কফি

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 গর্ভাবস্থায় চা-কফি পান করা কি নিরাপদ?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*গর্ভাবস্থা* *চা* *কফি* *ক্যাফেইন*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: “তোর সাথে কফি খেতে খুব ইচ্ছে করছে।” --- নীলাদ্রি

*কফি* *মেয়ে* *নীলাদ্রি*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 কফি খেলে কি ত্বকে ব্রণের সমস্যা বেশি হয়?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

*কফি* *ত্বকেরযত্ন* *ব্রণ*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ভ্যানিলা কফির রেসিপি কারো জানা আছে কি?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*ভ্যানিলাকফি* *কফি*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 চা না কফি। এ দুটি উষ্ণ পানীয়র মধ্যে কোনটি ভালো?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*চা* *কফি* *গরমপানীয়* *উষ্ণপানীয়*

Risingbd.com: কফি চাই? উড়ে আসবে মুহূর্তেই! আলিফ লায়লার জিন বোধহয় সত্যি সত্যিই চলে আসছে! আলাদিনের চেরাগ ঘষলেই ধোঁয়ার মতো আবির্ভূত হওয়া জিন যেমন আপনার চাওয়া পূরণ করে দেয় মুহূর্তেই (গল্প অনুসারে) ঠিক তেমনই দিন এসে গেছে। পার্থক্য শুধু চেরাগের বদলে আপনার স্মার্টফোনের স্ক্রিন ঘষলেই হবে। হ্যাঁ, এবার আমেরিকাতে... বিস্তারিত পরুন- http://bit.ly/1T3Wwck

*কফি* *কফিচাই* *বেশম্ভব* *আড্ডা* *বিজ্ঞানওপ্রযুক্তি*

খুশি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

মেদ ঝরানোর জন্য সকালে উঠে ব্ল্যাক কফি অনেকেই খান। তবে জানেন কি এই কফির মধ্যেই নারকেল তেল মেশালে ফল পাবেন আরও দ্রুত? শুনতে অদ্ভুত লাগলেও সত্যি। ডায়েটিশিয়ানরা জানাচ্ছেন প্রতি দিনের কফিতে যদি মেশাতে পারেন নারকেল তেল তা হলে মেদ ঝরবে পাঁচ গুণ তাড়াতাড়ি।

যা যা লাগবে:
কফি
নারকেল তেল: এক-দুই টেবল-চামচ
চিনি বা মধু মেশাতে পারেন

প্রস্তুত প্রণালি:
ব্লেন্ডার কাপে কফি ঢালুন। এর মধ্যে নারকেল তেল মেশান। ভাল করে ব্লেন্ড করলে দেখবেন ক্রিমি কফি তৈরি হয়ে যাবে। তৈরি আপনার পানীয়।

কীভাবে কাজ নারকেল তেল মেশানো চা:
১। এনার্জি: মেদ ঝরাতে সব খাবারই যখন ফ্যাট ফ্রি করার কথা ভাবছি আমরা, তখন কফিতে নারকেল তেলের ফ্যাট মেশানো একটু অদ্ভুত লাগছে কি? আসলে অন্য তেলের ফ্যাটি অ্যাসিডের থেকে নারকেল তেলের ফ্যাটি অ্যাসিডের প্রকৃতি একটি আলাদা। অন্যান্য তেলে যেখানে থাকে লং চেন ফ্যাটি অ্যাসিড, নারকেল তেলে থাকে মিডিয়াম চেন ফ্যাটি অ্যাসিড। প্রতি দিনের কফিতে এক-দুই টেবল-চামচ ফ্যাটি অ্যাসিড মেদ ঝরিয়ে এনার্জি বাড়াতে সাহায্য করে।
২। হজম: মিডিয়াম চেন ট্রাইগ্লিসারাইড এনার্জি বাড়িয়ে শরীরের হজম ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। গবেষণায় দেখা গিয়েছে টানা ১২ সপ্তাহ ধরে সকালে এই কফি খেলে রক্তে ভাল কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়ে। বিএমআই কম হয়। ভুঁড়ি কমে।

৩। রোগ প্রতিরোধ: শুধু ওজন কমাতে নয়, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেও দারুণ উপকারী এই কফি। ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস, সোয়াইন ফ্লু, সর্দি, জেনিটাল হারপিস রুখতেও সাহায্য করে এই কফি।
(সংকলিত)
*কফি* *মেদ* *হেলথটিপস*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

এক কাপ কফি মানেই নিমিষে নিজেকে চাঙ্গা করে তোলার জাদুর পেয়ালা। সচরাচর বয়ামে থাকা কফি দিয়ে কিংবা ‘ইনস্ট্যান্ট কফি’ তৈরি করা হয় বাসায়। গরম পানির সঙ্গে কফির গুঁড়া ও দুধ মেশালেই কফি বানানো যায়। এটা একটা উপায় হতে পারে, তবে কফির আসল রেসিপি কিন্তু পুরোটাই এর বিপরীত। কফির রেসিপি রয়েছে হরেকরকম, নানান স্বাদের কফির প্রাচুর্য্য লক্ষ্য করা যায়,  বিশেষ করে, কফি দিয়ে প্রস্তুত করা এসপ্রেসো, কাপাচিনো এবং লাৎটে তো খুবই জনপ্রিয়। কফি পানের নানা রকম দোকান আজকাল আশপাশেই পাওয়া যায়। নানা নামে বিক্রি হচ্ছে নজরকাড়া কফি। বাইরে যেকোনো কফি শপে এসপ্রেসো যন্ত্র দিয়ে বানিয়ে দেবে ক্যাফে লাতে, ক্যাফে মোকা, কাপ্পুচিনোসহ নানা রকম কফি। চাইলে এসব কফি ঘরেই বানাতে পারেন। 
 
বাইরে যেকোনো কফি শপে এসপ্রেসো যন্ত্র দিয়ে বানিয়ে দেবে ক্যাফে লাতে, ক্যাফে মোকা, কাপ্পুচিনোসহ নানা রকম কফি। যদিও বাসায় হুবহু কফি শপের মতো কফি তৈরি করা যায় না বললেই চলে, কিন্তু কাছাকাছি তো যাওয়া যাবে। আর বাসায় যদি একটা কফি মেকার, কফি বিন গ্রাইন্ডার আর কফি বানানোর নিত্য নতুন গ্যাজেটগুলো থাকে, তাহলে তো কোনো কথাই নেই, কফি মেকার কফি বানানোর কাজটি করে দিবে খুব সহজে। আর কিচেন গ্যাজেটগুলো আপনি হাতের কাছের বিভিন্ন মার্কেট ঘুরেই পেয়ে যাবেন, দামও এমন কিছু আহামরি নয়। আরো সহজ উপায় হলো, আজকের ডিল, অনলাইন শপিং সাইট ঘুরে সেখান থেকেই পছন্দমত অর্ডার দেয়া। কফি বানানোর জন্য সকল কিছুই সেখানে আপনি পেয়ে যাবেন।
 
বাসায় সত্যিকারের কফির স্বাদ পেতে ‘ফ্রেশ গ্রাউন্ড কফি’ ব্যবহার করতে হবে। এর জন্য রোস্টেড কফি বিন গুঁড়া করতে হবে। কফি বিন গুঁড়া করার জন্য লাগবে ‘কফি বিন গ্রাইন্ডার’। হাতে গুঁড়া করার জন্য কেনা যেতে পারে ম্যানুয়াল গ্রাইন্ডার। এর ব্যবহারে কোনো বিদ্যুতের দরকার হয় না। কফি বিন গ্রাইন্ডারের মধ্যে রোস্টেড কফি বিন দিয়ে হাতল ঘোরালেই পেয়ে যাবেন কফি বিনের গুঁড়া। কফি বিন গুঁড়া হয়ে গেলে আপনি নানাভাবেই বিভিন্ন রকমের কফি বানাতে পারবেন। চলুন বিশ্বজুড়ে বহুল প্রচলিত কিছু কফির রেসিপি জেনে নেই। 
 
 
 
ক্যাফে মোকা
ক্যাফে মোকা বানাতে হলে আপনাকে ৩০ মিলিলিটার এসপ্রেসো, ১৫ গ্রাম চকলেটের গুঁড়া এবং ২০০ মিলিলিটার ঘন ফুটানো দুধ মেশাতে হবে। আপনি যদি চকলেটের স্বাদ প্রবলভাবে চান, তবে পরিমাণমতো চকলেটের গুঁড়া মিশিয়ে নিতে হবে। ক্যাফে মোকাতেও ক্যাফে লাতের মতো ১ থেকে দেড় সেন্টিমিটার দুধের ফেনা থাকবে। যার ওপরে চকলেটের গুঁড়া দিয়ে মনমতো নকশা করে ফেলতে পারেন।
 
 
 
 
 
 
ব্ল্যাক কফি
গ্রাইন্ডার দিয়ে কফি গুঁড়া করে বাসায় একটি ‘কফি প্লানজার’ ব্যবহার করে ব্ল্যাক কফি তৈরি করতে পারবেন। কফি প্লানজার দিয়ে ৩ কাপ কফি বানাতে হলে লাগবে ৩৫০ মিলিলিটার ফুটানো পানি এবং ৫০ গ্রাম কফির গুঁড়া।
প্রথমে কফি প্লানজারের মধ্যে কফির গুঁড়া রেখে তাতে গরম পানি ঢেলে নাড়তে হবে। কফি প্লানজারে হাতলটা ওপরের দিকে টেনে ৪ থেকে ৫ মিনিট অপেক্ষা করে ধীরে ধীরে হাতলটা নিচের দিকে নামালেই তৈরি হয়ে যাবে ‘ব্ল্যাক কফি’।
 
 
ইতালিয়ান এসপ্রেসো
কফি শপের মতো যন্ত্র ছাড়া বাসায় এসপ্রেসো বানাতে হলে আপনার লাগবে একটি স্টোভ টপ যন্ত্র। প্রবল চাপের মাধ্যমে গরম পানি দিয়ে যখন কফি গুঁড়ার ভেতরের নির্যাস বের করে আনা হয়, সেটাকে বলা হয়ে ইতালিয়ান এসপ্রেসো। স্টোভ টপ যন্ত্রের নিচের অংশে বা চেম্বারে পানি ভরে এর ওপরের ফিল্টারে কফির গুঁড়া ভরতে হবে। তার ওপরের কাপটি নিরাপদভাবে আটকে দিয়ে স্টোভ টপ যন্ত্রটিকে চুলার ওপরে রেখে দিতে হবে। ১ কাপ এসপ্রেসো শটের জন্য ৮ গ্রাম কফির গুঁড়ার নিচে ৮০ মিলিলিটার পানি দিয়ে স্টোভ টপটি চুলার ওপরে ৪ থেকে ৫ মিনিট রেখে দিতে হাবে। ওপরের অংশে কিছুক্ষণের মধ্যেই জমে যাবে কফি গুঁড়ার খাঁটি নির্যাস। যার নাম ইতালিয়ান এসপ্রেসো।
 
 
ক্যাফে লাতে
ক্যাফে লাতে তৈরি করতে আপনাকে এসপ্রেসো বানাতে হবে আগে। ৩০ মিলিলিটার এসপ্রেসোর সঙ্গে ২২০ মিলিলিটার দুধ মেশাতে হবে। ক্যাফে লাতের ওপরে ১ থেকে দেড় সেন্টিমিটার দুধের ফেনা (মিল্ক ফোম) থাকতে হবে। কফি শপগুলোতে এই ফোম তৈরি করা হয় দুধের মধ্যে দিয়ে উচ্চ চাপের সঙ্গে বাষ্প প্রবাহিত করে। কিন্তু বাসায় ক্যাফে লাতে তৈরি করার সময় দুধের ফেনা বানানোর জন্য বাজার থেকে ক্যাফে লাতে ফোম তৈরির যন্ত্র কিনে নিতে হবে। ফোম ছাড়া এই কফি পান করলে মনে হবে যে কোনো সাধারণ দুধ কফি পান করছেন।
 
 
ক্যারামেল লাতে
ক্যাফে লাতের সঙ্গে ১৫ মিলিলিটার ক্যারামেল সিরাপ ব্যবহার করতে হবে। ক্যারামেল সিরাপ ১৫ মিলিলিটার থেকে পরিমাণমতো কম-বেশি ব্যবহার করে নিজের পছন্দমতো স্বাদ নিতে পারেন। ক্যারামেল লাতের ওপরেও ১ থেকেদেড় সেন্টিমিটার ফেনা থাকবে। যার ওপরে আপনি ক্যারামেল সস দিয়ে মনমতো নকশা করে নিতে পারবেন।
 
তো শিখিয়েই তো দিলাম নানান স্বাদের কফি সহজেই বানানোর কৌশল, এবার নিশ্চয়ই আপনাদের নিজের হাতে বানানো এক কাপ কফির দাওয়াত আমি পেতেই পারি :)
 
 
*কফি* *কফিশপ* *কফিমেকার* *ক্যাফেলাতে* *ইতালিয়ানএসপ্রেসো* *ব্ল্যাককফি* *ক্যাফেমোকা* *ক্যারামেললাতে* *কফিবিনগ্রাইন্ডার*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★