নাগরিক

নাগরিক নিয়ে কি ভাবছো?

দীপ্তি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 বাংলাদেশের সংবিধানে নাগরিকের মৌলিক অধিকার নিয়ে বলা হয়েছে। সেগুলো কি কি?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*বাংলাদেশ* *সংবিধান* *নাগরিক* *মৌলিকঅধিকার*

বিম্ববতী: সরকার ভুললেও, আমি জন্মসূত্রে বাংলাদেশের একজন ‪#‎নাগরিক‬ এবং সংবিধানের ৭(১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী দেশের ‪#‎মালিক‬। আমি রামপাল বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণের তীব্র ‪#‎প্রতিবাদ‬ জানাচ্ছি । বিদ্যুৎ আমিও চাই কিন্তু ‪#‎সুন্দরবন‬ ধ্বংস করে আমার বিদ্যুৎ এর দরকার নাই। দয়া করে আপনিও আমার এ প্রতিবাদ আমলে নিন। ,,,(বৃষ্টি),,,,,,,,,,,,,,,,,,,,(বৃষ্টি),,,,,, ★★লেখাটা কপি পেস্ট করে আপনারা প্রত্যেকের টাইমলাইনে প্রতিবাদেরর আওয়াজ তুলুন। প্রাণপ্রিয় বাংলাদেশকে রক্ষা করুন।

*সুন্দরবন-বাঁচাও* *রামপাল* *সুন্দরবন* *নাগরিক*

ইমরান নাজির লিপু: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের মার্কিন বলে কেন ?

উত্তর দাও (৩ টি উত্তর আছে )

.
*মার্কিন* *মজারতথ্য* *যুক্তরাষ্ট্রে* *নাগরিক*

রং নাম্বার: যেহেতু আমি একজন ট্যাক্সদেনেওয়ালা নাগরিক সেহেতু রাস্তায় যেখানে সেখানে ময়লা, পলিব্যাগ ফেলা আমার জন্য কোন ব্যাপারই না। ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করার দ্বায়িত্ব সরকারের। কারণ আমার ট্যাক্সের টাকায় সরকার চলে। তাছারা আমার একার ফেলা ময়লাতে আর কতটাইবা পরিবেশ দূষিত হবে।

*নাগরিক*

রং নাম্বার: বর্ষবরণের দিনে নারী হয়রানকারী ৮ নিপীড়ক চিহ্নিত হয়েছে , পরিচয় জানালে লাখ টাকা বর্ষবরণের উৎসবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে যৌন নিপীড়নের ঘটনার ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার ভিডিও দেখে আটজনকে চিহ্নিত করেছে পুলিশ। পুলিশকে সহায়তা করুন অপরাধী গ্রেফতার করা সহজ হবে| http://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article969273.bdnews

*সচেতনতা* *নাগরিক* *আইন*
৫/৫

সাইফ: [বাঘমামা-কোপা] আমি সুশীল দেশের কুটিল নাগরিক । আমি ভুল বললেও তাই হবে ঠিক ।

*নাগরিক*

শাম্মী নূর-এ-আলম রাজু: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আমরা বাংলাদেশের জনগন আমাদের বেশিরভাগ মানুষের চাহিদা বা প্রত্যাশা খুবই সামান্য। রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে আমাদের প্রত্যাশা তারা দেশে একটি স্থিতিশীল পরিস্থিতি বজায় রাখবেন, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখবেন, কাজের পরিবেশ সৃষ্টি করবেন। বাকিটা কিন্তু আমাদের দায়িত্ব।

পরিবেশ পরিস্থিতি ঠিক থাকলে এদেশের মানুষ নিজ পরিশ্রমে তার ভাগ্যের উন্নতি করতে পারে। যার প্রমান পওয়া যায় বিগত ২০১৪ সাল জুড়ে। আমি যেহেতু তৈরি পোষাক শিল্প জগতের মানুষ তাই আমার উদাহরনটাও হবে এই সেক্টরের সাথে সংশ্লিষ্ট।

বাংলাদেশের সচেতন মানুষ সকলেই জানেন যে, তাজরীন এবং রানা প্লাজা দূর্ঘটনা আমাদের তৈরি পোষাকশিল্প খাতের জন্য দুটি অশুভ নাম। এই দুটি বড় দূর্ঘটনার কারনে বিশ্বজুড়ে বাংলাদেশের ব্যপক সুনামহানী সহ প্রচুর আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। তারপরও রাজনৈতিক স্থিতিশিলতা বজায় থাকার কারনে ২০১৪ সালে রপ্তানী আয়ের এই প্রধান খাতটি ঘুরে দাড়িয়েছিলো, স্বপ্ন দেখছিল বাংলাদেশের স্বধীনতার ৫০তম বর্ষে এদেশের পোষাক রপ্তানী আয় হবে ৫০ বিলিয়ন ইউ.এস ডলার।

যখন আমাদের প্রয়োজন এই স্বপ্নকে সত্যে রূপান্তরের জন্য সম্ভাব্য সকল প্রকার চেষ্ট করা তখন আমরা আবার নিজেদের অস্তিত্বের সংকটের সম্মুখীন হচ্ছি। পোষাক খাতের সাথে যারা সংশ্লিষ্ট আছেন তারা জানেন যে, বর্তমান সময়টি হচ্ছে নতুন অর্ডার কালেকশনের সময়, অথচ এখন বেশিরভাগ কারখানাই অর্ডার সংকটে ভুগছে। বেশি সমস্যা হচ্ছে সোয়েটার কারখানাগুলোতে, যেখানে শ্রমিকদের একটি বড় অংশ কাজ করেন পিস রেট হিসাবে। কাজ আছে তো মজুরী আছে, কাজ নেই তো কোন মজুরী নেই। অনেক কারখানা তাদের শ্রমিকদের বিনা বেতনে বা যৎসামান্ন বেতনে দীর্ঘছুটিতে পাঠাতে বাধ্য হচ্ছে। যে সকল কারখানা বড়, যাদের আর্থিক সামর্থ ভালো তাদের হয়তো এই সংকটকালীন সময়ে খুব বেশি সমস্যা হবে না কিন্তু ছোট কারখানাগুলো, যাদের আর্থিক সামর্থ কম, তাদের বাজারে টিকে থাকাই কষ্টকর হয়ে পরবে। ইতিমধ্যে ঢাকার আশুলিয়া অঞ্চলে সাউদার্ন সোয়েটার নামক একটি পোষাক কারখানা কাজের অভাবে বন্ধ হয়ে গেছে। দিন যত যাবে, দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি যত খারাপ হবে, বন্ধ হয়ে যাওয়া কারখানার নামের তালিকা তত দীর্ঘায়িত হতে থাকবে।

তাই একজন সাধারন মানুষ হিসাবে, এ দেশের নাগরিক হিসাবে আমার খুব সামান্য প্রত্যাশা সকল রাজনৈতিক দলের কাছে, দয়াকরে দেশের চলমান পরিস্থিতি স্বাভাবিক করুন, আমরা যে স্বপ্নটি দেখছি বাংলাদেশের ৫০তম জন্মদিনে আমাদের তৈরি পোষাক রপ্তানীর আয় ৫০ বিলিয়ন ডলার করার তা বাস্তবায়ন করার সুযোগ দিন।



*নাগরিক*

অনি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

 

সময়ের কণ্ঠস্বর : দেশের ষাটোর্ধ্ব বয়সের নাগরিকরা সিনিয়র সিটিজেনের মর্যাদা পেয়েছেন। এঁদেরকে সিনিয়র সিটিজেন হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। দেশের এক কোটি ৩০ লাখ প্রবীণ এ বিশেষ মর্যাদা পাচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ ঘোষণা দেন।

অবশেষে ৬০ বা তার বেশি বয়সের নাগরিকরা সিনিয়র সিটিজনের মর্যাদা পেতে যাচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত ঘোষণা দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। দেশের এক কোটি ৩০ লাখ প্রবীণ এ বিশেষ মর্যাদা পাচ্ছেন।

বিশেষ মর্যাদা পাওয়া নাগরিকরা সব ধরনের পরিবহনে কম ভাড়ায় যাতায়াত, হাসপাতালে সাশ্রয়ী মূল্যে আলাদা চিকিৎসাসেবা, আলাদা বাসস্থান সুবিধা পাবেন বলে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে। নির্বাচন কমিশন থেকে শিগগিরই বয়স্ক নাগরিকদের আলাদা পরিচয়পত্র দেওয়া হবে।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের এক কর্মসূচিতে বুধবার জানানো হয়েছে, রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বৃহস্পতিবার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিকেল ৩টায় এক অনুষ্ঠানে প্রবীণদের ‘জ্যেষ্ঠ নাগরিক’ হিসেবে ঘোষণা দেবেন। সমাজকল্যাণমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন। সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী প্রমোদ মানকিনও এতে উপস্থিত থাকবেন।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব মো. হোসেন মোল্লা বলেন, গত বছরের ১৭ নভেম্বর ‘জাতীয় প্রবীণ নীতিমালা, ২০১৩’ অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। নীতিমালায় প্রবীণ ব্যক্তিদের রাষ্ট্রীয়ভাবে ‘জ্যেষ্ঠ নাগরিক’ হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে এক কোটি ৩০ লাখ প্রবীণ রয়েছেন। তারা অবহেলিত। বেসরকারি পর্যায়ে প্রবীণদের নিয়ে কিছু কাজ হয়েছে। সরকারি পর্যায়ে আমরা উদ্যোগ নিয়েছি। বর্তমানে ২৭ লাখ ২৩ হাজার প্রবীণকে মাসে ৪০০ টাকা করে বছরে এক হাজার ৩০০ কোটি টাকা দিয়ে থাকি। ১৯৯৬ সালে ১২ কোটি ৫০ লাখ প্রবীণকে দিয়ে এ কর্মসূচি শুরু হয়েছিল।

যুগ্ম-সচিব বলেন, জ্যেষ্ঠ নাগরিক ঘোষণার জন্য প্রবীণ বিষয়ক জাতীয় কমিটি জাতীয় অধ্যাপক এম আর খানকে প্রধান করে একটি কোর কমিটি গঠন করে। কোর কমিটি জাতীয় কমিটির কাছে প্রতিবেদন দেয়। সেই প্রতিবেদনের আলোকে একটি এ্যাকশন প্ল্যান (কর্মপরিকল্পনা) করা হয়েছে।

বয়স্ক নাগরিকদের নিয়ে কর্মপরিকল্পনার বিভিন্ন দিক তুলে ধরে হোসেন মোল্লা বলেন, প্রবীণরা সাধারণত হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, আর্থাইটিসে ভুগে থাকে। এ সব রোগের চিকিৎসা দিতে হাসপাতালগুলোতে ‘জেরিয়েটিক মেডিসিন’ বিভাগ চালু করা হবে। এ জন্য আমরা ৯০ লাখ টাকা বরাদ্দ পেয়েছি। প্রবীণদের চিকিৎসা দেওয়ার জন্য প্রাথমিকভাবে ৯০টি বড় হাসপাতালকে এক লাখ টাকা করে দেওয়া হবে। বয়স্ক নাগরিকরা সেখান

*নাগরিক*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★