পোশাক ফ্যাশন

পোশাকফ্যাশন নিয়ে কি ভাবছো?

আমানুল্লাহ সরকার: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 শ্রাগ কি ধরনের পোশাক?

উত্তর দাও (১ টি উত্তর আছে )

.
*শ্রাগ* *পোশাকফ্যাশন*

শপাহলিক: একটি বেশব্লগ লিখেছে

একুশ মানে মাথা নত না করা। একুশ মানে নব উদ্যোমে সামনে চলা।  একুশ হলো উদযাপনের প্রেরণা। একুশের স্মরণে বাঙালি আজ নানাভাবেই এ পুরো ফেব্রুয়ারি মাসকে শ্রদ্ধাভরে উদযাপন করে। একুশ উদযাপনের  এমনই এক অনুসঙ্গ হলো পোশাক। পোশাকে যদি থাকে একুশের সাজ তাহলে গর্বে বুকটা ভরে ওঠে। বন্ধুরা আজকের আয়োজন একুশের পোশাক আয়োজন নিয়ে । 
 
(কনটেন্টটির ছবিগুলোতে ক্লিক করে একুশের পোশাক সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন)
 
একুশের পোশাক ফ্যাশন
একুশে ফেব্রুয়ারিকে সামনে রেখে বাংলাদেশের দেশীয় ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রি তৈরি করে থাকে এ সময়ের উপযোগী পোশাক। নতুন করে পথচলায় বাহারি পোশাকে উদযাপন করছে ফেব্রুয়ারি। এবারের ফেব্রুয়ারির পোশাক ও বর্ণমালা এক সুতায় গাঁথা। ইতোমধ্যে কমে এসেছে শীতের প্রকোপ। তাই একুশের কালেকশনটি সাজানো হয়েছে পুরোপুরি সুতি কাপড়ে। সাদা আর কালোর সৌকর্যে বিনির্মিত এই কালেকশনে ডিজাইনাররা প্রয়াস পেয়েছেন ফ্যাশনপ্রিয়দের পছন্দকে ছোঁয়ার। স্ক্রিনপ্রিন্ট, ব্লকপ্রিন্ট, এম্ব্রয়ডারি, কারচুপি, প্যাচওয়ার্ক আর মিক্স মিডিয়ায় সুষম আর দৃষ্টিনন্দন ব্যবহারে প্রতিটি পোশাককে আকর্ষণীয় করে তোলার চেষ্টা করা হয়েছে। 
 
শাড়ি, পাঞ্জাবি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া, টি-শার্ট, শার্ট প্রভৃতি পোশাকে বিভিন্ন একুশের মোটিফ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। এবারের ডিজাইনের প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে বাংলা সাহিত্যের উদ্ধৃতি, আবার অক্ষর বিন্যাসে তৈরি করা হয়েছে চেক বা স্ট্রাইপ। পাশাপাশি বিভিন্ন মাধ্যমেও ব্যবহার করা হয়েছে একুশ লেখাটিকে। 
 
 
 
 
 
 
যেহেতু শোকাবহ একটি দিন সে কারণে কালোকে প্রাধান্য দিয়ে পোশাকগুলো ডিজাইন করা হয়েছে। তবে এ বছরে গতানুগতিক সাদা-কালোর কম্বিনেশনের বাইরে বেশ কিছু গাঢ় রঙ দিয়ে প্রস্তুত করা হয়েছে পোশাকগুলো। যেমন এ্যাশ, কফি কালার, পীত কালারসহ আরও কিছু নতুন রঙ। বেশিরভাগ ড্রেসই ফুলস্লিভ।  শাড়িতে হ্যান্ড স্প্রে এবং হাতের কাজ এবং কারচুপির কাজ লক্ষণীয়। সরাসরি কিংবা প্রতীকীভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে একুশের ভাবাবেগ। ডিজাইনে তুলে ধরা হয়েছে শহীদ মিনারের প্রতিকৃতি, স্বরবর্ণ ব্যঞ্জনবর্ণ। ডিজাইনের ভেরিয়েশন লক্ষ্য করা যায় টিশার্টে। মিছিল, বিভিন্ন অক্ষর, শহীদ মিনার, বজ্রমুঠি ইত্যাদি স্কেচ, এ্যাম্বুস, স্ক্রিনপ্রিন্ট, হ্যান্ড পেইন্টের মাধ্যমে টিশার্টগুলো ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। তবে শুধু মাত্র কালার কম্বিনেশন দিয়েই পোশাকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে একুশ। অর্থাৎ সাদা এবং কালো রঙের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছে পোশাক। 
 
কোথায় পাবেন দাম কেমন?
রাজধানীর অঞ্জনস, নগরদোলা, এড্রয়েট, অবরা,রং, বালুচর, সাদাকালোর মত ফ্যাশন হাউজ গুলোতে একুশের সব আয়োজন এক সাথে পেয়ে যাবেন। এছাড়াও দেশের ছোট বড় সব ধরনের ফ্যাশন হাউস গুলোতেও একুশের পোশাক কালেকশন রয়েছে। দাম ২০০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০০ টাকার মধ্যে। ও আরেকটি কথা বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিংমল আজকের ডিলে রয়েছে একুশের চমকপ্রদ সব আয়োজন। যারা ঘরে বসে একুশের পোশাক কিনতে চান তারা অনলাইন শপিংমল আজকের ডিলের ওয়েবসাইটে গিয়ে পছন্দমত অর্ডার করে কিনে নিতে পারবেন। আপনার চাহিদা মত দেশের যে কোন প্রান্তে তারা আপনার পন্যটি পৌঁছে দেবে।
 
একুশের পোশাক কালেকশন দেখতে এখানে ক্লিক করুন
*একুশেরফ্যাশন* *পোশাকফ্যাশন* *অমরএকুশ* *শপিং* *কেনাকাটা*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★