আদর

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রতিটা মানুষের জীবনে এমন একজন দরকার, যে তাকে শাসন করবে। সকাল গড়িয়ে দুপুর পর্যন্ত না খেলে জোর করে খেতে পাঠাবে। সামনে থাকলে মুখে তুলে খাইয়ে দিবে।

বৃষ্টিতে বেশি ভিজলে কপট চোখ দেখাবে। পর মুহূর্তে বলবে, আচ্ছা যাও ভেজো। জ্বর আসলে বলবে, ওষুধ না খেলে কিন্তু নেক্সট এক উইক কথা বলবো না।

রাতে সময় মত ঘুমাতে না গেলে নিজের ফোন বন্ধ রেখে বলবে... চোখ বন্ধ। ঘুম চলে আসবে।
আমি বলে দিচ্ছি ঘুমকে চলে যেতে তোমার কাছে।

ব্যস্ত রাস্তা পার হওয়ার আগে অন্তত একবার বলবে, সাবধানে পার হয়ো... প্রশ্ন না করে প্রতিটা কথা মন দিয়ে শুনে বলবে, প্যাচাল অনেক হল। এবার মাথা থেকে ভুত নামাও সব।

ফাইনালের আগে একটা কড়া ধমক, ফেসবুকে দেখলে আমার আইডি থেকে ব্লক করে দিব
বলে দিলাম। পরে হাজার বললেও অ্যাড করব না। শাসন শুধু ভালবাসার মানুষ করবে এমনও না।

একজন বন্ধুও হতে পারে।"সে" হতে পারে। "তুমি" হতে পারো।
একটা জীবন পার করতে সব সময় সাথে থাকা মানুষটা হতে পারে।
সবার জীবনে এমন একজন থাকুক। না আসলে আসুক।
যে তাকে তার প্রতিটা ভুলের জন্যে বাকি সবার মত ভুল না বুঝে বলবে, ঘুরে আসি চলো
কোথাও থেকে। সত্যিই যদি প্রতিটি মানুষের জিবনে এমন যত্নশীল কেউ থাকত !!

আমি ও চাই কেউ একজন আসুক প্রবল বেগে আমায় নাড়া দিক মনের করিডোরে । নিজেকে আর কতো আবদ্ধ করে রাখবো ।।

*ভালোবাসা* *শাসন* *আদর* *ধমক* *প্রেম*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আমার মেস জীবনের দীর্ঘ সাত বছরের রুমমেট ছিলেন আমার আব্বা । এক রাতে খুশি খুশি দুজনে হাবিজাবি গল্প করে ঘুমাইতে গেলাম । খুব ভোরে চোখ মেলে দেখি আব্বা বুকে হাত দিয়া বইসা আছেন । চিন্তিত চোখে আমার দিকে তাকায়া আছেন । কম্বল ছেড়ে উঠে বসতেই বললেন, 'বুকটা ব্যাথা করে খুব, চল হাসপাতালে যাই' ।
দুজনে রিকশায় চড়ে হাসপাতাল গেলাম, ইমার্জেন্সিতে থাকা স্টাফদের জাগালাম, ডাক্তারকে ডাকলাম । এর মধ্যে বুকের ব্যাথা মনে হয় আরেকটু বাড়লো । ডাক্তার সাহেব শুইতে বললেন । আব্বা শুইলেন, আর আমি দৌড়ালাম নাইট্রিন এর খোঁজে ।
নাইট্রিন নিয়া আইসা দেখি বাপজান আমার ঘুমায় । ভাবলাম, ব্যাথা কমছে তাই বুঝি । তবুও স্প্রে কইরা দিলাম । পাশে বইসা মাথাটা কোলে নিলাম । আব্বা আমার আস্তে তিনবার নিঃশ্বাস নিলেন । তারপর ঠান্ডা হয়ে গেলেন ।
সিসিইউ তে বাবার মাথাটা কোলে নিয়ে বসে আছি একা । বাবা নিথর হয়ে আছেন । মনে হচ্ছে ঘুমাচ্ছেন কিন্তু নিঃশ্বাস নিচ্ছেন না । আমি বাবার শুভ্র পবিত্র মুখটার দিকে তাকিয়ে আছি ।
এইসময় মাঝবয়সী দাড়িওয়ালা হুজুর করে একজন ডাক্তার ঢুকলেন । ভদ্রলোকের চেহারা মন ভালো করার মত । কথাবার্তাও পানির মত শীতল । বাবাকে বিভিন্ন চেকাপ করছেন আর আমাকে নানা কথা জিজ্ঞাসা করছেন,,আমি উত্তর দিচ্ছি ।।
চেকাপ শেষে আমাকে জিজ্ঞাস করলেন, "উনি তোমার কে হন ।"
আমি উত্তর দিলাম, "বাবা ।"
"তুমি কি বড় ছেলে ?"
"জ্বি ।"
"মনটা শক্ত করো বাবা,,উনি আর নেই ।" বলেই তিনি কেবিন থেকে বেড়িয়ে গেলেন ।
আমি কিছুক্ষন অবিশ্বাসের দৃষ্টিতে বাবার দিকে তাকিয়ে রইলাম । দশ মিনিট আগেও যে ছিলো । কিন্তু এখন আর নেই ।।
আমি মনটা শক্ত করলাম । বাবার পাঞ্জাবীর বোতামগুলো আটকে দিলাম । হাতগুলো সোজা করে দিলাম । ডান চোখের কোনে একটু পানি ছিলো । তাও মুছে দিলাম ।।
ওয়াশরুমে গিয়া মাথায় পানি দিলাম নিজের । তারপর কেবিনে বইসা ঠান্ডা মাথায় ফোন দিলাম ৪০ মাইল দূরে বাসায় থাকা আম্মারে ।
-'আম্মা, আব্বা তো একটু অসুস্থ হইছে, বুকে ব্যাথা । হাসপাতালে আসছি দুইজন । এখন কি করমু বুঝতেছিনা । সবাইরে একটু ফোন দাও তো....
(13/04/2014)
- এপ্রিলের ১৩ তারিখ ২০১৭, আব্বা মারা যাওয়ার ৩ বছর শেষ হতে যাচ্ছে । স্মৃতিগুলো যেন ধূসর ঝাপসা হয়ে যাচ্ছে দিন দিন । ভালো থাকুক পৃথিবীর সব বাবারা, এপারে-ওপারে ।

*বাবা* *হারিয়েযাওয়া* *আদর* *ভালোবাসা*

সাদাত সাদ: ছোটবেলা ঔষধ খেতে চাইতাম না, মা অনেক জোর করে খাওয়াতো। টাকা না দিলে খেতাম না, তাই মা দশ টাকা দিত (খুশী২)... ১৯৯৯ সালে সেই রোজগার একটু দিগুণ হল (তালি) ২০০২ এ উচ্চবিদ্যালয়ে পা রাখার পরও আমার অবস্থার অবনতি হয়নি সেই আগের মতোই রয়ে গেলাম, অত:পর মা ক্লান্ত আর জোরাজুরি করতেন না। এইবার দেশে যাবার পর জ্বরে আক্রান্ত হলাম 'মা ঔষধের সাথে কিছু টাকা ও রাখল, ঔষধের সাথে টাকা দেখে একটু অবাক হয়ে বললামঃ মা টাকা কেন? " মা বললেন,, টাকা ছাড়া কোনদিন ঔষধ খেয়েছিস তুই?

*আমারমা* *মা* *আদর* *স্মৃতিচারণ* *শৈশব* *আমারশৈশব* *ছেলেবেলা*

আফনান : একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

যে বানী শুনতে শুনতে বড় হচ্ছি (ইয়েয়ে)
এত বেলা হয়ে যাচ্ছে উঠছিস না কেন
*বানী* *আদর*

♦ মমিতা ♦: ছেলেদের সামলানোর মত কঠিন যায় এই ভূবনে দ্বিতীয় টি আছে বলে আমার মনে হয়না (ফুঁপিয়েকান্না)(ফুঁপিয়েকান্না) দিনের বেলা মা বাবা নিজের কর্মস্থলে চলে যান তাদের ১৬ বছরের কিশোর ছেলেটাকে সামলাতে হয় আমাকেই কখনো বলবে, ডিম বাজি খাব। আবার কখনো বলে, ডিম সিদ্ধ খাবে। তরকারি মজা হয়নি আপা কিছুই খাব (না) ওর জ্বালায় আর বাঁচি না মন চাই "ইমন" টারে বৃদ্ধাশ্রমে পাঠাই

*ভাই* *ভাইবোন* *আদর*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

এই যে তুমি কাছে ডাকছো,
কথা বলছো, হাত ধরছো।
আবার যেদিন হারিয়ে যাবে,
আমি তখন কি করবো?

এই অযথা স্মৃতির বোঝা
কাঁধের উপর চেপে বসবে,
আমার ঘরের কলিং বেলে
তোমার হাতের ছাপ থাকবে।

বালিশ জুড়ে তোমার ঘামের,
তোমার চুলের ঘ্রাণ থাকবে।
আবার যেদিন হারিয়ে যাবে,
একলা ঘরে আমি তখন কি করবো?

এই যে তুমি ছুঁয়ে দিচ্ছো,
আমার গলায় গান শুনছো।
এই যে আমার নখের ভাঁজে
তোমার আদর রয়ে যাচ্ছে।
*কবিতা* *আদর* *ভালোবাসা*
*আদর*

Ador (আদর): আচ্ছা...বেশতো-এ কি *আদর* নামে কি আর কেউ আছ ? থাকলে প্লিজ আমাকে অ্যাড কোরো! (তালি)

*আদর*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★