ধুমপান

ধুমপান নিয়ে কি ভাবছো?
ছবি

অনি: ফটো পোস্ট করেছে

আসুন সিগারেট খাওয়া বন্ধ করি। ধুমপান কে বলি না!

*ধুমপান* *মরণব্যাধিরকারণ*

আড়াল থেকেই বলছি: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

ধুমপানের প্রভাব হতে মুক্ত ..
আদার ছোট ছোট টুকরায় লবন মিশিয়ে তাতে লেবুর রস যোগ করে নিন,তারপর আদাগুলো শুকিয়ে নিন,এবার শুকনো আদাগুলো একটি কাঁচের কৌটায় সংরক্ষণ করুন,শুকনো আদার টুকরাগুলো নিয়মিত চুষলে ধুমপানের আসক্তি দূর হবে.. (ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত)
*টিপস* *ধুমপান*

★ছায়াবতী★: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৫/৫
সিগারেট খাওয়ার উপকারিতা ණ ১)চোর বাড়িতে আসবে না। ණ ২)কুকুরে কামড়াবে না । ණ ৩)অটুট যৌবন। ব্যাখ্যা - ණ ১)চোর বাড়িতে আসবে না।কারন সিগারেট খেতে খেতে ফুসফুসের এমন বারোটা বাজে যে, সারা রাতই ধূমপায়ীকে কাশিতে হয়। এই কাশির শব্দ শুনে চোর ভাবে যে বাড়ির লোক ঘুমায় নি।তাই চোর বাড়িতে আসবে না। ණ ২)কুকুরে কামড়াবে না।কারন কাশিতে কাশিতে এমন অবস্থা হয় যে ধূমপায়ী সামনে
দিকে ঝুঁকে পড়ে।তখন লাঠিতে ভর করে হাঁটতে হয়।হাতে সবসময় লাঠি থাকে বলে কুকুর কাছে আসে না। ණ ৩)ধূমপান তো যৌবন থাকা অবস্থায়ই জীবন শেষ করে দেয়। বৃদ্ধ হওয়ার সময়ই তো নেই। তাই অটুট যৌবন। এখানে কিন্তু নেশা করতে উৎসাহিত করা হয়নি
*বেশম্ভব* *বেশফান* *ধুমপান* *রসিকতা*

রোমেল বড়ুয়া: একটি বেশব্লগ লিখেছে

- তুমি সিগারেট ছাড়বা?
- সিগারেট ছাড়ব মানে?
- ভেতরে তো কিস্যু রাখতেসোনা। সব ঝাঁজরা করে ফেলতেসো। বিয়ের পর তোমার সিগারেট খাওয়া ছুটাবো আমি।
- ভেতরে তো কিস্যু রাখতেসোনা। সব ঝাঁজরা করে ফেলতেসো। বিয়ের পর তোমার সিগারেট খাওয়া ছুটাবো আমি।
- কি বললা????? আরেকবার বল দেখি। কত্তবড় সাহস।
- আরে তুমি বুঝতে ভুল করসো। আমি বলসি, বিয়ের পর তুমি আমাকে বিরিয়ানি খাওয়াবা। 
- আমারে বুঝাইলা আর আমি বুঝলাম তাইনা? আমারে কচি খুকি পাইসো??? 
- তোমার নতুন প্রোফাইল পিকটা জোশ 
- সত্যি? 
- হুম। 
-...
-...... 
সিগারেট ইস্যু শেষ (শয়তানিহাসি)
*ধুমপান* *সিগারেট*

Md. Akter Hosen : একটি বেশব্লগ লিখেছে


শখের বশে অনেকেই ধুমপান শুরু করলেও একপর্যায়ে সব ধুমপায়ীর কাছেই তা পরিণত হয় দুঃস্বপ্নে। তখন এই নেশার টান এমনই প্রবল হয়ে ওঠে যে এটিকে ত্যাগ করা অনেকের পক্ষেই হয়ে ওঠে প্রায় দুঃসাধ্য। তবে এবার ধুমপান যারা ত্যাগ করতে অনেকদিন ধরেই কসরত করে আসছেন তাদের জন্য সুখবর দিয়েছেন আমেরিকার উইল কর্নেল মেডিকেল কলেজের বিজ্ঞানীরা। তারা নিকোটিন আটকাতে একটি কার‌্যকরী টিকা আবিস্কারের পথে অনেকদূর এগিয়ে গেছেন বলে জানিয়েছেন।
বিজ্ঞানীরা দেখেছেন, ধুমপানে অভ্যস্থ একজন ব্যাক্তির মস্তিস্কে নিকোটিনের চাহিদা প্রবল আকার ধারণ করলে সে সিগারেট পান করতে উদ্দত হয়। মস্তিস্কে এই নিকোটিনের চাহিদা কোনভাবে রোধ করা গেলে ধুমপানের অভ্যাস থেকে অনেকটাই মুক্তি মিলতে পারে। সম্প্রতি আমেরিকার বিজ্ঞানীরা এমন একটি ওষুধ আবিস্কারের কথা প্রকাশ করা হয়েছে সাইন্স ট্রান্সলেসনাল মেডিসিন জার্নালে। বিজ্ঞানীরা বলছেন এই ওষুধ প্রয়োগে দেহে নিকোটিন প্রবাহ বাধাগ্রস্থ করা সম্ভব। ইদুরের ওপর এই ওষুধ প্রয়োগ করে অভাবনীয় সাফল্য পেয়েছেন তারা। দেখা গেছে, এই ওষুধ মস্তিস্কে নিকোটিন পৌঁছানোর মাত্রা প্রায় ৮৫ শতাংশ বাধা দিতে সক্ষম।

যদিও এর উপর এখনো অনেক গবেষণা বাকি। মানুষের ওপর এই টিকা প্রয়োগে আরো বেশ কয়েক বছর সময় লাগতে পারে।

*টিপস* *হেলথটিপস* *ধুমপান*

অলিন আরজু: একটি বেশব্লগ লিখেছে

রাস্তা পার হবার আগে ভাবলাম একটা ধুম্রশলাকা কেনা আবশ্যক, রাস্তার পাশের দোকানে গিয়ে বললাম , "একটা মার্ল্বোরো এডভান্স দেন"। 
পাশে দাড়ালো যুবক বললো " ভাইয়া, আপনি কি সব সময় এডভান্স ইউস (use) করেন ?"
প্রথমে তার কথা ঠিক বুঝিনি তাই বললাম "সরি ??"
সে - "আপনি কি সব সময় মার্লবোরো এডভান্স ইউস (use) করেন ? "
আমি ব্যাপক টেনশনে পড়লাম, মার্লবোরো এডভান্স তো সিগারেটের নাম বডি স্প্রে, পারফিউম বা অন্য কিছু না যে ব্যাবহার করবো । কিঞ্চিৎ ভড়কে গিয়ে বললাম " না ভাই সবসময় মার্লবোরো এডভান্স টানি কিন্তু কখনো ইউস করিনি " । 
তিনি কিঞ্চিৎ মর্মাহত হয়ে বললেন "মার্লবোরো এডভান্স এর আগে কোনটা খেতেন"
আমি - "মার্লবোরো সাদা টা"
তিনি - "তার আগে "
আমি - "মার্লবোরো সাদা টা ই "
তিনি - "তার আগে "
আমি - "তার আগে খেতাম না" ।
আমার কোনো কথায় প্রথমবার তাকে খুশি হতে দেখা গেলো । হাসি হাসি মুখ নিয়ে বললেন "আমি তো মার্ল্বোরো কম্পানিতে জব করি , আমাদের একটা আফার আছে"।
আমি - "ও আপনি মার্ল্বোরোতে চাকরি করেন? আমি ভেবেছিলাম আপনি সাংবাদিক। যাহোক কি অফার ?"
অনেক কষ্টের সাথে তার মুখের হাসি হাসি ভাব অব্যাহত রেখে তিনি বললেন "এক প্যাকেট সিগারেট কিনলে একটা লাইটার ফ্রি"। আমি তার হাসি হাসি ভাবটা নিজের মুখে নিয়ে বললাম "কি লাইটার দেখি" । তিনি হাসি হাসি ভাব দশগুন বাড়িয়ে আমার হাতে একটা লাইটার দিলেন। আমি কিছুক্ষণ নেড়ে-চেড়ে লাইটার টা তাকে ফেরত দিলাম এবং আমার পকেট থেকে আমার অতি প্রিয় লাইটার টা বের করে সিগারেট টা জ্বালালাম। ব্যাচারার হাসি হাসি চাঁদ মুখ খানিতে ঘোর অমাবশ্যা নেমে আসলো। আমার তখন খুব খারাপ লাগলো আমি যদি জানতাম তার দশখানা মুখ আধখানা হয়ে যাবে তাহলে কখনোই পকেট থেকে আমার প্রিয় লাইটারটা বের করতাম না। 

সংবিধিবদ্ধ সতর্কিকরণ ঃ ধূমপান স্বাথ্যের জন্য ক্ষতিকর ।(নাআআআ)
*ধূমপানস্বাথ্যেরজন্যক্ষতিকর* *ধুমপান*

হাফিজ উল্লাহ: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৪/৫
রনি @RonyRahman ভাইয়ের সিগারেট খাওয়ার গোপন রহস্য
একদিন রনি ভাইয়ের আম্মু জিগ্গেস করছে- আম্মু: শুনলাম তুমি নাকি ইদানিং সিগারেট খাওয়া শুরু করছো? রনি: জ্বী আম্মু কথা সত্য। আম্মু: শুনে ভালো লাগলো যে তুমি সত্য কথা বলা শুরু করছো। আচ্ছা যা খাইছো খাইছো, আর খাইয়ো না। তো আমি কি জানতে পারি যে, তুমি হঠাত্ সিগারেট খাওয়া শুরু করলা কেন ? রনি: এইটা আম্মু... আমি দেশ ও দশের কথা ভেবে খাওয়া শুরু করছি। আম্মু : মানে
আম্মু: মানে ? রনি: সিগারেট হলো দেশের শত্রু ঠিক কিনা কও? আম্মু: হ্যাঁ ঠিক রনি: সিগারেট হলো পরিবেশের শত্রু ঠিক কিনা কও? আম্মু: হ্যাঁ ঠিক রনি: সিগারেট হলো যুব সমাজের শত্রু ঠিক কিনা কও? আম্মু: হ্যাঁ ঠিকই রনি: এই জন্যই তো এইটারে জ্বালায়ে পোড়ায়ে নিঃশেষ করে ফেলতেছি! (অবাক)
*সিগারেট* *ধুমপান* *রসিকতা*

কেয়া _নাহিদা: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

৪/৫
সামান্য ঘি এ মৌরি ভেজে বোতল ভরে রাখুন, ধুমপান এর ইচ্ছা জাগলে , আধা চা চামচ করে চিবান, ধুমপান এর নেশা কমে যাবে .
ডাক্তার সাব এইটা তো সিগারেট এর লগে খাইতে বেশি ভালো লাগে.
*স্বাস্থ্যটিপস* *ধুমপান* *রসিকতা*
ছবি

হাফিজ উল্লাহ: ফটো পোস্ট করেছে

৩/৫

সময় থাকতেই ধুমপান ত্যাগ করুন

*ধুমপান*
ছবি

নাহিন: ফটো পোস্ট করেছে

৪/৫

ধুমপান থেকে দুরে থাকুন।

*ধুমপান* *বিষপান* *হেলথটিপস*

Mahbubul Alam: কারা কারা সিগারেট অপছন্দ করেন ?

*সিগারেট* *ধুমপান* *নেশা*
জোকস

পাগলী: একটি জোকস পোস্ট করেছে

আপনি কোনটা খাইবেন? (কুল)
*জোকস* *সিগারেট* *ধুমপান*

মো:আ:মোতালিব: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ধুমপান ত্যাগে করণীয়


সবার আগে নিজের মন থেকে সব যুক্তিগুলো সাজিয়ে নিয়ে সীদ্ধান্ত নিন, মনকে দৃঢ করুন, ইচ্ছা শক্তি বাড়ান। আপনার ব্যক্তিত্বের শক্তিশালী দিকগুলো নিজের কাছে তুলে ধরুন এবং ঠিক করুন আজ থেকেই ছেড়ে দিচ্ছেন ধুমপান। বাসায়, ড্রয়ারে বা পকেটে সিগারেট থাকলে তা কোনোরকম দ্বিধা না করে এখনই ফেলে দিন, শুরু হোক আপনার সাহসী পথ চলা।
যে সকল স্থানে ধুমপান নিষিদ্ধ সে সকল স্থানে (সেটা হতে পারে মসজিস, যাদুঘর, লাইব্রেরী অথবা আপনার অফিসের কক্ষ অথবা হাসপাতালে) আপনার মূল্যবান সময় কাটান। ক্যান্সার আক্রান্ত আত্মীয়স্বজন থাকলে তাদের সাথে অনেক সময় কাটান। হাসপাতালো কোন পরিচিত রোগী ভর্তি থাকলে আপনার স্বার্থেই তাকে সংগ দিন। আত্মীয়দের কবরস্থানে নিরিবিলি সময় কাটাতে পারেন।
 
অনুপ্ররণা এবং সহযোগীতা নিন, আপনার অধুমপায়ী বা ধুমপানত্যাগী বন্ধুবান্ধব দের কাছ থেকে প্ররণা বা পরামর্শ নিন। তামাক ছাড়ার জন্য একটি গ্রুপ তৈরী করতে পারেন, যাদের সবার ইচ্ছা থাকবে তামাক ছেড়ে দেবার। এর মধ্যে আপনার ব্যক্তিত্বের দৃঢ়তার পরিচয় দিন এবং প্রয়োজনে এই গ্রুপে অধুমপায়ী বা চিকিৎসক বন্ধুবান্ধব কে অন্তর্ভুক্ত করুন।
খাবার স্থান পরিবর্তন করতে পারেন, যে সকল রেষ্টুরেন্ট এ ধুমপান নিষিদ্ধ খরচ একটি বেশী হলেও সেসকল স্থানে খাওয়া দাওয়া সারুন, আপনার ধুমপানের বেচে যাওয়া খরচের তুলনায় সেটা খুব বেশী হবেনা।
ধুমপান ত্যাগের সীদ্ধান্তের প্রাথমিক পর্যায়ে ধুমপায়ীদের সংগ থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করুন।
জীবনে বিনোদনের ভুমিকা অনেক, তাই বিনোদনের জন্য গান শুনুন, গল্প-উপন্যাস পড়ুন, বিভিন্ন প্রদর্শনী যাদুঘর গুলোতে যান, নাটক দেখুন, সিনেমা দেখতে পারেন। গান শোনার সময় বাসার এমন কোথাও অবস্থান করুন যেখানে ধুমপান করা যায়না (যেমন ড্রয়িং রুম বা ডাইনিং রুম), মঞ্চ নাটকের গ্যালারিতে, আর্ট গ্যালারি বা ফটো গ্যালারিতে সময় কাটালে ধুমপান করা যায়না এবং এভাবেই একসময় দিনের একটা বড় অংশ আপনার অধুমপায়ী হিসেবে কেটে যাবে।
জিমনেসিয়াম, সুইমিংপুল, স্কেটিংক্লাব বা শারীরিক পরিশ্রম হয় এমন সংস্থাগুলোতে নাম লিখান। এসব স্থানে নিয়মিত ব্যায়াম করলে আপনার শারীরিক সুস্থ্যতা বৃদ্ধি পাবে ধুমপানের ও সূযোগ থাকবেনা।
এরপরও মাঝে মাঝে ধুমপান করার প্রবল ইচ্ছা জাগলে ধুমপান নিষিদ্ধ এমন কোন যায়গায় গিয়ে প্রিয় কোন বন্ধু / মানুষের সাথে প্রাণখুলে সময় কাটান। সাইকেল নিয়ে বেরিয়ে পরুন বা ভালো কোন পাবলিক পরিবহনে করে দূর কোন স্থান থেকে বেরিয়ে আসুন, লক্ষ রাখবেন আপনার সংগী যেন একজন অধুমপায়ী হয়।
এমনি করে মাসখানেক কেটে গেলে একসময় দেখবেন আপনার আর ধুমপান করতে ইচ্ছা করছেনা এবং আপনি একজন অধুমপায়ী হয়ে গেছেন। তবে লক্ষ রাখবেন ব্যাপারটা বড়াই করে কাউকে বলার সময় এখনো আসেনি, তেমন টি করলে আপনার দুষ্ট বন্ধুদের অনেকে কৌশলে আপনাকে বোকা বানানোর জন্য অথবা মজা করে ধুমপানে আগ্রহী করতে পারে, কাজেই সাবধান।
কারো কারো ক্ষেত্রে ধুমপানের মাত্রা খুব বেশী থাকে, এমন অল্প কিছু ক্ষেত্রে চিকিৎসকের স্মরণাপন্ন হয়ে কিছু অসুধ সেবন করা লাগতে পারে। তবে আপনার ব্যক্তিও বা ইচ্ছা শক্তি যদি প্রবল হয় কোন কিছুই আপনাকে দমিয়ে রাখতে পারবেনা।
সব কথার শেষ কথা আপনার ইচ্ছা থাকলেই আপনি ধুমপান ছেড়ে দিতে পারবেন, নিজেকে প্রশ্ন করুন আপনার ইচ্ছাটা আছে তো?
*ধুমপান*
জোকস

পাগলী: একটি জোকস পোস্ট করেছে

যাদের ধুমপান মানে বিষপান জেনেও খেতে ইচ্ছে করে তাদের জন্য নতুন বুদ্ধি । খাবেনই যখন স্টাইল করেই খান। মরবেনই যখন, একবারে বেশী করে খেয়েই মরেন।
*ধুমপান* *স্টাইল*
ছবি

পাগলী: ফটো পোস্ট করেছে

ধুমপান মানে বিষপান, দয়া করে আর দিবেন না সুখ টান।

বাঁচতে চাইলে আজ থেকেই ধুমপানকে 'না' বলুন।

*ধুমপান* *বিষপান* *সুখটান*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★