অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়া নিয়ে কি ভাবছো?

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

দুর্দান্ত,অবিশ্বাস্য,শ্বাসরুদ্ধকর,নাটকীয়,তুমুল উত্তেজনাপূর্ণ,ঐতিহাসিক এই শব্দগুলো যেন ক্রিকেটের সাথেই বেশ খাপ খায়।আর সাকিব আল হাসানের খাপ খায় তিন ফরম্যাটেই বিশ্বসেরা নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডারের নাম।কুরবানি ঈদ উপলক্ষে হাটগুলো যেমন জমজমাট,ঈদের আমেজ বইছে সবখানে অন্যদিকে বাংলাদেশ ক্রিকেট জমজমাট একটা ম্যাচ উপহার দিয়ে পুরো জমিয়ে দিয়েছে।অগ্রিম ঈদ মোবারকের শুভেচ্ছা ছাপিয়ে ঈদের আনন্দের ন্যায় বন্যা বইয়ে দিয়েছে।
অস্ট্রেলিয়াকে ২০রানে হারিয়ে অভূতপূর্ব জয়ের এক তকমা লাগানো এক ঐতিহাসিক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।ম্যাচটা শুরু থেকেই জমে উঠছিল সাথে জমে উঠছিল ক্রিকেট প্রেমীদের প্রেডিকশন।প্রথম দিনেই সাকিবের বিশ্ব কাঁপানো রেকর্ড!টেস্টখেলোড়ে সবদলের বিপক্ষে পাঁচ উইকেট জায়গা করে নিয়ে ৪ নাম্বরে সাকিবের অবস্থান।ম্যাচের শুরুতেই জানান দিচ্ছিল এটা সাকিবময় টেস্ট,সাকিবের দিন।দলের ধাক্কা সামলিয়ে ৮৪ রানের অবিশ্বাস্য ইনিংস।তামিমের সাথে ১৫৫ রানের পার্টনারশিপে দলকে সামাল দিয়ে মোটামুটি প্রথম ইনিংসে একটা ভালো স্কোরে দাড় করা।২৬০ রান অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মোটামুটি বলা হলেও সাকিব,মিরাজের ঘূর্ণি জাদুতে ক্যাঙ্গারুদের পুরো নাজেহাল,বিধ্বস্ত,নাকানিচুবানি খাইয়ে ২১৭ রানে প্যাকেট।বাংলাদেশ ৪৩ রানের লিড নিয়ে খেলতে নেমে দ্বিতীয় ইনিংসে আবারও হুঁচট!
তৃতীয় দিনে ৮উইকেট হাতে কিছুটা স্বস্তি থাকায় ম্যাচের লাগাম এবং শক্ত অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ। কি হবে?কে জানে?এমন এক হাইহুতাশ পরিস্থিতিতে দাড়িয়ে তেমন একটা সুবিধা করতে পারলো না মুসফিকের দল।প্রথম ইনিংসের তুলনায় দ্বিতীয় ইনিংসে আরো কম ২২১রান ফলশ্রুতিতে স্মিথের দলের টার্গেট দাড়ায় ২৬৫।অস্ট্রেলিয়াকে ধামারধাম ২ উইকেট খোইয়ে দেয়ার পরেও জয়ের আশায় গুড়ে-বালি দিল ওয়ার্নার-স্মিথের ব্যাটের জ্বলকানি।চতুর্থ দিনে সবমিলিয়ে ক্যাঙ্গারুদের প্রয়োজন হয় মাত্র ১৫৬ রান ৮ উইকেট থাকা সত্ত্বেও।জয় কিংবা ড্র এর আশায় তিক্ততা জমে যায় মুসফিকদের দলে।
সব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে দুর্দান্ত,অবিশ্বাস্য,শ্বাসরুদ্ধকর,নাটকীয়,তুমুল উত্তেজনাপূর্ণ,ঐতিহাসিক শব্দগুলো যোগ করে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।টেস্টে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত-কারী,তকমা-কারী,ঐতিহাসিক ম্যাচ বলা যায় এটি।দ্বিতীয় ইনিংসে আবারো ৫ উইকেট শিকারে একেবারে বিধ্বস্ত ভেঙে-চূরে দিয়েছে সাকিব,হ্যাঁ বিশ্বসেরা নাম্বার ওয়ান সাকিব আল হাসান!ম্যাচ জয়ের নায়ক তো ম্যাচ সেরা হবেই।পুরস্কার নিতে গিয়ে সাকিব আল হাসান একটা ঘটনা শেয়ার করে বলে,আমার বউ আমাকে বলেছিল "একমাত্র তুমিই ম্যাচটা জিতাতে পারো" আর হয়েছেও তাই!তিন মোড়লের একটা অস্ট্রেলিয়াকে ২০ রানে ভেঙে-চূড়ে, বিধ্বস্ত করে দিয়ে দুর্দান্ত জয়ে ঈদের আগেই যেন আরেক দফা ঈদ বইছে বাংলাদেশে।ঈদ মোবারক!!!!!

পুনশ্চ: #লাগ_ভেলকি_লাগ_পাঁচে_পাঁচ=>

=>সাকিব আল হাসেনের প্রথম ইনিংসে পাঁচ!দ্বিতীয় ইনিংসেও উইকেট শিকার পাঁচ!!
=>৫বারের মুখোমুখি অস্ট্রেলিয়াকে প্রথম আইক্কালা বাঁশ!
=>অস্ট্রেলিয়া নামের পাশে র্যাঙ্কিং পাঁচ!

*ঈদ* *বাংলাদেশ* *ক্রিকেটরঙ্গ* *অস্ট্রেলিয়া* *টেষ্ট* *আনন্দ* *খেলাযোগ*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ সরাসরি দেখা যাবে কোন কোন চ্যানেলে?

উত্তর দাও (২ টি উত্তর আছে )

.
*বাংলাদেশ* *অস্ট্রেলিয়া* *চ্যানেল* *সিরিজ*

খেলাধুলা: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া কি আসলেই বাংলাদেশের সাথে ষড়যন্ত্র করছে ?

উত্তর দাও (৫ টি উত্তর আছে )

.
*ক্রিকেট* *ক্রিকেটবিশ্বকাপ* *অস্ট্রেলিয়া*

নিরাপদ নিউজ: অস্ট্রেলিয়ায় বন্দিশিবিরে অনশন করছেন ১৮ বাংলাদেশী অস্ট্রেলিয়ার ডারউইনে অনশন ধর্মঘট করছেন ১৮ জন বাংলাদেশী আশ্রয় প্রত্যাশী। ডারউইনের একটি বন্দিশিবিরে তারা ধর্মঘট পালন করছেন......বিস্তারিত- http://www.nirapadnews.com/2015/12/18/news-id:115841/

*দেশে-বিদেশে* *বাংলাদেশী* *অনশন* *অস্ট্রেলিয়া*

Sultan Ibrahim: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 অস্ট্রেলিয়া শব্দের অর্থ কী?

উত্তর দাও (২ টি উত্তর আছে )

*অস্ট্রেলিয়া* *সাধারণজ্ঞান*

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাংলাদেশের মত ক্রিকেট পাগল জাতির জন্য অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরে না আসার ঘোষণা সত্যিই দুঃখজনক। আর যাই থাক খেলাধুলার মাঝে কোন জঙ্গিবাদের স্থান বাংলাদেশে নেই। শুনে হতবাক হয়ে গেছি আমরা নাকি জঙ্গিবাদ করি। আমরা নাকি টিম অস্ট্রেলিয়াকে নিরাপত্তা দিতে পারবনা?

অথচ, নিরাপত্তাহীনতার আশঙ্কায় অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট টিম বাংলাদেশ সফর স্থগিত করার একদিন পরই অস্ট্রেলিয়ার সিডনি শহরে পুলিশের সদর দফতরের সামনে বন্দুকবাজের গুলিতে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। সিডনির পশ্চিমাঞ্চলে নিউ সাউথ ওয়েলসে চার্লস স্ট্রিটে পুলিশের সদর দফতরের সামনে বন্দুকবাজরা এলোপাথাড়ি গুলি ছুঁড়তে শুরু করে। একজন সাধারণ নাগরিককে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে দেখে ওই দুষ্কৃতীকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় পুলিশ। গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হয় দু’জনের। প্রশ্ন হলো অস্ট্রেলিয়া কতটুকু নিরাপদ? 

আমরা যতটুকু জানি, বাংলাদেশের মত ক্রিকেট প্লেয়িং ফিল্ডে এসে কোন দল নিরাপত্তাহীনতার আশঙ্কায় ভুগেছে এমনটি আগে কখনো ঘটেনি। আশারাখি ভবিষ্যতে কোন দল এধরনের সমস্যার সম্মুখীন হবে না। আমরা মনে করি, অস্ট্রেলিয়ার এই সিদ্ধান্ত একান্তই মনগড়া। এধরনেরে অভিযোগের বাস্তবিক কোন ভিত্তি আছে কিনা তা বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে খুব শিগগিরই খতিয়ে দেখা দরকার। 

উল্লেখ্য, ঢাকায় অজ্ঞাতপরিচয় কিছু ব্যক্তির হামলায় এক ইতালি নাগরিকের মৃত্যুর পরই বাংলাদেশ সফর স্থগিত করার কথা আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়া।
*খেলাধুলা* *ক্রিকেট* *বাংলাদেশ-না-অস্ট্রেলিয়া* *অস্ট্রেলিয়া* *নিরাপত্তা*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: [বেশবচন-বাটপারিকরস]অস্ট্রেলিয়ার নিজেদের দেশে সন্ত্রাসী হামলা মোকাবেলা করতে পারেনা। বাংলাদেশে নিরাপত্তা নিয়ে কথা বলে কোন যোগ্যতায়???

*অস্ট্রেলিয়া* *বাংলাদেশ* *ক্রিকেট*
৫/৫

Mahbubul Alam: বিশ্বজয়ী অস্ট্রেলিয়ার সামনে রাজত্বের হাতছানি

*চ্যাম্পিয়ন* *অস্ট্রেলিয়া*

রাকিন এনএক্স: বড়ভাইয়েরাই জিতলো.............

*চ্যাম্পিয়ন* *অস্ট্রেলিয়া* *বিশ্বকাপ২০১৫* *ক্রিকেটবিশ্বকাপ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৫/৫
কইছিলাম না ,আমরা জিতব !!!!
*অস্ট্রেলিয়া*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

১১টি ইন্ডিয়ান ময়ুর ধর্ষিত, অভিযোগ অস্ট্রেলিয়ান ক্যাঙ্গারুর দিকে!

সিডনিতে হাজার হাজার জনতার সামনে ১১টি ছ্যাঁচ্চোড় টাইপ ময়ুরকে খোলা মাঠে দৌড়িয়ে দৌড়িয়ে পুটু মেরেছে অস্ট্রেলিয়ান ক্যাঙ্গারুরা! ৮ ঘন্টা ব্যাপী এই ধর্ষন শেষে ময়ুর গুলোর দিকে আর তাকানো যাচ্ছিলো না! তাদের পুচ্ছের রঙিন পালক ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল সিডনির সবুজ প্রান্তরে! অত্যাধিক ঘর্ষণজনিত কারনে পালক উঠে যাওয়ায় কারো কারো লালচে ছিন্নভিন্ন পুটু পরিষ্কার দেখা যাচ্ছিল! মারা খাওয়ার ব্যাপারে ময়ুরপ্রধান ময়ুন্দ্র সিং ধোনির অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'নিঠুর ব্যাথায় দেখিতেছি আঁধার, পুটু জ্বলিয়া যায় মা!' এদিকে এমন পাশবিক অত্যাচার কেন চালানো হলো সে ব্যাপারে জানতে চাইলে ক্যাঙ্গারু ক্লার্ক জানান, 'ময়ুররা কয়েকদিন আগে বনের রাজা বাঘের সাথে চিটারি করসে, তাই সাজা দেওয়া হইসে!'

ময়ুরদের উপর এমন অময়ুরিক নির্যাতন চালানোর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে আন্তর্জাতিক ময়ুর অধিকার বিষয়ক সংস্থা আইছিছি! অন্য এক যৌথ বিবৃতিতে বিশিষ্ট ময়ুরসেবক আলিম ভাঁড় এবং ইয়ান গু'ল্ড সমবেদনা জানিয়েছেন। চক্ষু ছলছল কন্ঠে আলিম ভাঁড় বলেন, 'ঠিকমতো পেমেন্ট পাইলে আমার পুটুই পাতিয়া দিতাম!' এসময় ইয়ান গু'ল্ড পাশ থেকে আবেগে ভেঁউ ভেঁউ করে কেঁদে উঠেন!

ভবিষ্যতে ময়ুরদের এরকম পুটু মারা খাওয়া ঠেকাতে আইছিছি এখন কি পদক্ষেপ নেয় ঝাতির চোখ এখন সেদিকে।
সূত্রঃ বেশতো .টিভি

*ইন্ডিয়া* *অস্ট্রেলিয়া* *ক্যঙ্গারু* *ময়ূর* *রম্য* *জোকস*
*অস্ট্রেলিয়া* *ক্যঙ্গারু* *ময়ূর* *রম্য* *জোকস*

খেলার খবর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে স্কটিশদের বিপক্ষে সহজ জয় পেল অস্ট্রেলিয়া। গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে স্কটল্যান্ডকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া। আগে ব্যাট করে অজিদের বোলিং তোপে পড়ে মাত্র ২৫.৪ ওভার খেলে ১৩০ রানেই গুটিয়ে যায় স্কটল্যান্ড। 

১৩১ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামে অস্ট্রেলিয়া।  কয়েকবার বৃষ্টির বাগড়া শেষে ১৫.২ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায়।  ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৩০ রানে কোলম্যানের বলে টেলরের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন অ্যারোন ফিঞ্চ (২০)।  ৮৮ রানের মাথায় ওয়াটসনকে (২৪) ফেরান ডেবি।  দলীয় ৯২ রানে অধিনায়ক ক্লার্ককে ফেরান ওয়ার্ডল। এরপর বৃষ্টি শেষে মাঠে নামেন জেমস ফকনার ও ডেভিড ওয়ার্নার। এই জুটি অবিচ্ছিন্ন থেকে ৪১ রান সংগ্রহ করে। আর তাতেই জয়ের নাগাল পেয়ে যায় অসিরা। ওয়ার্নার ২১ ও ফকনার ১৬ রানে অপরাজিত থাকেন।
*বিশ্বকাপক্রিকেট* *ক্রিকেটবিশ্বকাপ* *বিশ্বকাপ২০১৫* *অস্ট্রেলিয়া* *স্কটল্যান্ড*

খেলার খবর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

পুরানো সব রেকর্ড ভেঙ্গে দিয়ে এবারের ১১তম বিশ্বকাপে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ৪১৭ রান করার গৌরব অর্জন করলো অস্ট্রেলিয়া। আজ পার্থে আফগানিস্থানের বিপক্ষে তারা এই রেকর্ড গড়েন। টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া তাদের নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ৪১৭ রান সংগ্রহ করে যা বিশ্বকাপের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ইনিংস।

এর আগে ২০০৭ সালে বিশ্বকাপে ভারত বারমুডার বিপক্ষে ৪১৩ রান করেছিলেন যা এতোদিন বিশ্বকাপের এক ইনিংসে সর্বোচ্চ রান ছিল। 

*ক্রিকেটরেকর্ড* *বিশ্বকাপক্রিকেট* *ক্রিকেটবিশ্বকাপ* *রেকর্ড* *অস্ট্রেলিয়া*

ট্রাভেলার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আসন্ন বিশ্বকাপ ক্রিকেট উপলক্ষে স্বপ্নের দেশ অস্ট্রেলিয়া সেজেছে নতুন সাজে। এমনিতেই রূপ রসের কমতি নেই তারপরে আবার ক্রিকেট বিশ্বকাপ। বুঝতেই পারছেন অস্ট্রেলিয়ার আসল সৌন্দর্য্য উপভোগ করার এটাই উপযুক্ত সময়। ভ্রমন পিপাসু পর্যটকদের বলছি,  বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সুবাদে অস্ট্রেলিয়া ভ্রমনের সুযোগ হাতছাড়া করা একদম ঠিক হবে না।



স্বপ্নের দেশ অস্ট্রেলিয়াঃ
অস্ট্রেলিয়া একটি দ্বীপ-মহাদেশ। এটি এশিয়ার দক্ষিণ-পূর্বে ওশেনিয়া অঞ্চলে অবস্থিত। কাছের তাসমানিয়া দ্বীপ নিয়ে এটি কমনওয়েল্‌থ অফ অস্ট্রেলিয়া গঠন করেছে। দেশটির উত্তরে তিমুর সাগর, আরাফুরা সাগর, ও টরেস প্রণালী; পূর্বে প্রবাল সাগর এবং তাসমান সাগর; দক্ষিণে ব্যাস প্রণালী ও ভারত মহাসাগর; পশ্চিমে ভারত মহাসাগর। দেশটি পূর্ব-পশ্চিমে প্রায় ৪০০০ কিমি এবং উত্তর-দক্ষিণে প্রায় ৩৭০০ কিমি দীর্ঘ। অস্ট্রেলিয়া বিশ্বের ক্ষুদ্রতম মহাদেশ, কিন্তু ৬ষ্ঠ বৃহত্তম দেশ। অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরা। সিডনী বৃহত্তম শহর। দুইটি শহরই দক্ষিণ-পূর্ব অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থিত।

গ্রেট ব্যারিয়ার রিফ বিশ্বের বৃহত্তম প্রবাল প্রাচীর। এটি অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পূর্ব সীমান্ত ধরে প্রায় ২০১০ কিমি জুড়ে বিস্তৃত। এটি আসলে প্রায় ২৫০০ প্রাচীর ও অনেকগুলি ছোট ছোট দ্বীপের সমষ্টি। কুইন্সল্যান্ডের তীরের কাছে অবস্থিত ফেয়ারফ্যাক্স দ্বীপ গ্রেট ব্যারিয়ার রিফের অংশ।

অস্ট্রেলিয়া ৬টি অঙ্গরাজ্য নিয়ে গঠিত নিউ সাউথ ওয়েল্স, কুইন্সল্যান্ড, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া, তাসমানিয়া, ভিক্টোরিয়া, ও পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া। এছাড়াও আছে দুইটি টেরিটরি অস্ট্রেলীয় রাজধানী টেরিটরি এবং উত্তর টেরিটরি। বহিঃস্থ নির্ভরশীল অঞ্চলের মধ্যে আছে অ্যাশমোর ও কার্টিয়ার দ্বীপপুঞ্জ, অস্ট্রেলীয় অ্যান্টার্কটিকা, ক্রিসমাস দ্বীপ, কোকোস দ্বীপপুঞ্জ, কোরাল সি দ্বীপপুঞ্জ, হার্ড দ্বীপ ও ম্যাকডনাল্ড দ্বীপপুঞ্জ, এবং নরফোক দ্বীপ।


সৌন্দর্য্যমণ্ডিত অস্ট্রেলিয়াঃ
বিশ্বের পর্যটকদের কাছে অস্ট্রেলিয়া কোয়ালা, ক্যাংগারুর দেশ হিসেবে পরিচিত। অস্ট্রেলিয়াতে রয়েছে মনকাড়া সুন্দর্য্যমণ্ডিত বড় বড় কয়েকটি শহর । অস্ট্রেলিয়ার অন্যতম শহরগুলো হল: সিডনি, মেলবোর্ন, ব্রিসবেন, এডেলেইড, তাসমানিয়া, ডার‌উইন, পার্থ, গোল্ডকোষ্ট।শ হর জুড়ে আছে নানা রকম সমু্দ্র, নদি, যেগুলির দিকে চোখ গেলে ফেরানো মুসকিল হয়ে পড়বে, ইচ্ছা হবে ঘন্টার পর ঘন্টা ঐ সমুদ্রের পাড়ে বসে সময় কাটিয়ে দিতে

কোয়ালা, অস্ট্রেলিয়ার বিশেষ বিখ্যাত প্রাণী। প্রায়ই দেখা যায় জংগলে গাছের ভেতর চুপটি মেড়ে বসে আছে আর মাঝে মাঝে এক গাছ থেকে আর এক গাছে বেয়ে উঠছে। কোয়ালার লাফালাফি আর ছুটাছুটি দেখে আপনি মগ্ধ হয়ে যাবেন। ক্যাঙ্গারু অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় পশু। যা অস্ট্রেলিয়ার সৌন্দর্যের প্রতীক।

অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরা। অস্ট্রেলিয়ার সাথে বাংলাদেশের অনেক ক্ষেত্রেই মিল পাওয়া যায়, যেমন, এখানে বলতে গেলে সবরকম দেশী ফুল, ফল, মাছ পাওয়া যায়। এখানকার আবহাওয়ার ধরনটাও অনেকটা বাংলাদেশের মত, এটা অবশ্য সব যায়গায় না, বিশেষ কিছু শহরে, যেমন ব্রিজবেনে।

অস্ট্রেলিয়ার ফুল এর কথা না বল্লেই নয়, শহরের বিভিন্ন যায়গা গুলি নানান রকম সুন্দর সুন্দর ফুল ও লতা পাতায় সাজানো, যেখানে বসে, হাটাহাটি করে চমৎকার সময় কাটাতে পারবেন।

অস্ট্রেলিয়ার মাটির নীচে পাওয়া গেছে মূল্যবান ধাতব ঐশ্বর্য্য। বনে গাছপালা ছাড়াও নানান রকম জীব জন্তু আর পানিতে মাছের প্রাচুর্য্য।

বর্ণনায় বলে দিচ্ছে 
অস্ট্রেলিয়া কতটা সৌন্দর্য্যমণ্ডিত দেশ। বন্ধুরা, অপরূপ সৌন্দর্যে ভরা এই দেশটিতে ভ্রমনের এখনি উপযুক্ত সময়। আর দেরী না করে ক্রিকেট বিশ্বকাপ উপলক্ষে ঘুরে আসুন স্বপ্নের দেশ অস্ট্রেলিয়া থেকে।

*ভ্রমন* *ট্রাভেল* *অস্ট্রেলিয়া* *বিদেশভ্রমন* *ভ্রমনগাইড*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★