জব

চাকরি প্রার্থী: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 বাংলাদেশের সেরা চাকরি খোঁজার ওয়েবসাইট গুলো কি কি?

উত্তর দাও (২ টি উত্তর আছে )

.
*জবমার্কেট* *চাকরি* *ক্যারিয়ার* *জব* *ওয়েবসাইট*

আমানুল্লাহ সরকার: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 পিএইচডি করে বিজনেস সেক্টরে কি কি জব পাওয়া সম্ভব?

উত্তর দাও (০ টি উত্তর আছে )

*পিএইচডি* *ক্যারিয়ার* *জব*
ছবি

প্রলয় কান্তি রায় : ফটো পোস্ট করেছে

আমাদের কাজের kichue নমুনা ?????

জীবন টা এই রকমই |||

*চাকুরী* *জব*

দুঃখী অভি: Upcoming Hot Circulars : 1. Agrani bank SO, O, O(cash) Source : Newspaper 2 Exim Bank MTO Source : Head of HRD 3. NRBCB PO Source : HRD নিজের সামর্থ্য অতিক্রম করুন, স্বপ্ন মুঠোবন্দী হবেই। শুভকামনা।

*জব*
ছবি

ক্যারিয়ারগুরু: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

সরকারি চাকরিঃ কণ্ঠশিল্পী ও নৃত্যশিল্পী নিবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী.. আগ্রহী প্রার্থীরা আবেদন করতে পারেন

এই চাকরি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে বিডিজবস এ গিয়ে নিম্নোক্ত লিংক এ যোগাযোগ করুন http://joblist.bdjobs.com/bn/JObViewBngImgBn.asp?id=237267&fcatId=4&OrgType=1&pg=1&ln=2

*ক্যারিয়ার* *চাকরি* *জব* *সরকারিচাকরি* *ক্যারিয়ারটিপস*

আমানুল্লাহ সরকার: একটি বেশব্লগ লিখেছে

স্বপ্নের সর্ববৃহৎ জব বিসিএস। আকাঙ্খার কোন কমতি না থাকলেও সবার ভাগ্যে বিসিএস জোটেনা! এর পেছোনে অনেক কারণ থাকতে পারে। তবে পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতির অভাবটাই বিসিএস পরীক্ষায় না টিকার অন্যতম কারণ হিসেবে বিবেচিত হয়। বিসিএস পরীক্ষায় সাফল্য পেতে চাইলে আপনাকে কঠোর পরিশ্রমী ও দৃঢ় মনোবলের অধিকারী হতে হবে। বন্ধুরা আপনারা যারা বিসিএস পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদেরকে বলছি, যদি বিসিএস পরীক্ষায় সাফল্য পেতে চান তাহেল নিম্নক্তো বিষয় গুলো অনুসরন করুন।

পরিকল্পনা বাস্তবায়ন:
প্রথমেই বিসিএস সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য জোগাড় করে ফেলতে হবে। কবে আপনার পরীক্ষা হবে পরীক্ষার তারিখ, সিলেবাস, পরীক্ষার ধাপ সমূহ, কয়টি আসনের জন্য আপনি পরীক্ষা দিচ্ছেন তা আগে থেকেই জেনে নিতে হবে।

ভাল প্রস্তুতির জন্য গ্রুপ স্টাডি করুনঃ
গ্রুপ স্টাডি এই পরীক্ষার জন্যে খুবই জরুরি। বিশেষ করে যারা নতুন পরীক্ষার্থী তাদের জন্যে পুরানো পরীক্ষার্থীর সাথে গ্রুপ স্টাডি করতে হবে। একাধিক সঙ্গী হলে ভালো। তবে এমন কাওকেই আপনার পড়ার সঙ্গী বানাতে হবে যে আপনার মতই সিরিয়াস এবং যার সাথে আপনার এক সাথে পড়ালেখা করতে সুবিধা হবে। এতে করে অনেক ছোট খাটো পড়ার কৌশল শিখা যায়। কিভাবে পড়া শুরু করা উচিত, কোন বিষয়গুলোতে গুরুত্ব দিতে হবে, ইত্যাদি। ভালো সার্কেল এর সাথে পড়ালেখা করলে আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়বে।

প্রয়োজনীয় বই সংগ্রহ করে নিনঃ

বাজারে বিসিএস এর জন্যে অনেক বই আছে। এর মধ্যে বেছে নিতে হবে ভালো মানের বই। এই জন্যে সাহায্য নিতে পারেন পূর্বে বিসিএস এ উত্তীর্ণ সিনিয়র কারো কাছ থেকে। এছাড়ও  বিষয় অনুযায়ী বই কিনে ফেলতে হবে। প্রয়োজনে একটি বিষয়ের জন্যে একের অধিক বই সংগ্রহ করা যেতে পারে।

পড়ার পরিবেশঃ

পড়ার পরিবেশ অনেক ক্ষেত্রে পড়ার মনযোগ তৈরি করা, আগ্রহ তৈরি করার ক্ষত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। কোথায় পড়বেন সেটা নির্বাচন করে ফেলুন। বাসায় পরিবেশ না থাকলে আপনার বিশ্ববিদ্যালয় এর লাইব্রেরী অথবা কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এর লাইব্রেরী তে চলে যেতে পারেন। অথবা কোন পড়ার সঙ্গীর বাসায় কয়েকজন মিলে পড়ার পরিবেশ তৈরি করে নিতে পারেন।

সময় নির্ধারণঃ

আগেই জেনে নিন ঠিক কত সময় হাতে আছে আপনার এবং প্রতিদিন কত ঘন্টা সময় আপনি পড়বেন। কোন বিষয় এর জন্যে কত ঘন্টা বরাদ্দ করবেন সেটা নির্ভর করবে আপনি কোন বিষয় কতটা পারদর্শী। তবে নিশ্চিত করুন প্রতিদিন যেন সব বিষয় পড়া হয়। সেই হিসেবে ভাগ করে নিন আপনার সময় কে। চাকরিজীবীদের অফিস পরবর্তী সময় এবং ছুটির দিনগু্লোতে সময় নির্দিষ্ট করে নিতে হবে।

কোচিং করবেন কিনা সিদ্ধান্ত নিনঃ
 অনেকেই বলে কোচিং ছাড়া বিসিএস এ চান্স পাওয়া সম্ভব না। আবার অনেকেই বলে কোচিং করলে সময় নষ্ট হয়। আসলে কোচিং এর গুরুত্বটা সম্পূর্ণ আপনার উপর নির্ভর করবে। আপনি যদি নিজে নিজে পড়তে না পারেন এবং যথেষ্ট পরিমাণে মনযোগী না হন তাহলে কোচিং এ যাওয়াই উত্তম। কোচিং এর বিকল্প হিসেবে আপনি কোন প্রাক্তন পরীক্ষার্থী থেকে নিয়মিত অথবা সপ্তাহে দুই একদিন গাইড নিয়ে নিতে পারেন। নিয়মিত পড়াশোনা করাটাই আসল উদ্দেশ্য।

পূর্ববর্তী বিসিএস এর প্রশ্ন থেকে ধারণা নিনঃ
পূর্ববর্তী বিসিএস এর প্রশ্ন হুবুহু না আসলেও, সেই প্রশ্ন সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে। এতে আসন্ন বিসিএস এ কি ধরনের প্রশ্ন হতে পারে আপনার ধারণা হয়ে যাবে কমবেশি। প্রশ্নের মান, কোন বিষয়ে আপনার কি ধরনের প্রস্তুতি নিতে হবে এগুলো জানা যাবে।

মডেল টেস্টঃ
যেকোন পরীক্ষার জন্যেই মডেল টেস্ট এর গুরুত্ব অনেক। মডেল টেস্ট পরীক্ষার জন্যে আপনার প্রস্তুতি কেমন সেটা সম্পর্কে ধারণা দিবে এবং আপনার কোন বিষয়ে আরো কত জোর দিতে হবে সেটাও জানতে পারবেন। নিয়মিত মডেল টেস্ট দিতে হবে। ভালো প্রস্তুতি নেয়ার আগ পর্যন্ত নিজে নিজেই মডেল টেস্ত দিতে পারেন। ভাল প্রস্তুতি নেয়া হলে কোচিং এও দিতে পারেন টেস্ট।

অংক ও ইংরেজীকে গুরুত্ব দিনঃ
বিসিএস পরীক্ষায় সব বিষয় গুলিই সমান গুরুত্বপূর্ণ তার পরেও ইংরেজী ও অংককে একটু বেশী গুরুত্ব দিতে হবে। কারণ অনেকের এ দুটি বিষয়ে খুব দূর্বলতা থাকে।

ধৈর্য ধরুনঃ
যে কোন কাজে ধৈর্য ধারণ ছাড়া সফল হওয়া যায় না। তাই ধৈর্য ধরে নিয়মিত পড়াশুনা করুন।

চাকরির পাশাপাশি প্রস্তুতি নিনঃ
চাকরি করার কারনে অনেকেই মনে করেন আমার দ্বারা বিসিএস সম্ভব হবে না। কিন্তু এ ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। আপনি অফিস থেকে কোথাও দেরী না করে তাড়াতাড়ি বাড়িতে ফিরুন এবং পড়াশুনা শুরু করে দিন। যতটুকু সময় পান নিয়মিত পড়ার চেষ্টা করুন ।

সর্বপুরি আপনাদের সকলের প্রস্তুতি ভাল হোক এ শুভ কামনা রইলো......
*বিসিএস* *চাকরি* *জব* *ক্যারিয়ার* *ক্যারিয়ারটিপস*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★