জাল টাকা

জালটাকা নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

কিনতে ক্লিক করুনব্যবসায়িক অথবা ব্যক্তিগত প্রয়োজনে প্রতিদিন আমরা হাজার হাজার টাকা লেনদেন করি। স্বাভাবিক এই লেনদেনের মধ্যে অনেক সময় বড় ধরনের ভুল হয়ে যায়। অনেকেই আবার আপনার সরলতার সুযোগে হাতে জালটাকা ধরিয়ে দেয়। বড় লেনদেন হলে টাকা গুনতে গুনতে অনেকটা সময় কেটে যায়। কিন্তু এখন আর এসব সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না। এখন কেউ আপনাকে জাল টাকা ধরিয়ে দিয়ে ঠকাতে পারবেনা। টাকাও গুণনাও হয়ে যাবে মহূর্তে। তবে এই সুবিধা পেতে আপনার বাড়িতে অবশ্যই নিচের প্রোডাক্ট গুলো থাকা চাই।
 
 
মানি কাউন্টিং মেশিন
টাকা গুণে সময় ক্ষেপনের দিন শেষ। অনেকদিন আগে থেকেই বাজারে এসেছে টাকা গণনার মেশিন। এই মেশিন ব্যবহার করে খুব সহজে এবং দ্রুত সময়ে টাকা কাউন্টিং করতে পারবেন। এ ধরনের মেশিন মিনিটে ১০০০ থেকে ১২০০ পিস টাক গুনে দিতে পারবে। এটি অপারেট করাও খুব সহজ। শুধু মেশিনকে বলে দিতে হবে কত টাকার নোট তাহলেই মেশিন তা হিসাব করে দেবে। বাজারে এগুলো প্রডাক্টের দাম ১০ হাজার টাকা থেকে শুরু।
 
 
মানি চেকার পেন
আর নয় জাল টাকার প্রতারণা। আপনাকে এখন আর কেউ ঠকাতে পারবে না। দৈনন্দন প্রয়োজন কলমের সাথে এবার নকল টাকা সনাক্ত করার যন্ত্র। সবসময় সাথে রাখুন এবং প্রতারণার হাত থেকে রক্ষা পান। আলট্রা-ভায়োলেট লেজার টর্চ দিয়ে জাল টাকা সনাক্ত করুন। জাল টাকা সনাক্তের জন্য লাইট ব্যবহার করুন অথবা কলমের দাগ দিন। এগুলোর দাম ৮০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০ টাকা পর্যন্ত।
 
মানি চেকার মেশিন
বাজারে পাওয়া যাচ্ছে মানি চেকার মেশিন। এই মেশিন দিয়ে টাকা ছাড়াও চেক, টিকেট, ক্রেডিট কার্ড, স্ট্যাম্প সনাক্ত করতে পারবেন। মানিচেকার মেশিন গুলোর সাথে টর্চ ফাংশন রয়েছে। এধরনের মেশিনের দাম ৪০০ টাকা থেকে ৬০০ টাকা।
 
কোথায় থেকে কিনবেন?
একটু খোঁজ নিলে সবগুলো মার্কেটেই এই প্রযুক্তি পন্য গুলো পেয়ে যাবেন। যারা ঘরে বসেই এই পন্যটি হাতে পেতে চান তারা ঘুরে আসতে পারেন দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকেরডিল ডটকম এর ওয়েবসাইট থেকে। 
 
প্রোডাক্ট গুলো কিনতে এখানে ক্লিক করুন
*মানিচেকার* *জালটাকা* *প্রযুক্তিপন্য* *স্মার্টশপিং*

সাইফ: একটি বেশব্লগ লিখেছে

অমসৃণ ইন্ট্যাগলিও মুদ্রণ :

২০১১ সন থেকে প্রচলিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি সম্বলিত নতুন ১০০, ৫০০ ও ১০০০ টাকা মূল্যমানের আসল নোটে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি, নোটের মূল্যমান ও উভয় পিঠের অধিকাংশ লেখা ও ডিজাইনের বিভিন্ন অংশ হাতের আঙ্গুলের স্পর্শে অসমতল বা উঁচু-নিচু অনুভূত হবে। অমসৃণ মুদ্রণের এই বৈশিষ্ট্য ফটোকপি বা অফসেটে ছাপা জালনোটে থাকবেনা অথবা অসমতল ছাপার রঙ নখের সামান্য আচরেই উঠে যাবে।

জলছাপরঙ পরিবর্তনশীল হলোগ্রাফিক সূতা :

সব মূল্যমানের আসল নোট আলোর বিপরীতে ধরে বাংলাদেশ ব্যাংকের লোগো ও মূল্যমান সম্বলিত নিরাপত্তা সূতা এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি ও প্রতিকৃতির নিচে অতি উজ্জ্বল ইলেক্ট্রোটাইপ জলছাপে প্রতিটি নোটের মূল্যমান জলছাপ হিসেবে দেখা যাবে। এছাড়াও প্রতিটি নোটের জলছাপের বামপাশে বাংলাদেশ ব্যাংকের লোগো উজ্জ্বলতর ইলেক্ট্রোটাইপ জলছাপ লক্ষ্যণীয় হবে। সরাসরি তাকালে রঙ পরিবর্তনশীল হলোগ্রাফিক সূতায় বাংলাদেশ ব্যাংকে লোগো ও অংকে মূল্যমান লেখা রূপালী দেখাবে। কিন্তু পাশ থেকে দেখলে বা ৯০ ডিগ্রিতে নোট ঘুরালে তা কালো দেখাবে। ফটোকপি বা অফসেটে ছাপা জালনোটের সূতা নখের আঁচড়ে উঠে যাবে।

রঙ পরিবর্তনশীল কালিতে ছাপা মূল্যমান :

আসল নোটের যে দিকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি রয়েছে সেদিকে উপরের ডানদিকের কোনায় (ঙঢ়ঃরপধষষু ঠধৎরধনষব ওহশ – ঙঠও) অংশে ১০০০ ও ১০০ টাকা নোটের ক্ষেত্রে নোটের মূল্যমান লেখাটি সরাসরি তাকালে সোনালী এবং তির্যকভাবে তাকালে সবুজ রং দেখা যাবে যা ৫০০ টাকা নোটের ক্ষেত্রে সরাসরি তাকালে লালচে এবং তির্যকভাবে তাকালে সবুজ রং দেখা যাবে। ফটোকপি বা অফসেটে ছাপা জালনোটের ক্ষেত্রে এ রঙের পরিবর্তন লক্ষ্যণীয় হবে না।

ইরিডিসেন্ট স্ট্রাইপ :

১০০০ টাকার আসল নোটের পিছনের বাম অংশে ইরিডিসেন্ট ব্যান্ড ; নোটটি নাড়াচাড়া করলে এর রং পরিবর্তন লক্ষ্যণীয় হয়। ফটোকপি বা অফসেট ছাপা জালনোটের ক্ষেত্রে এ রঙের পরিবর্তন লক্ষ্যণীয় হবে না।

সহজে লক্ষ্যণীয় নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য ছাড়াও আরও বেশ কিছু নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য বিভিন্ন মূল্যমানের আসল নোটে রয়েছে, যা বিশদ পরীক্ষায় লক্ষ্যণীয়, যেমন লেটেন্ট ইমেজ, মাইক্রোটেকস্ট, ইউভি ফ্লোরোসেন্টস ইত্যাদি।

হাতে পাওয়া কোন নোটের যথার্থতা সম্পর্কে সন্দেহ হলে এবং সহজে লক্ষ্যণীয় নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্যগুলো যাচাইয়ে নিরসন না হলে বিশদতর পরীক্ষার জন্য কোন ব্যাংক শাখায় যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।

নিম্নের লিং থেকে ১ টাকা হতে ১০০০ টাকা পর্যন্ত যত নোট রয়েছে তার নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্যসহ সকল ছবি দেখতে পাবেন। ফলে জাল টাকা চিনতে আর সমস্যা হবে না। 

 সংররিহীতঃ http://bit.ly/1HwQrhw

*জালটাকা* *টাকা* *ঈদশপিং*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★