুলো সবই দোতালা/একতলা।প্রতিটি বাসার সামনে ফুলের বাগান অথবা বারান্দা ভরা ফুলের টব।

শ্যামল মিত্র: নেপালের পোখারায় মোটামোটি সবগুলো হোটেল দেখতে খুবই সুন্দর, আর যেগুলো লেকের পাশে, সেগুলোর তো কথাই নেই! এই বৃষ্টি, এই রোদ। সবসময়ই ফেওয়া লেকের উপর দিয়ে বয়ে আসছে ঠান্ডা নরম হাওয়া! এক কথায় awesome

নাহিন: প্রকৃতির নিজ হাতে গড়া সী-বীচ অতুলনীয়। যা এ দেশে আর দ্বিতীয়টি নেই। ২০০ কিলোমিটার দীর্ঘ সী-বীচে এলে মন প্রফুল্ল হয়ে ওঠে যে কোন মানুষের। এখানে দাড়িয়ে সূর্যোদয় দেখলে মনে হবে সূর্য নয় যেন একটি অগ্নিকুন্ড পানির বুক চিরে উপরে উঠে আসছে। আবার সূর্যাস্তের সময় মনে হবে পৃথিবীর সবটুকু আলোকে কুন্ডলী করে সাগরে ডুব দিচ্ছে।(নতুনদিন)

আমানুল্লাহ সরকার: প্রাকৃতিক সৌর্ন্দয আর অবারিত সবুজের সমারোহ এবং মেঘে ছুঁয়ে দেখার ইচ্ছে যার আছে তিনি সহজেই ঘুরে আসতে পারেন সিলেট থেকে। অলি আওলীয়াদের মাঝার সমৃদ্ধ এই পূন্য ভূমিতে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারবেন খুব সহজে।

বিডি আইডল: ভোলাগঞ্জ এর পাথরকোয়ারীর অপরুপ রুপে যেকোন পর্যটক আনন্দ পেতে পারে। উপমহাদেশের প্রথম চা বাগান মালনীছাড়া পর্যটকদের কাছে আরেক বিশ্ময়। এ ছাড়াও সুরমা নদীর উপরে ক্বীন ব্রীজ না দেখলে সিলেট ভ্রমন অনেকটাই খালি থেকে যায়।

দীপ্তি: আসছে ঈদে সবারই ছুটি আছে। তাই চাইলে এই ছুটিতেও বের হতে পারেন। ঘুরতে বের হলে সবার আগে ভাবতে হবে, হাতে সময় আর বাজেট কত। সময় কম থাকলে আশপাশে বা দিনে দিনে আসা যায় এমন স্থানে ঘুরতে যাওয়া ভালো। আর হাতে সময় থাকলে দূরে যাওয়া ভালো। তবে ঘুরতে বের হলে দলবেঁধে যাওয়া ভালো। এতে খরচ কম হয়। তবে একা একা ঘোরার মজাও আলাদা। আর পারিবারিক ভ্রমণও অন্যরকম মজার। এটাই তো সময়

দীপ্তি: ঘুরতে বের হলে একটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, সেটি হলো যেখানে আগে যাওয়া হয়নি সেখানে যাওয়ার প্রাধান্য দেয়া। তবে যেখানেই যান, যাওয়ার আগে সেখানকার থাকা-খাওয়া ও যাতায়াতের সব ধরনের তথ্য জেনেই বের হওয়া উচিত। খুব ভালো হয়, যেখানে যাচ্ছেন সেখানে আগে কেউ গেছে এমন কাউকে সঙ্গে নেয়া। অথবা সেখানকার স্থানীয় লোকদের কাছ থেকে সেখানকার তথ্য জেনে নেয়া।

শ্যামল মিত্র: প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এক অনন্য ভান্ডার নেপাল । বিশ্বের খুব কম দেশেই একসাথে এত শৃঙ্গ দেখতে পাওয়া যায় । শীতের ছুটিতে চলে যেতে পারেন প্রিয়জনকে নিয়ে।

দীপ্তি: যমুনা রিসোর্ট বঙ্গবন্ধু যমুনা বহুমুখী সেতুর কাছে যমুনা নদীর কোল ঘেঁষে পূর্ব পাশে এই রিসোর্ট। রুম আছে ১১০টি। রিসোর্টের ভেতরে রেস্তোরাঁর ধারণক্ষমতা ১৫০ জন। ওয়েব: www.jamunaresortbd.com

দীপ্তি: পদ্মা রিসোর্ট মুন্সিগঞ্জের লৌহজং থানায় পদ্মা নদীর চরে এই রিসোর্ট। ২৫টি ঘর রয়েছে। ১৫৫ জন ধারণক্ষমতার একটি রেস্তোরাঁও রয়েছে। বনভোজন বা পার্টিতে আয়োজকেরা চাইলে নিজেরাই রান্না করতে পারেন। ওয়েব: www.padmaresort.net

দীপ্তি: সংরক্ষিত বনাঞ্চল হওয়ায় সুন্দরবন ভ্রমনের জন্য আপনাকে আগে থেকে খুলনা বন অফিস থেকে নির্ধারিত ফী পরিশোধ করে অনুমতি নিতে হবে। অনুমতি নেওয়ার দৌড়াদৌড়ি এবং সুন্দরবনে থাকা-খাওয়ার জায়গার স্বল্পতার কারনে ভালো হয়, আপনি যদি কোন ট্রাভেল এজেন্সির মাধ্যমে ভ্রমন করেন। ৪-১০ দিন ভ্রমনে আপনার খরচ হবে ৩০০০-১০০০০ পর্যন্ত। বনের মাঝ দিয়ে লঞ্চ ভ্রমন দারুন মজার কিন্ত (খুকখুকহাসি)

বেশতো Buzz: বন্ধুরা কেমন কাটলো আপনাদের ঈদ ও পূজা। ঈদ ও পূজার ছুটিতে কোথায় কোথায় ঘুরলেন আর ভিন্ন ভিন্ন রেসিপির কে কি খাবার খেলেন? ঝটপট লিখে আমাদের বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন। লিখুন *ঈদেবেড়ানো* *কোরবানীঈদ* *পূজারখাবার* *ঈদরেসিপি* *ছুটিতেভ্রমন* *ঈদেরখাওয়া* দিয়ে।

নাহিন: দার্জিলিং জেলা হল ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের একটি জেলা। এটি রাজ্যের উত্তর অংশে অবস্থিত। দার্জিলিং জেলা মনোরম শৈলশহর ও দার্জিলিং চায়ের জন্য বিখ্যাত। দার্জিলিং এই জেলার সদর শহর। কালিম্পং, কার্শিয়ং ও শিলিগুড়ি হল এই জেলার অপর তিন প্রধান শহর।