আইন


আরও জানতে আইন - এর স্টারওয়ার্ড পেইজ দেখতে পারো
চটপোস্ট

ওম: পঞ্চম দিনের মতো নিজামীর আপিল শুনানি চলছে | জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর আপিল শুনানি আজ পঞ্চম দিনের মতো চলছে.. বিস্তারিত আরো http://www.nirapadnews.com/2015/11/24/news-id:108791/

★ছায়াবতী★: [বাঘমামা-উড়ায়দিবোকিন্তু]সাম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া রাজনের হত্যাকারীসহ সব ধরনের নৃশংতার সঙ্গে জড়িতদের বিচার সুনিশ্চিত করে বিচারের রায়ও মিডিয়াতে প্রকাশ করতে হবে ব্যাপকভাবে। অপরাধ করলে কেউ রেহাই পাবে না, যতই প্রভাবশালী হোক—এ বোধ সমাজে ছড়িয়ে দিতে হবে। এভাবে প্রতিরোধ করা সম্ভব

আড়াল থেকেই বলছি: [নান্টু-আইডিয়া]আমাদের দেশের আইন ব্যবস্থা শুরু থেকে অদ্যবদি এই একটাই প্রব্লেম,কোনো নারী বা শিশু ধর্ষিতা হলে এর জন্য তদন্ত কমিটি,মেডিকেল রিপোর্ট নামের বেহায়াবাজি এইসব করতে করতে ধর্ষণকারী দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ হয়,আমাদের দেশে কি এমন আইন ব্যবস্থা কোনোদিন ও চালু হবে না যে আইন ব্যবস্থায় কোনো কোর্ট স্রেফ একদিনেই আসামিকে সাজা দিবে ?

রং নাম্বার: আমাদের পুলিশ ভাইয়েরা বরই বেরসিক| ফুলের টব ছোরার বদলে কেউ এমন করে চুল ধরে ! আচ্ছা সভ্য দেশে পুলিশের গাড়িতে আক্রমন করলে তার তাত্ক্ষণিক পুলিশের অ্যাকশন কি হতো? ১/ আন্দোলনের নামে মানুষের সম্পদ নষ্ট করা এবং আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি বিদ্বেষ পোষণ ২/ আন্দোলন কারিনীর প্রতি পুলিশের আচরণ কোনটাই সমর্থন যোগ্য নয় |

মোঃ ফাইজুল হক জায়েদ ( Faijul Huq Zaid ): সকল নারীদের অবশ্যই পাঠ্য একটি বই ডাউনলোড লিংক দিলাম । বইয়ের নামঃ নারী অধিকার ও আইন পিডিএফ ফাইল সাইজঃ 2.10 MB http://ubuntuone.com/0x00UuurEYQt6cgiCtCv7K

"হৈমন্তী": ★সান সালভেদরে মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানোর শাস্তি হচ্ছে ফায়ারিং স্কোয়াডের সামনে গুলি করে মৃত্যুদণ্ড। ★সাংহাই, চায়নাতে লাল রঙের গাড়ি কেনা এবং মালিকানায় রাখা আইনবিরুদ্ধ। ★আইসল্যান্ডে রেস্তোরায় গিয়ে বকশিস দেওয়াটাকে অসম্মানজনক মনে করা হয়।

রং নাম্বার: ভোট: মোবাইলে রিচার্জ, লেনদেনে কড়াকড়ি তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচন সামনে রেখে ভোটের দিন রাত ১২টা পর্যন্ত মোবাইল ফোনে এক হাজার টাকার বেশি রিচার্জ বা কোনো ধরনের আর্থিক লেনদেন না করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

Risingbd.com: চৌদ্দর কম বয়সি গৃহকর্মী রাখা যাবে না এই প্রথম গৃহকর্মীর সুরক্ষা ও কল্যাণ নীতি, ২০১৫-এর খসড়ায় অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে..More- http://bit.ly/1mvMBPQ

অঞ্জন: আইসিটি আইনের ৫৭(১) ধারা মোতাবেক সব্বাইরে গুড মর্নিং :D

"হৈমন্তী": _বাংলাদেশে ১৫ বছরের শিশুকেও জেলে ভরে দেবার আইন আছে যদি সে পরীক্ষার খাতায় নকল করে। _ফ্লোরিডায় ঘোড়া চুরি করার শাস্তি হচ্ছে ফাঁসি দিয়ে মৃত্যুদণ্ড। _ফ্রান্সে কোনও মৃত ব্যক্তির সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে চাইলে সেক্ষেত্রে আইনগতভাবে কোনও বাঁধা নেই।

দীপ্তি: নারী ও শিশুদের জন্য সঠিক সময়ে দ্রুততার সাথে সঠিক তথ্য প্রাপ্তি একটি চলমান সমস্যা । এই সমস্যা দূরীকরণে প্রকল্পের মাধ্যমে ঢাকায় জাতীয় মহিলা সংস্থায় প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে একটি কল সেন্টার । শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, ব্যবসা, জেন্ডার, আইন এই ছয়টি বিষয়ের প্রতিটির উপর একজন করে বিশেষজ্ঞ কল সেন্টারে এজেন্ট হিসেবে কাজ করবে এবং হটলাইন নম্বর ১০৯২২ l

মুহাম্মাদ আবদুল গণি: [স্বাধীনতা-কেআসবিআয়]কালকে রাত্রে দেখলাম আমাদের এলাকায় যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন রাজার চেম্বারে জাতীয় পতাকা উড়ছে যা জাতীয় পতাকা ব্যবহারের আইন বিরোধী এটা অতি দেশপ্রেম ছাড়া আর কিছু নয়(রাগী)

"হৈমন্তী": ★ইংল্যান্ডের আইন অনুসারে কৃষকেরা তাদের খামারের শূকরদেরকে খেলনা দিতে বাধ্য থাকবে। ★এথেন্সের পুলিশ কোনও গাড়ির চালকের লাইসেন্স বাতিল করে দেবার ক্ষমতা রাখে যদি ঐ চালক গোসল না করে গাড়ি চালায় অথবা চালকের বেশভূষা না ঠিক থাকে। ★মায়ামিতে কোনো পশুর অনুকরণ করা আইনগত ভাবে নিষেধ...

জি.এম. আব্দুল্লাহ পন্নি: [বোতলবাজি-একটুটকএকটুঝাল]আইনের চোখে সবাই সমান,কিন্তু কেউ কেউ একটু বেশি সমান!!

দস্যু বনহুর: [বেশবচন-মাইরালা] শেষমেশ আমরা তাহলে *ধর্ষক* হিসেবেই বিখ্যাত হয়ে গেলাম!!! কিভাবে?? আমাদের দেশে একজন ধর্ষিতা তিন বার ধর্ষনের শিকার হন - প্রথমবার - শারীরিকভাবে, দ্বিতীয়বার - ডাক্তারি পরীক্ষার সময়, এবং সবশেষে - মামলা যখন আদালতে উপস্থাপন করা হয় তখন। ! ধর্ষণকারী তো শুধু কিছু সময়ের জন্য ধর্ষণ করে, আর আমরা সেই ধর্ষিতাকেই ধর্ষণ করি তার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত !

আল ইমরান: এই কি তবে ভালো কাজের পুরস্কার ??? _________________ রাজধানীর রামপুরার বনশ্রী এলাকার একটি বাসায় ১০ ছিন্নমূল শিশুকে আশ্রয় দিয়ে, খাইয়ে, পরিয়ে অবশেষে দু’দিনের রিমান্ডে গেলেন ‘অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন’ নামে একটি বেসরকারি সংস্থার চার কর্মকর্তা। রোববার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জাকির হোসেন টিপু সাতদিনের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে দু’দিন আদেশ দেন। রিমান্ডকৃতরা হলেন- আরিফুর রহমান (২৪), হাসিবুল হাসান সবুজ (১৯), জাকিয়া সুলতানা (২২) ও ফিরোজ আলম খান শুভ (২১)। এদিন মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা রমাপুরা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আসাদুজ্জামান আসামিদেরকে আদালতে হাজির করে সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। শুনানিকালে ম্যাজিস্ট্রেট এক নম্বর আসামি আরিফুর রহমানের সাথে কথা বলেন। ম্যাজিস্ট্রেট জানতে চান, কীভাবে তারা শিশুদের সংগ্রহ করতেন? জবাবে আসামি আরিফুর বলেন, ‘ঢাকার বিভিন্ন পয়েন্টে যেমন- সদরঘাট, কমলাপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় আমাদের স্বেচ্ছাসেবকরা কমপক্ষে ২ থেকে সর্বোচ্চ ৩ মাস বিভিন্ন ছিন্নমূল বাচ্চাদেরকে পর্যবেক্ষণ করে। যদি দেখা যায় একই বাচ্চা দিনের পর দিন একই স্থানে থাকছে এবং অন্য কোথাও যাচ্ছে না, তখন আমাদের স্বেচ্ছাসেবকরা তাদেরকে আমাদের শেল্টারে আসার জন্য বলতো। যারা আগ্রহী হতো তাদেরকে নিয়ে আসা হতো।’ এরপর বিচারক ওইসব আসামিদের আর কোনো বক্তব্য শুনতে চাননি। আদালতের বাইরে এসে ওই চার আসামির আত্মীয়-স্বজন এবং উদ্ধারকৃত ১০ শিশুর মধ্যে ছয় শিশুর অভিভাবকদের সাথে কথা বললে বেরিয়ে আসে নিঃস্বার্থভাবে সমাজসেবা করতে গিয়ে ফেঁসে যাওয়া ওই চার তরুণের ভাগ্য বিড়ম্বনার কথা। প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ও মামলার এক নম্বর আসামি আরিফুর রহমানের বড় বোন (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) বাংলামেইলকে জানান, গত প্রায় তিন বছর ধরে তার একমাত্র ভাই ছিন্নমূল বাচ্চাদের উন্নত জীবনদানের জন্য অক্লান্তভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সে তাদের পরিবারকে কোনো সময় দিত না। আমরাও তার কাছে সময় চাইনি। আমরা চেয়েছি তার স্বপ্ন বাস্তবায়িত হউক। কিন্তু আজ এটা কি হচ্ছে? বলেই তিনি হাউমাউ করে কাঁদতে থাকেন। তার সাথে থাকা স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে কাজ করা আরো প্রায় ৭/৮ জন তরুণীও কাঁদতে শুরু করেন। এছাড়া পাশে থাকা বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়ুয়া অন্ততঃ ২০-২৫ যুবকও তাদের ওই চার কর্মকর্তার নিঃস্বার্থ সমাজসেবার কথা এবং এর সাথে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা জানান। টিভিতে এই সম্পর্কিত সংবাদ দেখে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকেও ছুটে এসেছেন অনেক যুবক। ভৈরব থেকে আসা সুব্রত সাহা নামে এক কলেজ পড়ুয়া যুবক জানান, তারা ফেসবুকের প্রায় শতাধিক বন্ধু নিজেদের সিগারেট খাওয়ার টাকা জমিয়ে প্রতি মাসে দেড়শ টাকা করে এখানে দেন। উদ্ধারকৃত বাচ্চারা হলো- মোবারক হোসেন (১৪), আবদুল্লাহ আল মামুন (১১), বাবুল (১০), আব্বাস (১০), স্বপন (১১), ইব্রাহিম আলী (১০), রাসেল (১০), ফরহাদ হোসেন (৯), আকাশ (৯), ও রফিক (১৪)। এরপর উদ্ধারকৃত ওই ১০ শিশুর মধ্যে নয়জনের সাথে কথা বললে সবাই একবাক্যে রিমান্ডকৃত কর্মকর্তাদের প্রশংসা করে। ওইসব বাচ্চাদের মধ্যে স্বপন, বাবলু, আকাশ, রফিক, রাসেলকে জিজ্ঞাসা করা হয়, তোমরা সেখানে কেমন আছো? উত্তরে জানায়, সেখানে বেশ ভালো আছে তারা। তোমরা আবারো সেখানে ফিরে যেতে চাও কি না। শিশুরা বলে, হ্যাঁ আমরা ফিরে যেতে চাই। তখনই পাশে থাকা এক পুলিশ কনস্টেবল বলে, কিসের ফিরবে? ওইখানে কোনো পড়ালেখার ব্যবস্থা, চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থা নেই, কোথায় যাবে এরা?’ সাথে সাথেই ওই পুলিশের মুখের উপর কড়া প্রতিবাদ জানায় ওই শিশুরা। তারা বলে, হেয় তো দেহি কিচ্ছুই জানে না। এরপর বাংলামেইলের পক্ষ হতে শিশুদেরকে জিজ্ঞাসা করা হয়, তোমাদের সেখানে টিভি আছে কি না? জবাবে ওরা বলে, আমাদের টিভি আছে, আমাদের খেলার জন্য ছোট ছোট বল আছে। এদের মধ্যে কয়েকজনকে কম্পিউটার কম্পোজ শিখানো হচ্ছে বলেও জানায় ওইসব শিশুরা। তবে উদ্ধারকৃত শিশুদের মধ্যে কুমিল্লার মোবারক হোসেনকে অন্যসবার কাছ থেকে আলাদা রাখা হয়েছে। নয় শিশুকে রাখা হয়েছে সিএমএম আদালতের নীচে বিচারপ্রার্থীদের ওয়েটিং রুমে। আর মোবারককে রাখা হয়েছে গারদখানার ভেতর কোনো একটা রুমে। অনেক চেষ্টা করে তার সাথে কথা বলা যায়নি। মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ওই শিশুর চাচা মো. মনির হোসেনের মামলার ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। এজাহারে বর্ণিত বাদীর বক্তব্য মতে, গত ছয়মাস ধরে মোবারককে সেখানে আটকে রাখা হয়েছিল। এ ব্যাপারে উপস্থিত প্রতিষ্ঠানের স্বেচ্ছাসেবীদেরকে জিজ্ঞাসা করলে তারা বলেন, ওই ছেলেটি কখনোই তার সঠিক কোনো ঠিকানা বলতে পারেনি। সে কখনোই কোথাও যেতেও চায়নি। হঠাৎ করে পুলিশের অভিযান এবং ওই বাচ্চার বক্তব্যে আমরাও বিস্মিত। উদ্ধারকৃত শিশু রাসেলের বাড়ি ময়মনসিংহে। তার বাবা মো. জামাল উদ্দিন বাংলামেইলকে বলেন, ‘আমি স্যারদের মুক্তি চাই। এরা খুব ভালো মানুষ। আরিফ স্যার ও জাকিয়া ম্যাডাম আমার ছেলেরে নিয়া গত নয় মাসে দুইবার আমার বাড়িতে গেছে। আপনারা দেখেন তাদের লাগি কিছু করতে পারেন কি না।’ উদ্ধারকৃত শিশুদের বক্তব্য এবং রিমান্ডকৃতদের আত্মীয়-স্বজন, শুভানুধ্যায়ী এবং স্বেচ্ছাসেবীদের চোখের পানি ও আকূতি দেখে এই কথা বলা যায় যে, নিঃস্বার্থ সমাজ সেবা করতে গিয়ে আজ রিমান্ডে যেতে হলো অদম্য বংলাদেশ ফাউন্ডেশনের অদম্য চার কর্মীকে।

আব্দুস সালাম: খেয়ালী আইনেস্টাইন ......(খুকখুকহাসি)......কত গভীর চিন্তা ভাবনা ......(জোস)

নিরাপদ নিউজ: অনলাইনে যেভাবে চলছে রমরমা দেহব্যবসা! (ভিডিওসহ) দেশে দেহব্যবসার আইন স্বীকৃত না থাকলেও দেধারছে চলছে এই ব্যবসা, বিশেষ করে রাজধানী ঢাকায় অনলাইনে দালালদের মাধ্যমে যোগাযোগ করে বিভিন্ন ফ্ল্যাট বাড়িতে এই অবৈধ .....বিস্তারিত- http://www.nirapadnews.com/2015/09/30/news-id:93701/

নিরাপদ নিউজ: আজ রাতে জনের ফাসি ১৩ ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতি প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ করে দেন...বিস্তারিত- http://www.nirapadnews.com/2016/01/07/news-id:121151/

রং নাম্বার: বুয়েট ছাত্রলীগের শীর্ষনেতারা বহিষ্কৃত যুদ্ধাপরাধী মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের পক্ষ নিয়ে মন্তব্যের জের ধরে এক শিক্ষককে মারধর করার অভিযোগে বুয়েট ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ছাত্রত্ব বাতিল করা হয়েছে।