কিচেন টুলস

কিচেনটুলস নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

একটা সময় ছিল যখন রান্নাঘরের মতো রান্নার সরঞ্জামও ছিল বিশাল। রান্নাঘরে সারাদিনকার মত ঢুকে পরে এক একে করে সব জিনিস গুছিয়ে নিয়েই তবে রান্না।  সেই দিন কি আর আছে, এখন তো কর্মব্যস্ত নারীরা রান্না ঘরে ঢুকে দম ফেলার সুযোগ পান না। সময়ের কালক্ষেপনে আগের দিনের হাঁড়িকুড়ি, বটি, কুড়ানি, পাটা দিয়ে এখনকার ফ্ল্যাটবাড়ির রান্নাঘর সামলানো সত্যিই কষ্টসাধ্য।
 
তাই স্মার্ট রাধুনিদের জন্য সবসময় খুঁজে নেয়া উচিত স্মার্ট সব কিচেন এপ্লাইয়েন্সেস তবে সেটা হতে হবে ব্যবহারের সুবিধাজনক, হালকা সবচেয়ে বড় দরকার নিজেই ঘষেমেজে পরিষ্কার করতে পারেন এমন সরঞ্জাম। তাই হা-হুতাশ করার আর প্রয়োজন নেই। নিজের চিন্তা কাজে লাগান। টুকটাক প্রয়োজনীয় কিচেন সামগ্রীসংগ্রহ করে নিজের মতো রান্নাঘর কাজের উপযোগী করে নিন। তাই দেখে নিই চলুন রান্নাঘরের জন্য কয়েকটি স্মার্ট টুলস ও সেগুলোর ব্যবহারের খুটিনাটি।

 

১. নাইসার ডাইসার প্লাস মাল্টি চপার

মাল্টি-ফাংশন নাইসার ডাইসার এর সাহায্যে আপনি রান্নাঘরের শাকসব্জী, ফলমূল কাটা, স্লাইস করা ও গ্রেট করতে পারবেন। এটিতে রয়েছে রিমুভেবল টপ পার্ট ব্যবহার করা নিরাপদ আপনার আঙ্গুল কখনোই ব্লেড স্পর্শ করবে না।  প্যাকেজটির সাথে রয়েছে ১টি ট্রান্সপারেন্ট ফুড বক্স; ৪টি ব্লেডের সেট ও ১টি ফুড ক্যাপচার টুল। 

২. ইজি ক্লিন হার্ব সিজার

আপনার রান্নাঘরের জন্য ১টি আদর্শ টুল ইজি ক্লিন হার্ব সিজার। ভেজিটেবল কাটার খুব সহজেই সবজি কাটতে পারে। বিভিন্ন ধরনের শাক যেমন পালংশাক, লালশাক, পুইশাক, কচুর লতি ইত্যাদি কাটুন মুহুর্তের মধ্যে। এটি আরামে ব্যবহার করুন আর রান্নার কষ্ট কমান। এটি সহজেই পরিষ্কার করা যাবে হাই কোয়ালিটি ম্যাটেরিয়ালে প্রস্তুতকৃত।

 

৩. অনিয়ন চপার

আপনার রান্নাঘরের জন্য একটি আদর্শ টুল। ব্যবহার করা খুবই সহজ। যে কোন সবজি, পেঁয়াজ, আদা এর ভিতর বসিয়ে হ্যান্ডেল ঘোরালেই ব্লেন্ড হয়ে যাবে। স্টেইনলেস স্টিল দিয়ে তৈরি ব্লেড যা খুব সহজেই পরিষ্কার করা যায়। 

৪. গ্যাস সেভিং নেট

গ্যাস নিয়ে দুশ্চিন্তা এখন আর না, গ্যাস কম হলেও তাপ শোষন করে তাপমাত্রা সমান রাখবে এই গ্যাস সেভিং নেট। অল্প গ্যাসে ১৪ গুন কম সময়ে রান্না হবে হিট প্রেসার ৩৩ গুন বাড়িয়ে দিবে; তাপমাত্রা ৩৮ গুন বেড়ে যাবে। সিলিন্ডার গ্যাসের চুলায় গ্যাস সাশ্রয় করে আপনি যখন এটিকে আপনার গ্যাস অথবা সিলিন্ডারের চুলার উপর বসাবেন তখন এর তার গুলো লাল হয়ে তাপমাত্রা বাড়িয়ে দিবে অনেকটা ইলেক্টিক হিটারের মত ; যাতে আপনি কম গ্যাস পেলেও রান্না করতে পারবেন। এটি আপনার সিলিন্ডার গ্যাসের চুলার গ্যাস অনেক বাঁচিয়ে দিবে । এটি আপনার রান্নার সময় তাপমাত্রা সব দিকে সমান পরিমাণে ছড়িয়ে দিবে এতে রান্না হবে দ্রুত এবং আপনার সময়ও বাচবে অনেক। 

৫. লেমন স্প্রেয়ার

এই লেমন স্প্রে দিয়ে আপনি খুব সহজেই লেবু অথবা কমলালেবুর রস স্প্রে করতে পারবেন। এর সাহায্যে সালাদ, সফট ড্রিংক ইত্যাদিতে লেমন বা অরেঞ্জ ফ্লেভার যোগ করুন বড় ও ছোট-দুই ধরনের স্ক্যুইজার, বড় বা ছোট ফল স্প্রে করার জন্য। কিভাবে স্প্রে করবেন সেটা ছবির সাহায্যে প্যাকেটের গায়ে সুন্দরভাবে বর্ণনা করা আছে। 

৬. ব্লেন্ডার

ফল ও মসলা জাতীয় সবকিছু ব্লেন্ড করার জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে। এই গরমে দ্রুত জুস বা শরবত খেতে চাইলেও এটির সাহায্যে আপনি তা তৈরী করে নিতে পারবেন। 

৭. মিক্সার মেকিং মেশিন

আটা/ময়দার খামি তৈরী করতে পারবেন। চাল গুড়া /বেসন/সুজি যেকোনো কিছু মিক্স করতে পারবেন। অনেক গুলো ডিম এক সাথে ফেটতে পারবেন সুজি/মাখন ইত্যাদি মিক্স করতে পারবেন। এটির সাহায্যে মিল্ক শেক/লাচ্ছি বানানো যায়। এটি ফুড গ্রেড প্লাস্টিক দিয়ে তৈরী মজবুত,টেকসই এবং সহজে পরিষ্কার যোগ্য। আপনাকে দীর্ঘ সময় ধরে সার্ভিস দিয়ে যাবে কোনো রকম ঝামেলা ছাড়াই। 

 
উপরের পণ্যগুলির মধ্যে  কোনটি আপনার পছন্দ সেটি সিলেক্ট করে সরাসরি ঘরে বসে কিনতে অথবা আইটেম গুলো দেখতে এখানে ক্লিক করুন।  

*কিচেনটুলস* *রান্নাবান্না* *স্মার্টরান্না* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

কিনতে ক্লিক করুনআসছে কুরবানি ঈদ। নিশ্চয় মাংসের বিভিন্ন রেসিপি নিয়ে চিন্তা শুরু করেছেন? মাংসের কিমা, সজেস, গ্রিল, কাবাব, প্যাটিজ বা জার্কির মত মজাদার সব রেসিপি তৈরী করা এখন কোন ব্যপারই না! আসছে ঈদে রেসিপিগুলো তৈরীতে আপনার সহায়ক হতে পারে মিট গ্রাইন্ডার, ইলেকট্রিক গ্রিল সহ বিভিন্ন ধরনের কিচেন টুলস। তাহলে আর দেরী কেন ঈদের আগেই ঘরে বসে সংগ্রহ করে নিন আপনার পছন্দের টুলসটি। অনলাইন থেকে ঘরে বসে এসব পণ্য কিনতে এখানে ক্লিক করুন

ম্যানুয়াল মিট গ্রাইন্ডার:

কিনতে ক্লিক করুন
অত্যন্ত চমকপ্রদ এই মেসিনটি দিয়ে আপনি সহজেই মাংসের সসেজ, প্যাটিজ বা জার্কি বানাতে পারবেন। স্টেইনলেস স্টীল এ তৈরী হাই কোয়ালিটির এই টুলসটি দিয়ে আপনি ম্যানুয়্যালি মিট গ্রাইন্ড করতে পারবেন। এটির দাম মাত্র ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা।

মিনি মিট গ্রাইন্ডার:

কিনতে ক্লিক করুন
যারা মজাদার মাংসের কিমা তৈরী করতে চান তাদের জন্য আদর্শ টুলস হতে পারে মিনি মিট গ্রাইন্ডার। এটির মাধ্যমে মাংসের কিমা তৈরি করা যায় খুব সহজেই। হাই কোয়ালিটিব্র্যান্ড নিউ এই টুলসটিতে মাংস রেখে হাত দিয়ে ঘুরালেই কিমা সাইজের জন্য যেরকম শেপ দরকার এটি সেই ধরনের শেপ তৈরী করে দিতে পারে।

পোর্টেবল BAR-B-Q ইলেকট্রিক গ্রিল:

কিনতে ক্লিক করুন
ইলেকট্রিক রান্নার জাদু দেখাতে বাজারে এসেছে পোর্টেবল BAR-B-Q ইলেকট্রিক গ্রিল। এটির সাহায্যে মাংস বা সী-ফুড, ভেজিটেবল, প্যানকেক গ্রীল, বেক, ফ্রাই করা যায়। বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে এটির সাহায্যে কাজ চালিয়ে নিতে পারবেন কোন রকম ঝুঁকি ছাড়াই। এতে রয়েছে অ্যাডজাস্টেবল হিট কন্ট্রোল এবং হালকা, মজবুত, পোর্টেবল ও ধোঁয়াবিহীন স্টেইনলেস স্টীল হিটিং এলিমেন্ট।

ম্যানুয়াল মাল্টি-ফাংশনাল মিট গ্রাইন্ডার:

কিনতে ক্লিক করুন
শুধু মাংসই না মাংস কিমা অথবা রসুন, পেঁয়াজ, মরিচ ইত্যাদি গ্রাইন্ড করতে পারবেন। মাল্টি-ফাংশনাল হওয়ায় এটি দিয়ে বেশ কিছু আইটেম তৈরী করা যায়। এটি প্লাস্টিক ও স্টেইনলেস স্টীল এর সমন্বয়ে তৈরী। এটি ব্যবহার অত্যন্ত সহজ। ফুড গ্রেডেড ম্যাটেরিয়ালে তৈরী হয়ওয়া এর ৬ টি কাটার একসাথে কাজ করবে।

প্রোডাক্ট গুলো কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*গ্রাইন্ডার* *কিচেনটুলস* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

রান্নাঘরে সময় বাঁচাবে এই টুলসগুলি রান্নাবান্না নিয়ে গৃহিনীর ব্যস্ততা সবসময় বেশি থাকে। চাকরিজীবী নারীর ব্যস্ততা তো আরো এক ধাপ এগিয়ে। অফিসের যত ঝামেলা তারপর সংসার, বাচ্চা সামলানো নিয়ে যেন দম ফেলার সময় নেই। তাছাড়া সামনে কুরাবনি ঈদ আসছে। এখন থেকেই মনে মনে একটা রুটিন এঁকে নিন, দেখবেন এত ব্যস্ততা সুন্দরভাবে সামাল দিতে পারছেন।
 
রান্না নিয়ে প্রতিটি গৃহিণীদের সমান চিন্তা। অনেকের কাছেই রান্না করা যেন একটা বিরক্তির কাজ। আপনি হয়তবা ঝটপট রান্নার কাজটি সেরে ফেলতে চাইছেন কিন্তু কাটাকাটিতেই আপনার অর্ধেক সময় চলে যাচ্ছে। অথচ পাশের বাড়ির রহিমা আপা কেমনে অফিস সামলানোর পরেও ঝটপট রান্না শেষ করে? জানা গেল রহিমা আপার রান্নার কাজে সহায়তা করে চপার, স্লাইসার ও কাটারের মত কিচেন সামগ্রী।  এগুলো ব্যবহার করে কয়েক মিনিটের মধ্যে সবজিসহ সব ধরনের কাটাকাটি সেরে ফেলেন। তাহলে আপনি কেন বসে থাকবেন? আপনি রান্নার ঘরের জন্য এই সব কিচেন সামগ্রী নিয়ে নিন। আর হয়ে উঠুন সময়সাশ্রয়ী সেরা রাধুনি। 
 
 
রান্না ঘরের প্রয়োজনীয় টুলসঃ
রান্নাঘরে কাজের চাপ সবসময় বেশি থাকে আর কোন উৎসব আয়োজন থাকলে তো সারাটি দিনই কেটে যায় রান্না ঘরে। তাই এখন থেকেই রান্নাঘরটা গুছিয়ে নিন। এতে যেমন কাজের সময় সবকিছু হাতের কাছে সহজে পাওয়া যাবে তেমনি রান্নাঘরেও উৎসবের আমেজ বজায় থাকবে।  যাদের সব সময় হাঁড়ি, পাতিল, থালা-বাসন বেশি লাগে, তারা এগুলো পরিষ্কার করে কিচেন ক্যাবিনেটে সাজিয়ে রাখুন। রান্নাঘরে চামচ, খুন্তি ইত্যাদি রাখার জন্য স্পুন হোল্ডার রাখুন। এরপর কাটাকাটির জন্য রাখুন এই জিনিসগুলো। 
 
পটেটো কাটারঃ
আপনার রান্নাঘরের জন্য ১ টি আদর্শ টুল হতে পারে পটেটো কাটার। এটি ব্যবহার করা খুবই সহজ। যে কোন সবজি, পেঁয়াজ, আদা এর ভিতর বসিয়ে হাতের তালুর সাহায্যে চাপ দিলেই স্লাইস হয়ে যাবে।  স্টেইনলেস স্টিল দিয়ে তৈরি ব্লেড যা খুব সহজেই পরিষ্কার করা যায়।
 
মাল্টি ফাংশনাল ফ্রুট ও ভেজিটেবল স্লাইসারঃ
সব ধরনের সবজি দ্রুত কাটার জন্য আপনার রান্না ঘরে আজই নিয়ে নিন মাল্টি ফাংশনাল ফ্রুট ও ভেজিটেবল স্লাইসার। সবজি থেকে দ্রুত চামড়া ছাড়ানো হয় বিভিন্ন স্টাইলে সবজি কাটার জন্য এটি বেশ উপযুক্ত। 
 
ফিশ কাটারঃ
এটি মাছ পরিস্কার ও কাটার জন্য দারুন উপকারি একটি টুল। ব্যবহার করতে পারলে বটি দেয় মাছ কাটতে যে সময় আপনি ব্যয় করেন তার অর্ধকটারও বেশি সময় বেঁচে যাবে।  
 
ফ্রাই স্লাইসারঃ
সবজি ও ফল ফ্রাই করার জন্য যে পদ্ধতিতে কাটতে হয় সেটা অনেকেই জানেন না। আবার যতই পারদর্শী হোন না কেন এবাবে কাটতে গেলে আপনার অনেক সময় লেগে যাবে। তাই খুব সহজে ও দ্রুত সবজি ও ফল কাটতে ফ্রাই স্লাইসার ব্যবহার করুন। 
 
আপেল স্লাইসারঃ
আপেল কাটার জন্য খুবই উপকারি একটি টুলস হচ্ছে আপেল স্লাইসার।  আপেল স্লাইসারে শুধু আপেল নয়, আপেল জাতীয় বিভিন্ন ধরনের সবজিও স্লাইস করা যায়। 
 
উপরের সামগ্রী গুলো ছাড়াও  মাছের আঁশ তোলার মেশিন, ডিম ফেটানোর মেশিন, কোকোনাট স্ক্র্যাপার, চপ ম্যাজিক, তরমুজ কাটার, ভেজিটেবল পিলার, মাল্টি সালাদ সেফ ইত্যাদি নানা ধরনের যন্ত্রপাতি রান্না ঘরে রেখে দিন।  আর এই সবগুলো কিচেন সামগ্রীই পেয়ে যাবেন বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিল  ডট কমে। তাহলে এক্ষনি ঢুঁ মেরে আসুন আজকের ডিলের কিচেন সামগ্রীর কালেকশন থেকে। 
*কিচেনসামগ্রী* *কিচেনটুলস* *স্মার্টশপিং* *স্লাইসার* *পিলার* *চপার*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★