এক্সেসরিজ

এক্সেসরিজ নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

গৃহস্থালির টুকিটাকি কাজে কতকিছুরই তো প্রয়োজন পড়ে। প্রয়োজনীয় জিনিস গুলো হাতের কাছে না থাকলে বাড়তি বিড়ম্বানা পোহাতে হয়। তাছাড়া ছোটখাট এই কাজগুলো করার জন্য অন্যের ধরনা ধরে সময় ক্ষেপণ করার ধৈর্য্য সব সময় থাকে না। ঘরদোর পরিস্কার, লোডশেডিং এর ঝামেলা থেকে মুক্ত হওয়ার পাশাপাশি রাতে আরামের ঘুম নিশ্চিত করার জন্য আধুনিক সব টুলস ও এক্সেসরিজ বাড়িতে থাকা চাই ই চাই। চলুন সময়ের সেরা কয়েকটি হাউজহোল্ড টুলস এন্ড এক্সেসরিজ সম্পর্কে জেনে নেই।

ইলেকট্রনিক মসকুইটো ল্যাম্পঃ

রাতে আপনার আরামের ঘুম নিশ্চিত করতে চলে এসেছে ইলেকট্রনিক মসকুইটো কিলিং ল্যাম্প। এটি আপনাকে মশার যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেবে! এই ল্যাম্প মশা ও অন্যান্য পোকামাকড়কে আকর্ষণ করে আর এর ইলেকট্রনিক্যালি চার্জড মেটাল গ্রীড এদের ধ্বংস করে। আপনার বেডরুম, ড্রয়িং রুম, কিচেন, কারখানা, ডেইরী বা পোলট্রি ফার্মে ব্যবহার করতে পারেন। ১৬ বর্গমিটার জায়গা জুড়ে মশা ধ্বংস করে। যে কোন শক্তিশালী আলো থেকে দূরে অন্ধকারে ০.৮-১.২ মিটার উচ্চতায় ব্যবহার করুন (দেয়াল থেকে ০.৩ মিটার দূরে রাখুন)মৃত মশাগুলোকে নেট থেকে নিয়মিত সরিয়ে ফেলুন।

এক্সটেন্ডেবল ম্যাজিক হোস পাইপঃ

আপনার মূল্যবান গাড়িটি সুন্দরভাবে পানি দিয়ে পরিষ্কারের জন্য ব্যবহার করুন ম্যাজিক হোস পাইপ। এছাড়াও ম্যাজিক হোস দিয়ে আপনি আপনার বাসা,অফিস,পরিষ্কার কিংবা ফুল বাগানে খুব সহজে পানি দিতে পারবেন। হাই কোয়ালিটি রাবারের তৈরী ফ্লেক্সিবল ও এক্সটেন্ডেবল পাইপ। এই হোস পাইপের ওজন হাল্কা, তাই সহজে বহনযোগ্য।

স্ক্র্যাচ রিমুভার পেনঃ

আপনার শখের গাড়ির বডি লোশন ! আপনার মূল্যবান গাড়িটির যে কোন দাগ দূর করতে ব্যবহার করুন স্ক্র্যাচ রিমুভার! শুধু গাড়ি নয়, যেকোন কাচ যেমন টিভি, মোবাইল, কম্পিউটার থেকেও স্ক্র্যাচ রিমুভ করতে পারবেন অনায়েসে!

পোর্টেবল মিনি কার ভ্যাকুয়াম ক্লিনারঃ

ধুলোবালি দূর করে আপনার সখের গাড়িটিকে ঝকঝকে পরিষ্কার করে তুলতে ব্যবহার করুন পোর্টেবল কার ভ্যাকিউম ক্লিনার। এটির মাধ্যমে আপনি সহজেই গাড়ির জমে থাকা সব ধুলো পরিষ্কার করতে পারবেন। আপনার গাড়ি থাকবে ধুলোবালি মুক্ত ও ঝকঝকে। তাই আর দেরি না করে আজই কিনে নিতে পারেন পোর্টেবল মিনি কার ভ্যাকুয়াম ক্লিনার।

জেনারেটরঃ

এই গরমে লোডশেডিং যে হারে বাড়ছে তাতে বিদ্যুৎ উৎপাদনের বিকল্প চিন্তা করা সবারই উচিৎ। এজন্য লোডশেডিং থেকে মুক্তি পেতে বাড়ির জন্য কিনে নিতে পারে জেনারেটর। বিদ্যুৎ চলে গেলে জেনারেটর চালিয়ে দিয়ে আপনি সহজেই আপনার বাড়িতে বিদ্যুৎ এর ব্যবস্থা করতে পারবেন। জেনারেটর এর সাহায্যে আপনি ফ্যান, টিভি, বাল্ব সহ সকল ইলেকট্রিক্স যন্ত্রপাতি চালাতে পারবেন।

বন্ধুরা, উপরের হাউজহোল্ড টুলস এন্ড এক্সেসরিজ গুলো ছাড়াও ড্রিল মেশিন সেট, মাল্টি স্ক্রু-ড্রাইভার, ওয়েট স্কেল, গ্লু-গান, এলার্ম ডোর লক বেশ প্রয়োজনীয় অনুসঙ্গ। এগুলো আপনি ঘরে বসেই কিনে নিতে পারবেন আজকেরডিলের ওয়েবসাইট থেকে। অনলাইন থেকে কিনতে এক্ষণি এখানে ক্লিক করুন

*গৃহস্থালীসামগ্রী* *গৃহস্থালিটুলস* *স্মার্টশপিং* *এক্সেসরিজ*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ল্যাপটপ, আইপড, ডেস্কটপ, এমপি-থ্রি প্লেয়ার, ট্যাব আর সবসময়ের সঙ্গী মুঠোফোনটিতে গান শোনার জন্য দীর্ঘদিন ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে বিভিন্ন ধরনের হেডফোন। নতুন প্রজন্মের মিউজিক পাগল তরুণ তরুণীদের কাছে হেডফোন এক অন্যতম অনুসঙ্গ। রাস্তায়, বাসায় কিংবা গাড়িতে সব খানেই কানে একটা হেডফোন থাকা চাই-ই-চাই। হেডফোন এখন শুধু আর গান শোনার যন্ত্রই নয় এটি ফ্যাশন হিসেবেও ব্যবহৃত হচ্ছে। বর্তমান বাজারে বাহারি হেডফোন পাওয়া যাচ্ছে। আর তরুণরাই এসব বেশি ব্যবহার করে। তাই হেডফোনের নকশাতেও এসেছে তারুণ্যের পছন্দ অনুযায়ী নানা বৈচিত্র্য।

হেডফোন বাছাইয়ে আপনাদের পছন্দকে প্রাধান্য দিয়ে দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিল নিয়ে এসেছে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সেরা সব হেডফোন। স্টাইলিশ সব হেডফোন গুলোর কালেকশন দেখতে আজেরডিলের হেডফোন পেজটিতে ক্লিক করুন।

বাহারি হেডফোন

আমাদের চারপাশের বলতে গেলে সবাই এখন কানে হেডফোন দিয়ে আইপড, এমপি৩ অথবা মোবাইলে গান শুনছে। হেডফোনে গান শুনতে শুনতে প্রতিদিনের স্বাভাবিক কাজও করছে। এটা এখন ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। যদিও মুঠোফোনে গান শোনার জন্য ইয়ারফোনের চাহিদাই এখন সবচেয়ে বেশি। আবার কম্পিউটারে গান শোনার জন্য হেডফোনকেই এক নম্বরে রাখে তরুণেরা। কম্পিউটারে গান শোনার জন্যই শুধু নয়, আরও একটি বড় প্রয়োজনে আজকাল হেডফোনের কদর বেড়েছে।


গান শোনার পাশাপাশি ইন্টারনেটে ইয়াহু মেসেঞ্জার, স্কাইপ, গুগলটকসহ বিভিন্ন সফটওয়্যারে বন্ধু বা আপনজনের সঙ্গে কথা বলার জন্যও ব্যবহার হচ্ছে হেডফোন। গান শোনার ক্ষেত্রে ভালো শব্দ পেতে অনেকেই আজকাল ভালো মানের হেডফোন কিনছেন। আবার ইন্টারনেটে কথা বলাটা সাবলীল রাখতেও ভালো মানের হেডফোন ব্যবহার হয়। হেডফোনের মধ্যে আবার রকমফের আছে। যারা গান শোনার সঙ্গে সঙ্গে কথা বলার জন্য হেডফোন ব্যবহার করতে চান, তারা মাইক্রোফোনসহ হেডফোন কিনতে পারেন। আবার যারা শুধুই গান শোনার জন্য হেডফোন ব্যবহার করতে চান, তাদের ক্ষেত্রে মাইক্রোফোন ছাড়া হেডফোনগুলোই ভালো।



অনেক হেডফোন একাধারে কম্পিউটার, আইপড, এমপি থ্রি প্লেয়ার ও মুঠোফোনে ব্যবহার করা যায়। তবে এ ক্ষেত্রে হেডফোনের পোর্টগুলো একই হতে হয়। যেহেতু হেডফোন বা ইয়ারফোন কানে লাগিয়ে ব্যবহার করা হয়, তাই ভালো মানের পণ্য ব্যবহার করা উচিত। কেননা ভালো মানের এসব পণ্য ছাড়া কানের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। হেডফোন সঙ্গে কোমল আবরণ লাগানো থাকলে কানের ওপর চাপটা কম পড়ে ও কান গরম হয় কম। যারা অনেকক্ষণ ধরে এসব ব্যবহার করেন তাদের জন্য এই আবরণ সহায়ক।

ব্র্যান্ড আর বাজার দর


হেডফোন দাম নির্ভর করে মান, ব্র্যান্ড ও শব্দ শোনার ধরনের ওপর। বিভিন্ন মডেলের ডিজাইন ও রকমারি রঙের এসব পণ্য বাজারে পাওয়া যায়। হেডফোনের মধ্যে কোনোটার ব্র্যান্ড চিকন, কোনোটা আবার প্রশস্ত ধরনের। আবার সাদামাটা হেডফোন যেমন দেখা যায়, তেমনি বাঁকানো হেডফোনও মিলছে। কোনো কোনো হেডফোন আবার ভাঁজ করেও রাখা যায়। ব্র্যান্ডের হেডফোনের মধ্যে ক্রিয়েটিভ,এফোরটেক , লজিটেক, ইনটেক্স, বিটস, জেনাস, সনি, এইচপি, হ্যাভিট, নোকিয়া ও মাইক্রোল্যাবের হেডফোন গুলো অন্যতম। এগুলোর বাজার দর ৩০০ টাকা থেকে শুরু করে ৬০০০ টাকা পর্যন্ত।

কোথায় থেকে কিনবেন?

ঢাকার আগারগাঁওয়ের বিসিএস কম্পিউটার সিটি, এলিফ্যান্ট রোডের কম্পিউটার বাজারসহ সারা দেশের বিভিন্ন কম্পিউটার পণ্যের দোকানে হেডফোন কিনতে পাওয়া যায়। সুখবর! তাদের জন্য যারা ঘরে বসে অনলাইনে অর্ডার করে হেডফোন কিনতে চান। আপনারা আস্থা রাখতে পারেন দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিলের উপর। কারণ আজকের ডিল আপনাকে দিচ্ছে অত্যন্ত সাশ্রয়ী মূল্যে হরেক রকমের হেডফোন থেকে আপনার পছন্দেরটি বেছে নেবার সুযোগ এবং সেই সাথে দুরুন্ত গতিতে ডেলিভারি সুবিধা। তাই যারা হেডফোন কিনতে চান তারা এক্ষনি আজকের ডিলের ওয়েব সাইটে গিয়ে অর্ডার করুন। অথবা এখান থেকে সরাসরি কিনতে এই লিংকটি থেকে ঘুরে আসুন।

*হেডফোন* *স্টাইলিশহেডফোন* *এক্সেসরিজ* *অনলাইনশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আজকেরডিলের পাওয়ার ব্যাংক কালেকশনচার্জ শেষ হয়ে যাবার ভয় কখন বুঝি ব্যাটারি রেড সিগন্যাল দেয়! সেই চিন্তা স্মার্টফোন চাপতে ভয় লাগে। চার্জ শেষ হলে তো যোগাযোগই অফ! এধরনের চিন্তা যাদের মাথায় তাদের জন্য রয়েছে ইলেকট্রিক পাওয়ার ব্যাংক। এখন পাওয়ার ব্যাংকের পাওয়ারে ফোন চালাতে পারবেন নির্ভয়ে। আপনারা যেন নির্ভয়ে স্মার্টফোন চালাতে পারেন সেজন্য দেশের সব প্রান্তের গ্রাহকদের কথা চিন্তা করে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিল ব্যাপক আকারে বিশ্বখ্যাত বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংক অনলাইনে বিক্রি করছে।

পাওয়ার ব্যাংকটি কিনতে ক্লিক করুনপাওয়ার ব্যাংকটি কিনতে ক্লিক করুন

চলতি পথে স্মার্টফোন, ট্যাবলেট, আইফোন, আইপড-সহ সব ধরনের মোবাইল ডিভাইস চার্জ দেয়ার জন্য পাওয়ার ব্যাংক হবে অন্যতম সঙ্গী। যারা দীর্ঘপথ পাড়ি দেবেন, তারা যাত্রাপথে চাইলে একটি পাওয়ার ব্যাংক সঙ্গে নিতে পারেন। যানজটে পড়ে আপনার স্মার্টফোন বা ডিভাইসে চার্জ ফুরিয়ে গেলে তা কাজে লাগবে।

স্মার্টফোন বা ট্যাবলেটে চার্জ করার জন্য বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংক পাওয়া যায়। তবে রাস্তা ঘাটে পাওয়ার ব্যাংক কিনে প্রতারিত হবেনা। আপনি চাইলে ঘরে বসেই ভাল পাওয়ার ব্যাংকটি কিনে নিতে পারবেন এজন্য আপনাকে ঢুঁ মারতে হবে আজকেরডিল ডটকমের ব্র্যান্ডেড পাওয়ার ব্যাংকের এই পেজটিতে


মনে রাখবেনঃ

পাওয়ার ব্যাংকটি কিনতে ক্লিক করুনপাওয়ার ব্যাংকটি কিনতে ক্লিক করুন
বাজারে পাওয়ার ব্যাংক তৈরি করে না এমন অনেক ব্র্যান্ডের পণ্যও আছে। এগুলো রিফ্রাবিশড পণ্য। এ ধরনের পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহার করলে স্মার্টফোনের ক্ষতি হতে পারে। পাওয়ার ব্যাংক কেনার আগে কয়েকটি বিষয় মনে রাখা জরুরি। একটি হচ্ছে ব্র্যান্ডের পণ্য কেনা। রিফ্রাবিশড পণ্য না কেনা। দেখতে চকচকে হলেও বাজারে নিম্নমানের যে পাওয়ার ব্যাংক রয়েছে তার ভেতরে থাকে রিচার্জেবল ব্যাটারি। এতে মোবাইল ফোনে ঠিকমতো চার্জ হয় না। এ ছাড়া ব্যাটারি বিস্ফোরণ ঘটার আশঙ্কাও থাকে।ওয়ারেন্টি আর ব্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংক কিনলে প্রতারিত হওয়ার সুযোগ নেই।

মডেল ও দরদাম

পাওয়ার ব্যাংকটি কিনতে ক্লিক করুন

শাওমি, রিম্যাক্স, হুওয়াই, স্যামসাং, গেডমি, মাইসেল, টিপি লিংক, জিওমি, এডেটা, অ্যাপাসার, জিনিয়াস, ওয়ালটন সবগুলো ব্র্যান্ডের বিভিন্ন মডেলের পাওয়ার ব্যাংক গুলো কিনতে পারবেন ৩০০ থেকে শুরু করে ৩০০০ টাকার মধ্যে। এ ছাড়াও ডিলাক্স, এমআই, উইনডি, আলট্রা ইত্যাদি ব্র্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংক বাজারে পাওয়া যাবে এক হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে। সোলার পাওয়ার ব্যাংক পাওয়া যাবে এক হাজার ৬০০ থেকে দুই হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে। এ ছাড়াও বাজারে স্মার্টফোন পাওয়ার ব্যাংকের মডেল অনুযায়ী দামের তারতম্য রয়েছে।

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিলে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংক পাওয়া যাচ্ছে। যাচাই করে দেখে আপনার পছন্দেরটি কিনে নিন। সবগুলো কালেকশন দেখতে এখানে ক্লিক করুন। 

*পাওয়ারব্যাংক* *এক্সেসরিজ* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রতিযোগিতার এই যুগে আকর্ষণীয় সব স্মার্টফোন ও মোবাইল এক্সেসরিজ তৈরী করে গ্রাহকদের মনযোগ ধরে রেখেছে শাওমি। বলে রাখা ভাল, শাওমি হচ্ছে একটি প্রাইভেট চীনা ইলেকট্রনিক্স কোম্পানি। এটি বিশ্বের ৪র্থ বৃহত্তম স্মার্টফোন নির্মাতা। শাওমি স্মার্টফোন, মোবাইল অ্যাপস এর পাশাপাশি ভালো মানের বিভিন্ন ধরনের মোবাইল এক্সেসরিজ তৈরী করে থাকে। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিল ব্যাপক আকারে বিশ্বখ্যাত এই ব্রান্ডের পণ্যগুলি অনলাইনে বিক্রি করছে। চলুন শাওমির আকর্ষণীয় কিছু মোবাইল এক্সেসরিজ সম্পর্কে জেনে নেই।

শাওমি পিসটন আইরন ইয়ারফোনঃ


শাওমির অসাধারণ স্টাইলিশ একটি আইরন ইয়ারফোন এটি। মচকানো ও ভাঙ্গার কোন ভয় নেই। কানের কোন ক্ষতি করে না। স্মুথলি সফট মিউজিক শোনার জন্য এটি বেশ ভাল হবে। ইয়ারফোনটির দাম ১,৯৯৯ টাকা।

স্মার্ট ওয়াচ ফিটনেস ব্যান্ডঃ


প্রযুক্তি এখন আমাদের হাতের মুঠোয়। তাইতো স্মার্টফোনের পাশাপাশি স্মার্টওয়াচের ব্যবহারও দিন দিন বাড়ছে। স্মার্টওয়াচ প্রযুক্তিতেও বেশ ভালমানের সব ওয়াচ নিয়ে এসেছে শাওমি। বর্তমানে পকেটের স্মার্টফোনটি এখন আর বারবার বের করার প্রয়োজন হয় না। হাতের স্মার্ট ওয়াচটিই স্মার্ট ফোনের সব কাজ করে দেয়। যদিও এটি একটি ঘড়ি তারপরেও এর এক্সট্রা সুবিধা হলে এটার মধ্যে পুরা একটা অপারেটিং সিস্টেম লোড করা আছে। স্মার্টওয়াচ আপনার স্মার্ট মোবাইলের এক্সট্রা গিয়ার হিসেবে কাজ করবে।

শাওমি পাওয়ার ব্যাংক


প্রযুক্তি বাজারে পাওয়ার ব্যাংককের চাহিদা দিনদিন বেড়ে যাওয়ায় এই খাতেও উন্নতমানের পাওয়ার ব্যাংক তৈরী করছে শাওমি। বাজারে শাওমির বেশ কয়েক ধরনের পাওয়ার ব্যাংক পাওয়া যায়। চলতি পথে স্মার্টফোন, ট্যাবলেট, আইফোন, আইপড-সহ সব ধরনের মোবাইল ডিভাইস চার্জ দেয়ার জন্য শাওমির পাওয়ার ব্যাংকগুলো বেশ ভাল পারফর্মেন্স দেয়। যারা দীর্ঘপথ পাড়ি দেবেন, তাঁরা যাত্রাপথে চাইলে একটি পাওয়ার ব্যাংক সঙ্গে নিতে পারেন। যানজটে পড়ে আপনার স্মার্টফোন বা ডিভাইসে চার্জ ফুরিয়ে গেলে তা কাজে লাগবে।

এগুলো ছাড়াও শাওমি ব্রান্ডের প্রচুর এক্সেসরিজ পাওয়া যায়। যেগুলোর মধ্যে ব্লুটুথ স্পিকার, ব্লুটুথ মিউজিক এলার্ম ঘড়ি, প্রোটেবল স্পিকার, ওয়াল এডাপ্টার , ওটিজি ক্যাবল, ভিআরবক্স, মোবাইল স্ট্যান্ড, সেলফি স্টিক অন্যতম। আপনার প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় শাওমির এই এক্সেসরিজগুলোর অরিজিনাল কালেকশন আপনি পাবেন দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিল ডটকমের ওয়েবসাইটে। তাদের ওয়েবসাইটে শাওমির স্মার্টফোন সব সব ধরনের এক্সেসরিজের বিশাল সংগ্রহ রয়েছে। আজকেরডিল থেকে শাওমির পণ্য কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*শাওমি* *আজকেরডিল* *স্মার্টশপিং* *এক্সেসরিজ*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

জনপ্রিয় কিছু মোবাইল এক্সেসরিজপ্রযুক্তি এখন হাতের মুঠোয়। মোবাইল ফোনের ব্যবহার এখন দেশের শীর্ষ ব্যক্তি থেকে শুরু করে মাঠের কৃষক পর্যন্ত। ফোন ব্যবহারের পাশাপাশি হেডফোন, ব্যাটারী, বিভিন্ন ধরনের স্ক্রিন সহ মোবাইল এক্সেসরিজের চাহিদাও দিন দিন বাড়ছে। ফলে প্রসার ঘটছে টুকিটাকি প্রয়োজনীয় সব এক্সেসরিজের। এসব এক্সেসরিজ ব্যবহার করে আপনি আপনার মোবাইল ইউজের এক্সপেরিয়েন্স আরও বেটার করতে পারবেন। চলুন কিছু গুরুত্বপূর্ণ মোবাইল ফোন এক্সেসরিজ দেখে নেই।

সেলফি স্টিকঃ

এক্সেসরিজটি কিনতে ক্লিক করুন

সেলফি স্টিক সম্পর্কে আমরা কম বেশি সবাই জানি । সেলফি স্টিক হচ্ছে এমন একটি জিনিস, যা ব্যবহারের মাধ্যমে সেলফি কে আরও সহজে সুন্দর ভাবে তোলা যায় । হাত বাড়িয়ে সেলফি তোলাটা আপনার কাছে যদি কষ্টকর মনে হয়। তাহলে সেই সমস্যা সমাধানের জন্য এই সেলফি স্টিকটি ব্যবহার করতে পারেন ।

ওটিজি ইউএসবিঃ

এক্সেসরিজটি কিনতে ক্লিক করুন

স্মার্টফোনের মেমোরি স্পেস নিয়ে ছোটবড় সকলেই চিন্তিত! হুট করেই কয়েকদিন পরপর মেমোরি ফুল হয়ে যায়। আবার স্পেসের অভাবে প্রয়োজনীয় ফাইলটিও হয়তবা আপনি রাখতে পারেন না! অসুবিধে নেই প্রযুক্তি আপনার এই সমস্যাটির সমাধান নিয়ে এসেছে। এখন ওটিজি পেনড্রাইভের মত ছোট্ট একটি ডিভাইস ব্যবহার করে পেনড্রাইভে থাকা ফাইল আপনার স্মার্টফোনে ওপেন করতে পারবেন, নতুন কিছু পেনড্রাইভে রাখতে পারবেন এমনকি স্মার্টফোন থেকে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল কম্পিউটারে ট্রান্সফারের জন্য ব্যবহার করতে পারবেন ওটিজি পেনড্রাইভ। তাই জোর গলায় বলছি, স্মার্ট ফোনের স্পেস নিয়ে চিন্তা করার দিন শেষ!

মেটাল জিপার স্টাইল ইয়ারফোনঃ

এক্সেসরিজটি কিনতে ক্লিক করুন

মোবাইলে স্বাচ্ছন্দ্যে গান শোনা এবং কথা বলার জন্য একটি বেস্ট কোয়ালিটি ইয়ারফোন দরকার। সেই জন্যই আপনি নিয়ে নিতে পারেন মেটাল জিপার স্টাইল ইয়ারফোন। উন্নতমানের সাউন্ড কোয়ালিটি, আরামদায়ক বেস এবং বীট হওয়ায় কানের কোন ক্ষতি করে না এবং পিওর সাউন্ড ও 0% নয়েজ কথা বলার এক উপযোগী অন্যতম মাধ্যম হবে এটি।

ওয়াটারপ্রুফ মোবাইল ব্যাগঃ

এক্সেসরিজটি কিনতে ক্লিক করুন
আপনার সাধের মোবাইলটা যেন পানিতে না ভিজে এবং নিমিষেই সব জায়গায় বহন করতে পারেন সেজন্য নিয়ে নিতে পারেন ওয়াটারপ্রুফ মোবাইল ব্যাগ। প্লাস্টিকের তৈরী এই ব্যাগটি কোথাও ভ্রমণে সাথে রাখতে পারেন, যা আপনার মোবাইলকে ভিজে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করবে।

মোবাইল স্ট্যান্ডঃ

এক্সেসরিজটি কিনতে ক্লিক করুন 
সবার হাতেই এখন নামি দামি স্মার্ট ফোন। কিন্তু অনেকেই যেখানে সেখানে ফোন ফেলে রাখে। আবার ফোন চার্জ দেয়ার সময় বিছানায়, ডেস্কে অথবা অনেক সময় ঘরের মেঝেতেও রাখতে হয়। এতে করে ফোনের ডিসপ্লেতে স্ক্র্যাচ পড়ে, নিকেল উঠে যায়, আবার অনেক সময় পড়ে গিয়ে সেটের মারাত্নক ক্ষতিও হতে পারে। এ সব সমস্যার সমাধান দিতে পারে ফোন হোল্ডার বা আকর্ষনীয় স্টিক।

এছাড়াও মোবইলের জন্য মিনি ট্রাইপড স্ট্যান্ডও কিনে নিতে পারেন। ছবির এই স্ট্যান্ডগুলো বেশ ভাল চলছে যথেষ্ঠ মজবুত ও রয়েছে। কিনতে চাইলে ছবিতে ক্লিক করুন। 

মিনি ব্লু-টুথ ইয়ারফোন

এক্সেসরিজটি কিনতে ক্লিক করুন
এবার কথা হবে কানে কানে। কারণ বাজারে এসেছে সবচেয়ে ছোট ব্লুটুথ ইয়ারফোন। কানে ইয়ারফোন আছে কিনা তা আপনি বুঝতেই পারবেন না। হাই পারফর্মেন্স মিনি  ব্লুটুথ ইয়ারফোনটি আজই সংগ্রহ করুন।

ভিআর বক্স:

ভিআর বক্স এমন একটি গ্লাস যেটি দিয়ে ভার্চুয়াল রিয়েলিটি এবং অগমেন্টেড রিয়েলিটি উপভোগ করতে পারবেন !  এর মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটের নোটিফিকেশন পড়া যাবে এবং মোবাইল কল করে কথা বলা যাবে। এতে আরও থাকবে স্বচ্ছ লেন্স ও স্মার্টফোনের সঙ্গে সিনক্রোনাইজ করার নানা প্রযুক্তি। এতে বিশেষ ধরনের হেডফোন সংযুক্ত থাকবে, যাতে সহজে স্মার্টফোনের মতো কল আদান-প্রদান করা যাবে। এর লেন্সে বিভিন্ন তথ্য জানা ও নোটিফিকেশন পাওয়ার সুবিধাও থাকবে।
 
2D/3D গ্লাস ব্যবহার করে উপভোগ করুন ভার্চুয়াল দুনিয়া। 3D সিনেমা উপভোগ করুন ঘরে বসেই আপনার 2D ল্যাপটপে ভিডিও, মুভি অথবা টিভিতে ভার্চুয়াল রিয়ালিটি গেমস এবং ৩৬০ ডিগ্রী যেকোনো দৃশ্য।
 

বন্ধুরা, আকর্ষণীয় এসব মোবাইল এক্সেসরিজ একেবারে কমদামে পাবেন তাও আবার ঘরে বসে। এজন্য আপনাকে আজকেরডিলের ওয়েবসাইটে নক করতে হবে। অনলাইনে যারা কিনতে চান তারা এখানে ক্লিক করুন।

*মোবাইলএক্সেসরিজ* *এক্সেসরিজ* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

কম্পিউটার বা ল্যাপটপ চালাতে একটি গ্রিপে ভালোভাবে এটে যায় এমন একটি মাউসের কোন বিকল্প নেই। স্মুথ পিসি ব্যবহারের জন্য অবশ্যই একটি ভাল ব্রান্ডের মাউস ব্যবহার করতে হয়। এজন্য বাজারে এফোরটেক, লজিটেক, ডিলাক্স, প্রোলিঙ্ক, গিগাবাইট, এক্সট্রিম, টারগাস, মার্কারি, লজিক, ভিশনসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মাউস পাওয়া যাচ্ছে।
 
তবে বর্তমান সময়ে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মাউস পাওয়া গেলেও লজিটেক, এফোরটেক এবং ডিলাক্স ব্র্যান্ডের চাহিদা তুলনামূলক বেশি।”
 
 
রাজধানীর মাল্টিপ্ল্যান সেন্টারে ‘এফোরটেক’য়ের ইউএসবি মাউস পাওয়া যাবে ৩শ’ থেকে ৭শ’ টাকায়।
তবে ‘এফোরটেক’য়ের ব্লুটুথ মাউসগুলো কিনতে খরচ করতে হবে ৮শ’ থেকে ১ হাজার ১শ’ টাকা।
পাওয়া যাবে শহরের ‘রায়ানস কম্পিউটারস’য়ের শো রুমগুলোতে। অনলাইনে কিনতে দেখানো ছবিতে ক্লিক করুন ।
 
 
রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি শপিং মলের ‘কম্পিউটার সোর্স’ দোকানে পাওয়া যাবে ‘লজিটেক’য়ের প্রায় সব ধরনের মাউস। সাধারণ মাউসগুলো পাওয়া যাবে সাড়ে ৪শ’ থেকে সাড়ে ৬শ’ টাকায়। তবে একই ব্র্যান্ডের ওয়্যারলেস মাউস কিনতে হলে গুনতে হবে সাড়ে ১ হাজার ২শ’ থেকে ২ হাজার ৪শ’ টাকা। ‘লজিটেক’য়ের মাউসগুলোতে পাওয়া যাবে এক বছরের ওয়ারেন্টি।
অনলাইনে কিনতে চাইলে ক্লিক করুন এই ছবিটাতে।
 
ডিলাক্স ব্রান্ডের মাউস কিনতে চলে যান রাজধানীর আইডিবি ভবনের ‘ফোরসাইট কম্পিউটার অ্যান্ড নেটওয়ার্ক’য়ে। বাহারি রঙের অপটিকাল মাউসগুলোর দাম পড়বে ৩শ’ থেকে ৫শ’ টাকা। তবে এই ব্র্যান্ডের ব্লুটুথ মাউস পাওয়া যাবে ৬শ’ থেকে ১ হাজার ২শ’ টাকায়।
 
গিগাবাইট। লজিটেক। ‘টারগাস’ ব্র্যান্ডের ইউএসবি মাউসের দাম পড়বে ৪শ’ থেকে ৬শ’ টাকা। একই ব্র্যান্ডের ব্লুটুথ মাউস পাওয়া যাবে ১ হাজার ২শ’ টাকায়। এ ধরনের মাউস অনলাইনে কিনতে চাইলে ক্লিক করুন  এখানে 
বাজেট কম হলে ‘এক্সট্রিম’ ব্র্যান্ডের মাউস বেছে নেওয়া যেতে পারে। মাত্র ১৬০ থেকে ২২০ টাকায়ই পাওয়া যাবে মাউসগুলো।
 
এছাড়া অন্যান্য ব্র্যান্ডের মধ্যে ‘গিগাবাইট’ ব্র্যান্ডের মাউস ৩শ’ থেকে ১ হাজার টাকা, ‘প্রোলিংক’ সাড়ে ৬শ’ থেকে ৮শ’ টাকা, ‘জিনিয়াস’ ৮শ’ থেকে ৯শ’ টাকা, ‘হাবিট’ ৮শ’ টাকা, ‘লেক্সমা’ ৯শ’ থেকে ১ হাজার ১শ’ টাকা এবং ‘এইচপি’র মাউসগুলোর দাম সাড়ে ৯শ’ থেকে ২ হাজার ১শ’ টাকা। অনলাইনে কিনতে চাইলে ক্লিক করুন এই ছবিটাতে।
 
 
লম্বা সময় ধরে মাউস ব্যবহার করতে চাইলে অবশ্যই কিছু বিষয় জেনে রাখতে হবে।
 
ঝামেলা বিহীন ব্যবহারের জন্য মাউস সবসময় মসৃণ জায়গায় রাখতে হবে। এক্ষেত্রে মাউসপ্যাড ব্যবহার করা ভালো।
 তিনি আরও বলেন, “ইউএসবি মাউস ঠিকমতো কাজ না করলে তা পোর্ট থেকে বিচ্ছিন্ন করে পুনরায় সংযুক্ত করে নিতে হবে।”এছাড়াও মাউস যাতে হাত থেকে পড়ে নষ্ট না হয়, সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।
 
কোথায় পাবেন মাউসগুলো ?
ঢাকা শহরের আইডিবি ভবন, বসুন্ধরা সিটি, মাল্টিপ্ল্যান সেন্টার, যমুনা ফিউচার পার্কসহ ছোট বড় সব ধরনের কম্পিউটার কিংবা ইলেকট্রনিক্সের দোকানে মাউস পাওয়া যায়। এছাড়াও দেশের সবথেকে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিলে পাবেন বিভিন্ন ব্রান্ডের মাউসের বিশাল সমাহার। সেখান থেকে চাইলেও কিনতে পারবেন অনলাইনে অর্ডার দিয়ে।
 
*মাউস* *এক্সেসরিজ* *কম্পিউটারপণ্য* *স্মার্টশপিং*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★