খেলনা

খেলনা নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে কার্যকরী একটি গেমিং টুলসের নাম ফিজেট স্পিনার (Fidget Spinner)। এটা নিয়ে কৌতুহলী মানুষের কৌতুহলের শেষ নেই। এটার কাজ কি আর কেনই বা কিনবেন তা নিয়ে ভাবনা সবার! চলুন আলোচিত এই ফিজেট স্পিনার সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।



ফিজেট স্পিনার হলো স্ট্রেস কমানো এবং মনঃসংযোগ বাড়ানোর জন্য একপ্রকার খেলনা। মৌলিক ফিজেট স্পিনার একটি ব্রাস, স্টেইনলেস স্টীল, টাইটানিয়াম, তামা এবং প্লাস্টিক সহ বিভিন্ন উপকরণ দিয়ে তৈরি একটি খেলনা। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বা মনস্তাত্ত্বিক চাপের জন্য মুক্তির প্রক্রিয়া হিসাবে অভিনয় করার মাধ্যমে ফোকাসিং বা বিচ্ছুরিত; যেমন- এডিএইচডি, অটিজম, বা উদ্বেগযুক্ত এমন সমস্যাগুলি থেকে মুক্তি পেতে অনেকে তা ব্যবহার করে থাকেন।

১৯৯০ সালের দিকে এটি আবিষ্কার করা হয়েছিল, তবে ২০১৭ সালে ফিজেট স্পিনারটি একটি জনপ্রিয় খেলনা হয়ে ওঠে।

ফিজেট স্পিনারের ব্যবহার:

১. মনঃসংযোগ বাড়ানোর জন্য ফিজেট স্পিনার ব্যবহার করা হয়।

২. মানসিক চাপ বা অস্তিরতা দূর করার জন্য ফিজেট স্পিনার একটি স্ট্রেস বাস্টার।

৩. কাজের চাপ সামলে মনকে স্থিতধী রাখার শক্তি এর থেকে পাওয়া যায় ফিজেট স্পিনার ব্যবহার করে।

৪. আইটি সেক্টরের কর্মী যারা কাজ করতে করতে চেয়ার থেকে উঠতে সুযোগ পান না, তাদের মনঃসংযোগ ধরে রাখার ক্ষেত্রে ফিজেট স্পিনার বেশ কাজ দিচ্ছে। কারণ এই টয় খেলার জন্য হাত আর চোখের দৃষ্টি খুব বেশি প্রয়োজন।

৫. অটিজমে আক্রান্ত শিশুদের মনঃসংযোগ বাড়ানোর জন্যই এই স্পিনারের ব্যবহার করা হয়।

৬. যখন কোনও মনোবিদ প্রথমবার অটিজমে আক্রান্ত শিশুদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টা করেন, অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায়, তারা সাড়া দিচ্ছে না। তাই প্রত্যাশিত সাড়া পাওয়ার জন্য এই ধরনের টয় ব্যবহার করা হয়।

৭. যে সব শিশু আচমকা রেগে যায়, তাদের রাগ নিয়ন্ত্রণের একটা উপায় হিসেবে ফিজেট টয় ব্যবহার করা হয়।

৮. যাদের সেন্সর-ওরিয়েন্টেড সমস্যা থাকে, যেমন- চোখে পাওয়ারের সমস্যা নেই, কিন্তু ফোকাসের সমস্যা আছে, তাদের একাগ্রতা বাড়ানোর জন্য ফিজেট টয় ব্যবহার করা হয়।

৯. নখ খাওয়া, পা নাচানো প্রভৃতি বদভ্যাস ছাড়ানোর জন্য ফিজেট টয়ের ব্যবহার করা যায়।

সতর্কতা:

তবে অটিজম হোক বা এডিএইচডি, প্রতিটি শিশুর সমস্যা কিন্তু ভিন্ন ধরনের। তাই সমস্যা বুঝেই এই খেলনা ব্যবহারের পরামর্শ দেন মনোবিদরা।

কোথায় থেকে কিনবেন?


বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিলেই আকর্ষণীয় এই খেলনাটি পাওয়া যাচ্ছে। আপনি চাইলে ঘরে বসে অর্ডার করে পণ্যটি কিনতে পারবেন। দাম মাত্র ১৫০ টাকা থেকে শুরু। অনলাইনে কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*ফিজেট-স্পিনার* *খেলনা* *স্মার্টশপিং*

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ‘সফট টয়’ ধোয়া এবং পরিষ্কারের নিয়ম সমন্ধে জানতে চাই l

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*সফটটয়* *খেলনা* *লাইফস্টাইলটিপস*

নাহিন: [বাঘমামা-জটিল] স্ট্র দিয়ে বানান দারুন চরকা (চরকি)(চরকি)(চরকি)(চরকি)(চরকি) ছোট্ট এই খেলনাটি সোনামণিদের মুখে হাসি আনবেই (খুশী২) https://www.youtube.com/watch?v=UxRUL7QPH9Y

*খেলনা* *নিজেকর* *মজারটিপস* *চরকা*

নাহিন: [বাঘমামা-চুপকরো] সিরিঞ্জ দিয়ে তৈরি করুন হাইড্রোলিক আর্ম, আর চমকে দিন বাড়ির ছোট সোনামনিদের (ইয়েয়ে)(ইয়েয়ে)(ইয়েয়ে)(কিলক্ষ্মী) https://www.youtube.com/watch?v=wTM6Zik_tww

*নিজেকর* *ট্রিকস* *খেলনা* *শিশুকর্ণার* *মজারটিপস*

শ্যামল মিত্র: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ভালোমানের রুবিকস কিউব কিনতে চাইলে ঢাকার কোথা থেকে কিনতে পারবো ?

উত্তর দাও (২ টি উত্তর আছে )

.
*রুবিক-কিউব* *মাথাখাটান* *খেলনা* *কেনাকাটা*
শপিং

তৌফিক পিয়াস: কেনাকাটা সংক্রান্ত একটি তথ্য দিচ্ছে

৫৫৬০ টাকা
http://feriola.com/index.php?route=product%2Fproduct&product_id=170#.VIhEk6vAtwU.facebook

RC কার লাভারদের জন্য !

*খেলনা*
১৭৬বার দেখা হয়েছে

এ. আর. খান: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আদুল গায়ে ধূলা মেখে
খোকন সোনা খেলে
ধূলা ঝেড়ে ওঠে যখন
সুখও ডানা ম্যালে

রাতভর ভয়াবহ চিৎকার চেঁচামেচি আর কান্নাকাটিতে আরামের ঘুম হারাম হওয়ায় পরদিন বিকেলে বাবা অফিস থেকে ফেরার সময় একটা খেলনা গাড়ি নিয়ে এলেন। আমার খুশি দেখে কে! হাতে নিয়ে ঘুরে বেড়াই,কোলে করে রেখে দিই খাওয়ার সময়,গোসলের সময় মা বুঝিয়ে সুঝিয়ে হাত থেকে রেখে দিলেও বিকেলে ঘুমানোর সময় ওটা চাইইই! সন্ধ্যেবেলা ওটার লোভ দেখিয়ে মা পড়াতে বসালেন,রাতে খাওয়ালেন শেষ পর্যন্ত ঘুম পাড়ালেন;ঘর-এলাকা শান্তি পেল!
পরদিন সকালে আবার শুরু,কিছুক্ষণ পর মনে হল এটা পেছন দিকে টানলে সামনের দিকে যায় কেনো?কাহিনীটা কি?!
শুরু হল গবেষণা।এটা সেটা খুলে টুলে ভেতরে দেখেও আগামাথা কিছু বের করতে পারলাম না।আবার জোড়া দিলাম,পেছন দিকে টানলাম।
ওমা!কই? সামনের দিকে যে আর যায় না!বোধহয় তেল শেষ!
রান্নাঘরে গিয়ে চুপিচুপি সয়াবিন তেল ভরে দিলাম স্ক্রুর ফুটো দিয়ে।তাও চলে না!
ধুররর!খেলবই না আর এটা দিয়ে!থাকল পড়ে এত শখের খেলনা।

কিছুদিন পর ভিডিও গেমস এর বায়না ধরলাম বন্ধুদের হাতে দেখে।আবার সেই বিদ্রোহ,গাল ফুলানো।আবার অতীষ্ঠ হয়ে বাবার আবদার রক্ষা করা।কয়দিন সেটা নিয়ে আবার এই পাগলামি,গবেষণা;শেষ পর্যন্ত আগ্রহ হারিয়ে ফেলা।

একে একে আইসক্রিম কার,রোবট হেনতেন পেরিয়ে এসে বয়স আর মনের পরিবর্তনের সাথে সাথে পরিবর্তন হল পছন্দ আর সেই সাথে জন্ম নিল বাবা-মায়ের দেওয়া কোন কিছুকে পরম মমতায় আগলে রাখার মানসিকতা।বাবার কিনে দেয়া ক্রিকেট ব্যাট আর সিডিওয়াকম্যান এখন আর কাজে না লাগলেও রেখে দিয়েছি।মায়ের কিনে দেওয়া অ্যাটলাস সাইকেলটায় চড়তে হলে এখন কোনরকমে আগে হাঁটু কেটে ছোট করতে হবে! হাহাহা,তবুও আছে এখনো। আর মায়ের বানিয়ে দেওয়া পড়ার টেবিলটা বাসার সদস্যদের অনেক পছন্দ-অপছন্দ আর জায়গা সংকুলান না হওয়ার আপত্তির মুখেও টিকে গেছে আবেগ আর মায়ার শক্তিতে।
পড়ার টেবিলের সাথে খেলনার সম্পর্ক কি ভাবছেন তো! হাহাহা..
ছোটবেলায় অদ্ভূত একটা শখ ছিল; নানান রকম টর্চ লাইট জমানোর।মা সেই আবদারও পূরণ করতেন মাঝে মাঝে।পড়ার টেবিলটা আমার পড়াশোনার প্রতি যেমন অন্য রকম আগ্রহ তৈরি করেছিল,তেমনি এটার ড্রয়ারগুলো ছিল বাবার কাছ থেকে টর্চ লাইটগুলো লুকিয়ে রাখার একটা নিরাপদ জায়গা। হাহাহা...

বড় হতে হতে সমস্ত শখ আহ্লাদের ধুলো শরীর থেকে ঝড়ে পড়ে গেছে কখনো প্রয়োজনে তো কখনো বাস্তবতার কাছে হার মেনে।খেলনাগুলো,শখের জিনিসগুলো পুরোনো স্মৃতি মনে করিয়ে কখনো হাসায়,কখনো কাঁদায়,কখনো ভাষাহীন চাপা কষ্টে দীর্ঘশ্বাস বের করে নিয়ে আসে।

জীবনের এই পথটুকু পাড়ি দিতে দিতে অনেকের সাথে পরিচয় হয়েছে।অনেক বন্ধু,স্কুলে,কলেজে আর ভার্সিটি ক্যাম্পাসে বা অন্তর্জালে।এসেছে যেমন, তেমন হারিয়েও গেছে।
কেউ কেউ সেই যত্নে রাখা খেলনাগুলোর মত মনে আজও জায়গা করে আছে,শুধু হারিয়ে গেছে মহাকালের অতল গহ্বরে অথবা কপট ব্যাস্ততার আড়ালে।
আর কারো কারো কাছে সম্পর্কটা পেছন দিকে টানলে সামনের দিকে যাওয়া এই খেলনা গাড়িটার মত। যতক্ষন আগ্রহ থাকে,সাথে নিয়ে ঘোরে। আগ্রহ শেষ হয়ে গেলে অযত্নে কোথাও ফেলে রাখে।ওটা সাথে নিয়ে না ঘোরার জন্য সয়াবিন তেল ভরে ফেলার মত অনেক কারণ তৈরি করে ফেলে! হাহাহা।
অথচ বাবার স্বল্প আয় মধ্য থেকে বাজে খরচের তালিকায় এক নম্বরে থাকলেও ওই খেলনাটাও বাবা কিনে এনেছিলেন সন্তানের প্রতি মমত্ববোধ থেকেই। অদ্ভূদ ব্যাপার! বাকিগুলোর কদর বুঝলেও এই খেলনাটার কদর বুঝিনি!
সম্পর্কের এই ভালোবাসা,আবেগ বা শ্রদ্ধা আর দাবি-অধিকারগুলো খুব মূল্যবান। শুধু ভালো লাগা না লাগাটার গুরুত্বই বেশি নয়। অবচেতন মন থেকে আসা এই ভালোবাসা,আবেগ বা শ্রদ্ধা চাইলেই পাওয়া যায় না। অনেকে এর মূল্যটা বুঝতে চায় না।

জীবনে যন্ত্রনা আছে প্রচুর। সবকিছু মেনে নিয়েই চলতে হয়।
কিন্তু আপন মনুষগুলোর মুখ হঠাৎ অচেনা হয়ে গেলে জীবনটাও অকেজো হয়ে আসতে চায় ওই খেলনা গাড়িটার মতই। কষ্টগুলো হৃদয় ছিঁড়েখুঁড়ে দেয়,জীবনটা চলতে চায় না।

এভাবেই সময়ের সাথে সাথে বেড়ে চলে জীবন ও যন্ত্রনা....



*সম্পর্ক* *খেলনা* *জীবনওযন্ত্রনা*
জোকস

হাফিজ উল্লাহ: একটি জোকস পোস্ট করেছে

আবুলের তিন ছেলেমেয়ের জন্য একটা মাত্র খেলনা কিনে বাড়ি ফিরলেন । ছেলে মেয়েদের উদ্দেশে বললেন: যে ঘরে একদম লক্ষ্মী হয়ে থাকে, তোমাদের আম্মুর সব কথা শোনে, একদম চিৎকার-চেঁচামেচি করে না, সে-ই খেলানাটা পাবে। ছোট মেয়েটা বলে উঠল: বললেই হয়, খেলনাটা তুমি রাখতে চাও! (অবাক) (মামাকিদেখলাম)(হাসি২)
*খেলনা* *পুরাইধরা*
ছবি

নাহিয়ান সেজান: ফটো পোস্ট করেছে

জোকস

পাগলী: একটি জোকস পোস্ট করেছে

তিন ছেলে মেয়ের জন্য একটা মাত্র খেলনা কিনে বাড়ি ফিরলেন মকবুল সাহেব। তিনজনকে ডেকে বললেন, 'যে ঘরে লক্ষি হয়ে থাকে, তোমাদের আম্মুর সব কথা শোনে, একদম চিৎকার চেঁচামেচী করেনা, সেই এই খেলনাটা পাবে। ছোট মেয়েটা বলে উঠলো, " বললেই হয় খেলনাটা তুমি নিজের জন্য রাখতে চাও! "(খিকখিক)
*জোকস* *খেলনা* *ছেলেমেয়ে* *বাড়ি* *লক্ষি* *আম্মু* *তুমি* *চিৎকার*
জোকস

হাফিজ উল্লাহ: একটি জোকস পোস্ট করেছে

এক ভদ্রমহিলা ভীষণ রেগেমেগে খেলনার দোকানে ঢুকলেন। খেলনাটা ফেরত দিয়ে বললেন, আমার টাকা ফেরত দিন! নিয়ে যান এই খেলনা।বিক্রেতা বললেন, কেন, কী হয়েছে? এটা তো খুবই ভালো খেলনা। ভদ্রমহিলা বললেন, এটা ভাঙে না কিন্তু এই খেলনা দিয়ে বাড়ি দিয়ে আমার ছেলে বাড়ির অন্য সব খেলনা ভেঙে ফেলেছে।
*রাগ* *খেলনা* *ভাঙ্গা*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★