আলো

ঈশান রাব্বি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আলো (Light) এক ধরনের শক্তি বা বাহ্যিক কারণ, যা চোখে প্রবেশ করে দর্শনের অনুভূতি জন্মায়। আলো বস্তুকে দৃশ্যমান করে, কিন্তু এটি নিজে অদৃশ্য। আমরা আলোকে দেখতে পাই না, কিন্তু আলোকিত বস্তুকে দেখি। আলো এক ধরনের বিকীর্ণ শক্তি। এটি এক ধরনের তরঙ্গ। আলো আড় তরঙ্গের আকারে এক স্থান থেকে আরেক স্থানে গমন করে। মাধ্যমভেদে আলোর বেগের পরিবর্তন হয়ে থাকে। আলোর বেগ মাধ্যমের ঘনত্বের ব্যস্তানুপাতিক। শুন্য মাধ্যমে আলোর বেগ সবচেয়ে বেশি। শূন্যস্থানে আলোর বেগ প্রতি সেকেন্ডে ৩x১০৮ মিটার। কোন ভাবেই আলোর গতিকে স্পর্শ করা সম্ভব নয়।দৃশ্যমান আলো মূলত তড়িত্‍ চুম্বকীয় বর্ণালির ছোট একটি অংশ মাত্র। সাদা আলো সাতটি রঙের মিশ্রণ , প্রিজম এর দ্বারা আলোকে বিভিন্ন রঙ এ আলাদা করা যায়। যা আমরা রংধনুতে দেখতে পাই।আলোর প্রতিফলন,প্রতিসরন ,আপবর্তন, ব্যাতিচার হয়

*আলো*

হাফিজ উল্লাহ: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

অন্ধকার বিহীন আলো, সাম্রাজ্য বিহীন মুকুটের ন্যায় l - হাফিজ উল্লাহ
*অন্ধকার* *আলো*

হাফিজ উল্লাহ: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

অন্ধকার আছে বলেই আলোর এত মুল্য l
*অন্ধকার* *আলো* *মুল্য*

পায়েল : ' ভুলিবো না ’ - এতো বড় স্পর্ধিত শপথে জীবন করে না ক্ষমা, তাই মিথ্যা অঙ্গীকার থাক, তোমার চরম মুক্তি, হে ক্ষণিকা, অকল্পিত পথে ব্যপ্ত হোক, তোমার মুখশ্রী-মায়া মিলাক, মিলাক তৃণে-পত্রে, ঋতুরঙ্গে, জলে-স্থলে, আকাশের নীলে, শুধু এই কথাটুকু হৃদয়ের নিভৃত আলোতে, জ্বেলে রাখি এই রাত্রে - তুমি ছিলে, তবু তুমি ছিলে......

*জীবন* *আকাশ* *রাত* *বুদ্ধদেববসু* *অঙ্গীকার* *কবিতা* *হৃদয়* *আলো*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মাশরুম থেকে আলো ছড়িয়ে পড়ছে? ভুল মনে করাটাই কিন্তু তাহলে ভুল হবে। কিছু মাশরুম আসলেই জৈব প্রক্রিয়ায় দীপ্তি ছড়াতে পারে। ব্রাজিলের কয়েকটি অরণ্যে পামগাছের গোড়ায় এ রকম একধরনের মাশরুম জন্মায়। এই ছত্রাকজাতীয় কাঠামো থেকে আলো ছড়ানোর রহস্য জানতে বিজ্ঞানীরা বহুদিন ধরেই চেষ্টা করছেন। এবার তাঁরা একটি উত্তর পেয়েছেন। 


কারেন্ট বায়োলজি সাময়িকীতে এ গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। সাও পাওলো বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন ইনস্টিটিউটের গবেষক ক্যাসিয়াস স্তিভানি বলেন, দার্শনিক অ্যারিস্টটল অন্তত দুই হাজার বছর আগে মাশরুমের দীপ্তিরহস্য নিয়ে লিখেছেন। সম্প্রতি তাঁরা জানতে পেরেছেন, পোকামাকড়কে কাছে টানার জন্যই মাশরুম আলো ছড়ায়। সেই পোকাগুলো মাশরুমের স্পোর ছড়িয়ে দেওয়ার মাধ্যমে মাশরুমের নতুন আবাস বিস্তারণে সহায়তা করে। ছত্রাকের এক লাখ প্রজাতির খোঁজ মিলেছে। তাদের ৭১টি জৈব দীপ্তি ছড়াতে পারে। 

সূত্র: রয়টার্স
সংগ্রহ: প্রথম আলো
*মাশরুম* *বিজ্ঞানওপ্রযুক্তি* *আলো*
৪/৫

পায়েল : একটি কথা কখনও বলবো না আদি থেকে, বন্ধুরা তবুও বারে বারে, টেনে নিতে চায় সেই অমোঘ বর্ণের দিকে, বলে, সময় কি হয়নি জানার ? ব্যথায় ভরেছে মাটি, জলের আঘাত লেগে লেগে, শুয়ে আছে ম্রিয়মাণ বুকে, উড়ে আসা বটপাতা স্থির হয়ে আছে কপালে, মধু তুলে এনেছি ঝিনুকে, এই আলোর সেতুতে মিলে যাওয়া জলের দু'ধার, যা ছিল, যা আছে, আর থাকবে যা, সব এক হয়ে ভরে থাক মুহূর্ত তোমার......

*কথা* *আলো* *সেতু* *মুহূর্ত* *কবিতা* *সময়*
৫/৫

পায়েল : কথা ছিলো চলে গেলে রাস্তাটা সোজা, পথে পড়ে থাকবে নির্বাক অভিমান, কপালে তৃষ্ণা মুচকি হেসে রোজ সকালে, কথা ছিলো ফিরে এলে লাজুক হাসি, নিভিয়ে দেবে আলো গোপন কথায়, বুকের ভেতর উন্মাদ ভালোবাসায় কোনদিন......

*কথা* *পথ* *তৃষ্ণা* *হাসি* *ভালোবাসা* *কবিতা* *আলো* *সকাল*
৫/৫

পায়েল : নীলাভ অন্ধকারের বিচ্ছিন্ন অস্তিত্ব, তবু, তাকে ঘিরে স্বপ্ন বাঁচে, বাঁচার তাগিদে, ঘৃণ্য, অরন্যসঙ্কুল সঙ্কীর্ণতা, জঘন্য পাশবিকতা, হেরে যাওয়ার ধূসরতা, জমাট বাঁধা নীলচে আলোয় বন্দী, হঠাৎ চোখে পড়ে একটি আলোকবিন্দু, একটি আলোকবিন্দু জন্ম দেয় আরো কয়েকটি, আঁকে ছায়াপথ, শেষে বিশালতা, মেলে অন্ন, মেলে মুক্তি......

*অন্ধকার* *ছায়াপথ* *কবিতা* *আলো* *স্বপ্ন*
৫/৫

পায়েল : বুকের ভেতরের অন্ধকার সমুদ্র হতে, প্রতিদিন এক মুঠো সুখ তুলে আনি, ধূসর শৈবাল, সবুজ শ্যাওলারা, স্বপ্ন আঁকে মিহি বালুর বিছানায়, সোনাগলা সূর্যের অবুঝ মোহনায়, গাঙচিলের শুভ্র পালক সাজিয়ে, কাটে আমার বিনিদ্র প্রহর, প্রগাঢ় সুগন্ধে, প্রবল তরঙ্গে, আলোকিত হবে আমার স্বর্গোদ্যানের এই অন্ধকার সাগর......

*অন্ধকার* *সমুদ্র* *সুখ* *প্রহর* *স্বপ্ন* *কবিতা* *আলো*

পায়েল : দূর থেকে একটি ছোট্র আলোর রেখা দেখা যাচ্ছে, একবার আসছে, আবার চলে যাচ্ছে, প্রায় একদিন একরাত ধরে ডেকে ডেকে শরীরে আর কোন জীবন নেই, চোখটা খালি জীবিত আছে, আলোর আসা যাওয়া টের পাচ্ছি, শুধুই আশার হাওয়া খাচ্ছি......

*আলো* *রাত* *জীবন* *আশা* *কবিতা*
৫/৫

নাফিসা আনজুম রাফা: গোল হয়ে ঘিরে ধরেছিলো আধাঁর কালো... এসে এক চিলতে আলো... পালটে দিলো... পালটে দিলো সব... মায়া,ভালোবাসা,খুশি আর সুখের দেখা...পাওয়া যায় পাওয়া যায় এই আলোতেই...(হাসি)(হাসি)

*আলো* *উরাধুরা-আলোককাব্য*

★ছায়াবতী★: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৫/৫
আলো আসবেই (লোডশেডিং)(লোডশেডিং)
সূর্য টা রাতের স্থায়িত্ব টাকে বেশীক্ষণ টিকতে দিবে না.... (সূর্য) (সূর্য) (সূর্য) (সূর্য)
*আলো*

মেঘ: বিকেলের ঠিক আগে এই সময়টা আসত। সূর্যের সোনালী মাখা রৌদ আছড়ে পড়ত ধূলো ঢাকা পথে ।আর সে ধূলোর সমুদ্রে মিশে থাকা বালি চিক চিক করে জ্বলে উঠতো। পেছনের আকাশে জমে থাকত কাল ধুসর মেঘ। কিন্তু আসত না সামনে, সূর্যের শেষ সোনালি আলোকে ভয় পেয়ে।

*আলো* *আমি*
ছবি

শুধু আফরিন: ফটো পোস্ট করেছে

৫/৫

আমার জানালা থেকে ভোরের প্রথম আলো

*ভোর* *আলো* *কুয়াশা*

জোবায়ের রহমান: তুমি আমার কথা শুনে বলো কেন এত অন্ধকার !!!!!!! আমি বলি ওটা অন্ধকার নয় , ওটা আলোর অভাব যে সময়ে তুমি আছো , সে সময়ের কাছে এ কোন ঘটনা বা দোষ নয় বরং ল্যান্ডস্কেপের সুর্য চুরি হয়ে গিয়ে আলোর অভাবটাই হয়ে ঊঠছে এই সময়ের স্বভাব।

*আলো* *আঁধার*

নাহিয়ান সেজান: একটি বেশব্লগ লিখেছে

তীব্র অন্ধকারে যখন পথ হারা পাখির মত ছটফট করে যাচ্ছিলাম, তখন এক জোনাকি এসে কানে ফিসফিস করে বললো, "আমি তোমাকে পথ দেখাবো, যাবে আমার সাথে তোমার গন্তব্যে??" আমিতো খুশিতে আত্ত্বহারা হয়ে বলেই দিলাম "যাব, কিন্তু আমাকে কথা দাও আমাকে মাঝপথে ফেলে হারিয়ে যাবে না!!"
জোনাকি মিষ্টি হেসে বললো, "বিস্বাশ রাখো!!"
সেই বিস্বাশ বুকে ধারন করে হারনো পথে ফেরার আপ্রান চেষ্টায় একটু একটু করে চিরচেন সেই পথের দিকে আমার এই ছুটে চলা জোনাকির সঙ্গী হয়ে, মনে এক অজানা হারানোর ভয় নিয়ে!!

অনুভূতিঃ গভীর অন্ধকারে ছোট্টো এক পাখির হারানো পথ খোজার জন্য জোনাকির এক চিলতে আলোয় যতেস্থ!! তবু সব জোনাকিরায় নিঃসার্থ হতে পারে না!! আশা রাখি সে আমায় সঠিক পথ খুজতে সাহায্য করবে নিঃসার্থভাবে, সে বিস্বাশ আমি বুকে ধারন করি!! :-)
*অন্ধকার* *স্বপ্ন* *আলো*

নাহিয়ান সেজান: মাধবী লতার বন মাতাল হয় সমীরণে, জ্যোৎস্নায় আসে বান, ফোঁটে (সূর্য) সূর্যমুখি ফুল !! তুমি বরং রাত-ই হও; আর আমি তোমার সব ভুল !! (খুশীতেআউলা) কে বলেছে রাতের আলো নেই? সে অসুন্দর কালো !! আমিতো দেখি দিনটাই পুরো রাতের এক বিন্দু আলো !! (সূর্য)

*আলো*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★