ওয়াটার হিটার

ওয়াটারহিটার নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

শীতের এই সময়টাতে বাড়িতে পানি গরম করার চিন্তা আপনাকে একেবারেই করতে হবে না! নিশ্চিন্তে এই দ্বায়িত্বটা দিয়ে দিতে পারেন ওয়াটার হিটারের হাতে। এই শীতে যারা গরম পানিতে গোসলে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন তাদের জন্য এটি বেশি কার্যকরী। বাড়িতে আত্মীয়স্বজন কিংবা নিজ প্রয়োজনে ঝামেলাহীন ভাবে চা কিংবা কফি তৈরীর পানি গরম করতে এটি ব্যবহার করতে পারবেন।

শীতের সময় ঠান্ডার ভয়ে নিয়মিত গোসল করতে ভয় পান যারা তারা এই ধরনের ওয়াটার হিটার ব্যবহার করে দ্রুত পানি গরম করে নিতে পারবেন। যেকোন প্লাস্টিকের পাত্রে পানির সাথে সংযুক্ত করে নিমিষেই পেয়ে যাবেন ঈষদুষ্ণ গরম পানি, গোসলে পানে অনাবিল প্রশান্তি। মেডিকেল সাইন্স অনুযায়ী সব শ্রেণীর মানুষের জন্য ঈষদুষ্ণ গরম পানিতে গোসল করা স্বাস্থ্যসম্মতও বটে।

অনেকেই হয়তবা মনে করছেন এই হিটারের বিদ্যুৎ খরচ অনেক বেশি! আসলে কিন্তু এতোটা বেশি বিদ্যুৎ খরচ হবে না। আর বিদ্যুৎ খরচ একটু বেশি হলেও এটি আপনার সময় বাঁচাবে। এধরনের ওয়াটার হিটারের উপর দস্তার প্রলেপ থাকায় বৈদ্যুতিক শকের কোন ভয় নেই। সম্পূর্ণ নিরাপদ ও নিশ্চিন্তে আপনি এটি ব্যবহার করতে পারবেন।

খেয়াল রাখবেন বৈদ্যুতিক সংযোগ থাকা অবস্থায় হিটারের গায়ে যেন পানি লেগে না থাকে। হিটারের হাতলে ধরতে অতিরিক্ত সাবধানতার জন্য শুকনা কাপড় ব্যবহার করতে পারেন। ওয়াটার হিটারের জন্য আলাদা বৈদ্যুতিক সংযোগ ব্যবহার করা ভালো। পানি গরম শেষে সুইচ বন্ধ করে হিটারের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করুন।

পাতের বা ধাতব স্টিকের ওয়াটার হিটারগুলোতে পানি ছাড়া অন্য কোন তরল পদার্থ গরম করার কাজে ব্যবহার করা যাবে না। পাতের ওয়াটার হিটারগুলো হাতল বাদে বাকি অংশ পানিতে ডুবিয়ে ব্যবহার করতে হয়।

দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিলে পানি গরম করার বিভিন্ন হিটার পাওয়া যাচ্ছে। দেশের যেকোন প্রান্ত থেকে রুমহিটার, হট শাওয়ার ও ওয়াটার হিটার কিনতে আজকেরডিলের ওয়েবসাইটে ঢুঁ মারতে পারেন। ছবিতে প্রদর্শিত ওয়াটার হিটার গুলো কিনতে ও একাধিক কালেকশন দেখতে এখানে ক্লিক করুন

*ওয়াটারহিটার* *পানিগরম* *স্পন্সরডকনটেন্ট* *আজকেরডিল* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

কিনতে ক্লিক করুননতুন বছর আসছে শীতের হিমেল হাওয়া সঙ্গে নিয়ে। হিমহিম শীতের এই সময়ে নিজেকে হট রাখাটা খুব জরুরী। কারণ সামান্য ঠান্ডাতেই আপনি সর্দি-কাশিতে জড়িয়ে পড়েতে পারেন। তাই এই শীতে গরম পোশাকের পাশাপাশি নিজেকে এবং পুরো পরিবারকে হট রাখা চাই-ই-চাই। আর আপনাকে হট রাখতে প্রযু্ক্তি বাজারে এসেছে না রকমের উইন্টার গ্যাজেট যা ব্যবহারে প্রচন্ড শীতের মধ্যেও আপনি থাকবেন হট! চলুন শীতে হট থাকলে চাইলে বাড়িতে কি কি গ্যাজেট রাখবেন দেখে নেই।

হট শাওয়ার:

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুন
ঠান্ডায় কাপাকাপির দিন শেষ। শীতের সময় ঠান্ডার ভয়ে নিয়মিত গোসল করতে ভয় পান যারা তাদের জন্য এলো হট শাওয়ার। ওয়াশরুমে আপনার শাওয়ারের সাথে সংযুক্ত করে নিমিষেই পেয়ে যাবেন ঈষদুষ্ণ গরম পানি, গোসলে পাবেন অনাবিল প্রশান্তি। মেডিকেল সাইন্স অনুযায়ী সবশ্রেনীর মানুষের জন্য ঈষদুষ্ণ পানিতে গোসল করা স্বাস্থ্যসম্মত ও বটে।

রুম হিটার

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুন
শীতে সকালের নরম রোদ বেশ উপভোগ্য হলেও কনকনে শীতের যন্ত্রণাও কম নয়। বারান্দায় রোদ থাকলেও ঘরের ভেতর যেন থাকে তুষার শীত, বিশেষ করে শিশু ও প্রবীণদের জন্য এই শীত সহ্য করা খানিক কঠিন। তাছাড়া অনেকেরই আছে অ্যাজমাসহ নানা রোগ। শীতের কনকনে ঠান্ডা বাতাস তাদেরকে পুরো শীত জুড়েই অসুস্থ্য করে রাখে।

শীতের এ দুর্যোগে তাদেরকে একটু স্বস্তি দিতে পারে রুম হিটার । বছরজুড়ে হালকা শরীর ব্যথার সমস্যা থাকলেও শীতকালে তা বেড়ে যায় উল্লেখযোগ্য হারে। কারো হাড়ের জোড়ায়, কারো কোমরে, কারো পিঠে, কারো পায়ের মাংসে ব্যথা হয়। শীতের এই সময়টাতে সামান্য আঘাত পেলেও তার ব্যথা যেতেই চায় না- তীব্র থেকে তীব্রতর হয়। তাই ঘরে রুম হিটার থাকলে এই ব্যথা বেদনা থেকে পাওয়া যেতে পারে রেহাই।

কুইক ওয়াটার হিটার:

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুন
শীতের এই সময়টাতে দ্রুত পানি গরম করার জন্য এই ওয়াটার হিটার খুবই কার্যকর। বিদ্যুৎ খরচ একটু বেশি হলেও এটি আপনার সময় বাঁচাবে। আর কুইক ওয়াটার হিটারটির উপর দস্তার প্রলেপ থাকায় বৈদ্যুতিক শকের কোন ভয় নেই। সম্পূর্ণ নিরাপদ ও নিশ্চিন্তে আপনি এটি ব্যবহার করতে পারবেন।


যেখানে পাবেন:

কিনতে ক্লিক করুন
উইন্টার এই গ্যাজেট গুলো বর্তমানে সব ধরনের ইলেকট্রিক শোরুমেই পাওয়া যাচ্ছে। তবে ঘরে বসেই দেশের যে কোন প্রান্ত থেকে আপনি এই গ্যাজেট গুলো অলাইনে কিনতে পারবেন। সবচেয়ে কমদামে ভালমানের উইন্টার গ্যাজেট কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*হটশাওয়ার* *রুমহিটার* *ওয়াটারহিটার* *শীতেরপণ্য* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

শীত মানেই শীতল অনুভূতি। ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশ। শীতের দিনে বারবার খাবার কিংবা পানি গরম করতে কার ভালো লাগে। আবার এ সময় ঠাণ্ডা খাবারও খেতে ভালো লাগে না। এ সমস্যা সমাধানে বাজারে আছে খাবার ও পানি গরম রাখার নানা সরঞ্জাম। তবে মাত্র কয়েকটি উইন্টার গ্যাজেট দ্বারা আপনার এই শীতকাতুরে অনুভূতিটা হয়ে উঠতে পারে উষ্ণ।

চলুন জেনে নেই সেগুলো সমন্ধে: 

 

 

 

 

 

 

 

 

হটপট : শীতে খাবার গরম রাখতে হটপটের জুড়ি নেই। বারবার খাবার গরম করার ঝামেলা এড়াতে নিতে পারেন হটপট। খাবার দীর্ঘ সময় গরম থাকবে, স্বাদও থাকবে অটুট। আধা কেজি থেকে শুরু করে ১৪ কেজি পর্যন্ত খাবার রাখার হটপট আছে। এসব হটপটে আট থেকে ১০ ঘণ্টা পর্যন্ত খাবার গরম থাকে। হটপটগুলো সাধারণত গোলাকৃতির হয়ে থাকে। ভেতরে সম্পূর্ণ স্টিলের এবং বাইরে প্লাস্টিকের আবরণ দেওয়া। হটপট সিঙ্গেল অথবা সেট হিসেবে কিনতে পারবেন। মিয়াকো, নোভা, মিলটন, প্যানাসনিকসহ বিভিন্ন ব্রান্ডের হটপট পাবেন বাজারে। সেট ছাড়াও এর ধারণক্ষমতার ওপরও নির্ভর করে দাম। ছোট হটপট সাধারণত ২৫০ থেকে ৭০০ টাকা। মাঝারিগুলোর দাম পড়বে ৭৫০ থেকে দুই হাজার টাকা। বড় কিনতে গেলে গুনতে হবে দুই হাজার থেকে তিন হাজার ৫০০ টাকা পর্যন্ত। সেট পাবেন এক হাজার থেকে চার হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে। 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ফ্লাস্ক : পানি দীর্ঘক্ষণ গরম রাখে ফ্লাস্ক। সর্বনিম্ন ২৫০ গ্রাম থেকে দুই লিটার পর্যন্ত পানি রাখতে পারবেন গোলাকৃতির ফ্লাস্কগুলোতে। হটপটের মতো এটিও ভেতরে স্টিল ও বাইরে প্লাস্টিকের। তবে কিছু ফ্লাস্ক আছে সম্পূর্ণ স্টিলের। ফ্লাস্কের ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে রিগ্যাল, পমেট, নোভিনা বেশ জনপ্রিয়। মাত্র ৪৫০ থেকে দুই হাজার ৫০০ টাকার মধ্যেই পাবেন পছন্দের ফ্লাস্কটি।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

কফি মেকার : বারবার কফি বানানোর ঝামেলা এড়াতে কিনে নিতে পারেন কফি মেকার। পরিমাণমতো কফি ও চিনি দিয়ে দিলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে কফি বানিয়ে দেবে এই মেকারটি। বিভিন্ন ব্র্যান্ড, মডেল ও ধারণক্ষমতার ওপর নির্ভর করে এগুলোর দাম। ফিলিপস, নোভিয়ান, নোভা, মিয়াকোর কফি মেকারগুলো পাবেন দুই হাজার থেকে ১০ হাজার টাকার মধ্যে। সঙ্গে থাকছে কম্পানিভেদে এক থেকে দুই বছরের ওয়ারেন্টি।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ওয়াটার হিটার : চা, কফি ও পানি গরম করার জন্য আছে ওয়াটার হিটার। স্টিলের হিটার ৫০০ থেকে এক হাজার ৫০০ ওয়াট তাপমাত্রার হয়ে থাকে। ওয়াটার হিটারের ব্র্যান্ড ও ওয়াটভেদে দামের তারতম্য হয়। ৫০০ ওয়াটের দাম পড়বে ১২০ থেকে ৪০০ টাকা। এক হাজার ওয়াটের দাম ৪৫০ থেকে ৭৫০ টাকা। দেড় হাজার ওয়াটের পাবেন এক থেকে দেড় হাজার টাকার মধ্যেই।

ওভেন : লাল, সাদা, কালো বিভিন্ন রং ও ব্র্যান্ডের ওভেন পাবেন। স্যামসাং ওভেন ৯ হাজার ৫০০ থেকে শুরু করে পাবেন ৩৫ হাজার টাকা পর্যন্ত। শুধু খাবার গরম করার ওভেনগুলোর দাম ৯ হাজার ৫০০ থেকে শুরু করে ১৩ হাজার পর্যন্ত। গ্রিল করার ওভেন পাবেন ১৪ হাজার থেকে ২১ হাজার টাকার মধ্যে। সঙ্গে এক বছরের ওয়ারেন্টি। তবে কিছু কিছু নির্দিষ্ট মডেলের ওভেনে শুধু এক বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি থাকে। ছয় হাজার ২৫০ টাকা থেকে শুরু করে ১৫ হাজার টাকার মধ্যে। এ ছাড়া প্যানাসনিকের ওভেন পাবেন ১০ হাজার থেকে ১৩ হাজার ৫০০ টাকায়। সঙ্গে পাবেন এক বছরের ওয়ারেন্টি। এলজি ও বাটারফ্লাইয়ের ওভেন পাবেন আট হাজার ৭০০ থেকে ১৬ হাজার টাকার মধ্যে। ওয়ালটনের ওভেন আট হাজার থেকে ১৬ হাজার টাকা। সঙ্গে এক বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি রয়েছে।

হট শাওয়ার : ঠান্ডায় কাপাকাপির দিন শেষ। শীতের সময় ঠান্ডার ভয়ে নিয়মিত গোসল করতে ভয় পান যারা তাদের জন্য এলো হট শাওয়ার। তাহলে আর শীতের সকালে গোসল করতে ভয় কেন ! ওয়াশরুমে আপনার শাওয়ারের সাথে সংযুক্ত করে নিমিষেই পেয়ে যাবেন ঈষদুষ্ণ গরম পানি, গোসলে পাবেন অনাবিল প্রশান্তি। ইলেকট্রিক হট শাওয়ার দিয়ে গরম পানি বের হবে খুব কম বিদ্যুৎ খরচে। ৯৫% থার্মাল কন্ট্রোল ও ৭৫% বিদ্যুৎ সাশ্রয় করে।

যেখানে পাবেন : নিউ মার্কেট, গুলিস্তান স্টেডিয়াম মার্কেট, গুলশান ডিসিসি মার্কেট, ধানমণ্ডি, বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, মিরপুরসহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিকসের দোকানগুলোতে পেয়ে যাবেন খাবার গরম রাখার এসব পণ্য। আর আজকের ডিলের উইন্টার কালেকশনউইন্টার গ্যাজেট নিয়ে রয়েছে শীতের পণ্যের দারুন সব সংগ্রহ। 

শীতের পণ্য কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 

*শীতেরপণ্য* *হটপট* *ওভেন* *হটশাওয়ার* *ওয়াটারহিটার* *কফিমেকার* *ফ্লাস্ক* *গৃহস্থালিসামগ্রী*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ইলেকট্রিক ওয়াটার হিটারঅফিস কিংবা বাড়িতে পানি গরম করার চিন্তা আপনাকে একেবারেই করতে হবে না!  নির্দিধায় এই দ্বায়িত্বটা দিয়ে দিতে পারেন ইলেকট্রিক ওয়াটার হিটারের হাতে। বাড়িতে আত্মীয়স্বজন কিংবা নিজ প্রয়োজনে ঝামেলাহীন ভাবে চা কিংবা কফি তৈরী করতে পারবেন মাত্র ৫ মিনিটে। চলুন ৫ মিনিটেই পানি গরম করে চা বানিয়ে ফেলি।

ওয়াটার হিটার

ওয়াটার হিটার কিনতে ক্লিক করুনওয়াটার হিটার কিনতে ক্লিক করুন
বর্তমান বাজারে ছোট বড় নানান রকম ইলেকট্রিক ওয়াটার হিটার পাওয়া যায়। এর মধ্যে রয়েছে দুটি ধরন— ফ্লাস্ক ও কেটলি। এছাড়াও এক ধরনের স্ট্যান্ড বা স্টিক ওয়াটার হিটার পাওয়া যায়। এই হিটারগুলোর পাত পানিতে ডুবিয়ে পানি গরম করা হয়। ফ্লাস্ক হিটারগুলোর পানি ধারণ ক্ষমতা এক থেকে দুই লিটার এবং কেটলি হিটারগুলোর পানি ধারণ ক্ষমতা চার থেকে ১০ লিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। বাজারে মিয়াকো, ওয়ালটন, ফিলিপস্‌ নোভেনা, কমেট, বসিনি, ওশেন, প্রেস্টিজ, নোভা, ভিশন ও প্যানাসনিকসহ আরও কিছু ব্র্যান্ডের ইলেকট্রিক ওয়াটার হিটার পাওয়া যায়।

দরদাম

ওয়াটার হিটার কিনতে ক্লিক করুনওয়াটার হিটার কিনতে ক্লিক করুন
এক থেকে দুই লিটার ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন প্লাস্টিক ও স্টিলের প্রতিটি মিয়াকো ওয়াটার হিটারের মূল্য ৮শ’ থেকে ২ হাজার টাকা। প্রতিটি ওয়াল্টন ওয়াটার হিটার ৮শ’ থেকে ১ হাজার ৬শ’ ৮০ টাকা। ফিলিপস্‌ ১ হাজার ২শ’ থেকে ২ হাজার টাকা। নোভেনা ওয়াটার হিটার ৮শ’ থেকে ২ হাজার ৮শ’ টাকা। কমেট ওয়াটার হিটার ১ হাজার ৫শ’ টাকা। বসিনি ৯শ’ থেকে ১ হাজার ৮শ’ টাকা। ওশেন ৮শ’ থেকে ২ হাজার টাকা। প্রেস্টিজ ১ হাজার থেকে ২ হাজার টাকা। নোভা ৮শ’ থেকে ২ হাজার টাকা। প্যানাসনিক দেড় হাজার থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকা।

ব্যবহার বিধি ও কার্যপ্রণালী

ওয়াটার হিটার কিনতে ক্লিক করুন
পানি গরম করার এসব যন্ত্রের প্যাকেটের গায়ে লেখা ব্যবহার বিধি থেকে দেওয়া হল:
* খেয়াল রাখুন বৈদ্যুতিক সংযোগ থাকা অবস্থায় হিটারের গায়ে যেন পানি লেগে না থাকে
* হিটারের হাতলে ধরতে অতিরিক্ত সাবধানতার জন্য শুকনা কাপড় ব্যবহার করতে পারেন।
* ওয়াটার হিটারের জন্য আলাদা বৈদ্যুতিক সংযোগ ব্যবহার করুন।
* সুইচ বন্ধ করে হিটারের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করুন
* পাতের বা ধাতব স্টিকের ওয়াটার হিটারগুলো পানি ছাড়া অন্য কোন তরল পদার্থ গরম করার কাজে ব্যবহার করা যাবে না।
* পাতের ওয়াটার হিটারগুলো হাতল বাদে বাকি অংশ পানিতে ডুবিয়ে ব্যবহার করতে হয়।

কোথায় পাবেন

ওয়াটার হিটার কিনতে ক্লিক করুন
বায়তুল মোকারম মার্কেট, গুলিস্তান বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম মার্কেট, নিউ মার্কেট, গুলশান ডিসিসি সুপার মার্কেট ১ ও ২, বসুন্ধরা সিটি শপিং মলসহ দেশের প্রায় সব ইলেকট্রনিক্সের শো-রুমে ইলেকট্রিক ওয়াটার হিটারগুলো পাবেন। আর ঘরে বসেই ভালোমানের ওয়াটার হিটার কিনতে চাইলে ভরসা রাখুন দেশের সেরা অনলাইন শপিংমল আজকের ডিলের ওয়েবসাইটে। আজকের ডিল থেকে অনলাইনে ওয়াটার হিটার কিনতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন

*ওয়াটারহিটার* *ইলেকট্রিকহিটার* *স্মার্টশপিং*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★