ঝটপট নাস্তা

ঝটপটনাস্তা নিয়ে কি ভাবছো?

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 পাউরুটি দিয়ে মিঠা টুকরা কিভাবে বানানো যেতে পারে?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*পাউরুটি* *মিঠাটুকরা* *রেসিপি* *ঝটপটনাস্তা*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বর্ষায় স্ন্যাকস হিসেবে দারণ জমবে বেকড ক্রিস্পি চিকেন উইঙ্গস।
কী কী লাগবে-
বাফেলো সসের জন্য-
সাদা মাখন-১ টেবিল চামচ (গলানো)
কেইন পেপার-১/৪ চা চামচ
গোলমরিচ গুঁড়ো-১/৪ চা চামচ
লবন -১/৪ চা চামচ
হট পেপার সস-১/৪ কাপ
জিঞ্জার-সয় গ্লেজ
মধু-১/৪ কাপ
সয়-২ টেবিল চামচ
রসুন-২ কোয়া(থেঁতো করা)
আদা-দেড় ইঞ্চি, খোসা ছাড়িয়ে টুকরো করা
উইঙ্গস-
চিকেন উইঙ্গস-৫ পাউন্ড
ভেজিটেবিল অয়েল-২ টেবিল চামচ
লবন -১ টেবিল চামচ
গোলমরিচ গুঁড়ো-১/২ চা চামচ
কীভাবে বানাবেন-
বাফেলো সস-মাখন, কেইন পেপার, নুন ও গোলমরিচ একটা পাত্রে মিশিয়ে ৫ মিনিট রেখে দিন। এর মধ্যে হট সস হুইস্ক করে মিশিয়ে নিন। গরম রাখুন।
জিঞ্জার সয় গ্লেজ-সব উপকরণ ১/৪ কাপ গরম জলে ফুটিয়ে নিন। আঁচ একদম কমিয়ে ৭ থেকে ৮ মিনিট টানা নাড়তে থাকুন যতক্ষণ না ঘন হয়ে আসছে।
উইঙ্গস-ওভেন ৪০০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে প্রি-হিট করুন। তারের র‌্যাকের ওপর বেকিং শিট রাখুন। সব উপকরণ একটা বড় বাটিতে নিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন। র‌্যাকের ওপর চিকেন উইঙ্গস রেখে ৪০-৪৫ মিনিট বেক করুন। এবারে চিকেন উইঙ্গস জিঞ্জার-সয় গ্লজ দিয়ে ব্রাশ করে আরও ৮ থেকে ১০ মিনিট বেক করুন যতক্ষণ না গ্লেজ চকচকে ক্যারামেলাইজড আস্তরণ তৈরি করছে।
 
*চিকেনরেসিপি* *বর্ষা* *মাংসেররেসিপি* *ঝটপটনাস্তা*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণ 
  • মাশরুম ১২৫ গ্রাম
  • লবণ আধা চা চামচ
  • মুরগির মাংস এক কাপের চার ভাগের এক ভাগ
  • কর্ন ফ্লাওয়ার ও চালের গুঁড়া মিলিয়ে ৪ টেবিল চামচ
  • রসুন মিহি কুচি ১ চা চামচ
  • ময়দা ২ টেবিল চামচ
  • মরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ
  • পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ
  • টেস্টিং সল্ট সামান্য
  • সয়াসস ১ টেবিল চামচ
  • চিনি আধা চা চামচ
  • গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ
  • ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ
  • তেল ভাজার জন্য


বেকড প্রণ প্রস্তূত প্রণালী:
চিংড়ি মাছ সামান্য লবন, গোলমরিচ গুড়ো, আর অলিভ অয়েল দিয়ে মেরিনেট করে নিয়ে ওভেনে ২-৩ মিনিট ভাপ দিয়ে নিন l  

পাকোড়া প্রস্তূত প্রণালী:
মাশরুম ধুয়ে পানি ঝরিয়ে লম্বা করে কাটুন। তেল ছাড়া সব উপকরণ মেখে ১৫ মিনিট রেখে দিন। এরপর ডুবো তেলে বাদামি করে ভেজে গরম গরম পরিবেশন করুন।

*মাশরুম* *চিংড়ি* *নতুনরেসিপি* *রেসিপি* *নাস্তা* *ঝটপটনাস্তা*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরনঃ
বাটন মাশরুম- ২৫০ গ্রাম
অলিভ অয়েল- অল্প পরিমান
লবন- স্বাদমতো
রসুন- মিহি কুচি করা ১ চা চামচ
ধনেপাতা- অল্প পরিমান


প্রণালীঃ 
প্রথমে মাশরুম গুলো ভাল করে ধুয়ে নিয়ে দু টুকরো করে কেটে নিতে হবে, একটি ফ্রাই প্যান এ অল্প পরিমানে অলিভ অয়েল নিয়ে তাতে রসুন কুচি ছেড়ে দিতে হবে, রসুন হালকা বাদামী হয়ে আসলে মাশরুম ও লবন দিয়ে নাড়তে হবে। দু তিন মিনিট পর মাশরুম হালকা ভাজা ভাজা হলে ধনেপাতা ছড়িয়ে দিয়ে চুলা বন্ধ করে দিন। গরম গরম পরিবেশন করুন, নাশতা হিসেবে অসাধারন।
*মাশরুম* *রেসিপি* *ঝটপটনাস্তা*

শ্রীময়ী: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ফুলকপি-চিংড়ির গ্রিলড চিজি টোস্ট স্যান্ডুইচ তৈরি করতে শিখেছি সেদিন নেট থেকে, ভাবছি তাই শেয়ার করবার কথা আপনাদের সাথে, দারুন খেতে হয়েছিল কিন্তু l 

যা যা লাগবে:
চিংড়ি মাছ ২৫০ গ্রাম (পরিষ্কার করা)
পিঁয়াজ ৬টি (কুচি করে কাটা)
কাঁচা মরিচ ৬টি (কুচি করে কাটা)
পিঁয়াজ ২টি (গোল করে কাটা)
ফুলকপি (ছোট ছোট টুকরো করা)
চিজ (পনির) গ্রেট করা পরিমান মত 
পাউরুটি টুকরা (স্লাইস)
টমেটো সস ৫ চা চামচ
লবণ ও তেল পরিমাণ মত


যেভাবে করতে হবে:
একটি পাত্রে তেল গরম করে তাতে আগে থেকে পরিষ্কার করে রাখা চিংড়ি, ফুলকপি, পেঁয়াজ কুচি, কাচা মরিচ কুচি ও লবণ দিয়ে ভালো করে ভেজে নিন। পাঁচ টুকরা (স্লাইস) পাউরুটির প্রতিটির একপাশে এক চা চামচ টমাটো সস মাখিয়ে নিন। এবার তার উপরে চিংড়ি ভাজা ও কাঁচা পিঁয়াজ সাজিয়ে দিন। গ্রেট করা চিজ দিয়ে দিন এবার l অতঃপর এর উপরে পাউরুটির যে টুকরা (স্লাইস) সস মাখানো হয়নি সেগুলোর একটি দিয়ে ঢেকে দিতে দিন। এবার স্যান্ডুইচ টোস্টার গরম হতে দিন। টোস্টার গরম হলে প্রস্তুতকৃত পাউরুটির টুকরা (স্লাইস)  দিয়ে ঢেকে দিন। মচমচে হয়ে গেলে নামিয়ে নিন। 
*নতুনরেসিপি* *ঝটপটনাস্তা* *বিকালেরনাস্তা* *স্যান্ডুইচ*
ছবি

বিডি আইডল: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

মজাদার পাস্তা

*পাস্তা* *ঝটপটনাস্তা*

তারেক রহমান তন্ময়: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণঃ 
সিদ্ধ আলু চটকে নেয়া ১ কাপ 
সিদ্ধ মটরশুঁটি ১/২ কাপ
আস্ত ভাজা জিরা ১/২ চা চামচ (চাইলে গুঁড়াও দিতে পারেন) 
ধনে পাতা কুচি ইচ্ছামত 
লবণ স্বাদমতো 
লেবুর রস, চাট মশলা ১/২ চা চামচ

প্রণালিঃ

  • -একটি বড় বাটিতে এ সবকিছু একসাথে মাখাতে হবে।
  • -এই মিশ্রণ ৬-৭ ভাগ করে গোল গোল করে নিন। তারপর চেপে চেপ্টা বানাতে হবে।
  • -নন স্টিক প্যানে খুব সামান্য তেল দিয়ে ভেজে নিন। অল্প তেলে ভাজলে ডিম দিতে হবে না, টিক্কি ভেঙেও যাবে না। খাবারটি হবে খুব স্বাস্থ্যকর।
  • -তেল বেশী হয়ে গেলে আলু ভেঙে যেতে পারে, তখন ডিমের সাদা অংশে ডুবিয়ে ভাজতে হবে।
  • -চাটনি অথবা কেচাপ দিয়ে খেতে অনেক মজা এই টিক্কি আর বলাই বাহুল্য যে বানাতেও খুব সহজ।
*ঝটপটনাস্তা* *মজারখাবার* *বিকালেরনাস্তা* *হেলদিখাবার*

তারেক রহমান তন্ময়: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণঃ
৩ কাপ আধা সেদ্ধ করা পোলাওয়ের চাল
১ কাপ কলাইয়ের ডাল
খাবার সোডা
১ চা চামচ লবণ
১/২ চা চামচ চিনি

প্রস্তুত প্রণালীঃ
• চাল ও ডাল ৬ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন।
• চাল ও ডাল মিহি করে বেটে ফেলুন অথবা ব্লেন্ডারে মিহি করে ব্লেন্ড করে নিন।
• মিশ্রণে লবন, চিনি ও পানি মিশিয়ে পাতলা করে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় আরো ৬/৭ ঘন্টা রাখুন।
• একটি নন-স্টিক পাত্রে তেল ব্রাশ করে হাল্কা আঁচে গরম করুন। তেল গরম হয়ে গেলে পাত্রে এক টেবিল চামচ দোসা তৈরির মিশ্রণ ঢালুন এবং পাত্রের চারদিকে চামচ দিয়ে পাতলা ও গোল করে ছড়িয়ে দিন।
• দোসার নিচের অংশ হালকা বাদামী হয়ে কিনার গুলো উঠে আসলে বুঝতে হবে দোসা হয়ে গেছে।
• দোসা উঠানোর সময় সাবধানে উঠাতে হবে। চাইলে গোল করে মুড়িয়ে দিতে পারেন অথবা সোজাও রাখতে পারেন।
• প্রতিবার পাত্রে দোসার মিশ্রণ দেয়ার আগে পাত্রটি কাপড় দিয়ে মুছে তেল ব্রাশ করে নিতে হবে। নাহলে দোসা আটকে যাবে এবং উঠানোর সময় ছিঁড়ে যাবে।
• ডাল ভুনা, সবজি, তেতুল বা জলপাইয়ের চাটনি, নারকেল মিষ্টি চাটনি, আমের আচার বা দই দিয়ে গরম গরম দোসা পরিবেশন করুন।
*ঝটপটনাস্তা* *হেলদিফুড* *মজারখাবার*
ছবি

যারিন তাসনিম: ফটো পোস্ট করেছে

৫/৫

মাত্র ১০ মিনিটে ঝটপট তৈরি করুন পেড়া মিষ্টি! (খুশী)(খুশী)

পেড়া মিষ্টি তৈরি আক্ষরিক অর্থেই বিশাল সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। দুধ ও অন্যান্য উপাদান জ্বাল দিয়ে দিয়ে পাক দিতে হয়। কয়েক ঘণ্টার লম্বা পরিশ্রমের পর তৈরি হয় পেড়া। তাতে কি স্বাদের নিশ্চয়তা থাকে? তাও না। একটু ধরে গেলেই উৎকট গন্ধ হয়ে যায়। আচ্ছা, যদি বলি মাত্র ১০ মিনিটে কোন ঝামেলা ছাড়াই তৈরি করতে পারবেন এই মিষ্টি? এবং তাও হবে একেবারে "পারফেক্ট"? হ্যাঁ, শুনতে অবিশ্বাস্য মনে হলেও আজ আমরা নিয়ে এসেছি ঠিক সেই রেসিপিটি। রন্ধন শিল্পী উম্মাহ মোস্তফা জানিয়েছেন মাইক্রোওয়েভে পেড়া মিষ্টি তৈরির এক দারুণ সহজ উপায়। এখন থেকে মাত্র ১০ মিনিটেই তৈরি হবে পারফেক্ট পেড়া। যা যা লাগবে- ঘি ২ টেবিল চামচ কনন্ডেন্স মিল্ক ১/২ কাপ গুঁড়ো দুধ দেড় কাপ কাঠবাদাম পরিমাণ মতন যেভাবে বানাতে হবে - ১। মাইক্রোওয়েভ - এ ঘি নিয়ে ১ মিনিট গরম করতে হবে। ২। কনডেন্স মিল্ক দিয়ে আরও ১ মিনিট গরম করতে হবে। ৩। এবার এই মিশ্রণে গুঁড়ো দুধ অল্প করে দিয়ে সুন্দর করে মিশাতে হবে। ভাল করে মিশিয়ে তারপর হাত দিয়ে মাখাতে হবে ময়াদ মাখার মতন। দরকার হলে আরোও গুঁড়ো দুধ দেয়া যেতে পারে। যখন দেখবেন যে ময়ান পাত্রের গায়ে লেগে নাই, ডো এর মত হয়েছে, তখন বুঝতে হবে এটা হয়ে গেছে। ৪।হাতের তালুতে ঘি লাগিয়ে গোল করে পেড়া বানিয়ে তার মাঝে একটা বাদাম বসিয়ে দিলেই শেষ আপনার কাজ। ৫। পরিবশনের আগে অন্তত ১২ ঘণ্টা জমতে দিন।

*পেড়া-মিষ্টি* *রেসিপি* *ঝটপটনাস্তা*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে


সিঙ্গারা আমাদের অতি পরিচিত একটি খাবার। নাস্তা হিসেবে, অতিথি আপ্যায়নে কিংবা টিফিনে এর তুলনা নেই  দেখি চেষ্টা করেই একবার বাড়িতে সম্ভব কি না বানানো  

উপকরণ:
• মাংসের কিমা: ২০০ গ্রাম • আলু: ২০০ গ্রাম (খোসা ছাড়িয়ে ডুমো করে কাটা) • আদা বাটা: ২৫    গ্রাম • রসুন বাটা: ৩০ গ্রাম 
• লাল লঙ্কাগুঁড়ো: ৫ গ্রাম • জিরেগুঁড়ো: ৫ গ্রাম • গরমমশলা গুঁড়ো: ৫ গ্রাম • নুন ও চিনি:              স্বাদমতো
• ময়দা: ৩০০ গ্রাম • ফ্যাট: ৫০০ গ্রাম (ভাজা এবং ডো বানানোর জন্যে)


প্রণালী:
• ননস্টিক পাত্রে ফ্যাট গরম করে তাতে আলু হাল্কা সোনালি করে ভেজে নিন।
• এ বার এতে মাংসের কিমা, স্বাদমতো নুন, আদা বাটা, রসুন বাটা,
   লাল লঙ্কাগুঁড়ো, জিরেগুঁড়ো, ও চিনি দিয়ে ভাল করে মেশান।
• মাঝারি আঁচে নাড়তে থাকুন। কিমা তেল ছাড়া হয়ে এলে আঁচ থেকে নামিয়ে নিন।
• ডো বানানোর জন্যে একটা বাটিতে ময়দা, স্বাদমতো নুন ও পরিমাণ মতো
    চিনির সঙ্গে ফ্যাট মিশিয়ে সামান্য শক্ত করে মেখে নিন।
• এই ডো থেকে সমান মাপের লেচি কেটে গোল করে বেলে নিয়ে মাঝখান থেকে কেটে নিন।
• একটা সাইড দিয়ে ফোল্ড করে কোনের আকারে গড়ে নিন।
• কোনের মধ্যে কিমা ও আলুর পুর ভরে মুখটা আটকে দিন ভাল করে।
• প্রয়োজনে লবঙ্গও ব্যবহার করতে পারেন সিঙাড়ার মুখ আটকানোর জন্য।
• মাঝারি আঁচে ননস্টিক পাত্রে ফ্যাট গরম করে নিন।
• এ বার এতে কিমা ভরা ময়দার কোনগুলো সোনালি করে ভেজে নিন।

তৈরি জিবে জল আনা গরম গরম মাংসের সিঙাড়া। বিকেল বেলায় আড্ডায় চায়ের সঙ্গে নিঃসন্দেহে একেবারে পারফেক্ট চয়েস।
*টিফিন* *ঝটপটনাস্তা* *নতুনরেসিপি*

তারেক রহমান তন্ময়: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বানের উপকরণ : ময়দা আড়াই কাপ, ইস্ট ২ চা-চামচ, চিনি ১ টেবিল চামচ, দুধ ২ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, ঘি ২ টেবিল চামচ, ডিম একটা, তিল সামান্য, পানি আধা কাপ (আন্দাজমতো)।

কিমার উপকরণ : গরুর মাংস ২ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ, আদাবাটা ১ চা-চামচ, রসুনবাটা ১ চা-চামচ, জিরা গুঁড়া আধা চা-চামচ, ধনে গুঁড়া ১ চা-চামচ, গোলমরিচ আধা চা-চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, অলিভ অয়েল ২ টেবিল চামচ, অয়েস্টার সস আধা চা-চামচ, সয়াসস আধা চা-চামচ, জয়ফল-জয়ত্রী গুঁড়া আধা চা-চামচ।

প্রণালি: বানের সব উপকরণ একসঙ্গে মেখে গরম জায়গায় রেখে দিন। গরুর মাংস লবণ দিয়ে সেদ্ধ করে তেলে সব মসলা কষিয়ে মাংস ও অন্যান্য উপকরণ দিয়ে দিন, ময়দার মিশ্রণ ফুলে উঠলে রুটি বেলে ভেতরে পুর ঢুকিয়ে বান তৈরি করুন। ডিম ওপরে ব্রাশ করে তিল ছড়িয়ে প্রিহিট ওভেনে ১৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপে ২০-২৫ মিনিট বেক করুন। ফ্রেঞ্চ ফ্রাই ও সসের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

হোয়াইট ক্রিম সস
উপকরণ :
মাখন ১ টেবিল চামচ, ময়দা ১ টেবিল চামচ, দুধ আধা কাপ, লবণ সামান্য, গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ, ক্রিম ২ টেবিল চামচ

প্রণালি : মাখনে ময়দা ভেজে দুধ ঢেলে নাড়তে হবে। চুলা থেকে নামিয়ে ক্রিম, গোলমরিচ গুঁড়া ও সামান্য লবণ দিয়ে ভালোভাবে নেড়ে পরিবেশন করুন।
*ঝটপটনাস্তা* *নতুনরেসিপি*

মো:আ:মোতালিব: একটি বেশব্লগ লিখেছে



উপকরণঃ

ব্রেডের জন্যঃ

► ময়দা- ৩ কাপের মত
► ঈস্ট - ১ টেবিল চামচ
► দুধ (কুসুম গরম) -১ কাপ
► ফেটানো ডিম -১টি
► তেল বা গলানো মাখন - ৫ টেবিল চামচ + ১ টেবিল চামচ ব্রাশ করার জন্য
► চিনি - ২ টেবিল চামচ
► গুঁড়া দুধ -২ টেবিল চামচ (ঐচ্ছিক)
► লবণ - ১ চা চামচ
► ডিমের কুসুম - ১ টা
► কালো জিরা / তিল - ১ টেবিল চামচ

পুরের জন্যঃ

► রান্না মাংসের কিমা - ১ কাপ ( গরুর মাংস বা মুরগীর)
► পেঁয়াজকুঁচি -১ কাপ
► তেল - ২ টেবিল চামচের মত
► লবণ - একটি চিমটি

প্রনালীঃ

► একটি বড় বাটিতে ঈস্ট নিয়ে গরম দুধ ও এক চিমটি চিনি দিয়ে ঈস্ট মিশে যাওয়া পর্যন্ত নাড়ুন এবং প্রায় ১০ মিনিটমত রেখে দিন।

► তারপর তাতে তেল, চিনি, লবণ, গুঁড়া দুধ দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন।

► এরপর ঈস্ট আর দুধের মিশ্রনে ধীরে ধীরে ময়দা মেশাতে থাকুন। খামির না হয়ে যাওয়া পর্যন্ত ময়দা যোগ করতে থাকুন।যদি খামির খুব নরম মনে হয়,তাহলে আরও অল্প ময়দা যোগ করুন।খামির তৈরী হয়ে গেলে ১ ঘন্টামত ঢেকে রেখে দিন (ভাল ফলাফলের জন্য উষ্ণ স্থানে রাখুন)। ১ ঘন্টা পর খামির ফুলে আকারে প্রায় দ্বিগুণ হবে।

► একটি প্যানে ২ টেবিল চামচ তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজকুচি দিন। পেঁয়াজকুচির উপর এক চিমটি লবন ছড়িয়ে দিন এবং পেঁয়াজ বাদামি না হওয়া পর্যন্ত ভাজতে থাকুন। এরপর মাংসের কিমা দিয়ে মাঝারি তাপে ৭-৮ মিনিট বা কিমা শুকনা না হওয়া পর্যন্ত ভাজুন। এরপর কিমা প্যান থেকে বাটিতে উঠিয়ে একপাশে রাখুন।

► বেকিং প্যানে ১ টেবিল চামচ তেল স্প্রে করুন বা ব্রাশ দিয়ে তেলটা ছড়িয়ে দিন। ডিমের কুসুমটি ভালো করে বিট করে পাশে রেখে দিন।

► এরপর খামির ভাগ করে সমান ১০-১২টি বল করে নিন। একটি বল নিয়ে প্রায় ৪" ব্যাসের রুটি তৈরী করুন (রুটি তৈরির সময় হাল্কা ময়দা ব্যবহার করতে পারেন)।

► এরপর রুটির মাঝখানটা ভরাট রেখে কোনাকুনি করে চারদিকে কেটে নিন এবং মাঝখানে এক টেবিল চামচ কিমা দিন। এরপর রুটির একটা কাটা অংশ তুলে কিমার সাথে লাগিয়ে দুই পাশ লাগিয়ে দিন এবং পরে বিপরীত পাশটা তুলে প্রথম অংশের সাথে লাগিয়ে দিন।

► একই ভাবে অপর দুই পাশ তুলে আঙ্গুল দিয়ে চাপ দিয়ে ভালো ভাবে বন্ধ করে দিন। (পুরো পদ্ধতিটি ছবিতে দেখুন)

► একইভাবে বাকি বলগুলো দিয়ে গোলাপ তৈরী করে ফেলুন। এরপর বেকিং ট্রেতে সব গোলাপ রাখুন।

► ওভেন ৩৫০ ডিগ্রী ফাঃ বা ১৭৫ ডিগ্রী সে এ প্রিহিট করে নিন। এরপর ব্রাশ দিয়ে রুটির উপর ডিমের কুসুম ব্রাশ করে কালো জিরা/ তিল ছড়িয়ে দিন এবং বেকিং ট্রেটি ওভেনে দিয়ে দিন।

► ব্রেড প্রায় ১৫ মিনিটমত বা রুটির উপর সোনালী রঙ আসা পর্যন্ত বেক করুন।

► এরপর ট্রে টি নামিয়ে পরিবেশন করুন রোজ ব্রেড।
*ঝটপটনাস্তা* *নতুনরেসিপি*

মো:আ:মোতালিব: একটি বেশব্লগ লিখেছে



উপকরণঃ

► ৪০০ গ্রাম আলু
► ১০০ গ্রাম চীজ কুঁচি (ইচ্ছা)
► ২/৩ টুকরো বড় আকৃতির মুরগীর হার ছাড়া মাংস
► ২ টেবিল চামচ কাঁচা মরিচ কুঁচি
► ২ টেবিল চামচ পেঁয়াজ কুঁচি
► ১ চিমটি হলুদ
► ১ টি ডিম ফেটানো
► লবণ ও টেস্টিং সল্ট স্বাদমতো

প্রণালিঃ

► আলু সেদ্ধ করে খোসা ছাড়িয়ে সামান্য লবণ, মরিচ কুঁচি এবং পেঁয়াজ দিয়ে ভর্তা করে নিন ভালো করে। খেয়াল রাখবেন যাতে আলু দলা না থাকে।

► মুরগীর হার ছাড়া মাংস সেদ্ধ করে নিন। এবং সেদ্ধ মাংস হাতে ছাড়িয়ে ঝুরি করে নিন।

► একটি প্যানে তেল দিয়ে গরম করে এতে পেঁয়াজ কুঁচি, মরিচ কুঁচি, লবণ, টেস্টিং সল্ট এবং ১ চিমচি হলুদ দিয়ে ভালো করে নেড়ে চেড়ে এতে ঝুরি করা মাংস দিয়ে দিন।

► মাংস কিছুটা ভাজিভাজি হয়ে এলে নামিয়ে নিন।

► আলু ভর্তা সমান করে ২০ টি অংশে ভাগ করে নিন। এরপর একটি অংশ নিয়ে হাতের তালুতে নিয়ে ভালো করে ময়ান করে মাঝে গোল করে নিন।

► মাঝের গোল অংশে মাংস ঝুরি দিয়ে আলু দিয়ে ঢেকে দিয়ে গোল বলের মতো তৈরি করে নিন। খেয়াল রাখবেন মাংস ঝুরি যাতে বের না হয়ে যায়। ইচ্ছে হলে মাংস ঝুরির সাথে চীজ কুঁচি দিয়ে দিতে পারেন। তবে লক্ষ্য রাখবেন যাতে আলুর বল থেকে যেন বের না হয়ে যায়।

► এই গোল বলটি এবার হাতের আলতো চাপে একটু চ্যাপ্টা করে টিক্কির আকার দিয়ে দিন।

► ফ্রাইং প্যানে তেল গরম হতে দিন। তেল এমন ভাবে দেবেন যাতে ডুবো তেল না হয় আবার একবারে কম তেল না হয়।

► তেল গরম হয়ে এলে আলুর টিক্কিটি ফেটানো ডিমের মধ্যে চুবিয়ে তেলে দিয়ে দিন। এভাবে প্রতিটি টিক্কি লালচে করে ভেজে তুলুন।

► এক কাপ ধোঁয়া ওঠা চা/কফির সাথে সস দিয়ে গরম গরম মজা নিন এই আলু টিক্কির।
*ঝটপটনাস্তা* *রেসিপি* *নতুনরেসিপি*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরন : 
পাউরুটির পিস ৫-৬টি, ডিম ২টি, চিকেন ছোট ছোট টুকরা করা এককাপ, পেঁয়াজ মিহি করা আধা কাপ, কাঁচামরিচ মিহি করে কাটা এক চা-চামচ, ধনেপাতা মিহি করে কাটা ২ চা চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ। লবণ স্বাদ অনুযায়ী। ভাজার জন্য তেল পরিমাণমতো, চিজ গুঁড়া এক টেবিল চামচ।


প্রণালী : 
প্রথমে পাউরুটির চারদিক কেটে নিন। তারপর একটি পাত্রে চিজ গুঁড়া, পেঁয়াজ কুচি, চিকেন কুচি, ধনেপাতা ও কাঁচামরিচ কুচি, গোলমরিচ গুঁড়া, ফেটানো ডিম ও স্বাদ অনুযায়ী লবণ দিয়ে ভালো করে মাখিয়ে পেস্ট তৈরি করে পাউরুটির টুকরোগুলো উপর লাগিয়ে গরম গরম ডুবো তেলে সোনালি রঙের করে ভেজে তুলুন। তারপর ভাজা পাউরুটিগুলো মাঝখান দিয়ে কেটে একটি সার্ভিং ডিশে সাজিয়ে পরিবেশন করুন চিজ চিকেন ফ্রেঞ্চ টোস্ট।
*চিকেন* *ঝটপটনাস্তা* *রেসিপি*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণ:

পুরের জন্য যা লাগবে: চিকেন কিমা ৫০০ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, আদা বাটা ২ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, মরিচ গুঁড়ো ১ চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়ো ১ চা চামচ, তেল ৪ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো।

প্যান কেকের জন্য: ময়দা ২৫০ গ্রাম/ ১ কাপ, ডিম ৪টা, লবণ আধা চা চামচ, তেল ২ টেবিল চামচ, পানি প্রয়োজনমত,বিস্কুটের গুঁড়ো প্রয়োজনমত।


প্রণালীঃ
 প্রথমে তেলে লাল করে পেঁয়াজ ভেজে এতে আদা, রসুন ও মরিচ দিয়ে নেড়ে কিমা দিয়ে কষাতে হবে। কষানো হলে লবণ, চিনি ও অল্প আদা দিয়ে সেদ্ধ করে নিতে হবে। পানি শুকিয়ে গেলে গরম মসলা গুঁড়ো দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে। এবার ময়দা, ডিম, লবণ ও পরিমাণমতো পানি দিয়ে প্যান কেকের গোলা তৈরি করে নিতে হবে। ননস্টিক প্যানে প্যানকেক তৈরি করে এর মাঝখানে পুর দিয়ে চারপাশ মুড়ে চারকোণ ভাঁজ করে নিতে হবে। পরে ডিমে চুবিয়ে বিস্কুটের গুঁড়ায় হালকা তেলে ভাজতে হবে।

সূত্র: ভারতীয় ম্যাগাজিন 

*ঝটপটনাস্তা* *চিকেন* *নতুনরেসিপি* *রেসিপি* *উপমহাদেশীয়খাবার*

তারেক রহমান তন্ময়: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণ:
৪ কাপ কুচি করা বাঁধাকপি
গাজর ও ফুলকপি কুচি ১ কাপ
৬ কাপ পানি বা ভেজিটেবল স্টক
১টি পেঁয়াজ (কুচি করা)
২ কোয়া রসুন (কুচি করা)
১টি ডিমের সাদা অংশ
লেবুর রস ১ টেবিল চামচ
২টি কাঁচা মরিচ (মাঝে ফালি করা )
লবন স্বাদ মত
গোল মরিচের গুঁড়া স্বাদ মত
অলিভ অয়েল ১টেবিল চামচ
ধনিয়া পাতা (সাজানোর জন্য)

প্রস্তুত প্রণালী:

প্রথমে কড়াইয়ে অলিভ অয়েল গরম করুন।
কাঁচা মরিচ, পেঁয়াজ, রসুন দিয়ে কিছুক্ষন ভাজুন।
এরপর কড়াইয়ে ভেজিটেবিল স্টক/পানিতে বাধাকপি, ফুলকপি ও গাজর কুচি দিয়ে দিন।
সবজি আধা সেদ্ধ হয়ে গেলে ডিমের সাদা অংশ, লবণ ও গোল মরিচের গুড়া দিয়ে নাড়তে থাকুন।
লেবুর রস দিয়ে স্যুপ নামিয়ে ফেলুন।
বাটিতে ঢেলে উপরে ধনিয়া পাতা দিয়ে সাজিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন মজাদার বাঁধাকপির স্যুপ।
*হেলদিফুড* *স্যুপরেসিপি* *ঝটপটনাস্তা* *ওজনসমস্যা*

তারেক রহমান তন্ময়: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণঃ
বীফ ঝুরা
তরল দুধ ১ কাপ
মেয়নিজ ২ টেবিল চামচ
গোল মরিচ গুড়া ১/২ চা চামচ
টমেটো সস ৩-৪ টেবিল চামচ
শসা/লেটুস পাতা সাজানোর জন্য
পাউরুটি বড় সাইজ এর ১ প্যাকেট
স্মেল এর জন্য ১/৪ চা চমচ বেসিল লিফ (না থাকলে না দিলে ও চলবে)
পেয়াজ কুচি, কাচা মরিচ কুচি

প্রণালীঃ
একটি প্যান এ আগে থেকে রান্না করা ঝুরা বীফ পরিমানমত নিয়ে একটু পেয়াজ আর মরিচ কুচি দিয়ে ভেজে নিয়ে দুধ দিয়ে নাড়াচাড়া করে ড্রাই করে নিতে হবে. এবার মেয়নিজ আর গোল মরিচ এর গুড়া আর বেসিল লিফ দিয়ে নেড়েচেড়ে নামিয়ে নিতে হবে. পাউরুটি র পিস গুলো র একপাশে টমেটো সস মাখিয়ে নিয়ে একটি র উপর বীফ এর ১/৪ ইঞ্চি লেয়ার দিয়ে আরেকটি পিস চাপ দিয়ে বসাতে হবে. এবার স্যান্ডউইচ মেকার এ টিসু দিয়ে একটু তেল মেখে সাইজ মত বসিয়ে পাওয়ার অন করে দিতে হবে. পাউরুটি ক্রিসপি হয়ে গেলে অটোমেটিক পাওয়ার অফ হয়ে যাবে. এবার নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন শসা/লেটুস অথবা পছন্দমত সাইড vegetable এর সাথে. কারো স্যান্ডউইচ মেকার না থাকলে একটি প্যান এ হালকা আঁচে এ পিঠ ও পিঠ একটু ভাজা ভাজা করে সেক এ নিলে ও চলবে. ফ্রীজে এ রেখে দিয়ে ওভেন এ গরম করে মেহমান দের ও সার্ভ করা যাবে.

ক্রেডিটঃ  মাহমুদা পারভিন সোনিয়া
*মাংসেররেসিপি* *নতুনরেসিপি* *ঝটপটনাস্তা*

তারেক রহমান তন্ময়: একটি বেশব্লগ লিখেছে

উপকরণঃ

পাউরুটি চার স্লাইস
দুধ আট-দশ চা চামচ
বেসন তিন চা চামচ
লেবুর রস এক চা চামচ
ঘি দুই চা চামচ
ভাজার জন্য তেল আন্দাজ মত

রসের জন্য:
পানি দুই কাপ
চিনি পৌনে এক কাপ

পুরের জন্যঃ
দুধ দুই কাপ
সুজি দুই চা চামচ
ঘি এক চা চামচ
চিনি দেড় চা চামচ
গুঁড়ো দুধ দুই চা চামচ
ছোটো এলাচ (গুঁড়ো করা ) দুইটা

প্রণালীঃ
-পাউরুটি দশচামচ দুধ দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন।
দুই কাপ পানি চুলায় দিয়ে তাতে পৌনে কাপ চিনি দিয়ে ঘন করে নিতে হবে যতক্ষন না দেড় কাপ হয় ।
-বেসন শুকনো তাওয়ায় সেঁকে নামিয়ে ঠান্ডা করে তা ভালোভাবে ঘি ও লেবুর রসের সাথে মিশিয়ে নিন।
-এরপর ভিজিয়ে রাখা পাউরুটিতে বেসনের মিশ্রনটি মেশান। পুরো মিশ্রনটা নরম করে মেখে নিন। নরম মন্ডটা ঢেকে রেখে দিন পনেরো থেকে বিশ মিনিট।
-সুজি অল্প ভেজে দু কাপ দুধে গুলে আঁচে বসান। অনবরত নাড়তে থাকুন। সেদ্ধ হয়ে গেলে চিনি ও ঘি মেশান। নাড়তে নাড়তে আরও ঘন করুন।
-মিশ্রন ঘন হয়ে মন্ড মতো হয়ে আসবে তখন কড়াই আঁচ থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করে গুঁড়ো দুধ ও এলাচগুঁড়ো মেশান। এইতো তৈরি হয়ে গেলো পুর।
-এরপর পুর থেকে সমান করে দশটা লেচি কেটে রাখুন।
-অন্যদিকে পাঁউরুটির মন্ড আর একবার মেখে নিয়ে দশটা লেচি কাটুন।
-তারপর পাউরুটির লেচি গুলো ছোট ছোট আকারে বেলে নিয়ে ভেতরে পুর ভরে পুলি পিঠার আকারে গড়ে নিন।
-তেলে সামান্য ঘি মিশিয়ে গরম করে এতে পুলিগুলো বাদামি করে ভেজে নিন।
-ভাজা পিঠা গুলো আগে থেকে তৈরি করে রাখা রসে ফেলুন। রসে জড়িয়ে পিঠা গুলো চকচকে হলে তুলে ফেলুন।

সকালের নাস্তায় কিংবা বিকেলে চায়ের সাথে পরিবেশন করতে পারেন।
*ঝটপটনাস্তা* *বিকালেরনাস্তা* *মজারখাবার* *শীতেরপিঠাপুলি*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★