কিশোরী

কিশোরী নিয়ে কি ভাবছো?

Risingbd.com: ওদের জন্য রাত অভিশাপ দিনের নিয়মে দিন আসে, রাতের নিয়মে রাত। দিন-রাতের পালাবদলে ফিরে ফিরে আসে নির্যাতনের সময়গুলো। ভয়ংকর ধর্ষণ উন্মাদনা চলে সারা রাত.....বিস্তারিত পড়ুন - http://bit.ly/1YPrtSe

*যান্ত্রিকজীবন* *ধর্ষণ* *নির্যাতন* *আইএস* *ভাগ্য* *কিশোরী*

সাদাত সাদ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

১৬ বছরের  কিশোর ছেলেটাকে প্রশ্ন করা হল আচ্ছা বিয়ের মানে কি?
সে হেসে উত্তর দিল, বিয়ে মানে একজন মেয়ে ঘরে নিয়ে আসা এবং সেই মেয়ে ঘরের দেখভাল করবে অতপর - অতপর এই আর কি। এই হলো কিশোর ছেলের উত্তর। কিশোর মন এর থেকে আর বেশি কি বা জানবে!  এর থেকে বেশি কিছু জানার এবং বোঝার বয়স তাঁর হবার ও কথা ও নয়।


১৪ বছরের শিশু মেয়েটিকে প্রশ্ন করা হলো, আচ্ছা বিয়ের মানে কি তুমি জানো?
সে মুচকি হেসে বলল,  বিয়ের মানে সাজগোজ করে নতুন জায়গায় আসা, আপন ভিটা (বাড়ী.) ছেড়ে পরের বাড়ী আসা। মেয়েটি এর বেশি কিছু বলতে পারেনি লজ্জায়। মেয়েদের লজ্জা হয়তো একটু বেশি। এছাড়া কিশোরী ছোট্ট মেয়েটি এর থেকে বেশী আর কি বলবে!!  এর থেকে বেশি কিছু বোঝার বয়স তার হলে তো।  
অল্প বয়সী কচি ফুলের মতো সুন্দর মনের কিশোর কিশোরী রা যে বয়সে হেসে খেলে বেড়ানোর কথা সেই বয়সেই তাঁরা ঝড়ে যাচ্ছে। অনেক টা ফুলের কলির মতোই ফুটার আগেই ঝরে যাচ্ছে পাপড়ি মেলার আগে। হ্যা এটা সত্য যে যৌবনের তারুণ্যে তাঁরা এই বাল্যবিবাহে রাজি হচ্ছে কিংবা কেউ নিজ ইচ্ছাতেই বিয়ে করছে। তবুও এক্ষেত্রে অভিভাবক এর কিছু ভূমিকা তো আছেই, অভিভাবকদের দায়িত্ববোধ বলতে তো কিছু থাকা চাই!  

অল্প বয়সে বিয়ের ফলে তাদের মাঝে এক ধরণের চাপ সৃষ্টি হচ্ছে।  সেই চাপের ফলে মানসিকভাবে ও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তাঁরা। কেউ সেটা প্রকাশ করে কেউ নীরবে সহ্য করে। সবমিলিয়ে বাল্যবিবাহের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে হাজারো কিশোর কিশোরীর জীবন।


সর্বশেষ কথা সকল অভিভাবক দের কে : দয়াকরে আপনার ছেলেমেয়েদের কে বাল্যবিবাহের অভিশাপ থেকে রক্ষা করুন। তাদের কে সুন্দর ভাবে বাঁচতে দিন। মানসিক কষ্ট নিয়ে আপনার ছেলেমেয়েরা বেঁচে থাকবে এটা নিশ্চয়ই আপনার কাম্য নয়।



_____

সাদাত সাদ
১৯-২-২০১৬ 
*বাল্যবিবাহ* *বিবাহ* *বিয়ে* *কিশোর* *কিশোরী* *কিশোরমন*

Mahi Rudro: একটি বেশব্লগ লিখেছে



.
প্রাচ্যের গানের মতো শোকাহত, কম্পিত, চঞ্চল
বেগবতী তটিনীর মতো স্নিগ্ধ, মনোরম
আমাদের নারীদের কথা বলি, শোনো
এ-সব রহস্যময়ী রমণীরা পুরুষের কণ্ঠস্বর শুনে
বৃক্ষের আড়ালে সরে যায়-
বেড়ার ফোঁকড় দিয়ে নিজের রন্ধনে
তৃপ্ত অতিথির প্রসন্ন ভোজন দেখে
শুধু মুখ টিপে হাসে
প্রথম পোয়াতী লজ্জায় অনন্ত হয়ে
কোঁচরে ভরেন অনুজের সংগৃহীত কাঁচা আম, পেয়ারা, চালিতা-
সূর্য্যকেও পর্দা করে এ-সব রমণী
.
অথচ যোহরা ছিলো নির্মম শিকার
সকৃতজ্ঞ লম্পটেরা
সঙ্গীনের সুতীব্র চুম্বন গেঁথে গেছে--
আমি তার সুরকার- তার রক্তে স্বরলিপি লিখি
মরিয়ম, যীশুর জননী নয় অবুঝ কিশোরী
গরীবের চৌমুহনী বেথেলহেম নয়
মগরেবের নামাজের শেষে মায়ে-ঝিয়ে
খোদার কালামে শান্তি খুঁজেছিলো,
অস্ফুট গোলাপ-কলি লহুতে রঞ্জিত হলে
কার কী বা আসে যায়
বিপন্ন বিস্ময়ে কোরানের বাঁকা-বাঁকা পবিত্র হরফ
বোবা হয়ে চেয়ে দ্যাখে লম্পটের ক্ষুধা,
মায়ের স্নেহার্ত দেহ ঢেকে রাখে পশুদের পাপ
.
পোষা বেড়ালের বাচ্চা চেয়ে-চেয়ে নিবিড় আদর
সারারাত কেঁদেছিলো তাহাদের লাশের ওপর
এদেশে যে ঈশ্বর আছেন তিনি নাকি
অন্ধ আর বোবা
এই বলে তিন কোটি মহিলারা বেচারাকে গালাগালি করে
জনাব ফ্রয়েড,
এমন কি খোয়াবেও প্রেমিকারা আসে না সহজ পায়ে চপল চরণে
জনাব ফ্রয়েড, মহিলারা
কামুকের, প্রেমিকের, শৃঙ্গারের সংজ্ঞা ভুলে গ্যাছে
রকেটের প্রেমে পড়ে ঝরে গ্যাছে
ভিক্টোরিয়া পার্কের গীর্জার ঘড়ি,
মুসল্লীর সেজদায় আনত মাথা
নিরপেক্ষ বুলেটের অন্তিম আজানে স্থবির হয়েছে
বুদ্ধের ক্ষমার মূর্তি ভাঁড়ের মতন
ভ্যাবাচেকা খেয়ে পড়ে আছে, তাঁর
মাথার ওপরে
এক ডজন শকুন মৈত্রী মৈত্রী করে
হয়তো বা উঠেছিলো কেঁদে
*সঙ্গীন* *কিশোরী*

Mahi Rudro: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

ধাঁধা ধরছি.....
এক কিশোরী কিছুদিন হলো গাড়ি চালাতে শিখেছে। একদিন সে একটা একমুখো (ওয়ান ওয়ে) রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিল কিন্তু উল্টোদিক দিয়ে। ওই রাস্তায় দারুণ কড়াকড়ি, রাস্তার উল্টোদিকে গেলেই যখন তখন পুলিশ এসে ধরবে। কিন্তু মেয়েটাকে কোনো পুলিশই কিচ্ছু বলল না! কেন বলুন তো?
*ধাঁধা* *কিশোরী* *পুলিশ*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★