প্রকৃতি

প্রকৃতি নিয়ে কি ভাবছো?

দস্যু বনহুর: একটি বেশব্লগ লিখেছে

হাতে কোন কাজ নেই। দুপুরের রোদ গড়িয়ে বিকেলের স্নিগ্ধতা নামছে। হেঁটে যাচ্ছি একটা পার্কের পাশ দিয়ে। ভিতরে ঢুকতে ইচ্ছে হচ্ছেনা। ফুটপাতে তেমন লোকজন নেই এলাকাটা ভি আই পি বলে রিক্সা নেই শুধুই গাড়ী কিংবা সিএনজি চলছে। পায়ে হাঁটা মানুষও খুব কম। বন্ধুরা বিছিন্ন হয়ে আছি আমরা কোথায় যাব কোন গন্তব্য নেই। হঠাত দিক পরিবর্তন করে ঢুকে পড়লাম মন্ত্রী পাড়ায়। এখানকার পরিবেশটা দারুন। স্বাস্থ্য সচেতন কিছু মানুষ বিকেলের শুরুতেই ফুটপাতে নেমেছে। সবাই চায় শরীরকে সূস্থ্য রাখতে। আমিও হাঁটছি কিন্তু স্বাস্থ্যের জন্য নয় কিসের জন্য তাও জানিনা! হেঁটে হেঁটে চলে এলাম বেইলী রোডের চৌরাস্তার মোড়ে। ডান দিকে কাকরাইল মসজীদ বাঁ দিক চলে গেছে বড় মগবাজারের দিকে। রাস্তা পাড় হয়ে বেইলী রোডের রাস্তার ফুটপাতে উঠে হাটতে শুরু করলাম বাম পাশে কলোনী। হঠাত দাঁড়িয়ে পড়লাম একটা দৃশ্য দেখে। একজন বুড়ো মানুষ খুব যত্ন করে একটা গাছে্র চারা লাগাচ্ছে ফুটপাতের ঠিক পাশেই কলোনীর ফেঞ্চ এর ভিতরে। আমি দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখছি, লোকটি খুব যত্ন করে একটা গর্ত খুড়ে প্লাস্টিকের ব্যাগ থেকে সম্ভবত কম্পোস্ট মাটি সেই গর্তে ঢাললো তারপর ছোট্ট একটা চারা গাছ সেই গর্তে বসিয়ে দিলো এতক্ষন লোকটির চেহারার দিকে তাকাইনি তার কাজ দেখছিলাম। সে নিখুঁতভাবে গাছের চারা বুনছিলো মনে হচ্ছে উনি বেশ ভালভাবেই জানে কি করে গাছের চারা বুনতে হয়। চারাটা গর্তে রেখে উনি একটু দূরে গিয়ে লক্ষ্য করতে থাকলেন যে গাছের চারাটা কি সোজা করে লাগানো হল কিনা! ফিরে এসে আবার গাছের চারাটা একটু ঠিকঠাক করে আবার দূরে গিয়ে লক্ষ করে বেশ একটা তৃপ্তির চেহারা নিয়ে ফিরে এসে মাটি দিয়ে ভরাট করে অল্প একটু পানি ছিটিয়ে দিয়ে সরাসরি আমার দিকে তাকালেন। আমি আসলে ভাবতেই পারিনি উনি আমায় লক্ষ্য করেছেন! আমার দিকে তাকিয়ে উনি জিজ্ঞাসা করলেন জীবনে কখনো গাছের চারা বুনেছো? আমি একটু অপ্রস্তুত হয়েই বললাম হ্যাঁ বুনেছি! উনি আবার জিজ্ঞাসা করলেন কয়টা বুনেছো? আমি বললাম দুই তিনটা হবে! উনি বললেন, তাও ভাল। আমিত ভেবেছিলাম তুমি বলবে একটাও না। এই যে দেখছো গাছের চারাটা বুনে দিলাম এটা আমার জীবনের তিন হাজারতম গাছের চারা আর তুমি হচ্ছো এই তিন হাজারতম গাছের চারা বুনে দেবার শাক্ষী। আমি হেসে বললাম, আমি আর কি শাক্ষী, যে গাছ আপনি বুনলেন সেই আজীবন শাক্ষী হয়ে রইল। বুড়ো লোকটি গাছ লাগানোর সরঞ্জাম নিয়ে ঘুরে দাড়ীয়ে চলে যেতে যেতে বলল যে দুই হাজার নয়শত নিরানব্বইটি গাছের চারা আমি বুনেছি তার কয়টা জীবন্ত হয়ে আকাশের পানে উঠে গেছে তার কোন শাক্ষী নেই, আমিও আর দেখিনি তাদের, জানিনা তারা বড় হয়েছে কি মরে গেছে। বৃদ্ধ কথাগুলো বলতে বলতেই চলে গেলেন। আমি আবার হাটঁতে থাকলাম বেইলী রোডের ফুটপাতে। মনে মনে ঠিক করলাম যত বছর বাঁচব প্রতি বছর অন্তত একটা করে গাছ লাগিয়েও যদি যাই তাই বা কম কি! মানুষ মরে যায় কিন্তু একটা গাছ বেঁচে থাকে অনেক অনেক বছর।

*প্রকৃতি* *গাছ_লাগান_পরিবেশ_বাঁচান* *দস্যু_বনহুর*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

তুমি আমার কেমন বন্ধু ? প্রকৃতির দান একটু পানি চাইলাম তাও তুমি দিলে না ?
*পানি* *বন্ধু* *প্রকৃতি*
ছবি

A1-Mamu9 রাসেল: ফটো পোস্ট করেছে

নাম না জানা ফুল

আমার তোলা ছবি

*ফুল* *প্রকৃতি*
ছবি

A1-Mamu9 রাসেল: ফটো পোস্ট করেছে

জবা ...

আকাশ ছোয়া স্বপ্ন ...

*ফুল* *আকাশ* *প্রকৃতি*
ছবি

A1-Mamu9 রাসেল: ফটো পোস্ট করেছে

নীল অপরাজিতা

*ফুল* *প্রকৃতি*
ছবি

দীপ মজুমদার: ফটো পোস্ট করেছে

নিস্তব্ধতা বিশালত্বতা ভাবনার জন্ম দেয়......

ল্যান্ডস্ক্যাপে তুলতে বড়ই ভালো লাগে

*প্রকৃতি* *ভালোলাগা*
ছবি

দীপ মজুমদার: ফটো পোস্ট করেছে

প্রকৃতির ছোয়া.....

*ভালোবাসা* *প্রকৃতি* *মিষ্টি* *হাসি*
ছবি

সাদাত সাদ: ফটো পোস্ট করেছে

সাদ ফটো শেয়ার করেছে

*ফটোগ্রাফি* *আমারছবি* *ফুল* *বিচিত্রছবি* *শখের-ফটোগ্রাফি* *সাদফটোগ্রাফি* *মজারছবি* *সাদ* *শখেরফটোগ্রাফি* *মরুভূমি* *আরব* *প্রিয়ছবি* *বেশতোফটোগ্রাফার* *বেশতোছবি* *বেশতোফটো* *বেশতোচিত্র* *প্রকৃতি* *আকাশেরছবি* *চিত্রকর্ম* *সুন্দরছবি* *অন্যরকমছবি* *ছবি*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

রংধনুর পর্বত! শুনতেই অবাক লাগে! কোনো রুপকথা নয় , চীনের Zhangye Danxia ল্যান্ডফর্ম ভূতাত্ত্বিক পার্কের রেনবো পর্বতমালা বিশ্বের একটি ভূতাত্ত্বিক আশ্চর্য। এই বিখ্যাত চীনা পর্বতমালা পারলৌকিক রং দ্বারা তৈরি ঘূর্ণায়মান পাহাড়ের উপর আঁকা রামধনুর জন্য জন্য পরিচিত।






এটি সম্ভবত প্রথম উদাহরণ যেখানে ভূতত্ত্ব আমাদের মনোযোগ কেড়ে নিতে বাধ্য এনং প্রশ্ন আসে রেনবো পর্বতমালা কি উপায়ে রঙ্গিন হয়? এখানে আমি diagenetic এবং mineralogical প্রসেস নিয়ে কিছু বলব যার মাধ্যমে এই পাহাড় লাল, সবুজ , হলুদ এবং নীল রঙে পরিণত হয়.


Zhangye Danxia ন্যাশনাল পার্ক ২০০ বর্গমাইল নিয়ে চীন উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে গানসু প্রদেশে অবস্থিত। ২০০৯ সালে এটি ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান নামে নামকরণ করা হয় এবং অনেক চীনা এবং আন্তর্জাতিক পর্যটকদের জন্য গন্তব্যে পরিণত হয়.

নিশচয় ভাবছেন, রেনবো পর্বতমালা কিভাবে ফর্ম হয়?


*বেশটেক* *বেশম্ভব** *





রেনবো পর্বতমালা ক্রিটেসিয়াস বেলেপাথর ও siltstones নামের পাথর দ্বারা গঠিত হয় যেটি হিমালয় পর্বতমালার গঠনেরও আগের কথা। যে রং আমরা আজ দেখতে পাই, তা বালি, পলি লোহা এবং ট্রেস খনিজ গঠনের মূল উপাদানের সন্নিবেশের জন্যই তৈরি। প্রায় ৫৫ মিলিয়ন বছর আগে ভারতীয় প্লেট এবং ইউরেশীয় প্লেটের মধ্যে দ্বন্ধের কারণে একটি স্তরপূর্ণ অনুভূমিক এবং ফ্ল্যাট স্তরবিন্যাস ব্যাহত হয়েছিল। অনেকটা দুটি গাড়ি একটি রেকে উঠিয়ে নিলে যা হয়, গাড়ি দুটা একই রেকে নিজেদের মধ্যে দ্বন্ধে লিপ্ত হবে এবং তাদের ফ্ল্যাট অংশ ভাঙতে থাকবে, একই প্রক্রিয়ায় রেনবো পর্বতমালার ফ্ল্যাট বেলেপাথরে হয়েছিল। এই প্রক্রিয়া পাললিক শিলার যে অংশ মাটির নিচে লুকিয়ে ছিল তা উদ্ভাসিত করে পর্বতের ওপর অবস্থান নেয়। ওয়েদারিং এবং ক্ষয় মহাদেশীয় siliciclastic শিলার উপরিতলের স্তর মুছে ফেলে বিভিন্ন ধাতুবিদ্যা এবং রসায়নের সঙ্গে অন্তর্নিহিত গঠনে উদ্ভাসিত হয়।





এই রেনবো পর্বতমালা জুড়ে থাকা রং গুলো আকর্ষণীয় প্রকরণ ঘটায়। কিভাবে রেনবো পর্বতমালা গঠিত হয় তার একটি ধারণা পেলেন। এবার আমরা কিভাবে এই রঙ দেখতে পাই একটু আলোচনা করা যাক। ত্বরান্বিত ভূগর্ভস্থ বেলেপাথর শস্য মাধ্যমে চলে আসে এবং শস্য মধ্যবর্তী খনিজ ট্রেসে পরিণত হয়। এই প্রক্রিয়া বিশ্বজুড়ে বেলেপাথর এর পারলৌকিক রং জন্য অনুমতি দেয়!

এই পর্বতের বেলেপাথরের প্রাথমিক রঙ গভীর লাল। লাল রঙের বেলেপাথরের মধ্যে, একটি আয়রন অক্সাইড লেপ সংযোজন আছে, যা মূল্যবান্ আকরিক লৌহবিশেষ (Fe2O3) নামেও পরিচিত এ কারণে.

ওয়েদারিং, পানি ও অক্সিজেনের সঙ্গে মিশ্র আয়রন অক্সাইড মৌল লোহা তৈরি করে, যা তার গাঢ় লাল রঙের জন্য উল্লেখযোগ্য। রেনবো পর্বতমালা মূলত তার বেলেপাথর Danxia গঠনের এই আয়রন অক্সাইড এর কারণে চিহ্নিত করা যায়।

মাঝে মাঝে আয়রন অক্সাইড অধিকাংশই একটি গাঢ় লাল রঙ্গক জ্ঞাপন, তবে সেখানে অক্সাইড বিভিন্ন রং গঠন করে। উদাহরণস্বরূপ, জারিত limonite বা goethite বেলেপাথর এ বাদামী বা হলুদ পুনরায় উত্পাদন হবে, এমনকি ম্যাগনেটাইট কালো বেলেপাথর পুনরায় গঠন করতে পারে, যদি সেখানে লোহার সালফাইড থাকে। আবার, সালফার দ্বারাএকটি ধাতব হলুদ রঙ তৈরি হয়ে থাকে। এদিকে, সবুজ রং তৈরি হয়য় ক্লোরাইট বা লোহা সিলিকেট এঁটেল কারণে। এগুলো মাত্র কিভাবে বেলেপাথর diagenesis এর সময় রং পরিবর্তন করা যেতে পারে কিছু উদাহরণ! আরো অনেক উপাদানের দরুনও এখানে অনেক রঙ উৎপাদন হয়ে থাকে!






ভাগ্যক্রমে ঠিক এই একই প্রক্রিয়া দেখতে, আপনাকে উত্তরপশ্চিমাঞ্চলে চীন ভ্রমণ করতে হবে না। এডভ্যাঞ্চারে যান এবং সর্বাঙ্গে একটি লাল রং আছে এমন শিলা চেনার চেষ্টা করুন! হয়ত আপনি একটি আয়রন অক্সাইড দাগী বেলেপাথর চিহ্নিত করে ফেলতেও পারেন!. পেলে জানাবেন কিন্তু!

রংধনুর পাহাড়ের গল্প এখানেই শেষ করছি!

তথ্য সূত্রঃ ফোর্বস ম্যাগাজিন

ছবিঃ গুগল থেকে নেওয়া

 

 

 

*বেশম্ভব * *রংধনু* *পর্বত* *চীন* *প্রকৃতি* *পরিবেশ*

*বেশম্ভব** *রংধনু* *পর্বত* *চীন* *প্রকৃতি*
ছবি

সাদাত সাদ: ফটো পোস্ট করেছে

নাম না জানা ফুল :D

কত না হাজার ফুল ফুটে ধরণীতে, তার কিছু ফুল দিয়ে গাঁথা হয় মালা বাকি ফুল ফুটে অঝরে ঝরে যেতে ....

*ফটোগ্রাফি* *আমারছবি* *ফুল* *বিচিত্রছবি* *শখের-ফটোগ্রাফি* *সাদফটোগ্রাফি* *মজারছবি* *সাদ* *শখেরফটোগ্রাফি* *মরুভূমি* *আরব* *প্রিয়ছবি* *বেশতোফটোগ্রাফার* *বেশতোছবি* *বেশতোফটো* *বেশতোচিত্র* *প্রকৃতি* *আকাশেরছবি* *চিত্রকর্ম* *সুন্দরছবি* *অন্যরকমছবি* *ছবি*

প্যাঁচা : পোলার শিফট...যদিও এই ফেনোমেনাটিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল সকল বিজ্ঞানীদের উচ্চারণ করা থেকে...হাহাহাহা...কিন্তু এখন হয়ত এটাই রূঢ় বাস্তবতা হতে চলেছে।কি হবে কে জানে যখন সংঘটিত হবে। https://www.youtube.com/watch?v=pGKKzsRjJ_Y

*পৃথিবী* *ম্যাগনেটিজম* *প্রকৃতি*
ছবি

সাদাত সাদ: ফটো পোস্ট করেছে

সোনালী আকাশ

অসম্ভব সুন্দর ছিল আকাশ টা, দেখে মনে হয়েছিল অগ্নিদগ্ধ আকাশ ছবিতে এতটা সুন্দর ভাবে প্রকাশ পায়নি (মনখারাপ) :(:( (মনখারাপ)

*ফটোগ্রাফি* *সাদফটোগ্রাফি* *আমারছবি* *আকাশেরছবি* *বিচিত্রছবি* *শখের-ফটোগ্রাফি* *মজারছবি* *সাদ* *শখেরফটোগ্রাফি* *আরব* *প্রিয়ছবি* *বেশতোফটোগ্রাফার* *বেশতোছবি* *বেশতোফটো* *বেশতোচিত্র* *প্রকৃতি* *চিত্রকর্ম* *সুন্দরছবি* *অন্যরকমছবি* *ছবি*
ছবি

সাদাত সাদ: ফটো পোস্ট করেছে

সকাল বেলা

*অচেনাগাছ* *বিচিত্রছবি* *আমারছবি* *ফটোগ্রাফি* *শখের-ফটোগ্রাফি* *সাদফটোগ্রাফি* *মজারছবি* *সাদ* *শখেরফটোগ্রাফি* *মরুভূমি* *আরব* *প্রিয়ছবি* *বেশতোফটোগ্রাফার* *বেশতোছবি* *বেশতোফটো* *বেশতোচিত্র* *প্রকৃতি*
ছবি

সাদাত সাদ: ফটো পোস্ট করেছে

অচেনা একটি গাছ

এই গাছ টা মরুভূমিতে দেখা যায়, বিচিত্র একটি গাছ। এই গাছে পাতা গজায় না কখনোই। ছবিতে যেমন দেখা যাচ্ছে ঠিক তেমনই থাকে সবসময়। এই ছবি বেশতো তে দেয়ার মূল উদ্দেশ্য হল, গাছ টার নাম জানা। আশা করছি কেউ না কেউ এই গাছটার নাম জানাতে পারবেন (ইয়েয়ে)

*অচেনাগাছ* *বিচিত্রছবি* *আমারছবি* *ফটোগ্রাফি* *শখের-ফটোগ্রাফি* *সাদফটোগ্রাফি* *মজারছবি* *সাদ* *শখেরফটোগ্রাফি* *মরুভূমি* *আরব* *প্রিয়ছবি* *বেশতোফটোগ্রাফার* *বেশতোছবি* *বেশতোফটো* *বেশতোচিত্র* *প্রকৃতি*

Mahi Rudro: [গ্রীষ্ম-অত্যাচারী]দারুণ অগ্নিবাণে রে হৃদয় তৃষায় হানে রে রজনী নিদ্রাহীন, দীর্ঘ দগ্ধ দিন আরাম নাহি যে জানে রে। শুষ্ক কাননশাখে ক্লান্ত কপোত ডাকে করুণ কাতর গানে রে।....

*গ্রীষ্ম* *প্রকৃতি* *রবীন্দ্রনাথ*
ছবি

সাদাত সাদ: ফটো পোস্ট করেছে

বাবুই পাখির বাসা

বরই গাছে বাবুই পাখির বাসা। জীবনে প্রথম দেখলাম, তাও আবার বিদেশের মাটিতে (ইয়েয়ে)

*পাখিরবাসা* *বাবুইপাখি* *আমারছবি* *সাদফটোগ্রাফি* *ফটোগ্রাফি* *সাদ* *গাছ* *বিচিত্রছবি* *অন্যরকমছবি* *আরব* *প্রকৃতি*
ছবি

সাদাত সাদ: ফটো পোস্ট করেছে

শীতের সকালে একদিন

আল ওয়াঝ সমুদ্রের কিনারে সারিবদ্ধভাবে দাড়িয়ে আছে এমন অনেক ফুলের গাছ (ইয়েয়ে)

*আমারছবি* *সাদফটোগ্রাফি* *ফটোগ্রাফি* *সাদ* *গাছ* *বিচিত্রছবি* *অন্যরকমছবি* *বেশতোছবি* *প্রকৃতি*

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★