নিউজিল্যান্ড-না-ওয়েস্টইন্ডিজ

নিউজিল্যান্ড-না-ওয়েস্টইন্ডিজ নিয়ে কি ভাবছো?

খেলার খবর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের চতুর্থ কোয়ার্টার ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে  ১৪৩ রানের বিশাল জয় নিয়ে শেষ চার নিশ্চিত করলো নিউজিল্যান্ড। নিউজিল্যান্ডের এই জয়ের সুবাদে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হলো ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা।

২য় ইনিংসে ৩৯৪ রানের টার্গেট মাথায় নিয়ে ব্যাটিং করতে নেমে রানরেট ঠিক রাখলেও উইকেট ধরে রাখতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। মাত্র ৩০.৩ বলে ২৫০ রান করে সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ফেলে ক্যারিবীয়রা। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে বোল্ট ৪৪ রান দিয়ে ৪ উইকেট লাভ করেন।

এর আগে মার্টিন গাপটিলের ডাবল সেঞ্চুরির উপর ভর করে নিউজিল্যান্ড ৩৯৩ রান সংগ্রহ করেছে। মার্টিন গাপটিল ২৩৭ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন।

ওয়েলিংটনের ওয়েস্ট প্যাক স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি নিউজিল্যান্ডের। পঞ্চম ওভারেই মারকুটে অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালামকে আউট করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসার জেরম টেলর। মাত্র ১২ রান করে ফিরে গেছেন এই বিধ্বংসী ওপেনার।

দ্বিতীয় উইকেটে ৬২ রানের জুটি গড়ে প্রাথমিক ধাক্বাটা অবশ্য ভালোভাবেই সামলেছেন কেইন উইলিয়ামসন ও গাপটিল। ১৬তম ওভারের শেষ বলে এই জুটি ভেঙে ক্যারিবীয়ান শিবিরে স্বস্তি ফেরান আন্দ্রে রাসেল। ৩৫ বলে ৩৩ রান করে গেইলের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন উইলিয়ামসন।

এরপর রস টেলরকে সাথে নিয়ে শুরু হয় গাপটিল ঝড়। দুজনে মিলে ১৬২ রানের জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের দিকে নিয়ে যায়। টেলর ৪২ রান করে থামলেও রানের চাকা ঠিকই সচল রাখেন কিউই এই ব্যাটসম্যান। ১৬৩ বলে ২৪ চার আর ১১ ছয়ে তুলে নেন ক্যারিয়ার সেরা ২৩৭ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে জেরম টেলর নেন ৩ উইকেট।

*ক্রিকেটবিশ্বকাপ* *বিশ্বকাপক্রিকেট* *বিশ্বকাপ২০১৫* *নিউজিল্যান্ড-না-ওয়েস্টইন্ডিজ*

খেলার খবর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামনে লক্ষ্যমাত্রা ৩৯৪। লম্বা রানের পাহাড় পাড়ি দিতে না পারলে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হবে ক্যারিবীয়দের। তবে এতো বড় লক্ষ্যমাত্রা পাড়ি দিয়ে জয় তুলে নেওয়ার রেকর্ড বিশ্বকাপের ইতিহাসে নেই। তারপরেও সাধ্যমত লড়াই করে যাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ২য় ইনিংসের খেলা শুরু হয়েছে এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল ৩ ওভার ব্যাট করে ১ উইকেট হারিয়ে ৫ রান সংগ্রহ করেছে।

এর আগে,  চতুর্থ কোয়ার্টার ফাইনালে মার্টিন গাপটিলের ডাবল সেঞ্চুরির উপর ভর করে নিউজিল্যান্ড ৩৯৩ রান সংগ্রহ করেছে। মার্টিন গাপটিল ২৩৭ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন।

ওয়েলিংটনের ওয়েস্ট প্যাক স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি নিউজিল্যান্ডের। পঞ্চম ওভারেই মারকুটে অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালামকে আউট করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসার জেরম টেলর। মাত্র ১২ রান করে ফিরে গেছেন এই বিধ্বংসী ওপেনার।

দ্বিতীয় উইকেটে ৬২ রানের জুটি গড়ে প্রাথমিক ধাক্বাটা অবশ্য ভালোভাবেই সামলেছেন কেইন উইলিয়ামসন ও গাপটিল। ১৬তম ওভারের শেষ বলে এই জুটি ভেঙে ক্যারিবীয়ান শিবিরে স্বস্তি ফেরান আন্দ্রে রাসেল। ৩৫ বলে ৩৩ রান করে গেইলের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন উইলিয়ামসন।

এরপর রস টেলরকে সাথে নিয়ে শুরু হয় গাপটিল ঝড়। দুজনে মিলে ১৬২ রানের জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের দিকে নিয়ে যায়। টেলর ৪২ রান করে থামলেও রানের চাকা ঠিকই সচল রাখেন কিউই এই ব্যাটসম্যান। ১৬৩ বলে ২৪ চার আর ১১ ছয়ে তুলে নেন ক্যারিয়ার সেরা ২৩৭ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে জেরম টেলর নেন ৩ উইকেট।

*ক্রিকেটবিশ্বকাপ* *বিশ্বকাপক্রিকেট* *বিশ্বকাপ২০১৫* *নিউজিল্যান্ড-না-ওয়েস্টইন্ডিজ*

খেলার খবর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে নিউজিল্যান্ড। ওয়েলিংটনে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের চতুর্থ কোয়ার্টার ফাইনালে মার্টিন গাপটিলের ঝড় ব্যাটিংয়ের উপর ভর করে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে  নিউজিল্যান্ড। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৪৩ ওভার শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে কিউইদের সংগ্রহ ২৭৮ রান। মার্টিন গাপটিল ১৬৮ আর কোরি অ্যান্ডারসন ১৫ রান নিয়ে ব্যাট করছে।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২৭ রানে টেইলরের বলে ১২ রান করে আউট হন কিউই অধিনায়ক ম্যাককালাম। আর ৩৩ রান করে রাসেলের বলে আউট হন কেন উইলিয়ামসন।

বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের সাথে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটীয় লড়াইটা বেশ পুরনো। ১৯৭৫ সালে প্রথম বিশ্বকাপেই মুখোমুখি হয়েছিলো দল দুটি। আর এখন পর্যন্ত মোট ৬ বারের দেখায় ৩ জয় দু দলের পাল্লাটা সমান।

গ্রুপ পর্বে সবকটি ম্যাচে জয় নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে পা রাখায় বেশ ফুরফুরে মেজাজে রয়েছে কিউইরা। দলের অধিনায়কত্বের গুরুভার নিজের কাঁধে নিয়ে দুর্দান্ত গতিতেই রানের ফোয়ারা ছোটাচ্ছেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। আর সাউদি, বোল্ট ও মিলনেকে নিয়া গড়া এই পেস ত্রয়ী ওয়েলিংটনের উইকেটে আগুনে ঝরাতে পারলে যেকোন প্রতিপক্ষ জ্বলেপুরে ছাই হতে বাধ্য।

অন্যদিকে, আয়ারল্যান্ডের কাছে হেরে দু:স্বপ্নের মতো বিশ্বকাপ শুরু করলেও, খাদের কিনারা থেকে ফিরে এসে কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে ইনজুরির কাটিয়ে ফিরতে পারেন ক্রিস গেইল। আর তাহলে কপাল পুড়তে পারে ডোয়াইন স্মিথের। পাশাপাশি, উইকেট বিবেচনায় সুলেমান বেন কিংবা কেমার রোচের যেকোন একজনকে দেখা যেতে ক্যারিবীয় একাদশে।


*ক্রিকেটবিশ্বকাপ* *বিশ্বকাপক্রিকেট* *বিশ্বকাপ২০১৫* *নিউজিল্যান্ড-না-ওয়েস্টইন্ডিজ*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★