পূজার খাবার

পূজারখাবার নিয়ে কি ভাবছো?

ফিটকিরি: যদিও কোনো ধর্মীয় বোধ আমার মধ্যে কাজ করে তবে যেহেতু এই সমাজে বেড়ে উঠেছি তাই পূজা ঈদ এই সকল ধর্মীয় অনুষ্ঠান এড়িয়ে চলার উপায় নাই | পুজো ঈদের দাওয়াত পাই | পূজোতে নারকেলের নাড়ু , তিলের নাড়ু আমার খুবই প্রিয় | পূজো শেষে ড্রিঙ্কস পার্টিতা সবচেয়ে বেশি প্রিয়

*পূজারখাবার*
ছবি

দীপ্তি: ফটো পোস্ট করেছে

পূজায় রাঁধুন দারুন স্বাদের চিংড়ির কাচ্চি বিরিয়ানি

উপকরণ- চাল- এক কেজি চিংড়ি - হাফ কেজি আদা ও রসুন বাটা- ১ টেবিল চামচ করে টক দই- হাফ কাপ হলুদ মরিচ গুঁড়ো - আন্দাজ মত গরম মসলা গুঁড়ো- ১ চা চামচ পেঁয়াজ বাটা- ১/২ কাপ টমেটো সস- ১/২ কাপ বেরেস্তা ও ডিম- সাজানর জন্য তেল- ১/ কাপ লবণ পরিমান মত আলু কিউব করে কেটে ভেজে নিতে হবে প্রণালি- -প্রথমে যতটুকু চালের বিরিয়ানী রান্না করবেন ততটুকু চাল ভাপিয়ে নিন। ভাত রান্নার মতো ১ বলক দিলেই পানি ঝরিয়ে নেবেন। বাসমতী চাল হলে ভালো। পোলাও চাল হলেও চলবে। -এরপর চিংড়িগুলোকে খোসা ছাড়িয়ে পরিষ্কার করে নিন। এই চিংড়িগুলোকে মরিচ গুঁড়ো,লবণ,আদা বাটা, রসুন বাটা, পেঁয়াজ বাটা,গরম মশলা, তেজপাতা, টমেটো সস এবং টক দই দিয়ে মাখিয়ে ১ ঘন্টার জন্য মেরিনেট করে রাখুন। -তারপর তেল গরম হলে উচ্চতাপে মশলা সহ চিংড়ি বাদামী না হওয়া পর্যন্ত ভুনতে হবে। এরপর আগে থেকে ভেজে রাখা আলু ও অল্প পরিমাণে পানি দিয়ে রান্না করতে হবে এবং মাখো মাখো হয়ে গেলে নামাতে হবে। -এরপর চিংড়ি গুলো মশলা সহ একটি বাটিতে উঠিয়ে নিন। ওই একই ওই হাঁড়িতে ১ লেয়ার ভাপানো চাল দিয়ে তার উপর চিংড়ি গুলো মশলাসহ ছড়িয়ে দিন। উপরে আরেক লেয়ার চাল দিয়ে সাজিয়ে বেরেস্তা ছিটিয়ে দিন। এরপর পাত্রের মুখ ভালোমত বন্ধ করে দমে রাখুন এক ঘণ্টা। গরম গরম চিংড়ির কাচ্চি বিরিয়ানি পরিবেশন করুন সালাদের সাথে। সঙ্গে সামান্য মশলা মাখা দই, শশা-পেঁয়াজ কুচি দিয়ে রায়তাও বানিয়ে নিতে পারেন। তাহলে বেশ জমবে। -পেঁয়াজ বেরেস্তা,ডিম দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন ঝটপট মজাদার চিংড়ি বিরিয়ানী।

*চিংড়িরেসিপি* *কাচ্চিবিরিয়ানি* *চিংড়িরকাচ্চি* *রেসিপি* *পূজারখাবার*
ছবি

দীপ্তি: ফটো পোস্ট করেছে

তিলের নাড়ু

তিলের নাড়ু তৈরির উপকরণ: তিল- ২৫০ গ্রাম, গুড়-২৫০ গ্রাম, এলাচ গুঁড়ো এক চিমটি, ঘি- ১ কাপ। প্রণালী তিল শুকনো খোলায় টেলে (তেল ছাড়া ভাজা) নিয়ে পরিষ্কার করে খোসা ছাড়িয়ে নিন। এবার চুলায় একটি পাত্রে গুড় জ্বাল দিন এলাচ গুঁড়ো সহ। গুড় গলে গেলে তিল দিয়ে নাড়তে থাকুন। গুড়ের সঙ্গে তিল মিলে শক্ত হয়ে এলে নামিয়ে নিন। একটি পাত্রে তিলের মিশ্রণ ঢেলে গরম থাকতেই ঘি দিয়ে মিশিয়ে নিন। এবং গরম থাকতেই গোল গোল করে নাড়ুর আকারে বানিয়ে নিতে হবে। গোল না করতে চাইলে নিজের পছন্দ মতো যে কোনো আকারেই নাড়ু তৈরি করতে পারবেন।

*তিলেরনাড়ু* *নাড়ু* *পূজারখাবার* *রেসিপি* *মিষ্টি*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

পূজায় হরেক রকম মিষ্টিমিষ্টিমুখ ছাড়া উৎসব বেমানান। তাই ক্রেতাদের চাহিদা মেটাতে এ বার পুজোয় নানা স্বাদের মিষ্টির কালেকশন নিয়ে হাজির হয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিল ডটকম। কয়েক বছর আগেও দুর্গাপুজোর আকর্ষণ ছিল বাড়িতে বানানো মিষ্টিকে ঘিরে। রাত জেগে তৈরি করা হত রসগোল্লা, পান্তুয়া, নারিকেলের নাড়ু সহ নানা রকমের মিষ্টি। তবে এখন আগের মত করে কেউ আর মিষ্টি তৈরীতে এতটা সময় দেন না। হাতের কাছেই এখন মিষ্টির দোকান আর সরাসরি বাড়িতে বসে মিষ্টির স্বাদ নিতে আজকের ডিলের মত অনলাইন শপ গুলোতে আছেই। চলুন এবারের পূজোয় আজকের ডিল থেকে কি কি মিষ্টি কিনতে পারবেন জেনে নেই। 

রসমুঞ্জরী:

মিষ্টি কিনতে ক্লিক করুন

দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে গাইবান্ধার বিখ্যাত রসমুঞ্জরীর স্বাদ ঘরে বসেই নিতে পারবেন। স্বাদ ও গুণাগুণের কারণে গাইবান্ধার রসমঞ্জরীর রয়েছে আলাদা সুনাম। রসালো ঘন দুধের ক্ষীরের সঙ্গে খাঁটি ছানায় তৈরী মারবেল সদৃশ্য ছোট ছোট গোলাকার রসগোল্লা সমন্বয়ে তৈরী হয় এই মিষ্টি। আজকের ডিল থেকে ১ কেজি রসমুঞ্জরী কিনতে পারবেন ৪০০ টাকায়।

রসকদম:

মিষ্টি কিনতে ক্লিক করুন

মোহনীয় স্বাদ আর গুণেভরা মিষ্টির নাম রসকদম। এটি মেহেরপুরের বিখ্যাত একটি মিষ্টি। যে কোন উৎসবে এই মিষ্টি বেশ জনপ্রিয়। শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে আজকের ডিলে রসকদম ১ কেজির প্যাক পাচ্ছেন মাত্র ৪৫০ টাকায়।

বালিশ মিষ্টি:

মিষ্টি কিনতে ক্লিক করুন

বালিশ মিষ্টি বাংলাদেশের নেত্রকোনা জেলার একটি প্রসিদ্ধ মিষ্টি। এই মিষ্টি দেখতে অনেকটা কোল-বালিশের মতো মনে হলেও তা কিন্তু নয়। আদতে রসালো সুস্বাদু মিষ্টি। স্বাভাবিক মিষ্টির চেয়ে আকৃতিতে বড়। এক-একটি মিষ্টির ওজন এক কেজি পর্যন্ত হয়। খাঁটি দুধের মিষ্টির ওপর আলতো করে প্রলেপ দেওয়া হয় ক্ষীরের। এটাই নেত্রকোনার শত বছরের ঐতিহ্যবাহী ‘বালিশ মিষ্টি’ নামে সুপরিচিত।

রসমালাই:

মিষ্টি কিনতে ক্লিক করুন
ভোজনরসিক কাউকে যদি জিজ্ঞাসা করা হয় কুমিল্লা মানে কি? তাহলে তার জবাব দিতে একটুও সময় লাগবে না। নির্দ্বিধায় বলে দেবে কুমিল্লা মানে রসমালাই ! কুমিল্লার রসমালাই কেবল বাংলাদেশে নয় পুরো উপমহাদেশেই ভোজনরসিকদের কাছে একটি পরিচিত খাবার। দুধের রসগোল্লা বা রসমালাই অনেক জায়গাতেই তৈরি হয়। পূজা উপলক্ষ্যে আজকেরডিল থেকে ১ কেজি রসমালাই কিনতে পাবেন মাত্র ৪২০ টাকায় তাও আবার বাড়িতে বসে।

নাটরের কাঁচাগোল্লা:

মিষ্টি কিনতে ক্লিক করুন
কাঁচাগোল্লা নাটোর জেলার একটি ঐতিহ্যবাহী মিষ্টি । নাটোরের কাঁচাগোল্লা নাটোরের বনলতা সেনের মতোই আলোচিত। এ মিষ্টি গোলও নয় আবার কাঁচাও নয় তবুও নাম তার কাঁচাগোল্লা। দেশব্যাপী কাঁচাগোল্লা এর স্বাদের জন্য খুব বিখ্যাত । দুধ ও চিনি ব্যবহার করে কাঁচাগোল্লা তৈরি করা হয়। এবারের পূজোয় বাড়িতেই নিয়ে নিতে পারেন কাঁচাগোল্লা। কিনতে ঢুঁ মারুন আজকের ডিলে ১ কেজির দাম মাত্র ৫৫৫ টাকা।

বগুড়ার দই:

মিষ্টি কিনতে ক্লিক করুন
বগুড়ার দই নিয়ে নতুন করে কিছু বলা মনে হয় ঠিক হবে না। বগুড়া ছাড়া এই দুই স্পেশাল অর্ডারে ঢাকা থেকে আপনার ঘরে ঘরে পৌঁছে দিবে অনলাইন শপ আজকের ডিল। ৭৫০ গ্রামের প্যাকের দাম মাত্র ৩০০ টাকা।

রসগোল্লাঃ

মিষ্টি কিনতে ক্লিক করুন
রসে ডোবা রসালো মিষ্টির নাম রসগোল্লা। বাংলাদেশের মিষ্টিকুলের মধ্যে রসগোল্লা খুবই জনপ্রিয়। পূজার এই উৎসবকে আরও রাঙ্গিয়ে দিতে পারেন গাইবান্ধার স্পেশাল রসগোল্লা দিয়ে। আজকের ডিলে ১ কেজির রসগোল্লা প্যাক পাচ্ছেন মাত্র ৩০০ টাকায়।

বন্ধুরা এবারের পূজোয় ঘরে বসে দ্রুত গতিতে সব ধরনের মিষ্টি কিনতে এখানে ক্লিক করুন

*পূজোরমিষ্টি* *মিষ্টি* *পূজারখাবার* *স্মার্টশপিং*

ঈশান রাব্বি: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 পূজার দিনে কি কি খাবার রাখা যেতে পারে, অতিথিদের জন্যে?

উত্তর দাও (২ টি উত্তর আছে )

.
*পূজারখাবার* *মেন্যু* *অতিথিআপ্যায়ন*
ছবি

★ছায়াবতী★: ফটো পোস্ট করেছে

মুড়িঘণ্ট

যা যা লাগবে মুগডাল ২৫০ গ্রাম, বড় রুইমাছের মাথা ১টা, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, আদা বাটা ১ চা চামচ, জিরা বাটা ১ চা চামচ, গরম মসলা বাটা ২ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া ২ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া, লবণ পরিমান মতো, সয়াবিন তেল আধা কাপ। যেভাবে করবেন প্রথমে তেলে মাছের মাথাটা ভালোভাবে ভেজে নিতে হবে। এরপর সামান্য তেলে মুগডাল লালচে করে ভেজে নিন। খেয়াল রাখুন যেন পুড়ে না যায়। এবার দেড় কাপ পানি দিয়ে সেদ্ধ হতে দিতে হবে। অন্য কড়াইয়ে তেল দিয়ে সব মসলা কষাতে হবে। মাছের মাথাটা ভেঙে ওই মসলায় কষিয়ে নিন। তারপর সেদ্ধ ডাল আর ১ কাপ পানি ও মসলায় ঢেলে দিয়ে ঢেকে রাখুন কিছুক্ষণ। এবার নামিয়ে এনে পরিবেশন করুন ইচ্ছামতো।

*পূজারখাবার* *মুড়িঘণ্ট*
ছবি

★ছায়াবতী★: ফটো পোস্ট করেছে

চিংড়ির মালাইকারি

যা যা লাগবে মাঝারি চিংড়ি আধা কেজি, নারকেলের দুধ ১ কাপ, হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ, গোল মরিচের গুড়া ১ চা চামচ, লাল মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, কাঁচা মরিচ ২ থেকে তিনটা, পেঁয়াজ বাটা ২ চা চামচ, জিরা বাটা ১ চা চামচ, আদা বাটা আধা চা চামচ, এলাচ গুড়া সামান্য, লবণ পরিমান মতো, সয়াবিন তেল ১৫০ গ্রাম। যেভাবে করবেন কড়াইয়ে সামান্য তেলে চিংড়িগুলো হালকা ভেজে নিতে হবে। এবার চিংড়ি নামিয়ে বাকি তেল গরম করুন। এরপর নারকেলের দুধ ছাড়া অন্য সব উপকরণ দিয়ে ভাল করে কষাতে হবে। কষানো হলে চিংড়ি আর ১ কাপ পানি দিয়ে কড়াই ঢেকে রাখুন কিছক্ষণ। অল্প আঁচে সেদ্ধ হওয়ার পর নারিকেলের দুধ, কাঁচা মরিচ দিয়ে আবার ঢেকে দিন। ঝোল ঘন হলে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

*পূজারখাবার* *চিংড়ি-মালাইকারি*
ছবি

★ছায়াবতী★: ফটো পোস্ট করেছে

পূজার খাবারে ছানা-মটরশুঁটির ডালনা

যা যা লাগবে দুই কেজি দুধের ছানা, জিরা এক চিমটি, তেজপাতা কয়েকটি, গুঁড়া হলুদ, শুকনা মরিচ গুঁড়া, ধনে গুঁড়া, জয়ত্রি বাটা সামান্য, আদা বাটা, লবণ, কাঁচা মরিচ স্বাদমতো, তেল পরিমানমতো। যেভাবে করবেন ছানার পানি ঝরিয়ে চিপে নিয়ে কিউব করে কেটে নিতে হবে। এবার তা সোনালি রং করে ভেজে নিন। তেলে তেজপাতা ও জিরা ফোড়ন দিতে হবে। অল্প পানিতে গুঁড়া হলুদ, মরিচ, জিরা, ধনিয়া, জয়ত্রি বাটা ও আদা বাটা দিয়ে কষাতে থাকুন। কষানো মসলায় মটরশুঁটি ও কিউব করে কাটা আলু দিয়ে ২ থেকে ৩ মিনিট আবার নাড়তে থাকুন। তারপর দিয়ে দিন ভেজে রাখা ছানার টুকরা। এবার লবণ ও গরম পানি দিয়ে ঢেকে রাখুন কিছুক্ষণ। ইচ্ছে করলে কিছু ধনেপাতা কুচি ছিটিয়ে দিতে পারেন। ঝোল ঘন হয়ে এলে কাঁচা মরিচ আর ভাজা জিরার গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে নিলেই হল। গরম ভাতের সঙ্গে উৎসবের আমেজে খাওয়ার মজা বাড়বে ছানা-মটরশুটির ডালনা।

*পূজারখাবার* *ছানা-মটরশুঁটি-ডালনা*
ছবি

দীপ্তি: ফটো পোস্ট করেছে

মালপোয়া দিয়ে মিষ্টিমুখ ছাড়া শারদ উৎসব যেন বেমানান

উপকরণ: ছানা ১০০ গ্রাম, ময়দা ১ কাপ, দুধ দেড় কাপ, ছোট এলাচ গুঁড়ো অল্প, চিনি ১ কাপ, সাদা তেল প্রয়োজন মতো, বেকিং পাউডার ছোট ১ চামচ ৷ প্রণালী: প্রথমে চিনির রস মাঝারি ঘন করে রাখুন ৷ একটা পাত্রে ময়দা ছানা এক সঙ্গে ঠেসে মাখুন ৷ তাতে দুধ ঢালুন ৷ মিশ্রণটা ঘন হবে ৷ ওই মিশ্রণের মধ্য ১ ছোট চামচ বেকিং পাউডার মেশান ৷ এলাচ গুঁড়ো দিন ৷ কড়াইতে তেল গরম করে ছোট ছোট গোল হাতায় করে ময়দার মিশ্রণটি তুলে গোল গোল করে ভাজতে হবে ৷ভেজে আগে থেকে করে রাখা গরম রসে ফেলতে হবে ৷ব্যাস! রেডি টু সার্ভ ছানার মালপোয়া (পেটুক)

*মালপোয়া* *পূজারখাবার*

আমানুল্লাহ সরকার: (হ্যালো) (দেবী)(দেবী)কে কে খাবেন(পেটুক)(পেটুক) (লাড্ডু-১)(লাড্ডু-১) @Dipty আপু খাওয়াবে(ইয়েয়ে)(ইয়েয়ে)অগ্রিম দাওয়াত(কিমজা)(কিমজা) (এদিকেআসো)(এদিকেআসো)(এদিকেআসো)

*আড্ডাপোস্ট* *মিষ্টি* *পূজারখাবার*

সত্যজিৎ রায়ের নায়িকা: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 এবার পুজোতে বাসাতেই সীতাভোগ বানাতে চাই l কারো কি জানা আছে সীতাভোগের রেসিপি?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*পূজারখাবার* *সীতাভোগ* *রেসিপি* *মিষ্টান্ন*

সত্যজিৎ রায়ের নায়িকা: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 ভেজিটেবল কাটলেট কিভাবে বানাতে হয় কেউ একটু জানাবেন?

উত্তর দাও (৩ টি উত্তর আছে )

.
*ভেজিটেবলকাটলেট* *কাটলেট* *রেসিপি* *পূজারখাবার*
ছবি

দীপ্তি: ফটো পোস্ট করেছে

ষষ্ঠীর সকালে ক্ষীর পুরি ও হালুয়া

ছানা পুরি যা যা লাগবে ক্ষীর ২ কাপ, চিনি ১ কাপ, খোয়া ক্ষীর ১ কাপ, ময়দা ৫০০ গ্রাম, ঘি আধা কাপ, সয়াবিন তেল পরিমাণ মতো, লবণ স্বাদমতো। যেভাবে করবেন উষ্ণগরম পানিতে ময়দা-ঘিয়ের ময়াম দিয়ে রাখুন। পরিমাণ মতো লবণ দিতে ভুলবেন না যেন। এবার গরম কড়াইয়ে ছানা, চিনি, ক্ষীর দিয়ে নাড়তে থাকুন। একটু পর যখন সবগুলো একসঙ্গে মিশে আঠালো হবে তখন নামিয়ে নিতে হবে। আগেই করে রাখা ময়দার ময়াম দিয়ে ছোট ছোট গোল করুন। যেন একটা লুচির সমান হয়। এবার গোল ময়দার মধ্যে ক্ষীরের পুর ভরে লুচি তৈরি করুন। তারপর ডুবতেলে ভেজে নামিয়ে আনলেই হয়ে গেল ছানা পুরি। হালুয়া যা যা লাগবে সুজি ২৫০ গ্রাম, চিনি ১৫০ গ্রাম, খোয়া ক্ষীর ১৫০ গ্রাম, ঘি ১০০ গ্রাম, এলাচ গুড়া সামান্য, ৫০ গ্রাম কাজুবাদাম কুচি, ঘন দুধ ৫০০ গ্রাম, কিশমিশ, এক চিমটি কেওড়া। যেভাবে করবেন ঘি গরম করে তাতে সুজি লাল করে ভেজে নিতে হবে। তারপর তাতে দুধ ঢেলে সুজি সেদ্ধ করে নিন। সেদ্ধ হয়ে গেলে তাতে দিতে হবে চিনি, কাজু কুচি, খোয়া ক্ষীর। এবার ঘন হয়ে এলে এলাচ গুড়া আর পরিমাণমতো কেওড়ার জল দিয়ে নামিয়ে নিন। ব্যাস হয়ে গেল। অতিথি ভক্তি প্রকাশ পাবে আপনার হাতে যত্নে গড়া ক্ষীর পুরি আর হালুয়ার আপ্যায়নে, সাথে ছোলার ডালনাও রাখতে পারেন ।

*পূজারখাবার* *রেসিপি* *মহাষষ্ঠী* *পুরি* *ক্ষীরপুরি* *হালুয়া*

দীপ্তি: একটি বেশব্লগ লিখেছে

আমাদের বাড়িতে পূজার পাচ দিন সকালে লুচি, পায়েস, আলুর দম, লাবড়া, মিষ্টি, নাড়ু, মোয়া, মুড়কি, সন্দেশ, বরফি, দোসা, ইডলি, পাপড়ি চাট সহ হরেক রকম খাবারের বাহার থাকে l তবে লুচি আর আলুর দম তো প্রতিদিন থাকা চাই ই চাই l দারুন অনবদ্য খাবার এটি l আপনাদের সাথে লুচি আলুর দমের রেসিপি শেয়ার করছি l 


ফুলকো লুচি বেলতে অনেকেই মনে করেন লুচির ময়দায় বেশি করে তেল বা ঘি এর খামির দিলে লুচি ফুলবে ভালো। অনেকেই ভাবেন খামিরকে বুঝি আধ ঘণ্টা ভেজা কাপড়ে ঢেকে রাখলে লুচি ফুলকো হবে। সত্যি বলতে কি, করতে হবে না এই সব কিছুই। আপনার চট করে বানানো লুচিই হবে ফুলকো আর নরম। কেবল অনুসরণ করুন এই পদ্ধতি। 

উপকরণ- আটা/ময়দা ২ কাপ, তরল ঘি ১ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদ মত, চিনি এক চা চামচ, বেকিং পাউডার ১/২ চা চামচ (না দিলেও চলবে), পানি প্রয়োজনমত, তেল ভাজার জন্য। 

প্রণালী- ময়দার মাঝে ঘি, চিনি, সামান্য তেল, বেকিং পাওডার ও লবণ দিয়ে ময়ান দিন। প্রয়োজনমত পানি দিয়ে একটু নরম মোলায়েম খামির করুন। খামির বেশ ভালো করে হাত দিয়ে ডলে ডলে মাখান। রেখে দেয়ার প্রয়োজন নেই মোটেও। তেল গরম হতে দিন, এবং সেই ফাঁকেই ছোট ছোট লুচি বেলে গরম তেলে লাল করে ভেজে নিন। মনে রাখবেন, লুচি যেন খুব পাতলা না হয়। আবার একেবারে মোটাও না হয়। ব্যাস, রেডি হয়ে যাবে আপনার ফুলকো লুচি l 


এবার আসুন জেনে নেই, আলুর দমের রেসিপি 

উপকরণ   
আলু     ৫০০ গ্রাম
সয়াবিন তেল/ সাদা তেল  ১ টেবিল-চামচ
তেজপাতা     ১টা
চিনি     ১ চা-চামচ
লবন     স্বাদমতো
হলুদ     এক চিমটে
আমচুর (শুকনা আমের গুড়ো)   আধ চা-চামচ (না দিলেও চলবে)
গরম মশলা গোটা অথবা গুড়ো 
গাওয়া ঘি     আধ চা-চামচ
টমেটো এক কাপ 
ধনে পাতা কুচি আধ কাপ 
সেদ্ধ করে রাখা মটরসুটি

প্রণালী 
মশলার জন্য ৪টে শুকনো মরিচ, ১ টেবিল-চামচ করে গোটা সাদা জিরে, গোটা ধনে, পাঁচ গ্রাম গরম মশলা (দারচিনি, লবঙ্গ, ছোট এলাচ) চাই। আগেভাগে শুকনো খোলায় ভেজে গুঁড়িয়ে রাখতে হবে। এবার আলু আধা সিদ্ধ করে নিন। পানি ঝরিয়ে নিন। কড়াইতে তেল দিয়ে আলু লাল করে ভেজে তুলুন, এবার আদা ও পেয়াজ বাটা দিয়ে একটু ভাজুন। হলুদ, মরিচ, ধনিয়া ও লবণ দিন। অল্প পানি দিয়ে ভালো করে কশান। আলু দিয়ে দিন, অল্প একটু পানি দিন। ফুতে উঠলে পিঁয়াজ বেরেস্তা ও শুকনো খোলায় ভেজে রাখা মশলা গুঁড়া দিয়ে দিন। ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন। পানি টেনে আসলে ভালো করে নেড়ে আলু গুলো একটু ভাঙ্গা ভাঙ্গা করে দিন। এবার চিনি ও ঘি ছিটিয়ে আর একটু দমে রাখুন l এবার টমেটো, ধনে পাতা কুচি আর সেদ্ধ করে রাখা মটরসুটি দিয়ে নেড়ে ছেড়ে নামিয়ে নিন l 

*লুচি* *আলুরদম* *পূজারখাবার* *রেসিপি* *আমাররান্না*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★