নৈতিকতা

নৈতিকতা নিয়ে কি ভাবছো?

প্যাঁচা : একটি বেশব্লগ লিখেছে

আমরা ২০/২১টা ছেলে একসাথে বড় হইছি। ছোট থেকেই একসাথে।,সবার বাসাই ছিল স্টোন থ্রো ডিসটেন্স। আমরা যখনই প্রতিদিন বিকালে পাহাড় থেকে নেমে আসতাম পুরি খাইতে, যারা প্রথম দেখতো তারাই অবাক হইতো, ভাবত, এত্তবড় গ্রুপ জানি কোনদলের? হাহাহা...
ঈদে একরকমের পাঞ্জাবি পরা থেকে শুরু করে, এক মেয়ের পেছনে দৌড়ানো, কারো ডেটিঙয়ের জন্য পাহারা দেয়া, রাতে বাসা খালি হলে সবাই মিলে বাড়ি মাথায় ওঠানো...কত কি-ই না করছি? 
আমরা তখন দোস্তরা মারামারি করতাম খেলা নিয়া কেবল, যা মাঠেই শেষ। খেলা শেষ করে একটা পেটিস ভাগাভাগি করে খাইছি আর আজকাল দেখি মেয়ে নিয়ে মারামারি করে...আবার ছোট কেউ সামনে সিগারেট খাইলে থাপড়ায়...আর আমাগো বড়ভাই যেই একজন আছিল, জীবনে এসব নিয়া কিছু কয়নাই...তবে ওপেন কার্ড খেলা নিয়া বেত দিয়া দৌড়াইয়া দৌড়াইয়া মারছে, পরে নিজের রুমের চাবি দিয়া কইছে এখানে বসে খেলবি মন চাইলে...
এতকিছুর মাঝে থেকেও দেখছি কেউ কোন খারাপ কিছু সেবন না করে থাকতে এমনকি বিরিটাও খাইতো না কিন্তু সবসময় হাজির থাকত সবার সাথে, হালায় আরো বেশি মজা লইত। হালারে আমরা আমাদের ঈমানদারীর সাক্ষি কইতাম। দেখছি খাইয়া পাগল হইয়া, কারেন্ট চলে যাবার পর হোগায় টর্চ লাইট মাইরা দৌড়াইতাছে...
আবার দেখছি একজনের কথায়, পরদিন থেকে সবাই সব ছেড়ে দিতে...হাহাহা...
কিন্তু এটা বন্ধুত্বের গল্প না কারণ সময়ের তাড়নায় এখন তিন চারজন ছাড়া সবাই-ই দল ছাড়া...হাহাহাহা...তবে বন্ধুত্ব হয় বিশ্বাস থেকে, আর যখন বিশ্বাসের এতই অভাব আজকাল সেখানে বন্ধুত্ব হবে কি করে? স্বার্থান্বেষিরা থাকবেই, আগেও ছিল, এখনো আছে, সামনেও থাকবে...তাই তাদের ভয়ে বিশ্বাস করার কথা ভুলে যাব নাকি?হাহাহাহা...
একজনই প্রথম হবে জেনেও, সবাই ক্লাসে প্রথম হতে চায় তাই বলে কি অসদাচরণ বা অস্বাস্থ্যকর প্রতিযোগীতায় নামাটা কি সমিচীন? আজকাল সবাই জিততে চায়...কম্পিটিটিভ হবার নামে নীতি বিসর্জন দেয় তাই শিক্ষিত হয়েও অশিক্ষিতর মত কাজ করে।
উন্নতির নামে অধপতনের সিড়ি বায় হাসি মুখে... 
গল্পটা আসলে এই প্রশ্নগুলোর ...কি করছি আমরা তার শুদ্ধ বিশ্লেষণ চাই আবার মিছিল বা চায়ের কাপে ঝড় তোলার জন্য বলছি না কেবলই নিজেকে নিজে বিচার করতে শিখুন। আরেকটা খারাপ কথা বলা বা মিথ্যা কথা বলা বা কারো ক্ষতি করার আগে আরেকবার ভাবুন...হাহাহাহা...
Happy whtever day becoz i felt like it...hahahahahaha...

*ইচ্ছা* *ক্লিকক্লিক-প্যাঁচা* *বন্ধু* *নৈতিকতা* *নীতি* *নৈতিক-অধপতন*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাজপাখি প্রায় ৭০ বছর জীবিত থাকে।কিন্তু ৪০ আসতেই ওকে একটা গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে হয়। ওই সময় তার শরীরের তিনটি প্রধান অঙ্গ দুর্বল হয়ে পড়ে।।।
.
১. থাবা( পায়ের নখ) লম্বা ও নরম হয়ে যায়।।। শিকার করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে।।।
.
২. ঠোঁট টা সামনের দিকে মুড়ে যায়।।। ফলে খাবার খুটে বা ছিড়ে খাওয়া প্রায় বন্ধ হয়ে যায়।।।
.
৩. ডানা ভারী হয়ে যায়।। এবং বুকের কাছে আটকে যাওয়ার দরুন উড়ান সীমিত হয়ে যায়।।।
.
ফলস্বরুপ শিকার খোজা,ধরা ও খাওয়া তিনটেই ধীরে ধীরে মুশকিল হয়ে পড়ে।।। ওর কাছে তিনটে পথ খোলা থাকে।
.
১. আত্নহত্যা
২. শকুনের মত মৃতদেহ খাওয়া
৩. নিজকে পুনরস্থাপিত করা।
.
ও একটা উচু পাহাড়ে আশ্রয় নেয়।।। সেখানে বাসা বাঁধে।। আর শুরু করে নতূন প্রচেষ্টা।
.
সে প্রথমে তার ঠোঁট টা পাথরে মেরে মেরে ভেঙে ফেলে। এর থেকে যন্ত্রণা আর হয় না।।। একইরকম ভাবে নখ গুলো ভেঙে ফেলে আর অপেক্ষা করে নতূন নখ ও ঠোঁট গজানোর।।।
.
নখ ও ঠোঁট গজালে ও ওর ডানার সমস্ত পালক গুলো ছিড়ে ফেলে।। কষ্ট সহ্য করে অপেক্ষা করতে থাকে নতূন পালকের।। ১৫০ দিনের যন্ত্রণা ও প্রতীক্ষার পর সে সব নতূন করে পায়।। পায় আবার সেই লম্বা উড়ান আর ক্ষিপ্রতা।।
.
এরপর সে আরো ৩০ বছর জীবিত থাকে আগের মত শক্তি ও গরিমা নিয়ে।।
.
ইচ্ছা,সক্রিয়তা ও কল্পনা... আমাদের অনেকেই দুর্বল হয়ে পড়ে ৩০- ৪০ আসতেই।।। অর্ধজীবনেই আমাদের উৎসাহ, আকাঙ্খা,শক্তি কমে যায়।
.
আমাদেরও আলস্য উৎপন্নকারী মানসিকতা ত্যাগ করে,অতীতের ভারাক্রান্ত মন কে সরিয়ে ও জীবনের বিবশতা কে কাটিয়ে ফেলতে হবে বাজের ঠোঁট,ডানা আর থাবার মত।।।
.
১৫০ দিন না হলেও ১মাসও যদি আমরা চেষ্টা করি তাহলে আবার আমরা পাবো নতূন উদ্যম, অভিজ্ঞতা ও অন্তহীন শক্তি।।।
.
নিজেকে কখনোই হারাতে দেবেন না আর হার ও মানবেন না!!!!

*গল্প* *জীবন* *শিক্ষা* *আদর্শ* *বাজপাখি* *নৈতিকতা* *জীবন* *উদ্যম*
*জীবন* *শিক্ষা* *আদর্শ* *বাজপাখি* *নৈতিকতা* *জীবন* *উদ্যম*

★ছায়াবতী★: মনোবিজ্ঞানীদের গবেষনায় দেখা যায় যেসব ছেলেমেয়ে মা-বাবার পর্যাপ্ত আদর-যত্ন পায় না, তারা প্রায়ই কুসঙ্গে পড়ে মাদকাসক্ত হয় এবং এর জন্য তিনটি বিষয়কে তারা চিহ্নিত করেছেন : Friend, Fun ও Frustration। আসলে সন্তান ‘রেইজিং’ বা পালন খুবই কঠিন। টিনএজাররা খুবই আবেগপ্রবণ এবং তাদের সমস্যাবলী বেশির ভাগই মা-বাবার অজানা থাকে। এর ফলে তাদের Wonder age এবং মা-বাবার Real world-এর মাঝে সৃষ্টি হয় বিস্তর ব্যবধান এবং গড়ে ওঠে অদৃশ্য এক দেয়াল। যা ভাঙা অনেক কষ্টকর হয়ে যায়(চিন্তাকরি)(চিন্তাকরি)

*প্যারেন্টিং* *অবক্ষয়* *নৈতিকতা* *সমাজ*
৪/৫

মেঘবালক: [বেশবচন-ভাইথামেন]নৈতিকতা শিক্ষা দেওয়াটা বাবা-মা'র কাছে তেমনি গুরুত্বপূর্ণ যেমন শিক্ষা, চিকিৎসা, অন্ন, বস্ত্র ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ। নৈতিকতার অবক্ষয় যত হবে সমাজে বিশৃংখলা তত বাড়বে কারন, একমাত্র নৈতিক শিক্ষাই উত্তম চরিত্রের রক্ষক।(খুকখুকহাসি)

*নৈতিকতা*

লিজা : একটি বেশব্লগ লিখেছে

বাবা মায়ের হৃদয় নিংড়ানো ভালোবাসা নিয়ে বেড়ে ওঠে সন্তান, বেড়ে ওঠে তার মানসিকতাও। সন্তানের শারীরিক সুস্থতা বজায় রেখে বেড়ে উঠতে পুষ্টিকর খাবার দরকার। অপরদিকে তার আদর্শ ও নৈতিক মানসিকতার বিকাশে দরকার উপযুক্ত সংস্কৃতি চর্চা। তাই প্রতিটি বাবা-মায়ের উচিৎ সন্তানের মানসিকতা গঠন যেন আদর্শ সংস্কৃতির গাঁথুনি দিয়ে হয় সে বিষয়ে নিশ্চিত করা। ছোটবেলা থেকেই কিছু বিষয়ে সচেতন পদক্ষেপ নিলে শিশুরা বুদ্ধিদীপ্ত ও শাণিত মেধা সম্পন্ন হতে পারে। সন্তানকে যেকোনো বিষয়ে প্রশ্ন করার ব্যাপারে উৎসাহিত করতে হবে। তার সব কথার সঠিক জবাব দিয়ে জানার জগৎকে প্রসারিত করা যেতে পারে। শিশু ছোট থেকেই মত প্রকাশ করার সুযোগ পেলে নিজের ভাবনার জগৎ বড় হবে।

শিশুর ভাবনার জগৎকে প্রসারিত করতে নানা ধরনের গল্প বা ছড়ার বইও উপহার দিতে পারেন। সেগুলো তার সামনে বার বার অভিনয় করে পড়ে তার আগ্রহ বাড়িয়ে তুলতে পারেন। নতুন আবিষ্কার সম্পর্কেও তার আগ্রহ এভাবে বাড়িয়ে তোলা সম্ভব।

শিশুকে ছোট থেকেই ধর্মীয় শিক্ষা চর্চার প্রতি আগ্রহী করে তোলা উচিৎ। তাতে তার নৈতিকতার বিকাশ ঘটতে সহায়ক হয়।

শিশুকে আবেগ অনুভূতির বিষয়ে শিক্ষা দিতে হবে ছোটবেলা থেকেই। ভালো-খারাপ, কোন বিষয়ে খুশি বা আনন্দিত হতে হবে, কোন বিষয়ে দুঃখিত হতে হবে এসব বিষয়ে শিশুকে বুঝিয়ে বলুন।

শিশুর সঙ্গে খেলাধুলার সময়টি আরও বেশি কার্যকরী করে তুলতে পারেন। যেমন, ছবি দেখিয়ে কোনকিছু চেনানো বা বোঝানো যেতে পারে।

বাসায় সন্তানের জন্য সৃজনশীল পরিবেশ বজায় রাখুন এবং শিশুকে সৃজনশীল কোন কিছুতে যুক্ত রাখার চেষ্টা করুন। যেমন ছবি আঁকা, নাচ-গান, কবিতা আবৃত্তি, সাহিত্যচর্চা বা খেলাধুলার কাজে মগ্ন থাকলে শিশু বেশ দ্রুত বুদ্ধিদীপ্ত হয়ে উঠতে পারে।

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে, শিশুদের ভালো কোন কাজের প্রশংসা করলে তারা বারবার সেই কাজে কিংবা আরও ভালো কাজে যুক্ত হতে চেষ্টা করে। তাই শিশুদের প্রশংসা করার ব্যাপারে বাবা-মায়ের উদার মানসিকতার পরিচয় দিতে হবে। কোনো ভুল করলেও ভালো ব্যবহারের মাধ্যমে বুঝিয়ে দেওয়া দিলে সে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বাজে কাজ থেকে দূরে থাকবে। (সংগ্রহীত)



*আদর্শসংস্কৃতি* *নৈতিকতা* *প্যারেন্টিং* *সন্তানপালন* *শিশুরভবিষ্যত*
৪/৫

হাফিজ উল্লাহ: "কোন কিছু করার পরে যা ভাল মনে হয় তাই হল নৈতিকতা, আর যা করার পরে খারাপ মনে হয়, তাই হল অনৈতিকতা"। - আর্নেষ্ট হেমিংওয়ে

*নৈতিকতা* *অনৈতিকতা* *সেরামবচন*

★ছায়াবতী★: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আজকাল মানুষের দৃষ্টিভংগি এমন যে মেয়ে ০ স্লিমনাহথেকে শুরু করে ছোকরা এমনকি বিয়ের বাজারে মহিলারকাআন্টিরাও ঐ স্লিমের পুজারি। তারা সৌন্দর্য শব্দটি খুঁজে গলার হাড়ের ভেতর।

গলার হাড় দেখাতে গিয়ে ত অল্প বয়সে হাড় ক্ষয়, গর্ভধারণ ক্ষমতা হ্রাস,অপুষ্ট সন্তান জন্মদান ইত্যাদির মত সমস্যার জন্ম দেয়। এগুলো মিডিয়ার নির্মাণ । ফর্সা নাহলে নাকি চাকরি হবেনা,বিয়ে হবেনা। ফেয়ার এন্ড লাভলী মেখে নাকি যৌতুক বন্ধ হয়ে যায়।
(ঘৃণা)(বেইলনাই)(চিন্তাকরি)(মানিনা)
এসব নির্মান অসুস্থ্য মানসিকতার পরিচয় দেয় খুব বাজে এক ধরনের হতাশা ক্রিয়েট করে। সবাই ব্যাহ্যিক দিক নিয়ে মেতে আছে কেউ ভেতরের মনুষ্যত্ব কে দেখার প্রয়োজন মনে করেনা। কোন মানুষই স্বয়ংসম্পূর্ণ নয়।

<'মোটা-চিকনের অসুস্থতা' থেকে একবিংশ শতাব্দীর লোকেরা একসময় বেরিয়ে আসবে, এটা স্রেফ একটি কামনা মাত্র !!! নীচের লাইন তিনটা কালেক্টেড >
*ডিসকোর্স* *শুভবিবাহ* *যৌতুক* *স্বয়ংসসম্পূর্ণ* *সুশীলসমাজ* *নীতিকথা* *সেরামবচন* *সচেতনতা* *নৈতিকতা* *সভ্যতা* *দৃষ্টিভঙ্গি* *লোককথা* *পাছেলোকেকিছুবলে* *কুসংস্কার*

ইউসুফ: মূল্যবোধের প্রাথমিক বুনিয়াদী শিক্ষাটা পেয়েছিলাম পরিবারেই। আজকালকার এই কঠিন প্রতিযোগিতা আর ব্যস্ততার দুনিয়ায়, দম্পতির দু'জনকেই যেভাবে কর্মস্থলে ছুটতে হয় তাতে এই অমূল্য শিক্ষা থেকে আমাদের সন্তানরা বঞ্চিত হচ্ছে। প্রযুক্তি আর বস্তুবাদের পঙ্কিল রাহুগ্রাস থেকে আগে থেকেই ওদের রক্ষা করতে নৈতিকতা আর মূল্যবোধের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা শুরু করবার তাই এখনই সময়।

*মূল্যবোধ* *নৈতিকতা*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★