কুর্তি

কুর্তি নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাহারি কুর্তির লেটেস্ট কালেকশনঈদে ফ্যাশন মানেই অন্যরকম ফূর্তি। ঈদ আনন্দে যেন ভাটা না পড়ে সে কারনেই নারীরা আগে থেকেই সচেতন। ফ্যাশন সচেতন নারীরা মনে করেন, ভালো একটি স্টাইলিশ পোশাক যদি পরনে থাকে তাহলে তো ফূর্তির কোন অভাব থাকে না। বিশেষজ্ঞদেরও একই কথা, কারো মন খারাপ থাকলে ভাল পোশাক পরলেই নাকি মনটা অটোমেটিক ভাল হয়ে যায়। যদি তাই হয় তাহলে বর্তমান সময়ের স্টাইলিশ পোশাক কুর্তি পরলে ফূর্তিতো এমনিতে মনের ভেতর আকডুম বাগডুম করবে। চলুন স্টাইলিশ পোশাক কুর্তি সম্পর্কে জেনে নেই।

কুর্তি

পণ্যটি ভালো লাগলে ক্লিক করুনপণ্যটি ভালো লাগলে ক্লিক করুন

"কুর্তা" বা "কুর্তি" শব্দটি মূলত পার্সিয়ান, যার অর্থ "কলারবিহীন শার্ট"। "কুর্তা" আসলে মধ্য, পশ্চিম এবং দক্ষিন এশিয়ায় প্রচলিত একটি ছেলেদের পোশাক। কিন্তু এটি বর্তমানে "কুর্তি" নামে ইন্ডিয়া, পাকিস্তান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশে মেয়েদের একটি জনপ্রিয় পোশাক হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। আমাদের দেশে বর্তমানে এটি অধিক জনপ্রিয় পোশাকে পরিণত হয়েছে। বিশেষ করে তরুণীদের প্রথম পছন্দের তালিকায় রয়েছে এটি।


কুর্তি ফ্যাশন

পণ্যটি ভালো লাগলে ক্লিক করুনপণ্যটি ভালো লাগলে ক্লিক করুন

হাল সময়ের তরুণীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে স্লিভলেস ও লং সাইজের কুর্তি। কুর্তি এমন একটি পোশাক যা বেশ ঢিলেঢালা এবং আরামদায়ক। নানা রঙে এবং ডিজাইনে তৈরি কুর্তি আজকাল ফ্যাশন সচেতন কিংবা আরামপ্রিয় সবার মাঝেই অনেক জনপ্রিয়। ক্যাজুয়াল অথবা ফর্মাল যেকোনো স্টাইলের সাথেই এই পোশাকটি বেশ মানানসই। জিন্স, লেগিংস ছাড়া ঢিলে স্যালোয়ারের সাথেও কুর্তি পরা যায় অনায়াসেই। বাজারে লাল থেকে শুরু করে সাদা, নীল, সবুজ, হলুদ, বেগুনি, কমলা, মেজেন্ডা থাকছে সব কটা রঙেই। এক রঙা পোশাকের ফ্যাশন বদলে একই পোশাকে কয়েক রঙের ব্যবহার এখন বেশি জনপ্রিয়।
স্টাইলিশ লং কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

লম্বা ও ঢিলেঢালা কুর্তি:

পণ্যটি ভালো লাগলে ক্লিক করুনপণ্যটি ভালো লাগলে ক্লিক করুন

লং কামিজের মতো লম্বা আর ঢিলেঢালা কুর্তিও এখন অনেকের পছন্দ। সুতি কিংবা লিনেন কাপড়ের হওয়ায় কুর্তিগুলো পরেও আরাম। এগুলোর সামনের দিকটায় থাকে এক রঙের কোনো কাপড় আর পেছনের দিকটায় জবরজং প্রিন্টের কাপড়। হাইনেক কলার ও ফুল স্লিভ কিংবা থ্রি-কোয়ার্টার হাতার কুর্তিগুলোর জমিনজুড়ে থাকে নানা মোটিফ।


শর্ট কুর্তি:

পণ্যটি ভালো লাগলে ক্লিক করুনপণ্যটি ভালো লাগলে ক্লিক করুন

শর্ট ও স্লিভলেস কুর্তিও বর্তমানে বেশ ভাল চলে। সাথে হাতাকাটা কুর্তিরও বেশ চাহিদা আছে। ফ্যাশনটা কে একটু স্টাইলিশ করে তুলতে হবে এ ধরনের কর্তির বিকল্প নেই। এই ধরনের কর্তি যেমন আরামদায়ক তেমনই মানানসই। বাজারে লাল থেকে শুরু করে সাদা, নীল, সবুজ, হলুদ, বেগুনি, কমলা, মেজেন্ডা থাকছে সব কটা রঙেই। আপনি আপনার পছন্দমত রঙের টি কিনে নিন। তবে এগুলোতে কয়েকটি রংয়ের কমবিনেশন থাকলে ভাল লাগে।

কোথায় পাবেন?

পণ্যটি ভালো লাগলে ক্লিক করুন

দেশের প্রায় সব ধরনের পোশাকের মার্কেটে মিলবে দেশী বিদেশী বিভিন্ন ডিজাইনের পছন্দসই কুর্তি। আপনি সেখান থেকে আপনার পছন্দেরটি বেছে নিতে পারেন। এছাড়াও আপনি ঘরে বসে কিনতে পারেন পছন্দের কুর্তি এজন্য আপনি দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিল এর ওয়েবসাইট এ গিয়ে অর্ডার করতে পারেন। আপনাদের সুবিধার্থে নিচে একটি অনলাইন লিংক শেয়ার করলাম।
সব ধরনের ফ্যাশনেবল কুর্তির কালেকশন দেখতে ক্লিক করুন

*কুর্তি* *ঈদফ্যাশন* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আবহমান বাংলায় ফ্যাশনে প্রতিদিন নতুুন নতুন পোশাক যুক্ত হচ্ছে। এসব পোশাকের মধ্য থেকে সময়ের ট্রেন্ডি সব পোশাক নিয়ে আমাদের ভাবনার কোন কমতি থাকে না। কোন পোশাকটিতে নিজেকে ভাল ভাবে ফুটিয়ে তোলা সম্ভব তা নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটান ফ্যাশন প্রিয় নারীরা। তবে ট্রেন্ডি ফ্যাশনে বর্তমানে নারীদের সবচেয়ে বেশী পছন্দ কুর্তি। সাধারন কামিজগুলোর তুলনায় লম্বা ঢোলাঢালা এই কুর্তিই এখন বেশি চলছে।সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে যাচ্ছে ফ্যাশন। ঋতু বদলের সঙ্গে তাল মিলিয়ে পোশাক পরিচ্ছদেও আসছে পরিবর্তন। এই পরিবর্তনশীলতার মধ্যেই কিছু জিনিস হয়ে ওঠে সময়ের ট্রেন্ড। গত কয়েক বছরে লং কামিজ এবং কুর্তি জনপ্রিয়তা কেবল বেড়েই চলেছে। গরম যেন আপনার ফ্যাশনের উপর প্রভাব ফেলতে না পারে, তার জন্য চলছে নানান আয়োজন। প্রচণ্ড গরমে কুর্তি, কামিজ ফ্যাশন প্রিয়সী নারীদের সেরা পছন্দ। এতে করে গরমে স্বস্তির সাথে এ পোশাকে আপনাকে লাগবে স্টাইলিশ।

স্টাইলিশ লং কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

"কুর্তা" বা "কুর্তি" শব্দটি মূলত পার্সিয়ান, যার অর্থ "কলারবিহীন শার্ট"। "কুর্তা" আসলে মধ্য, পশ্চিম এবং দক্ষিন এশিয়ায় প্রচলিত একটি ছেলেদের পোশাক। কিন্তু এটি বর্তমানে "কুর্তি" নামে ইন্ডিয়া, পাকিস্তান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশে মেয়েদের একটি জনপ্রিয় পোশাক হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। আমাদের দেশে বর্তমানে এটি অধিক জনপ্রিয় পোশাকে পরিণত হয়েছে। বিশেষ করে তরুণীদের প্রথম পছন্দের তালিকায় রয়েছে এটি।

স্টাইলিশ কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

বিভিন্ন কাটের সুতি কাপরের কুর্তি পরতে পারেন। কামিজের ক্ষেত্রেও বেছে নিতে পারেন সুতি কাপর। সুতার কাজ করা, ব্লক, এব্রডারি, টাইডাই করা পোশাক আপনাকে লাগবে অনন্য। বৃত্তের মতো ফ্যাশনও বার বার ফিরে আসে। তারপরেও একই পোশাক যত পছন্দেরই হোক সেটা বার বার পরতে একঘেয়েমি লাগে। তাই নিজের রুচিতে আরও বৈচিত্র্য আনার জন্য একটু অন্য রং বা ঢঙের পোশাক সবসময় বেছে নেন। এ সময়ের তরুণীরা রঙিন পোশাকে বেশি প্রাধান্য দেন। সাদা, সবুজ, লাল, হলুদ, ফিরোজা, কমলা, গোলাপি, মেরুন, নীলের মতো উজ্জ্বল সব রংয়ের পোশাকগুলোকে রঙিন করে তুলছে।

স্টাইলিশ লং কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

লম্বা ও ঢিলেঢালা কুর্তি:

লং কামিজের মতো লম্বা আর ঢিলেঢালা কুর্তিও এখন অনেকের পছন্দ। সুতি কিংবা লিনেন কাপড়ের হওয়ায় কুর্তিগুলো পরেও আরাম। এগুলোর সামনের দিকটায় থাকে এক রঙের কোনো কাপড় আর পেছনের দিকটায় জবরজং প্রিন্টের কাপড়। হাইনেক কলার ও ফুল স্লিভ কিংবা থ্রি-কোয়ার্টার হাতার কুর্তিগুলোর জমিনজুড়ে থাকে নানা মোটিফ।
 



স্টাইলিশ কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

শর্ট কুর্তি:

শর্ট ও স্লিভলেস কুর্তিও বর্তমানে বেশ ভাল চলে। সাথে হাতাকাটা কুর্তিরও বেশ চাহিদা আছে। ফ্যাশনটা কে একটু স্টাইলিশ করে তুলতে হবে এ ধরনের কর্তির বিকল্প নেই। এই ধরনের কর্তি যেমন আরামদায়ক তেমনই মানানসই। বাজারে লাল থেকে শুরু করে সাদা, নীল, সবুজ, হলুদ, বেগুনি, কমলা, মেজেন্ডা থাকছে সব কটা রঙেই। আপনি আপনার পছন্দমত রঙের টি কিনে নিন। তবে এগুলোতে কয়েকটি রংয়ের কমবিনেশন থাকলে ভাল লাগে। শর্ট কুর্তি কিনতে ক্লিক করুন

স্টাইলিশ লং কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

কুর্তিতে অনেক তরুনিই স্বাচ্ছন্দের পাশাপাশি ফ্যাশনেবল মনে করেন। এছারাও কামিজের ক্ষেত্রে লং কামিজ বেশ ফ্যাশনেবল। নিত্যনতুন স্টাইল সংযোজন করা হচ্ছে সালোয়ার-কামিজে। অনেকটা আলখেল্লা স্টাইলে তৈরি করা হচ্ছে বিশেষ ধরনের কামিজ। লং কুর্তার পাশাপাশি শর্ট-কামিজগুলোও বেশ চলছে। দেশের প্রায় সব ধরনের পোশাকের মার্কেটে মিলবে দেশী বিদেশী বিভিন্ন ডিজাইনের পছন্দসই কুর্তি। আপনি সেখান থেকে আপনার পছন্দেরটি বেছে নিতে পারেন। এছাড়াও আপনি ঘরে বসে কিনতে পারেন পছন্দের কুর্তি এজন্য আপনি দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিল এর ওয়েবসাইট এ গিয়ে অর্ডার করতে পারেন। আপনাদের সুবিধার্থে নিচে একটি অনলাইন লিংক শেয়ার করলাম।

সব ধরনের ফ্যাশনেবল কুর্তির কালেকশন দেখতে ক্লিক করুন

স্টাইলিশ কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

কোথায় পাওয়া যায় কেমন দামঃ
বনানী,গুলশান এর পিঙ্ক সিটি সহ বিভিন্ন মার্কেট-এ দেদারসে বিক্রি হচ্ছে এই সব সিঙ্গেল কুর্তি। দাম ১৫০০ টাকা-৪৫০০ টাকার মাঝে। আর এইসব কুর্তি ঢোলাঢালা পায়জামার বদলে লেগিংস দিয়ে পড়া হয়। বিভিন্ন রঙের লেগিংস ও লেইস দেয়া সুন্দর সুন্দর লেগিংসও পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন শপিং মলগুলোতে । দাম ২০০ টাকা -৮০০ টাকা পর্যন্ত। কুর্তির সাথে পড়তে পারেন এক রঙের কিংবা শেডের কোন ওড়না। কুর্তির কাপড়ের রঙের সাথে মিলিয়ে ওড়নায় শেড করিয়ে নিতে পারেন। ওড়নায় ২ রঙের শেড করাতে খরচ পরে ৫০০ টাকা -৬০০ টাকা এবং ৩ রঙের শেডে খরচ পড়বে ৬০০ টাকা-৭০০ টাকা।

স্টাইলিশ কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

গাউসিয়া, চাদনি চক, বনানী সুপার মার্কেট, পিঙ্ক সিটি, মৌচাক এর বিভিন্ন দোকানে ওড়নায় শেড করানো যায়। এসব পোশাক পাওয়া যাচ্ছে দেশিয় ফ্যাশন হাউসগুলোতে। যমুনা ফিউচার পার্ক, ইনফিনিটি মেগা মল, অঞ্জন`স, আড়ং, কে-ক্রাফট, বাংলার মেলা, প্রবর্তনা, বিবিয়ানা, নগরদোলা, সাদাকালো, অন্যমেলা, দেশালের শোরুমগুলোতে। আর অনলাইনে কিনতে চাইলে আজকের ডিল সবথেকে বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান। এখানে শর্ট ও লং কুর্তির বিশাল কালেকশন রয়েছে। 

স্টাইলিশ লং কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

চাইলেও আপনি বানিয়েও নিতে পারেন এই কুর্তি। সাড়ে ৩ হাত বহরের দেড় গজ এক রঙের কাপড় আর দেড় গজ কোন ম্যাচিং প্রিন্ট এর কাপড় কিনে দর্জিকে দিয়ে দিন। বানিয়ে দিবে আপনাকে আপনারই পছন্দমত। গাউসিয়া, চাদনি চক, বনানী সুপার মার্কেট, পিঙ্ক সিটি, মৌচাক সহ বিভিন্ন শপিং মল গুলোতে আপনি পাবেন এইসব গজ কাপড়। বর্ণিল রঙ এবং বিভিন্ন ডিজাইনের এইসব গজ কাপড় থেকে বেছে নিন আপনার পছন্দের গজ কাপড়টি। গজ প্রতি দাম পড়বে ২০০ টাকা-১৫০০ টাকা পর্যন্ত।

স্টাইলিশ লং কুর্তির জন্য ক্লিক করুন

ফ্যাশন প্রিয়সী আপুদের বলছি, নিজেদের কে একটু ভিন্ন ভাবে উপস্থাপন ও ফ্যাশনেবল ট্রেন্ডি লুক ধরে রাখতে চাইলে একটু আধুনিক চিন্তা করার পাশাপাশি সমসাময়িক ট্রেন্ডি ফ্যাশান অনুসরণ করে সবসময় আপডেট থাকুন।

 

 

*কুর্তি* *হালফ্যাশন* *শপিং* *স্মার্টশপিং* *গরমেরফ্যাশন*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ভালো একটি স্টাইলিশ পোশাক যদি পরনে থাকে তাহলে তো ফূর্তির কোন অভাব থাকে না। বিশেষজ্ঞরা বলেন, কারো মন খারাপ থাকলে ভাল পোশাক পরলেই নাকি মনটা অটোমেটিক ভাল হয়ে যায়। যদি তাই হয় তাহলে বর্তমান সময়ের স্টাইলিশ পোশাক কুর্তি পরলে ফূর্তিতো এমনিতে মনের ভেতর আকডুম বাগডুম করবে। চলুন স্টাইলিশ পোশাক  কুর্তি  সম্পর্কে জেনে  নেই। 
 
কুর্তি
"কুর্তা" বা "কুর্তি" শব্দটি মূলত পার্সিয়ান, যার অর্থ "কলারবিহীন শার্ট"। "কুর্তা" আসলে মধ্য, পশ্চিম এবং দক্ষিন এশিয়ায় প্রচলিত একটি ছেলেদের পোশাক। কিন্তু এটি বর্তমানে "কুর্তি" নামে ইন্ডিয়া, পাকিস্তান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশে মেয়েদের একটি জনপ্রিয় পোশাক হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। আমাদের দেশে বর্তমানে এটি অধিক জনপ্রিয় পোশাকে পরিণত হয়েছে। বিশেষ করে তরুণীদের প্রথম পছন্দের তালিকায় রয়েছে এটি।
 
 
কুর্তি ফ্যাশন
হাল সময়ের তরুণীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে স্লিভলেস ও লং সাইজের কুর্তি। কুর্তি এমন একটি পোশাক যা বেশ ঢিলেঢালা এবং আরামদায়ক। নানা রঙে এবং ডিজাইনে তৈরি কুর্তি আজকাল ফ্যাশন সচেতন কিংবা আরামপ্রিয় সবার মাঝেই অনেক জনপ্রিয়। ক্যাজুয়াল অথবা ফর্মাল যেকোনো স্টাইলের সাথেই এই পোশাকটি বেশ মানানসই। জিন্স, লেগিংস ছাড়া ঢিলে স্যালোয়ারের সাথেও কুর্তি পরা যায় অনায়াসেই। বাজারে লাল থেকে শুরু করে সাদা, নীল, সবুজ, হলুদ, বেগুনি, কমলা, মেজেন্ডা থাকছে সব কটা রঙেই। এক রঙা পোশাকের ফ্যাশন বদলে একই পোশাকে কয়েক রঙের ব্যবহার এখন বেশি জনপ্রিয়।
 
লম্বা ও ঢিলেঢালা কুর্তি:
লং কামিজের মতো লম্বা আর ঢিলেঢালা কুর্তিও এখন অনেকের পছন্দ। সুতি কিংবা লিনেন কাপড়ের হওয়ায় কুর্তিগুলো পরেও আরাম। এগুলোর সামনের দিকটায় থাকে এক রঙের কোনো কাপড় আর পেছনের দিকটায় জবরজং প্রিন্টের কাপড়। হাইনেক কলার ও ফুল স্লিভ কিংবা থ্রি-কোয়ার্টার হাতার কুর্তিগুলোর জমিনজুড়ে থাকে নানা মোটিফ।
 
 
শর্ট কুর্তি: 
শর্ট ও স্লিভলেস কুর্তিও বর্তমানে বেশ ভাল চলে। সাথে হাতাকাটা কুর্তিরও বেশ চাহিদা আছে। ফ্যাশনটা কে একটু স্টাইলিশ করে তুলতে হবে এ ধরনের কর্তির বিকল্প নেই। এই ধরনের কর্তি যেমন আরামদায়ক তেমনই মানানসই। বাজারে লাল থেকে শুরু করে সাদা, নীল, সবুজ, হলুদ, বেগুনি, কমলা, মেজেন্ডা থাকছে সব কটা রঙেই। আপনি আপনার পছন্দমত রঙের টি কিনে নিন। তবে এগুলোতে কয়েকটি রংয়ের কমবিনেশন থাকলে ভাল লাগে।  
 
কোথায় পাবেন?
দেশের প্রায় সব ধরনের পোশাকের মার্কেটে মিলবে দেশী বিদেশী বিভিন্ন ডিজাইনের পছন্দসই কুর্তি। আপনি সেখান থেকে আপনার পছন্দেরটি বেছে নিতে পারেন। এছাড়াও আপনি ঘরে বসে কিনতে পারেন পছন্দের কুর্তি এজন্য আপনি দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল আজকের ডিল এর ওয়েবসাইট এ গিয়ে অর্ডার করতে পারেন। আপনাদের সুবিধার্থে নিচে একটি অনলাইন লিংক শেয়ার করলাম।
 
*কুর্তি* *হালফ্যাশন* *শপিং* *স্মার্টশপিং*

ইমরান নাজির লিপু: একটি বেশব্লগ লিখেছে

পোশাক নিয়ে আমরা সবাই-ই কম বেশি ভেবে থাকি। কখনও প্রয়োজন কিংবা কখনও শখে আমরা পোশাক কিনে ও বানিয়ে থাকি। আর পোশাক কেনা বা বানানোর আগে যে চিন্তাটা আমাদের মাথায় আসে তা হচ্ছে পোশাকটি যুগোপযোগী কিনা। হাল ফ্যাশনের পোশাক কিনতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন অনেকে। 
কিছুদিন আগেও মেয়েদের পোশাকের বাজার ছিল পাকিস্তানি লন কামিজের একচেটিয়া দখলে । আর এই চাহিদাকে পাশ কাটিয়ে এখন ফ্যাশন সচেতন নারীরা ছুটছেন কুর্তির পেছনে। সাধারন কামিজগুলোর তুলনায় লম্বা ঢোলাঢালা এই কুর্তিই এখন সবার পছন্দ। ছাত্রী থেকে চাকুরীজীবী নারী, সবাইকেই মানিয়ে যায় এই লম্বা কুর্তিগুলো। সুতি কিংবা লিলেন কাপড়ের হওয়ায় কুর্তিগুলো পড়েও আরাম। 

সাধারনত কুর্তিগুলোর সামনের দিকটায় থাকে এক রঙের কোনো কাপড় আর পিছনের দিকটায় থাকে জবরজং প্রিন্ট-এর কোনো কাপড় যা সামনের রঙের সাথে মিলানো। হাইনেক কলার ও ফুল স্লিভ কিংবা থ্রি কোয়ার্টার হাতার কুর্তি গুলোর বুকে থাকছে সুন্দর সুন্দর আকর্ষণীয় বোতাম। ২ স্তরের কুর্তিও পাওয়া যাচ্ছে মার্কেটগুলোয়। 

কুর্তির নিচের ঘেরটাও দৃষ্টিনন্দন করে তুলতে ব্যবহার করা হচ্ছে বিভিন্ন রকম লেইস-এর এবং ঘের-এর কাটেও রয়েছে বিচিত্রতা। বনানী,গুলশান এর পিঙ্ক সিটি সহ বিভিন্ন মার্কেট-এ দেদারসে বিক্রি হচ্ছে এই সব সিঙ্গেল কুর্তি। দাম ১৫০০ টাকা-৪৫০০ টাকার মাঝে। আর এইসব কুর্তি ঢোলাঢালা পায়জামার বদলে লেগিংস দিয়ে পড়া হয়। বিভিন্ন রঙের লেগিংস ও লেইস দেয়া সুন্দর সুন্দর লেগিংসও পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন শপিং মলগুলোতে । দাম ২০০ টাকা -৮০০ টাকা পর্যন্ত। 

কুর্তির সাথে পড়তে পারেন এক রঙের কিংবা শেডের কোন ওড়না। কুর্তির কাপড়ের রঙের সাথে মিলিয়ে ওড়নায় শেড করিয়ে নিতে পারেন। ওড়নায় ২ রঙের শেড করাতে খরচ পরে ৫০০ টাকা -৬০০ টাকা এবং ৩ রঙের শেডে খরচ পরবে ৬০০ টাকা-৭০০ টাকা। গাউসিয়া, চাদনি চক, বনানী সুপার মার্কেট, পিঙ্ক সিটি, মৌচাক এর বিভিন্ন দোকানে ওড়নায় শেড করানো যায়। 
*কুর্তি* *হালফ্যাশন* *ফ্যাশন*
ছবি

আমানুল্লাহ সরকার: ফটো পোস্ট করেছে

ফ্যাশনেবল লং কুর্তি দেখুন তো কেমন মানাবে আপনাকে?

সময়ের ফ্যাশনে যুক্ত হয়েছে ফ্যাশনেবল লং কুর্তি যা বর্তমানের ট্রেন্ডি পোশাক।

*ফ্যাশন* *কুর্তি*

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আবহমান বাংলায় ফ্যাশনে প্রতিদিন নতুুন নতুন পোশাক যুক্ত হচ্ছে। এসব পোশাকের মধ্য থেকে সময়ের ট্রেন্ডি সব পোশাক নিয়ে আমাদের ভাবনার কোন কমতি থাকে না। কোন পোশাকটিতে নিজেকে ভাল ভাবে ফুটিয়ে তোলা সম্ভব তা নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটান ফ্যাশন প্রিয় নারীরা। তবে ট্রেন্ডি ফ্যাশনে বর্তমানে নারীদের সবচেয়ে বেশী পছন্দ কুর্তি। সাধারন কামিজগুলোর তুলনায় লম্বা ঢোলাঢালা এই কুর্তিই এখন বেশি চলছে।

ফ্যাশনেবল কুর্তিঃ
সব বয়সী মেয়েদের জন্য কুর্তি বেশ ফ্যাশনেবল পোশাক। বিশেষ করে ১৫-৩০ বছর বয়সের মেয়েরা বেশি বেশি কুর্তি পরিধান করে। সুতি কিংবা লিলেন কাপড়ের হওয়ায় কুর্তি পড়তে খুব আরাম। সাধারনত কুর্তিগুলোর সামনের দিকটায় থাকে এক রঙের কোনো কাপড় আর পিছনের দিকটায় থাকে জবরজং প্রিন্ট-এর কোনো কাপড় যা সামনের রঙের সাথে মিলানো। হাইনেক কলার ও ফুল স্লিভ কিংবা থ্রি কোয়ার্টার হাতার কুর্তি গুলোর বুকে থাকছে সুন্দর সুন্দর আকর্ষণীয় বোতাম। ২ স্তরের কুর্তিও পাওয়া যাচ্ছে মার্কেটগুলোয়। ভিতরের স্তরটি এক রঙের এবং উপরের স্তরটি জবরজং কিংবা চেক প্রিন্টের, যার বুকের কাছ থেকে নিচ পর্যন্ত থাকে ফাড়া। কুর্তির নিচের ঘেরটাও দৃষ্টিনন্দন করে তুলতে ব্যবহার করা হচ্ছে বিভিন্ন রকম লেইস-এর এবং ঘের-এর কাটেও রয়েছে বিচিত্রতা।

কোথায় পাওয়া যায় কেমন দামঃ
বনানী,গুলশান এর পিঙ্ক সিটি সহ বিভিন্ন মার্কেট-এ দেদারসে বিক্রি হচ্ছে এই সব সিঙ্গেল কুর্তি। দাম ১৫০০ টাকা-৪৫০০ টাকার মাঝে। আর এইসব কুর্তি ঢোলাঢালা পায়জামার বদলে লেগিংস দিয়ে পড়া হয়। বিভিন্ন রঙের লেগিংস ও লেইস দেয়া সুন্দর সুন্দর লেগিংসও পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন শপিং মলগুলোতে । দাম ২০০ টাকা -৮০০ টাকা পর্যন্ত। কুর্তির সাথে পড়তে পারেন এক রঙের কিংবা শেডের কোন ওড়না। কুর্তির কাপড়ের রঙের সাথে মিলিয়ে ওড়নায় শেড করিয়ে নিতে পারেন। ওড়নায় ২ রঙের শেড করাতে খরচ পরে ৫০০ টাকা -৬০০ টাকা এবং ৩ রঙের শেডে খরচ পড়বে ৬০০ টাকা-৭০০ টাকা। গাউসিয়া, চাদনি চক, বনানী সুপার মার্কেট, পিঙ্ক সিটি, মৌচাক এর বিভিন্ন দোকানে ওড়নায় শেড করানো যায়।

চাইলেও আপনি বানিয়েও নিতে পারেন এই কুর্তি। সাড়ে ৩ হাত বহরের দেড় গজ এক রঙের কাপড় আর দেড় গজ কোন ম্যাচিং প্রিন্ট এর কাপড় কিনে দর্জিকে দিয়ে দিন। বানিয়ে দিবে আপনাকে আপনারই পছন্দমত। গাউসিয়া, চাদনি চক, বনানী সুপার মার্কেট, পিঙ্ক সিটি, মৌচাক সহ বিভিন্ন শপিং মল গুলোতে আপনি পাবেন এইসব গজ কাপড়। বর্ণিল রঙ এবং বিভিন্ন ডিজাইনের এইসব গজ কাপড় থেকে বেছে নিন আপনার পছন্দের গজ কাপড়টি। গজ প্রতি দাম পড়বে ২০০ টাকা-১৫০০ টাকা পর্যন্ত।

ফ্যাশন প্রিয়সী আপুদের বলছি, নিজেদের কে একটু ভিন্ন ভাবে উপস্থাপন ও ফ্যাশনেবল ট্রেন্ডি লুক ধরে রাখতে চাইলে একটু আধুনিক চিন্তা করার পাশাপাশি সমসাময়িক ট্রেন্ডি ফ্যাশান অনুসরণ করে সবসময় আপডেট থাকুন।



*ফ্যাশন* *কুর্তি*
ছবি

বিডি আইডল: ফটো পোস্ট করেছে

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★