ওয়াল স্টিকার

ওয়ালস্টিকার নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ওয়ালস্টিকার কিনতে ক্লিক করুনঘরের পরিপাটি সাজ আর আকর্ষণীয় লুক কে না চায়? তাইতো অন্য সব অনুসঙ্গের পাশাপাশি ঘরের দেয়ালটিকেও সবাই একটু নান্দনিকতার ছোঁয়ায় সাজিয়ে নিতে চায়। তাছাড়া ঘরের দেয়ালটি ফাঁকা পড়ে থাকলে কেমন জানি বেমানান দেখায়। কিন্তু দেয়ালে যদি প্রকৃতির নান্দনিকতার রং লাগানো যেত তাহলে দেয়াল হয়ে উঠত আকর্ষণীয় আর ঘরের সৌন্দর্য্যও বৃদ্ধি পেত। এজন্য ঘরের দেয়ালে জুড়ে দিতে পারেন না রঙের স্টিকার। সেটা হতে পারে রংধনু, বিভিন্ন রঙের প্রজাপতি, গাছপাখি,রূপকথার বিভিন্ন চরিত্রের স্টিকার, তারা, বিভিন্ন গ্রহের স্টিকার ইত্যাদি। চলুন আপনার খালি ঘরকে স্টিকারে সাজিয়ে তুলি নিচের স্টিকার গুলো দিয়ে।


স্টিকারের রঙ নির্ধারণ

ওয়ালস্টিকার কিনতে ক্লিক করুন ওয়ালস্টিকার কিনতে ক্লিক করুন

স্টিকারের যেকোনো রঙ বা সজ্জা নির্ধারণের আগে যে ঘরটি সাজাবেন তার সম্পূর্ণ থিম ঠিক করে নিন। এতে করে স্টিকারের রঙ আর সাজ দুটোই আকর্ষণীয়ও হবে। মনে রাখতে হবে ঘরের সব কিছুই যেন একসঙ্গে মানানসই দেখায় এমন কিছু পরিকল্পনা করবেন। এই যেমন ঘড়ি, ফুলদানি, পেইন্টিংস, কুশন এগুলোর সঙ্গে মৌলিক থিমের মিল রাখতে হবে। এই সাধারণ জিনিসগুলোই ঘরকে করে দিতে পারে অসাধারণ।



ওয়াল স্টিকার লাগানোর নিয়ম কানুন

ওয়ালস্টিকার কিনতে ক্লিক করুন

ওয়াল স্টিকার মূলত ওয়াটার প্রুফ, ওয়াশ প্রুফ দেয়ালের জন্য উপযুক্ত। তাহলে দেয়্লে স্টিকারের পুরো ছাপটা মসৃনভাবে ফুটে ওঠে l ছোট ঘরের একটা দেয়াল কিংবা সিলিংয় সাজাতে পারেন ওয়াল স্টিকার দিয়ে। বড় ঘর হলে পুরোটাজুড়ে কিংবা বিপরীত দেয়ালে। ছোট ঘরে উজ্জ্বল আলো আর সূক্ষ্ম ডিজাইন উপযোগী। এ ক্ষেত্রে শুধু একটিমাত্র দেয়াল ব্যবহার করুন স্টিকার, তাহলে নান্দনিকতা বজায় থাকবে। সিলিংয়ে থ্রিডি পেইন্টিং, আর পুরো ঘরজুড়ে প্লেইন পেইন্ট বা টেকচারের স্টিকার লাগাতে পারেন। ছোটদের ঘরজুড়ে থাকতে পারে রঙিন কার্টুন কিংবা ফুল, পাখি, প্রজাপতি, ড্রয়ং-ডাইনিংয়ে রাস্টিক ফ্লোরাল প্রিন্ট, গাছ ডাল-পালা সহ বা যে কোনো ধরনের প্যাটার্ন ওয়ার্ক ভালো মানায়।


ওয়ালস্টিকার কিনতে ক্লিক করুনবেডরুম বা যেসব ঘরে পর্যাপ্ত আলো-বাতাস আছে এমন ঘরে স্টিকার ভালো মানায়। দেয়াল ভালো করে ঘষে নিতে হবে l এবার স্কেল দিয়ে হালকা দাগ দিয়ে নিতে হবে দেয়ালের গায়ে একদম স্টিকারের মাপ অনুযায়ী l এবারে স্টিকারে এক পাশ থেকে সামান্য প্লাষ্টিক টেনে খুলে হবে l এবার দু মাথা দুই হাতের আঙ্গুল দিয়ে চেপে আস্তে করে দেয়ালে লাগাতে হবে এবং নিচ থেকে প্লাস্টিকের বাইরের সাদা কাগজটি টেনে বের করে, স্টিকারের প্লাস্টিকটি দেয়ালের গেয়ে ঘষে ঘষে খুব ভালো করে এটে দিতে হবে l এবার এক পাশ থেকে আস্তে আস্তে স্টিকারের প্লাষ্টিকটি টেনে তুলতে হবে খুব সাবধানে l ভালোমানের স্টিকার হলে খুব সহজেই দেয়ালে বসে যাবার কথা l সব শেষে পরিষ্কার ন্যাকড়া দিয়ে আর্টটি মুঝে দিতে হবে l এবার আপনি পেয়ে যাবেন আপনার আকর্ষনীয় দেয়ালের সাজ l

কোথায় পাবেন?

ওয়ালস্টিকার কিনতে ক্লিক করুন

আপনার ঘরের দেয়ালকে আকর্ষনীয় করে তুলতে এবং ঘরকে নতুনত্বের ছোঁয়ায় রাঙিয়ে দিতে রাজধানী ঢাকা সহ দেশের বড়বড় সব মার্কেট গুলোতেই ওয়ালস্টিকার পেয়ে যাবেন। যারা ঘরে বসে আকর্ষনীয স্টিকার কিনতে চান তারা দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন মপিংমল আজকের ডিলের ওয়েবসাইটে গিয়ে পছন্দমত অর্ডান করুন। আপনার চাহিদা মত দেশের যে কোন প্রান্তে তারা আপনার অর্ডারকৃত পন্যটি পৌঁছে দেবে।

নান্দনিক সব ওয়াল স্টিকারসহ ঘরসাজানোর সব আয়োজন দেখতে ও কিনতে এখানে ক্লিক করুন।

*গৃহসজ্জা* *ওয়ালস্টিকার*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

নিজের ঘর সাজান রুচি আর সামর্থ্য অনুযায়ী। চিত্রকর্ম ও ফটোগ্রাফ দিয়েও ঘর সাজাতে পারেন। আমরা সবাই নিজেদের রুমটিকে একটু আকর্ষণীয় করতে চাই, এক্ষেত্রে ওয়াল-মেট বা দেয়াল সাজানো অনেক গুরুত্ব বহন করে, তাই এবার নিয়ে আসা হল চমৎকার কিছু ওয়াল ডেকোরেশন আইডিয়া l
 
 
করিডর
ঘরে ঢোকার দেয়াল যদি ছোট ও সরু হয়, তবে চিত্রকর্মের আয়তনও ছোট হবে।
বড় কোনো পোস্টার দেয়ালে টাঙাবেন না। কাচ দিয়ে বাঁধাই করা ছোট ছোট চিত্রকর্ম ভালো মানাবে।
আর দেয়াল বড় হলে বড় বড় পোস্টার পুরো দেয়ালে লাগাতে পারেন।
এসব পোস্টারের বিষয় হতে পারে প্রাকৃতিক দৃশ্য অথবা ল্যান্ডস্কেপ।
 
 
 
 
বসার ঘর
বসার ঘরে বিমূর্ত ধরনের চিত্রকর্ম ঝোলাতে পারেন।
চিত্রকর্ম ঝোলানোর সময় যে দেয়ালে আলো আছে তার বিপরীত দেয়ালে ঝোলাতে চেষ্টা করুন।
বসার ঘরের আসবাব ও দেয়ালের রঙের সঙ্গে চিত্রকর্ম বাঁধাই করা ফ্রেমের রঙের বিপরীত কনট্রাস্ট রাখতে চেষ্টা করুন।
চিত্রকর্ম যেমন রাখতে পারেন, তেমনি প্রিয় ব্যক্তির প্রতিকৃতিও বাঁধাই করে ঝোলাতে পারেন।
এসব ছবি বিশেষভাবে আলোকিত করতে প্রয়োজনে ছবির ওপরে স্পট লাইট দিতে পারেন।
 
 
 
শোবার ঘর
এই ঘরে বাইরের লোকের যেহেতু সে অর্থে প্রবেশ থাকে না, সেহেতু ব্যক্তিগত ছবি রাখতে পারেন।
সেটা হতে পারে বিয়ের, হানিমুন কিংবা বাইরে কোথাও বেড়াতে গেছেন,
পরিবারের সবার সঙ্গে আড্ডার কোনো অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি।
আর শোবার ঘরে যে ছবি বা চিত্রকর্ম টাঙাবেন, তা যেন হালকা রঙের হয়।
 
 
 
 
খাবার ঘর
খাবার ঘরের চিত্রকর্ম হবে সে ঘরের পরিবেশ অনুযায়ী।
এ ক্ষেত্রে খাবার টেবিল-সংলগ্ন বা কাছাকাছি দেয়ালে ফল বা সবজি আঁকা চিত্রকর্ম রাখতে পারেন।
এ ছাড়া টাইলসের ওপরে আঁকা চিত্রকর্মও এ ঘরে মানাবে। তবে খাবার ঘরে বেশি চিত্রকর্ম বেমানান।
রেফ্রিজারেটর যদি খাবার ঘরে হয়, তবে রেফ্রিজারেটরের ওপরে কৃত্রিম ফলের ঝুড়ির ছবি লাগাতে পারেন।
মানানসই ওয়াল স্টিকারও লাগাতে পারেন l 
 
 
 
শিশুর ঘর
বাচ্চার ঘরের চিত্রকর্ম বা পোস্টার—সব কিছুই রঙিন হওয়া বাঞ্ছনীয়।
এ ক্ষেত্রে বড় বড় রঙিন পোস্টার দিয়ে সাজাতে পারেন।
মেয়ে-বাচ্চার ঘরে দিতে পারেন সিনড্রেলা, বারবি ডল, তেমনি ছেলে-বাচ্চার ঘরে সুপারম্যান, বেন টেন  ইত্যাদি।
এ ক্ষেত্রে শিশুর পছন্দ-অপছন্দকে গুরুত্ব দিন।
 
 
বারান্দা
বারান্দায় টাঙানো চিত্রকর্ম হতে পারে বিভিন্ন ফুল বা প্রাকৃতিক দৃশ্য। এগুলো হলেই দৃষ্টিনন্দন হবে। তা ছাড়া বারান্দার সঙ্গে এ রকমই মানায়।
 
আর সবগুলো আইটেমই আপনি পেয়ে যাবেন নিউ মার্কেট, চন্দ্রিমাতে, এছাড়া আজকের ডিল তো আছেই l আজকের ডিল থেকে কিনতে ক্লিক করুন l
 

 

*ওয়ালম্যাট* *ওয়ালস্টিকার* *দেয়ালসজ্জা* *গৃহসজ্জা*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

শুরু হয়েছে ঋতুরাজ বসন্ত। বসন্তে প্রকৃতির নবসাজের সাথে মিল রেখে আপনি আপনার ঘরের দেয়ালটিও সাজিয়ে নিতে পারেন। তাছাড়া ঘরের দেয়ালটি ফাঁকা পড়ে থাকলে কেমন জানি বেমানান দেখায়। কিন্তু দেয়ালে যদি বসন্তের নান্দনিকতার রং লাগানো যেত তাহলে দেয়াল হয়ে উঠত আকর্ষণীয় আর ঘরের সৌন্দর্য্যও বৃদ্ধি পেত। এজন্য ঘরের দেয়ালে জুড়ে দিতে পারেন না রঙের স্টিকার। সেটা হতে পারে রংধনু, বিভিন্ন রঙের প্রজাপতি, গাছপাখি,রূপকথার বিভিন্ন চরিত্রের স্টিকার, তারা, বিভিন্ন গ্রহের স্টিকার ইত্যাদি। চলুন আপনার খালি ঘরকে বাসন্তী স্টিকারে সাজিয়ে তুলি নিচের স্টিকার গুলো দিয়ে। কন্টেনটির স্টিকারের ছবিতে ক্লিক করে আপনি বিস্তারিত জানাতে পারবেন।
 
রঙ নির্ধারণ
স্টিকারের যেকোনো রঙ বা সজ্জা নির্ধারণের আগে যে ঘরটি সাজাবেন তার সম্পূর্ণ থিম ঠিক করে নিন। এতে করে স্টিকারের রঙ আর সাজ দুটোই আকর্ষণীয়ও হবে। মনে রাখতে হবে ঘরের সব কিছুই যেন একসঙ্গে মানানসই দেখায় এমন কিছু পরিকল্পনা করবেন। এই যেমন ঘড়ি, ফুলদানি, পেইন্টিংস, কুশন এগুলোর সঙ্গে মৌলিক থিমের মিল রাখতে হবে। এই সাধারণ জিনিসগুলোই ঘরকে করে দিতে পারে অসাধারণ। 
 
 
 
 
 
ওয়াল স্টিকার লাগানোর নিয়ম কানুন
ওয়াল স্টিকার মূলত ওয়াটার প্রুফ, ওয়াশ প্রুফ দেয়ালের জন্য উপযুক্ত। তাহলে দেয়্লে স্টিকারের পুরো ছাপটা মসৃনভাবে ফুটে ওঠে l ছোট ঘরের একটা দেয়াল কিংবা সিলিংয় সাজাতে পারেন ওয়াল স্টিকার দিয়ে। বড় ঘর হলে পুরোটাজুড়ে কিংবা বিপরীত দেয়ালে। ছোট ঘরে উজ্জ্বল আলো আর সূক্ষ্ম ডিজাইন উপযোগী। এ ক্ষেত্রে শুধু একটিমাত্র দেয়াল ব্যবহার করুন স্টিকার, তাহলে নান্দনিকতা বজায় থাকবে। সিলিংয়ে থ্রিডি পেইন্টিং, আর পুরো ঘরজুড়ে প্লেইন পেইন্ট বা টেকচারের স্টিকার লাগাতে পারেন। ছোটদের ঘরজুড়ে থাকতে পারে রঙিন কার্টুন কিংবা ফুল, পাখি, প্রজাপতি, ড্রয়ং-ডাইনিংয়ে রাস্টিক ফ্লোরাল প্রিন্ট, গাছ ডাল-পালা সহ বা যে কোনো ধরনের প্যাটার্ন ওয়ার্ক ভালো মানায়। 
 
বেডরুম বা যেসব ঘরে পর্যাপ্ত আলো-বাতাস আছে এমন ঘরে স্টিকার ভালো মানায়। দেয়াল ভালো করে ঘষে নিতে হবে l এবার স্কেল দিয়ে হালকা দাগ দিয়ে নিতে হবে দেয়ালের গায়ে একদম স্টিকারের মাপ অনুযায়ী l এবারে স্টিকারে এক পাশ থেকে সামান্য প্লাষ্টিক টেনে খুলে হবে l এবার দু মাথা দুই হাতের আঙ্গুল দিয়ে চেপে আস্তে করে দেয়ালে লাগাতে হবে এবং নিচ থেকে প্লাস্টিকের বাইরের সাদা কাগজটি টেনে বের করে, স্টিকারের প্লাস্টিকটি দেয়ালের গেয়ে ঘষে ঘষে খুব ভালো করে এটে দিতে হবে l এবার এক পাশ থেকে আস্তে আস্তে স্টিকারের প্লাষ্টিকটি টেনে তুলতে হবে খুব সাবধানে l ভালোমানের স্টিকার হলে খুব সহজেই দেয়ালে বসে যাবার কথা l সব শেষে পরিষ্কার ন্যাকড়া দিয়ে আর্টটি মুঝে দিতে হবে l এবার আপনি পেয়ে যাবেন আপনার আকর্ষনীয় দেয়ালের সাজ l
 
কোথায় পাবেন?
আপনার ঘরের দেয়ালকে আকর্ষনীয় করে তুলতে এবং ঘরকে নতুনত্বের ছোঁয়ায় রাঙিয়ে দিতে রাজধানী ঢাকা সহ দেশের বড়বড় সব মার্কেট গুলোতেই ওয়ালস্টিকার পেয়ে যাবেন। যারা ঘরে বসে আকর্ষনীয স্টিকার কিনতে চান তারা দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন মপিংমল আজকের ডিলের ওয়েবসাইটে গিয়ে পছন্দমত অর্ডান করুন। আপনার চাহিদা মত দেশের যে কোন প্রান্তে তারা আপনার অর্ডারকৃত পন্যটি পৌঁছে দেবে। 
 
নান্দনিক সব ওয়াল স্টিকার কিনতে এখানে ক্লিক করুন
 
 
*ওয়ালস্টিকার* *গৃহসজ্জা* *শপিং* *স্মার্টশপিং*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★