জিন্স ফ্যাশন

জিন্সফ্যাশন নিয়ে কি ভাবছো?

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

জিন্স প্যান্টের জব্বর কালেকশনবেশ কয়েক দশক থেকেই জিন্স প্যান্টের জনপ্রিয়াতা তুঙ্গে। তবে আগের জিন্স প্যান্ট আর এখনকার জিন্স প্যান্টের ধরণে বেশ প্রার্থক্য রয়েছে। বিংশ শতকে এসে দেখা গেল বেশির ভাগ সেলিব্রেটির প্রথম পছন্দ জিন্স আর টি-শার্ট। ক্যাম্পাস কিংবা আড্ডায় জিন্স প্যান্টের বিকল্প নেই। তরুণ-তরুণীদের কাছে জিন্স প্যান্ট প্রথম পছন্দের পোশাক, বাদ যায় না বৃদ্ধ এবং শিশুরা। অবশ্য বিভিন্ন পার্টিতে আজকাল জিন্সের আধিক্য চোখে পড়ার মতো। রুচি এবং চাহিদার প্রেক্ষিতে জিন্স প্যান্টের রয়েছে রকমভেদ।

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুনমানুষ নিজ জীবনের মাধুর্য ও সৌন্দর্য অটুট রাখতে প্রতিনিয়ত ব্যস্ত। ব্যস্ততার ধারায় ঋতু বৈচিত্র্যের পালাবদলে ক্রেতাদের ফ্যাশন ট্রেন্ডের পরিবর্তন ঘটে। এই ট্রেন্ডকে অনুসরণ করেই এগিয়ে চলে ফ্যাশন হাউসগুলো। কিন্তু কিছু পোশাক কখনো যেন পুরনো হয় না, বরং বেড়ে চলে চাহিদা। তেমনি একটি ফ্যাশন অনুষঙ্গ জিন্স প্যান্ট।

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুনমোটা কটন কাপড়কে জার্মান ভাষায় বলা হয় জিনিয়া। যা বর্তমানে জিন্স হিসেবে পরিচিত। জিন্সের প্রথম ব্যবহার শুরু হয়েছে আমেরিকার ওয়েস্টার্ন কাউবয়দের থেকে। তারা দীর্ঘস্থায়ীত্বের জন্য এটা পরতো বলে ধারণা করা হয়। তবে ১৮৭২ সালের কিছু সময় পরে জার্মান কাপড় ব্যবসায়ী লেভি স্ট্রস নামের এক ব্যক্তি জিন্স প্যান্টের বাটন, হুক এবং ব্যাকপকেটের প্রথম ডিজাইন করেন। এরপর থেকেই শুরু হয় জনপ্রিয় জিন্স প্যান্টের ব্যবহার।

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুনক্যাম্পাস কিংবা আড্ডায় জিন্স প্যান্টের বিকল্প নেই। তরুণ-তরুণীদের কাছে জিন্স প্যান্ট প্রথম পছন্দের পোশাক, বাদ যায় না বৃদ্ধ এবং শিশুরা। অবশ্য বিভিন্ন পার্টিতে আজকাল জিন্সের আধিক্য চোখে পড়ার মতো। রুচি এবং চাহিদার প্রেক্ষিতে জিন্স প্যান্টের রয়েছে রকমভেদ। যেমন ব্যাগি জিন্স, ন্যারো শেপ, স্ট্রেট, স্টিচ ইত্যাদি। ফুটপাথ থেকে শুরু করে বড় বড় শপিং কমপ্লেক্সগুলোয় জিন্সের চমকপ্রদ সমাহার।

কিনতে ক্লিক করুনকিনতে ক্লিক করুনআগে জিন্স প্যান্ট মানেই ছিল নীল রঙ, কিন্তু বর্তমানে জিন্সের রয়েছে বহু রঙ এবং স্টাইল। বর্তমান সময়ে বস্নু জিন্স ছাড়াও চোখে পড়ে লাল, সবুজ, কালো, হলুদ, কমলা রঙের জিন্স, তারুণ্যের সঙ্গে মানিয়েও যাচ্ছে বেশ। দেশেই প্রস্তুত হচ্ছে উন্নতমানের জিন্স প্যান্ট। ফলে পর্যাপ্ততার কারণে দামও সাধ্যের মধ্যে। জিন্সের প্যান্টগলো ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ১২০০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যায় নগরীর বিপণি বিতানগুলোয়। স্মার্টেক্স, ব্যাঙ, ইজি, মেনজক্লাব, স্বপ্ন চূড়া প্রভৃতি ফ্যাশন হাউসসহ সব হাউসেই দেখা মিলে নিত্যনতুন ডিজাইনের জিন্স প্যান্ট। শুধু নিজের সাধ্য এবং রুচি অনুযায়ী বেছে নিলেই হলো।

কিনতে ক্লিক করুনরাজধানী ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসগুলো থেকেই আপনার পছন্দের জিন্সপ্যান্ট কিনে নিতে পারবেন। তবে বর্তমানে জিন্স কেনার জন্য অনেকেই অনলাইন শপিংমলের উপর আস্থা রাখছে। আপনিও আপনার পছন্দের প্যান্ট অনলাইন শপিংমল থেকে কিনে নিতে পারেন। কমদামে জিন্স প্যান্টের লেটেস্ট কালেকশন কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*জিন্সফ্যাশন* *জিন্সপ্যান্ট* *শীতফ্যাশন* *জিন্স* *প্যান্ট* *স্মার্টশপিং*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

জিন্স প্যান্টের লেটেস্ট কালেকশনফ্যাশন স্টাইলে জিন্সের ধারণা খুব একটা নুতন নয়। পোশাকের ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিতে জিন্সের চলন শুরু বহু আগে থেকে। সর্বপ্রথম উনিশ শতকের দিকে জিন্সের উদ্ভোবন। এর পর থেকে সেই স্টাইল সারা দুনিয়া জুড়ে বিখ্যাত হয়ে উঠে, যার চলন আজো অমলিন। ছেলে মেয়ে উভয়ের জন্য জিন্সের বিভিন্ন স্টাইল জনপ্রিয়। চলুন আকর্ষণীয় এই পোশাকের লেটেস্টে কালেকশন গুলো দেখে নেই। 

মেনজ ফ্যাশনে জিন্স

প্যান্টটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন
ঈদকে সামনে রেখে জিন্স প্যান্টের বাজার বেশ নড়ে চড়ে বসেছে। স্টাইলিশ সব জিন্সের পশরা সাজিয়ে পসেছে ফ্যাশন হাউজ গুলো। এবারে বিভিন্ন বয়সের লোকেরা পছন্দের পোশাকের তালিকায় একটি বড় জায়গা দখল করে আছে আঁটসাঁট-প্রকৃতির জিন্স। অনেকেই আবার একটু ঢিলেঢালা প্যান্ট পরতেই বেশি পছন্দ করে। কেউ বা আবার গ্যাবাটিন প্যান্টের দিকে ঝোঁক দিচ্ছে।

প্যান্টটি কিনতে এখানে ক্লিক করুনএকটা সময়ে জিন্স মানেই ছিল অনেক মোটা কাপড় আর শীতের সময়ে আরামদায়ক এমন পোশাক। কিন্তু এখন সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে গেছে জিন্স। যেহেতু তরুণ-তরুণীরা দিনের অনেকটা সময় বাইরে থাকে, তাই তাদের আরামের কথা ভেবেই এখন জিন্সের প্যান্ট তৈরি করা হয়।

এখন জিন্সের প্যান্ট অনেক পাতলা ও নরম কাপড়ের হওয়ায় এর জনপ্রিয়তা বেড়েছে অনেক। রং ও সুতার ব্যবহারে এখন মাথায় রাখা হয়। তাই শীত-গ্রীষ্ম সব সময়ই জিন্স আরামদায়ক।

প্যান্টটি কিনতে এখানে ক্লিক করুনযেমন চলছে এ সময়ের ট্রেন্ড মূলত হালকা কাপড়ের জিন্স। ন্যারো কাটের প্যান্টগুলো বেশি চলছে। কেউ কেউ আবার স্কিন ফিটিং নিচ্ছে। যাদের বয়স ত্রিশের ওপরে, এমন লোকেরা স্লিম ফিট পছন্দ করছেন বেশি।

ন্যারো কাট থেকে লো-রাইজ জিনস। স্লিম থেকে স্কিনি জিনস। বদলে যাওয়া সময়ের ফ্যাশনের সঙ্গে সঙ্গে পাল্টেছে জিনসের প্যাটান। কিন্তু ফ্যাশন ট্রেন্ডে কমেনি জিনসের জনপ্রিয়তা। এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া কঠিন যিনি কখনো জিনস পরেননি।

প্যান্টটি কিনতে এখানে ক্লিক করুনসব বয়সী মানুষের পছন্দের তালিকায় জিনস জায়গা করে নিলেও দিনে তরুণ-তরুণীদের মধ্যে এর আকর্ষণ আর আবেদনটা সবচেয়ে বেশি। অন্য অনেক কিছুর মতোই পাশ্চাত্য থেকে আসা জিনসের প্যান্ট একটা সময় ছিল কেবল পুরষদের জন্য।

কোনো মেয়ে জিনস পরে বাইরে বেরোনোর কথা ভাবতেই পারত না। সময় বদলেছে, পাল্টে গেছে দৃষ্টিভঙ্গি।জিনস এখন হয়ে ওঠেছে তরুণীদের নিত্যসঙ্গী।এটা এখন ছেলে-মেয়ে নির্বিশেষে পরে।

মেয়েরা স্কিন টাইট জিন্সের সঙ্গে টপস, শার্ট, ফতুয়া, শর্ট কামিজ পরছে। এটা পরে চলাফেরা করা সহজ।মেয়েদের জিনস আর ছেলেদের জিনসে কিছুটা ভিন্নতা রয়েছে।


এবারে জেনে নেওয়া যাক আরও কিছু তথ্য :

প্যান্টটি কিনতে এখানে ক্লিক করুনপ্যান্টটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন

জিনসের যত্ন : জিনসের মূল কথাই হলো, রাফ অ্যান্ড টাফ। তাই খুব যত্নের সঙ্গে দেখভালের প্রয়োজন নেই। তবে ধোয়ার সময় ঠান্ডা পানিতে ধোয়া উচিত। রোদে শুকানোর সময় উল্টো করে শুকাতে দিন। রং যদি উঠে যায়, তবে ড্রাই ক্লিন করাতে পারেন।

বাজারদর : ব্র্যান্ড ভেদে জিন্সের দামের বেশ কিছুটা প্রার্থক্য রয়েছে। ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ১০ হাজার টাকা দামের প্যান্টও বাজারে রয়েছে। তবে এক্সক্লুসিভ স্কিনি জিনসগুলো দুই হাজার টাকার মধ্যেই পাওয়া যাবে।

কোথায় থেকে কিনবেন:

প্যান্টটি কিনতে এখানে ক্লিক করুন

রাজধানী ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসগুলো থেকেই আপনার পছন্দের জিন্সপ্যান্ট কিনে নিতে পারবেন। তবে বর্তমানে জিন্স কেনার জন্য অনেকেই অনলাইন শপিংমলের উপর আস্থা রাখছে। আপনিও আপনার পছন্দের প্যান্ট অনলাইন শপিংমল থেকে কিনে নিতে পারেন। কমদামে জিন্স প্যান্টের লেটেস্ট কালেকশন কিনতে এখানে ক্লিক করুন। 

*স্টাইলিশজিন্স* *জিন্সফ্যাশন* *স্মার্টশপিং*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★