গিটার

গিটার নিয়ে কি ভাবছো?

মিউজিক ম্যাশ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আমাদের প্রিয় বাদ্যযন্ত্রের তালিকায় খুব সহজেই ছয় তারের গিটারের নাম এসে পরে । গিটার বাদ্যযন্ত্রটি বাজানোর ক্ষেত্রে অনেক আগে থেকেই এর ব্যাবহার চলে আসছে । লেখক মরিস জে. সামারফিল্ড এর মতে স্পেনে ৪০০ খ্রিস্টাব্দে রোমানরা " সিথারা " নামক একটি বাদ্যযন্ত্র নিয়ে আসেন, যা থেকেই গিটার বাদ্যযন্ত্রটির উদ্ভব । আরবরা "উদ" নামে একটি বাদ্যযন্ত্র ব্যবহার করত। তবে আবার অনেকে ধারণা করেন, চার তার সম্বলিত "তানবুর" নামক বাদ্যযন্ত্র থেকে গিটার বাদ্যযন্ত্রটির উদ্ভব। খ্রিস্টপূর্ব ১৪০০ শতকে বর্তমান সিরিয়ায় "হিটরাহিট" নামক এক জাতি বাস করত, তারা এই "তানবুর" বাজাত। গ্রিকরাও এমন একটি বাদ্যযন্ত্র তৈরি করেছিলেন যা থেকে পরবর্তীতে রোমানরা " সিথারা " নামক বাদ্যযন্ত্রটি তৈরি করেন ।


"তানবুর","উদ" ও "সিথারা" এর থেকেই মূলত গিটারের উদ্ভব । ১২০০ সালে চার তার বিশিষ্ট গিটারের দুটি রুপ বের হয় ,যার একটি হচ্ছে - "মূরিশ গিটার"। যার পিছনের দিক গোলাকার, একটু কম প্রশস্ত ফ্রেটবোর্ড এবং বেশ কয়েকটি সাউন্ড হোল ছিল। অপরটি হচ্ছে -"ল্যাটিন গিটার"। যার ছিল একটি সাউন্ড হোল ও প্রশস্ত ফ্রেটবোর্ড । ১৭৮৮ সালের দিকে এসে জেকব অটো নামে একজন জার্মান বাদ্যযন্ত্রনির্মাতা পাঁচ তার বিশিষ্ট গিটারে ৬ষ্ঠ তার সংযোজিত করেন যা পরবর্তীতে জনপ্রিয় হয়ে উঠে। এরপর ১৯ শতকে শুরুতে স্পেনের অগাস্টিন কারো, ম্যানুয়াল গিটারেজ এবং অন্যান্য ইউরোপিয়ান গিটার প্রস্তুতকারক গিটারকে বর্তমান রুপ দেন, যা বর্তমানে সকলে ব্যবহার করছে ।




গিটারের প্রাথমিক পরিচিতিঃ
গিটার একটি বহুল পরিচিত এবং প্রচলিত বাদ্যযন্ত্র। এটি মূলত তারের উপর নির্ভরশীল একটি বাদ্যযন্ত্র। মূলত গিটার তিন প্রকার। যেমনঃ
১) স্প্যানিশ গিটার
২) হাওয়াইয়ান গিটার
৩) বেস গিটার
আবার অনেকের মতে গিটার প্রধাণত ২ প্রকার।
১) স্টীল স্ট্রীং গিটার
২) নাইলন স্টীং গিটার

আবার ফ্ল্যামেনকো গিটার নামের এক জাতের গিটার আছে । এ ছাড়া নানা নামের গিটার রয়েছে কিন্তু সাবমেনুর মত । যেমন স্টীল স্ট্রীং গিটার এর সাব মেনুর মত কিছু গিটার রয়েছে যেমন – রীদম, লিট, বেজ, হাওয়াইন গিটার। তো এই থেকে বোঝা যায় সাব মেনুর মত সাব গিটার রয়েছে নানা প্রকারের।



স্প্যানিশ গিটার একটি ওয়েস্টার্ন মিউজিকাল ইন্সট্রুমেন্ট এবং এটি খুবুই জনপ্রিয় । বাংলাদেশে অনেকে এই গিটার নিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করার চেষ্টা করলেও ৭০ দশকে গুরু আজম খান, ও ফকির আলমগীর বাংলা গানের জগতের নতুন ধারা সৃষ্টি করেন পপ ব্যান্ড ।এই থেকে শুরু হয়ে গেল বাংলাদেশে স্প্যানিশ গিটার এর প্রভাব ।

এই স্প্যনিশ গিটারেও ভাগ রয়েছে ।
১) এ্যাকোস্টিক
২) ক্লাসিক্যাল
৩) ইলেকট্রিক বা বৈদ্যুতিক

গিটারের বিভিন্ন অংশঃ
হেডস্টক
টিউনার
নাট
ফ্রেটস
ফ্রেটবোর্ড
সাউন্ড হোল
স্ট্রিংস
পিক গার্ড
সাউন্ড বোর্ড
পিক-আপস
ব্রিজ
ভলিউম অ্যান্ড টোন কন্ট্রোল



গিটার অনেক ধরনের আছে। দোকানে বেশি ভাগ ক্ষেত্রে স্প্যানিশ গিটার পাওয়া যায়। স্প্যানিশ গিটার একটি ওয়েস্টার্ন মিউজিকাল ইন্সট্রুমেন্ট। তবুও বিশ্বের সকল দেশেই সংগীতের জগতে এই বাদ্যযন্ত্রটির চাহিদা ব্যাপক । আমাদের তরুণ সমাজের সংগীত শ্রোতাদের মধ্যে গিটার শেখার প্রতি চরম একটি আগ্রহ দেখা যায়।

গিটার শেখার কিছু কৌশলঃ
গিটার শেখার জন্য প্রথমত আপনার দরকার হবে একটি একষ্টিক গিটার। বাজারে বিভিন্ন মানের একষ্টিক গিটার পাওয়া যায়। আপনি ৪০০০-৬০০০ এর মধ্যে একটি ইন্ডিয়ান গিটার দিয়ে শুরু করতে পারেন। আপনার বাজেট যদি একটু কম হয় তাহলে ১৫০০-২৫০০ এর মধ্যে বাংলাদেশী গিটার দিয়েও শুরু করতে পারেন। গিটারের নোট বলতে মূলত সুর কে বুঝানো হয় । বাংলায় আমরা যেটাকে সা, রে, গা, মা, পা, ধা , নি দিয়ে সম্বোধন করি , ইংরেজিতে সেটাকে C D E F G A B এভাবে সম্বোধন করা হয়। গিটার যেহেতু একটি বিদেশী বাদ্যযন্ত্র , তাই এর ইংরেজি গ্রামার ব্যাবহার করলেই শিখতে সুবিধা হয়।



সাইন গুলোর পাশাপাশি নিচের নোট সিরিয়ালটিও মুখস্থ করে নিন। এটি অবশ্যই কাজে লাগবে।
A–A#–B–C–C#–D–D#–E–F–F#–G–G#–A
[B এবং E এর কোন # (শার্প) নোট হয়না]

টিউনিং হচ্ছে একটি নির্দিষ্ট মাত্রায় গিটারের স্ট্রিং (তার) গুলোকে টাইট করা। যাতে সঠিক সুর টি আসে। টিউনিং ছাড়া গিটার দিয়ে কখন কোন সঠিক সুর তোলা সম্ভব নয়। টিউনিং হলো মিউসিক সেন্স এর ব্যপার। এবার আপনার গিটারের তার গুলোকে হেডস্টক এর টিউনারগুলোকে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে সাউন্ড ঠিক করতে হবে।



গিটারের ফিঙ্গার বোর্ডের বিভিন্ন ফ্রেটস এ আঙ্গুল রেখে বাজালে কোন সুর (note) টি বাজবে সেটি মনে রাখতে হবে। যখন ফিঙ্গার বোর্ডে কোনরুপ আঙ্গুল না দিয়ে বাজালে তখন ওপেন নোটগুলো বাজবে। গিটার শেখার সময় পিক দিয়ে এবং পিক ছাড়া উভয় ভাবে বাজানোর প্রাক্টিস করতে হবে। পিক হচ্ছে ছোট্ট একটি প্লাস্টিকের ত্রিভুজ আকৃতির খণ্ড, যা দিয়ে গিটার বাজানো হয়। প্র্যাকটিসের সময় চিন্তা করতে হবে - কি বাজানো হচ্ছে, কেমন সাউন্ড হচ্ছে এবং তা আপনার পছন্দ হচ্ছে কি না? যখন বিরক্ত লাগবে, তখন হালকা রেস্ট নিয়ে আবার শুরু করতে হবে। ভাল গিটারিস্ট হতে হলে অবশ্যই প্রচুর প্র্যাকটিস করতে হবে।



ওয়েস্টার্ন ওয়ার্ল্ড মিউজিকাল সিস্টেমে ইংলিশ অ্যালফাবেট এর প্রথম সাতটি বর্ণ নোট অথবা সাউন্ড এর পিচ রূপে ব্যবহৃত হয়। বর্ণগুলি হল - A B C D E F G । ঐতিহাসিক কারণে বর্ণ গুলো কীবোর্ড অথবা হারমোনিয়ামে শুরু হয় C থেকে। অর্থাৎ এভাবে- CDEFGABC. তাই বেশি ভাগ ক্ষেত্রেই গিটারেও এই রুলটি ব্যবহার করা হয়।

নোটঃ
নিদিষ্ট সাউন্ড বা স্বরকে নোট বলে । নোট মোট ১২টি যথা—
C-C#-D-D#-E-F-F#-G-G#- A- A#-B

অথবা এভাবে বলা যায় -
A#-B -C-C#-D-D#-E-F-F#-G-G#

অকটেভঃ
একটি নোট থেকে একই নামের আরেকটি নোট এর দূরত্বকে অকটেভ বলা হয়। যেমন- A B C D E F G A – দেখুন এখানে A টি সব নোট শেষে করে আবার A কে টাচ করেছে। এটি একটি অকটেভ।

অবসর:
প্রথমবারেই ১ঘণ্টা ধরে বাজাতে পারবেন না। শুরুতে ৫/১০ মিনিট করে চালু রাখুন, আধঘণ্টা বিশ্রাম নিন, পরে আবার শুরু করুন। বাম হাতের আঙুল এ ধরনের কাজে অভ্যস্ত নয় বলে একটু ব্যথা করবে। আঙুলের মাথাগুলো একটু করে ফোস্কার মতো হবে। নিয়মিত বাজালে তা অনুভুতিহীন হয়ে শক্ত আকার নেবে। তখন আর ব্যথা লাগবে না। এ ব্যাপারে ধৈর্য ধরতে হবে।

অনুশীলনী:

১. বাম হাতের চারটি আঙুলকে খাড়া করে টেবিলের উপর রাখুন। এবার মধ্যমা ও কনিষ্ঠাকে টেবিলে যুক্ত রেখেই তর্জনী ও অনামিকাকে তুলতে চেষ্টা করুন। এখন তর্জনী ও অনামিকাকে আগের জায়গায় ফেরত নিয়ে এ দুটিকে টেবিলে যুক্ত রেখে মধ্যমা ও কনিষ্ঠ আঙুলকে তুলতে চেষ্টা করুন। নিয়মিত এ ব্যয়ামটি করলে আঙুলের পেশীগুলো দক্ষ হয়ে উঠবে। একই ব্যয়াম গিটারের ফ্রেট বোর্ডেও করতে পারেন। এর জন্য সুবিধামত চারটি ফ্রেট বেছে নিন। ভালো মতো বুঝার জন্য ভিডিও দেখুন।

২. ফ্রেট বোর্ডে সুবিধামতো একটা জায়গা বাছুন যেখানে বাম হাতের চারটি আঙুল পর পর চারটি ফ্রেটে রাখুন। নীচের তার থেকে শুরু করে এক একটা আঙুল এক একটা ফ্রেটে রেকে পিক দিয়ে ঐ তারটি বাজান। প্রথম তার শেষ করে দ্বিতীয় তারে যান, শেষ করে তৃতীয় তারে যান। শেষ তার থেকে আবার উল্টো ক্রমে নীচের তারে আসুন। আঙুলের জোড় বাড়ানোর জন্য এ কাজটি প্রতিদিন ১০/১৫ মিনিট ধরে করুন। প্রথম প্রথম ধীরে ধীরে করুন, পরে দ্রুততা বাড়াতে পারেন। অভ্যস্ত হয়ে গেলে ফ্রেটবোর্ডের মাথার দিকে, অর্থাৎ গিটারের নেকের দিকের চারটা ফ্রেট বেছে নিন।

 

ঘরে বসে গিটার শেখার কোনো উপায় আছে কি:

মিউজিক নিয়ে ধারণা না থাকলে শেখা একটু মুশকিল হতে পারে যেমনঃ গিটার টিউনিং এর বিষয়টা। আইডিয়া না থাকলে যতই ইউটিউব দেখেন খুব বেশী লাভ নেই। কর্ড হয়তো দেখে/পড়ে কিছুটা রপ্ত করতে পারবেন, কিছু রিদমও হয়তো পারতে পারেন। তবে উৎসাহে ভাটা পরতে পারে। ভাল হয় ১-২ মাস কারো কাছ থেকে বেসিকটা দেখে এর পর নিজে নিজে রিদমগুলো/কর্ডগুলো পিক করা। এর পর যখন আবার লিড/বেস শেখার সময় হবে তখন আবার কারো কাছে যেতে হবে। ঘরে বসে গিটার শিখতে চাইলে ইন্টারনেট কানেকশন লাগবে l ইউটিউবে "how to play guiter" দিলে চলে আসবে l সেখানে ডিটেলস দেয়া থাকবে l আশা করি উপকার হবে l আর এজন্য আপনাকে একটা গিটার কিনতে হবে l ভালমানের গিটার পেয়ে যাবেন সায়েন্স ল্যাব, এলিফ্যান্ট রোডের মিউজিক্যাল ইনস্ট্রুমেন্টালের দোকানে l এছাড়া অনলাইনে কিনতে হলে আজকের ডিল একমাত্র ভরসা l এখানে উন্নতমানের এবং নাম করা ব্রান্ডের গিটার বিভিন্ন রেঞ্জে পাওয়া যাচ্ছে l কিনতে ক্লিক করুন ছবিগুলোতে আর আজকের ডিলের পেজে l

*গিটার* *বাদ্যযন্ত্র*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

গুনগুনিয়ে গান না গেয়ে এবার গলা ছাড়ুন জোরে। কারণ অবিশ্বাস্য কম মুল্যে বিভিন্ন ধরনের মিউজিক্যাল ইন্সট্রুমেন্ট এখন কিনতে পাচ্ছেন অনলাইনে। শুধু কয়েকটি ক্লিক করেই বাসায় বসে ডেলিভারি পাবেন বিভিন্ন ধরনের গিটার, ড্রাম, ভায়োলিন, পিয়ানো ইত্যাদি । তো চলুন এক পলকে দেখ নিই এসবের মুল্য কেমন পড়বে।


ACOUSTIC SIGNA`TURE 265 গিটার
৭,৫০০ টাকা
মেড ইন ইন্ডিয়া
ফুল-সাইজ ইলেক্ট্রিক গিটার 
ম্যাপেল কাঠের তৈরি
Total fret numbers – ২২ Playable frets – 21
Length – 41” (104.14 cm)
Width – 17” (43.18 cm)
Thickness – 3.5” (8.89 cm)
৬ মাসের ওয়ারেন্টি



PURETONE অ্যাকুইস্টিক গিটার
৬,০০০ টাকা
ব্র্যান্ডঃ Puretone
ক্রিস্টাল ক্লিয়ার অ্যাকুইস্টিক সাউন্ড 
স্লিম ডিজাইন 
বিল্ট-ইন ইকুয়েলাইজার (স্পিকার আউটপুট এর জন্য)
মেড ইন চায়না


SX অ্যাকুইস্টিক SA3-SK-VS প্যাকেজ
১৪,৫০০ টাকা
কাস্টোম গিটার 
কোয়ালিটি ফিনিশিং 
ফুল প্যাকেজঃ গিটার, গিটার স্ট্র্যাপ, পিক, ক্যাবল, 
১০ ওয়াট গিটার অ্যাম্প



ZEALUX অ্যাকুইস্টিক গিটার
৮,০০০ টাকা
ব্র্যান্ডঃ Zealux
ক্রিস্টাল ক্লিয়ার অ্যাকুইস্টিক সাউন্ড
স্লিম ডিজাইন 



ইলেকট্রনিক ফোল্ডিং পিয়ানো
৫,৫০০ টাকা
এই পিয়ানো সহজেই ভাঁজ করা যায়
 বিদ্যুৎ চালিত
 ভোলেটজঃ DC 4.5V 
টাচ সেনসিটিভ 
ম্যাট সিলিকন রাবার কি


ASHTON AV442 ভায়োলিন
৫,২০০ টাকা
ব্র্যান্ডঃ Ashton ফুল সাইজ 
ভার্সন Flame 
Maple ফিনিশড বডি 
Dark Ebonised fingerboard
Color matched bow and case
এক্সট্রা অর্ডিনারী সাউন্ড কোয়ালিটি

এ ধরনের মিউজিক্যাল ইন্সট্রুমেন্ট আরো দেখতে বা অর্ডার করতে ক্লিক করুন এখানে
*গিটার* *পিয়ানো* *ভায়োলিন* *ইনসট্রুমেন্ট* *মিউজিক*

দস্যু বনহুর: *গিটার* এই গিটারটা বন্দুক হয়ে যেতে পারে, যদি ভয় দেখাও। এই সেতারটা সিন্দুক হয়ে যেতে পারে, গুলি গোলা আর বারুদেতে ঠাসা হতে পারে, যদি ভয় দেখাও, ভয় দেখাও, ভয় দেখাও!!

*শিলাজিত*
ছবি

সুমন: ফটো পোস্ট করেছে

নতুন গিটার কিনেছি ! গিটার বাজানো শিখতেছি ।

*গিটার*

আব্দুস সালাম: মেঝো ভাই *ব্যান্ডমিউজিক* পছন্দ করেন না তাই আমার *গিটার* শেখায় ছিল অনেক বাধা , উনি মনে করতেন *গিটার* মানেই *ব্যান্ডমিউজিক* তাই আমার নিজের কেনা *হারমোনিয়াম* তা আমার মামাত বোনকে দিয়ে দিয়েছিলেন. (মনখারাপ) হয়েছিল খুব ..যাই হোক *গিটার* টাই সঙ্গী হয়ে ছিল

খায়রুল বাশার: *গিটার* বাজাইতে পারিনা। এইটা এত লোক বাজায় যে আমার বাজানোর শখ হয়েও তা ফুরিয়ে গেছে ...

The তানভীর স্বপ্ন: আমার একখান *গিটার* ছিলো, জানলো না তো কেউ! সেই গিটার নিয়েই গুনতাম, আকাশে মেঘের ঢেউ। এসএসসি'র রেজাল্ট খারাপ হইলে, বাবা দিলো আছার, সেই গিটারটা হারায় আমি তাই, কান্দি ভেউ-ভেউ। আমার একখান গিটার ছিলো, জানলো না তো কেউ! (মনখারাপ) (আম্মুউউউ)

*গিটার*

জুনি: আমার গিটার শেখার শখ দেখে একজন আমাকে *গিটার* গিফট করেছিল,কিন্তু শেখানোর মানুষের অভাবে আজ আমার *গিটার* টা পরে আছে,আর আমার শেখার শখ এখন ও কিন্তু আছে,কেউ আছেন নাকি,আমাকে *গিটার* বাজানো শেখাবেন,(চিন্তাকরি)

আব্দুস সালাম: প্রথম *গিটার* টা যখন কিনি তখন কিছুই জানতামনা বা বুঝতামনা ...বুঝে উঠার পরে আরো ২ টা GIVSON , SIGNATURE *গিটার* কিনেছিলাম এবং ১ টা HOBNER *গিটার* গিফট পেয়েছিলাম l আমার কপালে সন লেগেছিল আমার প্রথম কেনা *গিটার* টা বিক্রি করার পর থেকে .........(মনখারাপ)

খেয়ালি পাঠক: *গিটার* শেখার খুব ইচ্ছা ছিল কিন্তু হইল না | কি আর করা .....বন্ধুরা বজায় আর আমি শুনি |

সোহাগ: *গিটার* অনেক সখ করে কিনে ছিলাম,এত কিছু থাকতে চুরের আমার গিটার টাই পছন্দ হল, আর কিনা ও হইল না শেখা ও হল না ।

আল ইমরান: *গিটার* আমি বাঁজাতে পারি না। তবে গিটারের উল্টো পিঠ দিয়ে ভালো তাল বাঁজাতে পারি। আমার বন্ধু হীরা বেশ ভালো গিটার বাঁজায়। যে কোন আয়োজনে গিটার হাতে তার উপস্থিতি থাকতই। মিস করি সেই দিনগুলো।

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★