খবরাখবর

খবরাখবর নিয়ে কি ভাবছো?
খবর

পরশ পাথর: একটি খবর জানাচ্ছে

রমনায় প্রভাতী সঙ্গীতে শুরু বর্ষবরণ
http://www.amardeshonline.com/pages/details/2016/04/14/331758#.Vw7_W9R97Gg
Description for my template ...বিস্তারিত
*বৈশাখী-পরিকল্পনা* *বৈশাখে-ঘোরাঘুরি* *বৈশাখ* *শুভ-নববর্ষ* *শুভনববর্ষ* *বাঙালি* *কৃষক* *বর্ষবরণ* *১লাবৈশাখ* *শুভনববর্ষ* *১৪২৩* *খবরাখবর*
১১৫ বার দেখা হয়েছে

পরশ পাথর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আমরা চাই, ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ হোক। প্রকৃত আনন্দ নিয়েই বাঙালির প্রতিটি ঘরে ঈদ আসুক। ঈদ হোক সবার জন্য আনন্দময় উৎসব, মিলনমেলা।সকল বাড়ি ফেরা পথের সকল বন্ধুদের ঈদ এর শুভেচ্ছা ।আশা করবো-  নির্বিঘ্নে এবার বাড়ি ফিরতে পারবে। ও
 বেশতো বন্ধু সকলকে ঈদ এর শুভেচ্ছা , *ঈদ-মুবারক* সবাইকে । @Foodlover @Fahim @Mehedi @Shadman @Mobasser @Zaman @Spondon @Traveller 
@Beshtobuzz
*ঈদ* *ঈদ-উল-আজহা* *সতর্কতা* *ব্রেকিংনিউজ* *খবরাখবর* *বেশতোবাসী* *বেশতো* *বন্ধু* *বেশতোর-সাথে-পথ-চলা* *ভোর* *বেশতো* *আমারকথা* *লেখালেখি* *ফলোয়ার* *ঈদএবাড়িফেরা* *বাসটিকেট* *ঈদ-মুবারক* *ঈদমুবারক* *ঈদ-মুবারক*

পরশ পাথর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আর কয়েকদিন পর সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান ঈদ। তাই প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে পরিবার-পরিজন নিয়ে রাজধানী ছেড়ে ছুটে চলেন নিজ নিজ গন্তব্যের দিকে। তাই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে ঈদে বাড়ি যাওয়ার আগে বেশকিছু সতর্কতা মেনে চলা উচিত। সামান্য সাবধানতা আপনার ঈদ আনন্দ বাড়িয়ে দেবে বহুগুন।

তাই ঈদে বাড়ি যাওয়ার আগে ১০টি প্রয়োজনীয় সতর্কতা দেয়া হল।

১. বাসা থেকে বের হওয়ার সময় সব কিছু ঠিকমতো তালা দিয়েছেন কিনা, তা ভালো করে পরীক্ষা করুন।

২. প্রথমেই বাস কাউন্টার বা ট্রেন স্টেশন পর্যন্ত যাত্রাটি সতর্কতার সঙ্গে করুন। রাস্তাঘাটে ঈদের আগে নানা ধরনের অরাজকতা বেড়ে যায়। বর্তমানের মূল যেই সমস্যাটি হয়ে থাকে তা হলো- রিকশা যাতায়াতের সময়ে ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনাটি। তাই রিকশা আরোহণ করার সময়ে এমনভাবে উঠুন যেন আপনার ব্যাগের কোনো অংশ বাহিরে ঝুলে না থাকে। শক্তভাবে ব্যাগটিকে আড়াল করে রাখুন। লক্ষ্য রাখুন আশেপাশের বিভিন্ন যানবাহনের দিকে।

৩. বাস কাউন্টারে বা ট্রেনের স্টেশনে গিয়ে মালামাল সাবধানে নিরাপদ কোনো জায়গায় রাখুন।

৪. সম্ভব হলে আপনার পাশের সিটে যে ব্যক্তি থাকবেন সেই ব্যক্তির সম্পর্কে জেনে নিন।

৫. ঈদে বাড়িতে যাওয়ার আগে সবচেয়ে যে বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করতে হবে সেটি হচ্ছে অতিরিক্ত যাত্রী হয়ে বাস, ট্রেন কিংবা লঞ্চে যাতায়াত করবেন না।

৬. ছিনতাই- চুরি রোধে মোবাইল, মানিব্যগ ও মালামাল সাবধানে রাখতে হবে।

৭. বাচ্চারা বসলে তাদের হাত যেন জানালার বাইরে না থাকে সেদিকটা খেয়াল রাখতে হবে।

৮. অবশ্যই বাইরের কেনা কোনো খাবার কিংবা পানীয় খাবেন না। এতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পর থেকে বাঁচার সঙ্গে সঙ্গে আপনি থাকবেন সুস্থ। খাবারের প্রয়োজন হলে বাসা থেকে খাবার এবং পানীয় নিয়ে বের হোন।

৯. প্রয়োজনীয় কিছু ওষুধ সঙ্গে রাখুন। যা আপনার চলার পথে কাজে লাগতে পারে। এছাড়া আপনার ব্যবহারের নিত্যদিনের ওষুধ সঙ্গে নিয়ে যাবেন। কারণ গ্রামের ওষুধের দোকানে সব ওষুধ পাওয়া নাও যেতে পারে।

১০. যাত্রায় ঘুমানোর অভ্যাস থাকলে তা ত্যাগ করার চেষ্টা করুন।

*ঈদ* *সতর্কতা*
খবর

পরশ পাথর: একটি খবর জানাচ্ছে

বড়ই কঠিন মায়ের ভালোবাসা...
http://www.banglanews24.com/fullnews/bn/426174.html
আজকালের ছেলে মেয়েরা বুঝেনা...... এই মা বাবার শাসন'ই তাদের ভবিষ্যত গড়ার কাজে লাগে || ...বিস্তারিত
*বেশতোবাসী* *বেশতো* *বন্ধু* *আমারকথা* *লেখালেখি* *ফলোয়ার* *বেশতোর-সাথে-পথ-চলা* *খবরাখবর* *মাবাবারশাসন* *সন্তান*
২৩০ বার দেখা হয়েছে
খবর

পরশ পাথর: একটি খবর জানাচ্ছে

Daily Manab Zamin | বাঁচার লড়াইয়ে গুলিবিদ্ধ সেই শিশুটি
http://www.mzamin.com/details.php?mzamin=ODU2NjM=&s=Mg==
রাজনীতির নিষ্ঠুর থাবা থেকে রেহাই পায়নি মায়ের পেটের শিশুটিও। মায়ের পেটেই গুলিতে আহত হওয়ায় নির্ধারিত সময়ের আগেই পৃথিবীর আলোতে আসতে হয়েছে তাকে। বুধবার এই নবজাতকের বয়স হয়েছে মাত্র সাত দিন। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের দ্বিতীয় তলার ২০৫ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসা চলছে তার। গতকাল তার কচি কোমল শরীরে অস্ত্রোপচার করতে হয়েছে। শিশুটি ক’দিন থেকেই কান্না করছে। নড়াচড়া করছে। চিকিৎসকরা আশাবাদী শিশুটি বাঁচবে। কিন্তু শঙ্কিত তার স্বজনরা। চিকিৎসার ব্যয় বহন করতে হিমশিম খাচ্ছে হতদরিদ্র এই পরিবার। প্রতিদিন বাইরে থেকে ওষুধ ও স্যালাইন কিনতে হচ্ছে তাদের। এভাবে আর কতদিন পারবেন তারা। বিপদগ্রস্ত এই পরিবারের পাশে যেন কেউ নেই। এ ঘটনার দায়েরকৃত মামলার মূল আসামিদের এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। উল্টো মামলা তুলে নিতে শিশুর পিতা বাচ্চু ভূঁইয়াকে ফোনে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হচ্ছে।ঢামেক হাসপাতালের ছোট্ট বিছানায় শুয়ে আছে শিশুটি। তোয়ালে দিয়ে ঢাকা তার শরীর। স্যালাইন দেয়া হচ্ছে তাকে। কখনও কখনও কৃত্রিম উপায়ে দুধ পান করানো হচ্ছে। তার বিছানার পাশে নেবুলাইজার। মঙ্গলবার পর্যন্ত এটি ব্যবহার করা হয়েছে। এখন শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা নেই। তবু যদি প্রয়োজন হয় তাই পাশে রাখা হয়েছে এটি। হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে নয় সদস্যের চিকিৎসক কমিটির তত্ত্বাবধানে চলছে তার চিকিৎসা। যে কচি শরীরে আদর করার কথা ছিলো তার মা-বাবার। সেই শরীর বিদ্ধ হয়েছে গুলিতে। নবজাতক এই শিশুর শরীরে দিতে হয়েছে ১৮টি সেলাই। শিশুটির পিঠ দিয়ে গুলি ঢুকে বুক ও হাতে আঘাত করে বাম চোখ দিয়ে বের হয়ে গেছে। মঙ্গলবার দুই চোখ খুলেছিলো সে। বুধবার অস্ত্রোপচারের পর বাম চোখটি বন্ধ চোখটি খুলতে পারছিলো না শিশুটি। চোখটি যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেদিকে সর্বোচ্চ সতর্কতা রেখেই অস্ত্রোপচার করা হয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। তবে গুলির কারণে চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হবে কি-না এ বিষয়ে নিশ্চিত নন তারা। শিশুটিকে রক্ত দেয়ার প্রয়োজন হতে পারে। তাই রক্তের গ্রুপ নির্ণয়ের জন্য রক্ত নেয়া হচ্ছিলো তার। নরম শরীরে সুঁই ঢুকতেই শব্দ করে কান্না করছিলো সে। পরক্ষণেই আবার শান্ত। বিছানায় নীরব শিশুটি। গুলির আঘাতে কালো হয়ে আছে বাম চোখ। শিশুর মুখটি দেখে অনেকেই ঘৃণা প্রকাশ করছিলেন সন্ত্রাসীদের প্রতি। যাদের হাত থেকে রেহাই পায়নি গর্ভবতী নারী ও তার অনাগত সন্তান। নির্মমতার শিকার এই শিশুর পাশে থাকতে পারেননি তার পিতা-মাতা। শিশুটির মা গুলিবিদ্ধ নাজমা বেগম মাগুরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় থাকা নাজমা বেগম ও দুই সন্তানকে নিয়ে মাগুরায় আছেন শিশুর পিতা বাচ্চু ভূঁইয়া। স্বজনদের মধ্যে দুই ফুফু শিখা ও শিউলি বেগম রয়েছেন শিশুর পাশে। কথা হয় তাদের সঙ্গে। শিখা জানান এ যেন ‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’। শিশুর পিতা বাচ্চু ভূঁইয়া একজন হতদরিদ্র মানুষ। চা বিক্রি করে সংসার চালান তিনি। তার দুটি সন্তানের লেখাপড়া ও সংসারের ব্যয় নির্বাহ করতে শরীরের ঘাম ঝরাতে হয় তাকে। এরমধ্যেই ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা গুলি করে তার স্ত্রী-সন্তানকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছে।ক্ষোভ প্রকাশ করে শিখা বলেন সরকার দলের সন্ত্রাসীরা গুলি করেছে অথচ আজ পর্যন্ত সরকারের কেউ তাদের পাশে দাঁড়াননি। এই নবজাতকের খোঁজখবর নেননি। মাগুরার পুলিশ সুপার ২০ হাজার টাকা হাতে দিয়ে নবজাতককে ঢাকায় পাঠিয়েছেন। অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া ও কয়েকদিনে তা শেষ হয়ে গেছে। ঋণ করে টাকা আনতে হচ্ছে এখন। স্যালাইনসহ বিভিন্ন ওষুধ বাইরে থেকে কিনতে হচ্ছে তাদের। ওদিকে শিশুর মা নাজমা বেগম সঙ্কটাপন্ন থাকায় তার বাবা ঢাকায় আসতে পারছেন না। এছাড়াও  সেখানে দুটি সন্তান রয়েছে। শিখা বলেন সন্ত্রাসীদের মনে কোন দয়ামায়া নেই। গুলি করার আগে শিশুর মা নাজমা ঘরের বারান্দায় ছিলেন। সন্ত্রাসীরা যখন তাকে গুলি করতে উদ্যত হয় তখন ওই সন্ত্রাসীদের নাম ধরে তিনি বলেছিলেন আমি গর্ভবতী মহিলা আমাকে গুলি করো না তোমরা। তখন সন্ত্রাসীরা বলেছে গর্ভবতী বলে কোন ছাড় নেই। বলেই গুলিবর্ষণ করে। গত বৃহস্পতিবার বিকালে মাগুরা সদরের কারিগরপাড়ায় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের সময় গুলিবিদ্ধ হয় অন্তঃসত্ত্বা নাজমা বেগম। এ ঘটনায় আশঙ্কাজনক অবস্থায় মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। সেখানে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে জন্ম হয় মেয়ে শিশুটির। পরবর্তীতে রোববার শিশুটিকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঢামেক হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগের প্রধান আশরাফুল হক জানান শিশুটি বাঁচবে বলেই আশাবাদী তারা। শিশুটি এখন স্বাভাবিকভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস নিচ্ছে। কান্নাকাটি করছে। চোখ খোলে তাকানোর চেষ্টা করছে। তবে অপরিণত হয়ে জন্ম হওয়ায় স্বাভাবিকের চেয়ে ৫০০ গ্রাম ওজন কম শিশুটির। যে কারণে একটা ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে বলে জানান তিনি। শিশুর স্বজনরা জানান তার মা নাজমা ৩৪ সপ্তাহের গর্ভবতী ছিলেন। সেই হিসাবে ছয় সপ্তাহ আগে  জন্মেছে শিশুটি। তবে গুলিবিদ্ধ এই শিশুটিই তার মাকে রক্ষা করেছে বলে জানিয়েছেন মাগুরা হাসপাতালের চিকিৎসক শফিউর রহমান। বুধবার সন্ধ্যায় তিনি জানান শিশুটির মা এখন আশঙ্কামুক্ত। গর্ভে থাকা শিশুটি ছিলো তার মায়ের জন্য আশীর্বাদ। শিশুটি পেটে না থাকলে গুলির আঘাতে মায়ের মারা যাওয়ার শঙ্কা থাকতো। গুলিটি শিশুটির শরীর ভেদ করেছে। যে কারণে মায়ের খাদ্যনালী ও নাড়িভুঁড়ির বড় ধরনের ক্ষতি হয়নি। শিশুটিই মায়ের জীবন বাঁচিয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। আমাদের মাগুরা প্রতিনিধি জানান এ ঘটনার পর পুলিশ সুমন হোসেন ও সোবাহান নামে দুইজনকে ফরিদপুর থেকে গ্রেপ্তার করলেও বুধবার পর্যন্ত মূল আসামিদের কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। গুলিবিদ্ধ নাজমার স্বামী বাচ্চু ভূঁইয়া বলেন বৃহস্পতিবার বন্দুকযুদ্ধের পর পুলিশ ৭২ ঘণ্টার সময় চেয়ে নিয়েছে। এখন পর্যন্ত তারা মূল আসামিদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি। যে কারণে আসামিরা নিরাপদ স্থানে থেকে আমাকে মোবাইল ফোনে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। গুলিবিদ্ধ শরীর নিয়ে মাগুরা সদর হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে অপরিণত শিশুর কথা ভেবে ভেবে শঙ্কার মধ্যে সময় কাটাচ্ছেন মা নাজমা বেগম। সন্তানটিকে একটিবার দেখতে না পারার জন্য আক্ষেপ জানিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার দুপুরে সন্ত্রাসীদের গুলিতে ক্ষত-বিক্ষত সন্তানের ব্যথায় কাতর নাজমা বেগম অপরাধীদের কঠিন শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। তিনি বলেন সন্ত্রাসীদের গুলি আমার সন্তানের শরীরের চারটি স্থানে আঘাত করেছে। আমিও চাই ওইসব সন্ত্রাসীকে গুলি করে হত্যা করা হোক।বৃহস্পতিবার প্রকাশ্য দিবালোকে বন্দুকযুদ্ধ চলাকালে প্রসূতি নাজমা বেগম ছাড়াও আহত হয় একই এলাকার বাসিন্দা আবদুল মমিন (৬০) এবং মিরাজ হোসেন (৩০)। শুক্রবার গভীর রাতে মারাত্মক জখম আবদুল মমিনের মৃত্যু হলে পরদিন তার ছেলে রুবেল হোসেন জেলা যুবলীগ কর্মী আজিবর মোহাম্মদ আলী জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সেন সুমনসহ ১৬ জনকে আসামি করে মাগুরা থানায় একটি মামলা দায়ের করে। এ মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে সুমন হোসেন ও সোবাহান নামে স্থানীয় দুই যুবককে পুলিশ গ্রেপ্তারের পর ৭ দিনের রিমান্ড প্রার্থনা করলেও এখন পর্যন্ত তাদের রিমান্ড শুনানি হয়নি। তবে আগামী  রোববার রিমান্ড শুনানির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মাগুরা গোয়েন্দা শাখার ওসি ইমামুল হক। তিনি বলেন আমরা অপরাপর আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য সব ধরনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে ইতিমধ্যে আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করার সুযোগ পেলে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা পাওয়া যাবে। ...বিস্তারিত
*বেশতোবাসী* *বেশতো* *খবরাখবর*
৯৮ বার দেখা হয়েছে
খবর

পরশ পাথর: একটি খবর জানাচ্ছে

দ্বিতীয় সেশন শুরু বাংলাদেশের
http://www.banglanews24.com/fullnews/bn/411078.html
দ্বিতীয় সেশন শুরু বাংলাদেশের ...বিস্তারিত
*খবরাখবর* *নিউস* *ক্রিকেট*
৮৩ বার দেখা হয়েছে

পরশ পাথর: আমার বেশতো সকল বন্ধুদের জন্য ঈদ এর শুভেচ্ছা রইলো | (দোয়া)(আতশবাজি)(ঈদেরদাওয়াত)

*ভোর* *সকাল* *বেশতোবাসী* *শুভ-সকাল* *বেশতো* *সুপ্রভাত* *বাংলাদেশ* *খবরাখবর* *ঈদএবাড়িফেরা* *ঈদ*

পরশ পাথর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ঐতিহ্য অনুযায়ী ঈদে সেমাই না হলেই নয়। কিন্তু সেই সেমাই নিয়ে সচেতন ক্রেতাদের মাঝে বিরাজ করছে ‘পরিবেশ’ আতঙ্ক।

নোংরা, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও কাপড়ের রং মিশিয়ে সেমাই তৈরির দায়ে সারাদেশে প্রতিদিনই ভ্রাম্যমাণ আদালত কারখানা সিলগালা ও জেল-জরিমানা করছেন।

এ শাস্তি থেকে বাদ যায়নি সেমাই তৈরির ছোট প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে ব্র্যান্ডের প্রতিষ্ঠানও। 

পরিবারের স্বাস্থ্যঝুঁকি বিবেচনায় ক্রেতারা তাই নামিদামি ব্যান্ডের সেমাই কিনতেও দ্বিধায় ভুগছেন বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা।

আতঙ্কের পরও ঈদ উপলক্ষে রমজানের প্রথম থেকেই সেমাই কিনছে মানুষ। তবে ২০ রমজানের পর থেকে সেমাই বিক্রি বাড়বে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা।

রাজধানীর বাজার ঘুরে দেখা গেছে, রাজধানীর মুদি দোকানগুলোতে সাজিয়ে রাখা হয়েছে প্যাকেটজাত ও খোলা লাচ্ছা এবং বাংলা সেমাই।

এসবের বেশির ভাগই কুলসান, কুলসুম, থাইফুড, বনফুল, ফুলকলি, অলিম্পিয়া, ফুয়াং, প্রাণ, প্রিন্স, ড্যানিশ, মধুবন, ডায়মন্ড, কোকাকোলাসহ বেশ কয়েকটি ব্যান্ডের লাচ্ছাসেমাই।

খুচরা বাজারে এসব ব্যান্ডের প্যাকেটজাত লাচ্ছাসেমাই ২শ’ গ্রাম ৩৫ টাকা, ৮শ’ গ্রাম ১৭৫-১৮০ টাকা, ৫শ’ গ্রাম ৪৭৫-৪৮০ টাকা। 

খোলা লাচ্ছা কেজিপ্রতি ১২০-১৩০ টাকা, খোলা চিকন সেমাই (বাংলা সেমাই) ৬০-৭০ টাকা। তবে বাজার ভেদে দামের কিছুটা পার্থক্য রয়েছে।

বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে জানা গেছে, এবার সেমাই বিক্রি কম। মোহাম্মদপুর সিটি করপোরেশন মার্কেটের চার্ট ট্রেডাসের বিক্রয় প্রতিনিধি মো. রাসেল বাংলানিউজকে জানান, শুধু বাংলা নয় ব্যান্ডের সেমাইও অস্বাস্থ্যকর বলে ক্রেতারা কিনতে চায় না। 

তবে সব ব্যান্ডের সেমাই খারাপ নয় বলেও জানান তিনি। রাসেলের ভাষ্য, যারা নিয়মিত সেমাই খেতে পছন্দ করেন তারা প্রথম রমজান থেকে কিনছেন। তবে ঈদের কারণে ২০ রমজানের পর সেমাই বিক্রি বাড়বে।

বনফুল লাচ্ছা কিনতে আসা শরীফুল আলম নামে একজন ক্রেতা বাংলানিউজকে জানান, সেমাই নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ দেখে পরিবারের সবাই আতঙ্কিত। সেমাই ছাড়া ঈদ অপূর্ণ থেকে যায় বলে তবুও কয়েক প্যাকেট কিনতে হচ্ছে। জনস্বাস্থ্য বিবেচনায় সব সেমাই কারখানায় অভিযান চালানোর আহ্বান তার।

একই মার্কেটের শহীদ স্টোরের মালিক শহিদুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, আমরা তো বিক্রি করি। প্যাকেটে চকচকাই দেখি। তবে স্বাস্থ্যসম্মত কিনা জানি না।

তিনি বলেন, শবে বরাতের পর থেকে বিক্রিতো খারাপ হচ্ছে না। শেষ কয়েক রমজানে বেশি বিক্রি হবে। কোম্পানি বেশি হওয়ার কারণে সেমাইয়ের দামও বাড়েনি।

সেমাই রান্নার অন্যতম উপকরণ চিনির দাম সম্পর্কে শহিদুল বলেন, রমজানের আগে ৪৫ টাকা ছিল। রমজানের প্রথম থেকে ৩৮-৪০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে এবারই প্রথম বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশন বাজারে এনেছে আখের তৈরি চিনি। রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে খোলা বাজারে সে  চিনি কেজিপ্রতি ৪৬ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে।

মধ্যবাড্ডা এলাকার আঁখি স্টোরের মালিক আমির হোসেন বাংলানিউজকে জানান, ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে সেমাই বিক্রি বাড়ছে। তবে ব্যান্ডের সেমাইয়ের চাহিদা বেশি।

কোম্পানি বাড়ার সঙ্গে উন্নত মানের সেমাই তৈরির প্রতিযোগিতা বাড়ছে বলে দাবি আমির হোসেনের। তবে সেমাইয়ের বিষয়ে ক্রেতারা বিভিন্ন সময় অভিযোগ করে বলেও স্বীকার করেন তিনি।

একজন ক্রেতা জানান, নিয়মিত সেমাই কিনি। কিন্তু ইদানিং কারখানায় অভিযানের চিত্র দেখে ঈদ মেন্যু থেকে সেমাই বাদ দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

ধানমণ্ডি এলাকার মিনা বাজারের একজন বিক্রয় প্রতিনিধি বাংলানিউজকে জানান, আগের চেয়ে সেমাই বিক্রি কম। ভালো ব্যান্ডের হলেও দেখেশুনে কিনছে মানুষ।

ব্যান্ডের সেমাইও নকল ও নোংরা পরিবেশে তৈরি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ আছে। তবে শেষ কয়েক রমজানে বেশি বিক্রি হবে, জানান তিনি।

সরকারি মান নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিএসটিআই’র পরিচালক (সিএম) কমল প্রসাদ দাস বাংলানিউজকে জানান, অভিযান আগের চেয়ে জোরদার করা হয়েছে। অভিযানে নিম্নমানের সেমাইয়ের পাশাপাশি ব্যান্ডের সেমাই কারখানায়ও নোংরা, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও ক্ষতিকর উপাদান দিয়ে সেমাই তৈরির প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে।

জরিমানা ও শাস্তি দেওয়ার পরও নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। এক্ষেত্রে ক্রেতাদের সচেতনতা বাড়ানোর পরামর্শ দেন তিনি। (সংযম)
*খবরাখবর* *বেশতোবাসী* *বেশতো* *news* *নিউস* *সেমাই* *বেজালখাদদর্ব্য*

পরশ পাথর: যুদ্ধে জয়ের মতোই ঈদের অগ্রিম টিকিট পেয়ে ভি চিহ্ন দেখাচ্ছেন এক নারী ||

*খবরাখবর* *বেশতোবাসী* *বেশতো* *ঈদএবাড়িফেরা* *বাসটিকেট*

পরশ পাথর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

(দুঃখ)
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আসন্ন ঢাকা সফরে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার সঙ্গী হচ্ছেন। মোদীর হস্তক্ষেপে নতুন করে কোনও অঘটন না ঘটলে ৬ জুন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ঢাকা আসছেন মমতা। তবে এ সফরে তিস্তা চুক্তি হচ্ছে না বলে আনন্দবাজার প্রকাশ করেছে।
 
আনন্দবাজার প্রকাশ করেছে, মোদী বলেছেন, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের আলোচনায় পশ্চিমবঙ্গ অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক রাজ্য। এবং মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঢাকা যাওয়ার ব্যাপারে আমি প্রথম দিন থেকেই অনুরোধ করেছি। মমতা যেতে সম্মত হয়েছেন, এই সংবাদে আমি খুশি।
 
ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ সাম্প্রতিক কলকাতা সফরে বলেন, খুব শিগগির তিস্তা চুক্তি হবে বলে তিনি আশাবাদী। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ মমতা প্রধানমন্ত্রী মোদীকে জানান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যখন এই কথা বলছেন, তার মানে প্রধানমন্ত্রী ঢাকায় তিস্তা চুক্তি সই করে ফেলতে পারেন। সুতরাং তার ঢাকা না যাওয়াই শ্রেয়।
 
আজ প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে মমতাকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে যে, তিনি ঢাকায় গিয়ে তিস্তা নিয়ে কোনও কথা বলবেন না। ওই চুক্তি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী যখন একমত নন, তখন শুধু বাংলাদেশের কথায় তিনি চুক্তি করবেন, এটা হতেই পারে না। রাজনাথও এ দিন বলেন, এই সফরেই তিস্তা চুক্তি হয়ে যাবে এমন কথা তিনি বলতে চাননি। তিনি বলতে চেয়েছিলেন, দুই দেশের মধ্যে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে অদূর ভবিষ্যতে এই চুক্তি হবে বলে তিনি আশাবাদী।
 
মমতা বলেন, আমি তিস্তা চুক্তির বিরুদ্ধে নই। কিন্তু উত্তরবঙ্গকে বঞ্চিত করে তো চুক্তি করা উচিত নয়। 
 
তিনি জানান, তিস্তার জলপ্রবাহ খতিয়ে দেখতে কল্যাণ রুদ্রের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। সেই কমিটির রিপোর্টের ভিত্তিতে চুক্তির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য। 
 
তিনি বলেন, অতীতে যে চুক্তিটি তৈরি করা হয়েছিল, তাতে বেশ কিছু ত্রুটি আছে। সেগুলি মুখ্যসচিব কেন্দ্রীয় সরকারকে জানিয়েছেন। আমি নিজে বাংলাদেশে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমার বক্তব্য জানিয়ে এসেছি। ভারত এবং বাংলাদেশের মধ্যে কোনও রকম নেতিবাচক সম্পর্ক নেই। কিন্তু আলাপ-আলোচনা না-করে একতরফা কিছু করলে আমরা সেটা কিছুতেই মানতে পারব না। কারণ, আমার কাছে পশ্চিমবঙ্গের স্বার্থ সবার আগে।
 
আনন্দবাজার আরও জানিয়েছে, আজ মোদীর পক্ষ থেকে চলতি সফরে তিস্তা চুক্তি না-করার আশ্বাস মেলার পরেই বাংলাদেশ যেতে রাজি হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর সচিবালয়ও বলছে, মোদীর পক্ষ থেকে আজ মমতাকে জানানো হয়েছে, সিবিআই তাদের মতো তদন্ত করবে। এটার সঙ্গে বাংলাদেশ সফরকে যুক্ত করা অন্যায়।
*খবরাখবর*
খবর

পরশ পাথর: একটি খবর জানাচ্ছে

সিলেটে ১০ শিশুসহ ২৩ জনের মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন
http://www.prothom-alo.com/bangladesh/article/449059/%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%9F%E0%A7%87-%E0%A7%A7%E0%A7%A6-%E0%A6%B6%E0%A6%BF%E0%A6%B6%E0%A7%81%E0%A6%B8%E0%A6%B9-%E0%A7%A8%E0%A7%A9-%E0%A6%9C%E0%A6%A8%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%AE%E0%A7%83%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A7%81-%E0%A6%A8%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A7%87-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%B6%E0%A7%8D%E0%A6%A8
সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক দিনে ১০ শিশুসহ ২৩টি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে যা সংখ্যার দিক থেকে অস্বাভাবিক। এসব মৃত্যু নিয়ে নানা প্রশ্ন ওঠার পাশাপাশি চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে অবহেলার অভিযোগও আছে।গত সোমবার সকাল আটটা থেকে গতকাল মঙ্গলবার সকাল আটটা পর্যন্ত এসব মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। হাসপাতাল... ...বিস্তারিত
*খবরাখবর*
১০৪ বার দেখা হয়েছে

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★