আমেরিকা

আমেরিকা নিয়ে কি ভাবছো?

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উইলমা রুডলফ-এর কথা মনে আছে? ঐ যে যিনি প্রথম আমেরিকান নারী স্প্রিন্টার হিসেবে এক অলিম্পিকে তিনটি সোনা জয় করেন। অথচ এক সময় দৌড়া তো দূরে থাক, হাঁটাই অসম্ভব হয়ে পড়েছিলো তার। আমেরিকার টেনেসি'র এক গরীব পরিবারে জন্মগ্রহণ করা এই নারী মাত্র চার বছর বয়সে নিউমোনিয়া, কালাজ্বর আর পোলিও রোগে আক্রান্ত হোন। ডাক্তার দেখে স্রেফ বলে দিয়েছিলেন যে উইলমা আর কখনোই হাঁটতে পারবেন না।

উইলমা খুবই ভেঙ্গে পড়েছিলেন। যেখানে একজন দৌড়বিদ হওয়ার স্বপ্ন, সেখানে কি না খবর এলো একদম হাঁটতেই পারবেন না! কিন্তু, মা অভয় দিলেন, মনে শক্তি রাখতে বললেন। মা-কে পাশে পেয়ে একদিন দূরে ছুড়ে ফেলে দিলেন ডাক্তারের দেওয়া সকল বিধি-নিষেধ। উঠে দাঁড়ালেন দাঁতে-দাঁত চেপে। এরপর?

এরপর প্রস্তুত হতে থাকেন ইতিহাস গড়ার জন্যে। তেরো বছর বয়সে প্রথম প্রতিযোগিতামূলক কোন টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করেন। প্রথম হওয়া প্রতিযোগী'র চেয়ে অনেক পিছে থেকে দৌড় শেষ করতে হয় তাকে। হাল ছাড়েননি যতদিন না কোন দৌড় প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করেন।

আর, এভাবেই সফল মানুষেরা নিজেদের পথ করে নেন। দরকার পড়লে সহায়তা নেন অন্যের। কিন্তু, নিজেদের লক্ষ্য থেকে একচুল এদিক-ওদিক হোন না। আর, এজন্যে দরকার দুর্নিবার আকাংখা। সাফল্য লাভের তীব্র পিপাসা।

*লক্ষ্য* *মনোনিবেশ* *আমেরিকা* *রুডলফ* *স্প্রিন্টার*
ছবি

খেলাধুলা: ফটো পোস্ট করেছে

কোপা আমেরিকার সময়সূচি

কোপা আমেরিকার সূচি :- গ্রুপ-এ : যুক্তরাষ্ট্র, কলম্বিয়া, কোস্টা রিকা, প্যারাগুয়ে ৩ জুন : যুক্তরাষ্ট্র বনাম কলম্বিয়া। স্থান: সান্টা ক্লারা, ক্যালিফোর্নিয়া। ৪ জুন : কোস্টা রিকা বনাম প্যারাগুয়ে। স্থান: ওরলান্ডো, ফ্লোরিডা। ৭ জুন : যুক্তরাষ্ট্র বনাম কোস্টা রিকা। স্থান: শিকাগো, ইলিনোয়িস। ৭ জুন : কলম্বিয়া বনাম প্যারাগুয়ে। স্থান: প্যাসাডেনা, ক্যালিফোর্নিয়া। ১১ জুন : কলম্বিয়া বনাম কোস্টা রিকা। স্থান: হাউস্টোন, টেক্সাস। ১১ জুন : যুক্তরাষ্ট্র বনাম প্যারাগুয়ে। স্থান: ফিলাডেলফিয়া, পেনসিলভেনিয়া। গ্রুপ-বি : ব্রাজিল, ইকুয়েডর, হাইতি, পেরু ৪ জুন : ব্রাজিল বনাম ইকুয়েডর। স্থান: প্যাসাডেনা, ক্যালিফোর্নিয়া। ৪ জুন : হাইতি বনাম পেরু। স্থান: সিটল, ওয়াশিংটন। ৮ জুন : ইকুয়েডর বনাম পেরু। স্থান: গ্লেনডেল, এ্যারিজোনা। ৮ জুন : ব্রাজিল বনাম হাইতি। স্থান: ওরলান্ডো, ফ্লোরিডা। ১২ জুন : ইকুয়েডর বনাম হাইতি। স্থান: ইস্ট রাদারফোর্ড, নিউ জার্সি। ১২ জুন : ব্রাজিল বনাম পেরু। স্থান: ফক্সবোরো, ম্যাসাচুসেটস। গ্রুপ-সি : মেক্সিকো, উরুগুয়ে, জ্যামাইকা, ভেনিজুয়েলা ৫ জুন : জ্যামাইকা বনাম ভেনিজুয়েলা। স্থান: শিকাগো, ইলিনোয়িস ৫ জুন : মেক্সিকো বনাম উরুগুয়ে। স্থান: গ্লেনডেল, এ্যারিজোনা ৯ জুন : মেক্সিকো বনাম জ্যামাইকা। স্থান: প্যাসাডেনা, ক্যালিফোর্নিয়া। ৯ জুন : উরুগুয়ে বনাম ভেনিজুয়েলা। স্থান: ফিলাডেলফিয়া, পেনসিলভেনিয়া। ১৩ জুন : মেক্সিকো বনাম ভেনিজুয়েলা। স্থান: হাউস্টোন, টেক্সাস। ১৩ জুন : উরুগুয়ে বনাম জ্যামাইকা। স্থান: সান্টা ক্লারা। গ্রুপ-ডি : আর্জেন্টিনা, চিলি, পানামা, বলিভিয়া ৬ জুন : আর্জেন্টিনা বনাম চিলি। স্থান: সান্টা ক্লারা, ক্যালিফোর্নিয়া। ৬ জুন : পানামা বনাম বলিভিয়া। স্থান: ওরলান্ডো, ফ্লোরিডা। ১০ জুন : আর্জেন্টিনা বনাম পানামা। স্থান: শিকাগো, ইলিনোয়িস। ১০ জুন : চিলি বনাম বলিভিয়া। স্থান: ফক্সবোরো, ম্যাসাচুসেটস। ১৪ জুন : চিলি বনাম পানামা। স্থান: ফিলাডেলফিয়া, পেনসিলভেনিয়া ১৪ জুন : আর্জেন্টিনা বনাম বলিভিয়া। স্থান: সিটল, ওয়াশিংটন। কোয়ার্টার ফাইনাল : ১৬ জুন : প্রথম কোয়ার্টার ফাইনাল, ১এ বনাম ২বি। স্থান: সিটল, ওয়াশিংটন। ১৭ জুন: দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনাল, ১বি বনাম ২এ। স্থান: ইস্ট রাদারফোর্ড, নিউ জার্সি। ১৮ জুন : তৃতীয় কোয়ার্টার ফাইনাল, ১ডি বনাম ২সি। স্থান: ফক্সবোরো, ম্যাসাচুসেটস।

*কোপা* *আমেরিকা* *সূচী*
ছবি

খেলাধুলা: ফটো পোস্ট করেছে

কোপা আমেরিকা ড্রয়ে কঠিন গ্রুপে আর্জেন্টিনা ?

গত বছরের কোপা আমেরিকার ফাইনালের লড়াই এবার দেখা যাবে গ্রুপ পর্যায়েই। ‘ডি’ গ্রুপে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলির মুখোমুখি হচ্ছে আর্জেন্টিনা। সেই তুলনায় সোজা গ্রুপই পেয়েছে ব্রাজিল। ২০১৬ সালের কোপা আমেরিকার ড্র গত রোববার নিউ ইয়র্কে অনুষ্ঠিত হয়। টুর্নামেন্টটির ১০০ বছর পুর্তি হিসেবে আযোজিত এই বিশেষ আসর হবে যুক্তরাষ্ট্রে। গত জুলাইয়ে নিজেদের দেশে ফাইনালে পেনাল্টি শুটআউটে ১৪ বারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনাকে হারিয়েছিল চিলি। ‘ডি’ গ্রুপে তাদের সঙ্গী পানামা ও বলিভিয়া। ব্রাজিলের সঙ্গে ‘বি’ গ্রুপে আছে একুয়েডর, হাইতি ও পেরু। আট বারের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল শেষ বার ট্রফিটি জিতেছিল ২০০৭ সালে। শিরোপার আরেক দাবিদার উরুগুয়ের সঙ্গে ‘সি’ গ্রুপে আছে মেক্সিকো, জ্যামাইকা ও ভেনেজুয়েলা। স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের পরের রাউন্ডে ওঠাটা সহজ হবে না। ‘এ’ গ্রুপে তাদের সঙ্গী কলম্বিয়া, কোস্টা রিকা ও প্যারাগুয়ে। ৩ থেকে ২৬ জুন যুক্তরাষ্ট্রের ১০টি শহরে হবে কোপা আমেরিকার এই বিশেষ আসর। ২৬ জুন নিউ জার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়ামে হবে ফাইনাল। দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই এবারই প্রথম উত্তর আমেরিকা মহাদেশে হচ্ছে। বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন আন্তর্জাতিক ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ কোপা আমেরিকার প্রথম আসর বসেছিল ১৯১৬ সালে আর্জেন্টিনায়।

*কোপা* *আমেরিকা* *ড্র*

Risingbd.com: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

প্রেসিডেন্ট এর চেয়েও বেশি কিছু তিনি ...!!! আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা
ক্যালিফোর্নিয়ায় এক বিয়ের আসরে যোগ দিয়ে পুরো বিয়েবাড়িকেই চমকে দিলেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। বিয়েবাড়িতে এমন এক অপ্রত্যাশিত অতিথির আগমন কখনও ভাবতেই পারেননি নবদম্পতি স্টিফানি আর ব্রায়ানও।- http://bit.ly/1Pus48Y
*আমেরিকা* *প্রেসিডেন্ট* *বিয়ে* *চমক* *ভাগ্য*

রাতুল মিনহাজ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

(সবাই স্টেটাস দেয়, আমি কেন দিব না! আমারও আছে অধিকার :v )
যারা বলছেন সমকামীতা এবং সমকামী বিবাহ সাপোর্ট করেন না, আপনার সাপোর্ট কেউ চেয়েছে কি?

গত সপ্তাহেও আমেরিকার সমকামীরা সমকামী ছিল, ঠিক যেমন সারা বিশ্বের সমকামীরা সমকামী ছিল, এই সপ্তাহেও একই অবস্থা। গত সপ্তাহেও সমকামীরা তাদের সমকাম সম্পর্কিত কর্মকান্ড ঘরের ভেতরেই করত এই সপ্তাহে এবং সামনেহ করবে (বিপরীতকামীদের মতই)। গত সপ্তাহেও আমেরিকা এবং সারা দুনিয়ার সমকামীরা পরিবার পরিজনদের ভালবেসেছে, যত্ন নিয়েছে, হিটলারকে ঘৃণা করেছে ইত্যাদি যা কিছু সাধারণ একটা মানুষ করে তা করেছে। এ সপ্তাহ বা সামনের দিনগুলিতে রাতারাতি এটা পাল্টে যাবে না।

যেটা পার্থক্য গত সপ্তাহের সাথে এ সপ্তাহের তা হল, সমকামীরা আমেরিকা নামে একটা দেশে আইনত বিয়ে করতে পারত না যেখানে বিপরীতকামীরা পারত, তাই তাদের সংসার হত স্রেফ দুটা মানুষ বসবাস করছে এমন। তাদের ওপর বিবাহিতদের মত আইন অ্যাপ্লাই করা যেত না, তারাও বিবাহিতদের মত সুযোগসুবিধা পেত না। এই সপ্তাহ এবং সামনের সপ্তাহগুলোতে সে দেশে সমকামীরা আর দশজন বিপরীতকামীর মতই আইনত সুযোগ-সুবিধা পাবেন বিবাহের ক্ষেত্রে, এই যা। গত সপ্তাহ আর এই সপ্তাহের মধ্যে পার্থক্য এই একটা বিষয়েই।

আপনার যদি মনে হয়ে থাকে ফেসবুকে ক্যাপিটাল লেটারে বলছেন যে আপনি সমকামীতা এবং সমকামী বিবাহ সাপোর্ট করেন না, তাদের এই মতামতে সমকামী, বিপরীতকামী, বহুকামী, বা যত প্রকারেরই কামী পাবলিক আছেন, তাদের কিচ্ছু যায় আসে না। তাই ফেসবুকে মতামত দেয়া থেকে শুরু করে চা-পানির আড্ডায় সমকামীতাকে তিরষ্কার জানানোতেই আবদ্ধ রাখেন নিজের মতামতকে। প্রাপ্তবয়স্ক দুজন মানুষ কিভাবে সংসার পাতবে বা আদৌ পাতবে কী না, সেটা আপনার কাছে জানতে চায় নি কেউ।

PS: আমি সমকামীতা বা সমকামী বিবাহ সাপোর্ট করি বা করি না, আমার এ ব্যাপারে চিন্তা নাই। আমি মানুষের অধিকারের ওপর হস্তক্ষেপ সাপোর্ট করি না, এ ব্যাপারে আমার বিস্তর দুশ্চিন্তা আছে।
*সমকামীতা* *সমকামী-বিবাহ* *আমেরিকা*

ওম: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বন্ধুরা শুভেচ্ছা সবাইকে_(ব্যাপকটেনশনেআসি)

আজ কিছু লেখার টপিক পেলাম যেটা আপনাকে হতাশ অথবা নিরাশ----- জানি না,  কি করবে _???
..........................................................................................................
আমাদের বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী আজ (২৭-০৫-২০১৫) বুধবার,  আগামীকাল বৃহস্পতিবার সারা দিন শেষ করে যে রাত আনুমানিক ২-৩ টার দিকে আমেরিকার  লস এঞ্জেলেস ও সান ফ্রান্সিসকো তে মহাতাণ্ডব হতে পারে।  তো এখন কথা হলো আমেরিকায় হবে তো আমাদের কি _? কিন্তু না,  কথা হলো: ঘটনা নেপালে হলোও তার প্রভাব কিন্তু আমরা ঠিক-ই পেয়েছিলাম। তাই একটু সতর্ক হয়ে থাকলে ক্ষতি কি !!
হতে পারে এটা নিতান্তই একটা গুজব.......
কিন্তু যে ব্যক্তি এটা দাবি করেছে তিনি জানান, পূর্বেও তিনি নেপালের ওই ভুমিকম্পের ৫ দিন আগে সতর্ক করেছিল।  কিন্তু তখনও বিষয়টি কেউ আমলে নেয় নি । তিনি আর্টিফিশিয়াল একটি সৌর জগতের মডেল থেকে হিসাব কষে বের করেছেন যে , ইতি পূর্বে যে বড় বড় ভূমিকম্প গুলো হয়েছিল তখন চাদ আর অন্য গ্রহগুলোর সাথে পৃথিবীর যে পজিশন ছিল ঠিক একই রকম পজিশন হতে চলেছে আগামীকালের বৃহস্পতিবার সারা দিন শেষ করে যে রাত আনুমানিক ২-৩ টা ওই মুহুর্তটিতে।  পাশাপাশি তিনি আরোও জানান  যে এবার নাকি তাকে কোনো এক আত্মা এই সর্বনাশের ইঙ্গিত দিচ্ছে। 
আপনি নিজে ভিডিও টি দেখতে পারেন-  https://www.youtube.com/watch?v=0uVI8cQ3Hpo

পাঠক বন্ধুরা হয়ত অনেকেই বলবেন ধুর ওসব ফালতু কথা।  কিন্তু ভেবে দেখেন, আজ পর্যন্ত যতগুলো বড় বড় প্রাকৃতিক দুর্যোগ অথবা বড় কোনো দুর্ঘটনা হয়েছে তার আগে কিছু লোক কিন্তু পূর্বাভাস পেয়েই থাকে এবং তিনি তার মত করে সতর্ক করেই চলেন, কে মানবে আর কে মানবে না তাতে তার কিছু যায় আসে না।  আমি উপযুক্ত সোর্স এর অভাবে আজ এরকম একটা প্রতিবেদনটা আপনাদের দেখাতে পারলাম না।
প্রতিবেদনটি মতে :
আশেপাশের কোনো বড় কোনো দুর্ঘটনা হলে সেটা ওই অঞ্চলের নতুবা কেউ কোথাও কিভাবে যেন বুঝতে পারে | সেটা হতে পারে স্বপ্নের মাঝে, হতে পারে তারা অস্থির বোধ করে,  ঠিক তেমন করে যেভাবে সন্তানের কিছু হলে বাবা-মা যেভাবে আচ করতে পারেন।  আর এটাকে অনেকেই সিক্স সেন্স বলে থাকেন।


এবার আসল পয়েন্টে আসি... এত কিছু বলার উদ্দ্যেশ হলো যে আমরা / আপনারা যেন ওই সময়টি তে সাবধান থাকেন বলাতো যায় না ওদিকের আচ এদিকে আসতে কতক্ষণ........
সময়টা মনে রাখবেন - বৃহস্পতিবার সারাদিন শেষে যে রাত সেই রাতে ২ টা থেকে ৩ টা পর্যন্তু সময়সীমা।
                                                                                                                                                             ধন্যবাদ (সবাই ভালো থাকেন সুস্থ থাকেন)                                                                                                                                                                                                                            ওম কুমার (ব্যাপকটেনশনেআসি)


ভুমিকম্পে আমাদের করণীয় - http://bit.ly/1FCMp6l
ভুমিকম্পে সরকারের করণীয়- http://bit.ly/1PMyW3M
*সতর্ক-বার্তা* *আমেরিকা* *লস-এঞ্জেলেস* *মহা-প্রলয়*

ট্রাভেলার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

রহস্যময়ী রূপবৈচিত্রে ভরপুর এই পৃথিবীটাকে ঘুরে দেখার শখ আমাদের সকলেরই রয়েছে। কিন্তু সাধ থাকলেও অনেকেরই সাধ্য নেই। আবার অনেকের সাধ্য থাকলেও সুন্দর এই পৃথিবীটা এতো বড় যে পুরোটা ঘুরে দেখার মত সময় হয়না। সুন্দর এই পৃথিবীতে এমন কিছু স্থান আছে যেগুলো মৃত্যুর আগে অন্তত একবার হলেও ঘুরে দেখা উচিত। রূপকথাকেও হার মানিয়ে দেবার মত তেমনি অদ্ভুত সুন্দর ও বিস্ময়কর ৬টি স্থান নিয়ে আজকের আলোচনা। আশাকরি,নতুনকে জয় করার স্বপ্ন যাদের মনে তারা একবারের জন্য হলেও পৃথিবীর এই ৬টি স্থান ঘুরে দেখবেন।

চীনের রিড ফ্লুট গুহা
ছবিতে যে আলোকিত স্থানটি দেখতে পাচ্ছেন সেটি চীনের রিড ফ্লুট গুহা। ২৪০ মিটার দীর্ঘ এই গুহা প্রায় ১২০০ বছর ধরে চীনের অন্যতম আকর্ষনীয় স্থান। পানির প্রতিফলন ও আলো আধারিতে সৃষ্টি হওয়া নানান রঙের প্রাকৃতিক আলোতে স্বর্গের কোনো স্থান বলে মনে হয় গুহাটিকে।




বলিভিয়ার সালার ডি ইউনি
বৃষ্টির মৌসুমে পৃথিবীর সবচাইতে বড় সল্ট ফ্ল্যাট পরিণত হয় পৃথিবীর সবচাইতে বড় আয়নায়। প্রাচীন অনেক গুলো লেকের সমন্বয়ে তৈরী হয়েছে সালার সালার ডি ইউনি। বৃষ্টির সময় পুরো আকাশের প্রতিবিম্ব দেখা যায় বলে এটাকে বিশাল একটি আয়না বলে মনে হয়।




মালদ্বীপের তারার সমুদ্র
ভেবে দেখুনতো, একটি সমুদ্রের সামনে বসে আছেন আপনি। আপনার সামনে সমুদ্রের ঢেউ আছড়ে পড়ছে বার বার। আর সমুদ্রের পানিতে ভাসছে অসংখ্য তারা! ঠিক এমনই একটি সমুদ্র আছে মালদ্বীপে। তবে সমুদ্রের পানিতে যেগুলোকে জ্বলজ্বল করতে দেখছেন সেগুলো তারা নয়। সন্ধ্যায় অন্ধকার হয়ে গেলেই হলেই অসংখ্য ফাইটোপ্লাঙ্কটন জ্বলজ্বল করে এই সমুদ্রের পানিতে।




আমেরিকার অ্যারিজোনার আন্টেলপ গিরিখাত
আমেরিকার অ্যারিজোনার আন্টেলপ গিরিখাতটি বহুবছর আগে পানির প্রবাহের ফলে সৃষ্টি হয়। বেশ চাপা এই গিরিখাতটিতে তেমন আলো প্রবেশ করতে না পারলেও সৃষ্টি হয় নানান রঙের। প্রাকৃতিক এই রঙের খেলার কারণে এই স্থানটি পৃথিবীর অন্যতম আকর্ষণীয় একটি স্থান হিসেবে পরিচিত।




ফিনল্যান্ডের মেরুঅঞ্চলের প্রহরী
ভাবছেন বরফের মধ্যে এগুলো কি তাই না? এগুলো ফিনল্যান্ডের মেরুঅঞ্চলের প্রহরী হিসেবে পরিচিত। কিন্তু বাস্তবে এগুলো হলো বরফে ঢেকে যাওয়া উঁচু উঁচু গাছ। তাপমাত্রা -৪০ থেকে -১৫ এর মধ্যে থাকলে এই অঞ্চলের গাছ গুলো দেখতে এরকম হয়ে যায়।




নিউজিল্যান্ডের ওয়েটোমোর জোনাকির গুহা
নিউজিল্যান্ডের ওয়েটোমোরে আছে একটি অসাধারণ গুহা। এই গুহার বৈশিষ্ট্য হলো গুহাটির ছাদে ও দেয়ালের গায়ে লেগে থাকে লক্ষ লক্ষ জোনাকি পোকা। জোনাকি পোকার আলোতেই আলোকিত হয়ে থাকে গুহাটি। দেখে মনে হয় গুহার দেয়ালে ও ছাদে মিট মিট করে জ্বলছে অসংখ্য তারা। সত্যিই অসাধারণ সুন্দর একটি স্থান।

ভ্রমন পিপাসু বন্ধুরা, সাধ্য এবং সাধ দুটোই যাদের আছে তারা অবশ্যই রহস্যময়ী অদ্ভূত সুন্দর এই স্থানগুলো দেখতে ভুল করবেন না। ঘুরে আসুন পৃথিবীর দর্শনীয় স্থান গুলো থেকে আর আপনার ভ্রমনের অভিজ্ঞতা আমাদের সাথে শেয়ার করুন।
*ভ্রমন* *ট্রাভেল* *ভ্রমনটিপস* *বিদেশভ্রমন* *মালদ্বীপ* *আমেরিকা* *ফিনল্যান্ড* *চীন* *ভ্রমনগাইড*

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

স্বপ্নের দেশ ভ্রমন কিংবা সেখানে গিয়ে কিছুদিন অবস্থান করার ইচ্ছা সকলেই মনের মাঝে লালন করে। আর স্বপ্নের দেশটি যদি হয় আমেরিকা তাহলে তো সোনায় সোহাগা, বলতে গেলে হাতের মুঠোয় সোনার হরিণ পাওয়ার মত। তবে এখানে একটি বিষয় লক্ষণীয় তা হল, বিভিন্ন উপায়ে অনেকেই আমেরিকাতে প্রবেশ করছে অনেকের আবার যোগ্যতা থাকার পরেও আমেরিকাতে যেতে পারছেনা। এর পিছনে প্রধান কারণ হচ্ছে ভিসা সমস্যা।  তবে আজকে আমার এই পোষ্টটিতে আমি আমেরিকা যেতে আগ্রহীদের জন্য ভিসার ধরণ ও পদ্ধতিসমূহ নিয়ে আলোচনা করব।

আমেরিকার ভিসার ধরণঃ

আমেরিকার ভিসাকে মূলত দুই ভাগে বিভক্ত করা যায়। তবে এর ধরণ সংখ্যা প্রায় ১৮০টির ও উপরে। তবে মূল দুই ধরণের মধ্যের রয়েছে।
১. ইমিগ্রান্ট (স্থায়ী বসবাসের জন্য)
২. নন-ইমিগ্রান্ট (সাময়িক অবস্থানের জন্য)।
আইনগতভাবে ভিসার প্রয়োজনীয় শর্তাবলি পূরণ যোগ্য যে কোন ব্যক্তি বৈধ প্রক্রিয়ায় ভিসার আবেদন করতে পারে এবং পেতে পারে।

নিচে গুরুত্বপূর্ণ ও বহুল উপযোগিতা সম্পন্ন ক্যাটাগরি সমূহ তুলে ধরা হলো।

নন-ইমিগ্রান্ট সেকশন
B-1/B-2 ভিসাঃ এটি মূলত ট্যুরিষ্ট বা পর্যটক ভিসা। যারা ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে আসতে চায় এবং যারা অবকাশ যাপন করতে চায় তাদের জন্য উন্মুক্ত বলা যায়। তবে এই ভিসায় এসে চাকরি করার কোন অনুমোদন নেই।

E-1/E-2 ভিসাঃ
এটা বিশেষ করে যারা USA তে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী তাদের জন্য। বিনিয়োগকারী এবং প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা এই ভিসা পায় ।তবে এর জন্য অবশ্যই স্বাগতিক দেশ ও USA এর মধ্যকার বাণিজ্যিক চুক্তি থাকতে হয়।

F-1ও M-1ভিসাঃ
শুধুমাত্র যারা USA তে পড়াশুনা করতে ইচ্ছুক এবং পড়াশুনা বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত কোন প্রশিক্ষণ নিতে চায়, তারাই আবেদন করতে পারবে এবং যোগ্য বিবেচিত হলে ভিসা পাবে।

H-1B ভিসাঃ
এটা পেশা সম্পর্কিত। অভিজ্ঞ ও যোগ্যতা সম্পন্ন ব্যক্তি যিনি কোন প্রতিষ্ঠান কর্তৃক নিয়োগ প্রাপ্ত হন এবং নিয়োগকারী সেই ব্যক্তির পারিশ্রমিক প্রদান করবেন তা যদি লিখিত ভাবে প্রদর্শন করা হয়। তখন ভিসার প্রক্রিয়া শুরু হয়।

K-1ভিসাঃ
এটি USA নাগরিকের ভিনদেশি বাগদত্ত /বাগদত্তার জন্য প্রযোজ্য । যাদের ৯০ দিনের মধ্যে বিয়ে হবে-এমন শর্ত সাপেক্ষ।

P-1 ও R-1 ভিসাঃ
নিয়ম-নীতি অনুসারে যথাযথ তথ্য প্রদান করে, নির্দেশিত প্রক্রিয়ায় খেলোয়াড়, শিল্পী,অভিনেতা/নেত্রীরা P-1 ভিসাতে এবং ধর্মীয় ক্ষেত্রে কাজের জন্য বিশেষ ব্যক্তি R-1 ভিসায় USA আসতে পারেন।

ইমিগ্রান্ট সেকশন
স্থায়ী বসবাসের ভিসার বিশেষ কিছু পদ্ধতি রয়েছে। যেমন-
পরিবার ভিসাঃ
ভিনদেশি কেউ যখন USA নাগরিকত্ব পান তখন তিনি তার পরিবারের দায়িত্ব বা জামিনদার হয়ে মা,বাবা,স্বামী-স্ত্রই,সন্তানের জন্য স্থায়ী বসবাসের আবেদন করার মাধ্যমে পরিবারকে আনতে পারেন।

নিয়োগকর্তা স্পন্সর ভিসাঃ
এই ভিসার আওতায় বিভিন্ন বিভাগে নিয়োগ প্রাপ্ত হয়ে এবং labor certification প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার মাধ্যমে বিজ্ঞানী,গবেষক,অধ্যাপক,ধর্ম মন্ত্রী আবেদন করে আসতে পারেন। এছাড়া বিনিয়োগকারী স্থায়ী বসবাসের আবেদন করতে পারে যদি তার বিনিয়োগের পরিমাণ ৫০০ হাজার ডলার বা তার বেশি হয়। আশ্রয়হীন,নিরাপত্তাহীন,জীবনের হুমকি ইত্যাদি ইস্যুতে বিশেষ প্রক্রিয়ায় স্থায়ী বসবাসের আবেদন করতে পারে।
বন্ধুরা আমরা যারা বাংলাদেশী তাদের জন্য বলছি, বাংলাদেশ থেকে আমেরিকার ভিসা সংক্রান্ত যে কোন বিষয়ে যোগাযোগ করতে নিম্নোক্ত ওয়েবসাইটে যোগাযোগ করুন।
http://dhaka.usembassy.gov/contact.html
সূত্রঃ নিজ ও পরামর্শ.কম

*ভিসা* *আমেরিকা* *বিদেশভ্রমন*
ছবি

কিশোর: ফটো পোস্ট করেছে

ওবামা সাবধান (রাগী)

(লজ্জা)(খুশী২)(ঘটনাটাকি)

*শামিম-ওসমান* *আমেরিকা* *গুম*
জোকস

পাগলী: একটি জোকস পোস্ট করেছে

আমেরিকা, ইংল্যান্ড এবং বাংলাদেশ । তিন দেশের তিন ডাক্তার গল্প করছে । আমেরিকান ডাক্তার: আমাদের দেশে এক শিশু হ্রৎপিন্ড ছাড়াই জন্মে ছিলো । আমরা এই শিশুর মধ্যে কৃত্রিম হ্রৎপিন্ড লাগিয়ে দেই । পরে এই শিশু বড় হয়ে বিখ্যাত ভূতের গল্প লেখক হয়েছিলো । ইংল্যান্ড এর ডাক্তার: আমাদের দেশে এক শিশু পা ছাড়া জন্মে ছিলো । কৃত্রিম পা লাগিয়ে দেয়ায় সে বড় হয়ে দৌড়ে অলিম্পিকে স্বর্ণ জয় করেছিলো । বাংলাদেশী ডাক্তার: (হাসছে) ধ্যাত পাগলা । (নিচেদেখ)
*বাংলাদেশ* *ইংল্যান্ড* *আমেরিকা*
ছবি

শফিক ইসলাম: ফটো পোস্ট করেছে

সিঙ্গাপুরের রেকর্ড ভেঙ্গে দিল লাস ভেগাস

সবচেয়ে উচ্চ হুইল থাকার রেকর্ড এখন আর সিঙ্গাপুরের দখলে নেই

*সিঙ্গাপুর* *প্রবাস* *রেকর্ড* *আমেরিকা* *আজব* *বেশতো*
ছবি

শফিক ইসলাম: ফটো পোস্ট করেছে

বিল্ডিং দেখি ফুলে ফেপে উঠতেছে

*আমেরিকা* *আজব* *বেশতো*

পাগলী: রিক্সা প্রথম তৈরি হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। যুক্তরাষ্ট্রের ওকলোহোমাতে “রেভারেন্ড জোনাথন স্কোবি” নামে এক পাদ্রী ছিলেন। তাঁর স্ত্রী একদিন হঠাৎ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। এই অসুস্থ স্ত্রীকে এখানে সেখানে নেয়ার জন্যই চিন্তা ভাবনা করে তিনি ১৮৬৯ সালে (নিচেদেখ)

*রিক্সা* *আমেরিকা*
জোকস

পাগলী: একটি জোকস পোস্ট করেছে

ব্যাকরণে একটু কি ভুল হলো? (চিন্তাকরি)(খিকখিক)
*জোকস* *আমেরিকা* *জাপান* *বাংলাদেশ* *গাধা*
জোকস

পাগলী: একটি জোকস পোস্ট করেছে

সে অনেক বছর আগের কথা। আমেরিকা আর বাংলাদেশের মধ্যে যুদ্ধ চলছে। দুই দেশের সেনারাই বাংকারে লুকিয়ে থেকে যুদ্ধ করছে। ফলে কারো গায়েই গুলি লাগছেনা। তো এভাবে চলতে চলতেই বাংলাদেশি সেনারা একটা বুদ্ধি বের করলো.... তাদের মধ্য থেকে একজন আমেরিকান সেনাদের উদ্দেশ্যে বলল, 'ওই তোদের মধ্যে জন কে রে?' আমেরিকান বাংকার থেকে একজন বেরিয়ে এসে বলল, 'আমি জন!' বাংলাদেশিরা তাকে গুলি করে মেরে ফেলল... তারপর আবার ডাক দিলো, 'ওই স্মিথ আছস?' (নিচেদেখ)
*জোকস* *বাংলাদেশ* *আমেরিকা* *যুদ্ধ* *বুদ্ধি*

পাগলী: আমরাই জগতের সেরাটা বানাইছি! (শয়তানিহাসি)

*জোকস* *আমেরিকা* *ভারত* *কোরিয়া* *পাকিস্তান* *রাজাকার* *হাহাকার* *সরকার* *দেশ*

পাগলী: ফাহিম ভাইয়া ব্ল্যাক ফ্রাইডে নিয়ে একটা প্রশ্ন করেছিলেন, আমি এখানে একটা ভিডিও লিংক দিলাম। দেখেন কি হয় এই দিনে! মানুষ এত পাগল হয় কিভাবে? http://www.youtube.com/watch?v=n_adgG8Ba2Q (ভাগোওওও)

*ব্ল্যাকফ্রাইডে* *আমেরিকা* *পাগল* *শপিং*
ছবি

অভ্র মেঘ: ফটো পোস্ট করেছে

ইনি আমার খালু হন না . তবে ইনি একজন অতি পরিচিত মুখ , ১৯৬৩ সালের এই দিনে ( নভেম্বর ২২ ) তিনি নিহত হন

*স্মৃতি* *স্মৃতিচারণ* *জনএফকেনেডি* *আমেরিকা* *প্রবাস* *প্রিয়মুখ* *স্মরণ*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★