চিকেন গ্রিল

চিকেনগ্রিল নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

শীত আসলেই শুরু হয়ে যায় পরিবার-পরিজন আর বন্ধুবান্ধদের সাথে ভ্রমনে যাওয়া, পিকনিক করা বারবিকিউ পার্টির মতো আনন্দদায়ক সব অনুষ্ঠান নিয়ে মেতে ওঠা। ভ্রমনে বা পিকনিকে এখন যেন বারবিকিউ পার্টি মজার অন্যতম একটি অনুষঙ্গ। বন্ধুরা মিলে কোথাও বেড়াতে যাচ্ছে আর সেখানে বারবিকিউ হবে না- এমনটা যেন আজকাল ভাবাই যায় না। হৈ-হুল্লোড়, গান, আড্ডা আর সঙ্গে ঝলসানো মাংস- এই তো বেড়ানোর আনন্দের ষোলকলা! আবার ঘরেও হতে পারে বারবিকিউ। তরুণদের কাছে তো এখন পার্টি মানেই বারবিকিউ।

শীতেই বারবিকিউর আয়োজন হয় বেশি। বিভিন্ন সময় বারবিকিউ পার্টিতে গিয়েছেন অনেকেই। দামি রেস্টুরেন্টে গিয়ে বন্ধুরা খাওয়ার আনন্দে ডুবে যেতে পারেন। তবে নিজের বাড়িতেই পরিবার আর বন্ধুদের নিয়ে বারবিকিউ পিকনিক হলে মন্দ কী। আর প্রায়ই বন্ধুরা মিলে এমন আয়োজন আনন্দ ও শিহরণে দোলাবে সবাইকে। তাই  এই শীতে বাড়ির ছাদে বা খোলা জায়গায় হয়ে যাক না জমজমাট বারবিকিউ পার্টি। চুলা থেকে নামিয়ে গরম গরম বারবিকিউ করা মাংস খাওয়ার মজাই আলাদা। তবে সে জন্য চাই একটু প্রস্তুতি।

বারবিকিউ প্রস্তুত প্রণালী : বারবিকিউয়ের নিয়ম হচ্ছে, মাংসের ওপরের অংশ কড়কড়ে ভাজা হবে। কিন্তু ভেতরের মাংস অবশ্যই নরম হতে হবে। যদি মুরগির মাংস ওপরের চামড়াসহ কয়লায় দেওয়া হয়, তাহলে চামড়ার তেলে ভেতরের মাংস নরম হয়ে যাবে। সংক্ষেপে রেসিপি তুলে ধরেছি : মুরগি দুই বা চার টুকরা করে পানি ঝরিয়ে আদাবাটা, রসুনবাটা, মরিচগুঁড়া, গোলমরিচগুঁড়া, বিভিন্ন বারবিকিউ সস, অলিভ অয়েল, রোজমেরি, পাপরিকা, লবণ ইত্যাদি একসঙ্গে মিশিয়ে ভালোভাবে মাংসে লাগিয়ে এক ঘণ্টা রাখতে হবে।

এরপর বারবিকিউ চুলায় ২৫-৩০ মিনিট ধরে আঁচ দিতে হবে। মাঝে দুবার উল্টিয়ে দিতে হবে। তার কিছুক্ষণ পর বারবিকিউ সস ব্রাশ করে দিতে পারেন। বাসার বাইরে যদি কেউ বারবিকিউ করতে চান, তাহলে সস কিনে নেওয়াটাই ভালো এবং সে ক্ষেত্রে মুরগির টুকরোগুলো আগে থেকেই সব ধরনের উপাদান দিয়ে মেখে রাখতে হবে। বাজারে বিভিন্ন রকমের বারবিকিউ সস পাওয়া যায়। আবার কেউ চাইলে মধু, সয়া সস, লবণ-মরিচ, লেবুর রস ইত্যাদি দিয়ে বাসায় বারবিকিউ সস বানাতে পারেন।

বারবিকিউ সরঞ্জাম : বাজারে দুই ধরনের বারবিকিউ চুলা পাওয়া যায়। একটি বৈদ্যুতিক, অন্যটি কয়লার। বাজারে গ্যালভানাইজড চুলার চাহিদা বেশি। কারণ, সেগুলো সহজে বহনযোগ্য। নিউমার্কেটে ট্রেসহ এমন চুলার দাম পড়বে ৩০০ থেকে ১৬০০ টাকা। নেটের দাম ১৩০ থেকে ৩৫০ টাকা। কয়লার দাম প্রতি কেজি ১২০ থেকে ১৩০ টাকা। এ ছাড়া চীনা ব্র্যান্ডের বৈদ্যুতিক চুলাও পাওয়া যায়। সম্ভাব্য দাম ২২০০ থেকে ৩৫০০ টাকা।বৈদ্যুতিক চুলা ব্যবহার করা তুলনামূলকভাবে সহজ। কারণ, এটি ব্যবহার করতে কয়লা বা অন্য কোনো ধরনের ঝামেলা নেই। ধোঁয়াও হয় না। ঘরের ভেতরেই এটি ব্যবহার করা যায়।

 

এটি ব্যবহারের জন্য দরকার শুধু বৈদ্যুতিক সংযোগ। মাংসের ওপর তেল বা অন্যান্য মিশ্রণ লাগাতে ব্রাশের দরকার পড়ে। বাজারে বিভিন্ন রকমের ব্রাশ পাওয়া যায়। দাম পড়বে ৩৫ থেকে ৮০ টাকা। তবে এই সরঞ্জামগুলো আপনি এখন ইচ্ছা করলেই অনলাইনে অর্ডার করে কিনতে পারেন। যারা এবার শীতে বারবিকিউ পার্টি দিতে চান চলুন ঝটপট ঘুরে আসুন আজকের ডিলের কিচেন সামগ্রী থেকে, অথবা বারবিকিউ লিখে সার্চ করলেও পেয়ে যাবেন বারবিকিউয়ের সকল প্রকার সরঞ্জাম । আজকের ডিল থেকে কিছু ছবিসহ লিংক দেয়া হলো, এগুলো কিনতে ও বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন।

পোর্টেবল BBQ গ্রিল মেকার (লার্জ)

বাকেট BBQ গ্রিল

3-IN-1 স্মোকলেস ইলেকট্রিক BBQ গ্রীল

পোর্টেবল BBQ ইলেকট্রিক গ্রিল

পোর্টেবল BBQ কুকিং গ্রিল

 

 

 

*বারবিকিউ* *বারবিকিউপার্টি* *পিকনিক* *চিকেনগ্রিল*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★