প্রিয়

প্রিয় নিয়ে কি ভাবছো?

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: "প্রিয় মা, জানি বোঝো তুমি সবটা আমার কখনো খুলে বলা হোলো না ভালবাসি তোমায় কতটা"

*মা* *প্রিয়* *ভালোবাসি*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: “ আমার কিছু কথা ছিলো কিছু দুঃখ ছিলো আমার কিছু তুমি ছিলো তোমার কাছে ” #নীলাদ্রি_ফ্যাক্ট

*তুমি* *প্রিয়* *আবেগ* *ভালোবাসা*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

এ জনমে শুধুু তোমাকেই চাই

নয়ত কালকেই আমি রাজপথের ভিখিরি হব

এই তোমাকে বনলতা সেন ভাবতে ভাবতে

আমার চোখ হয়ে উঠছে জীবনানন্দ দাশ,

একরাশ কবিতার মতো দীঘলকালো এলোকেশে

আমি খুঁজে ফিরি অমাবস্যার অন্ধকার ।

 

তুমি ফিরে না এলে

আমি খুব শীঘ্র বিজারিত হব

সোডিয়ামের মত একটি ইলেকট্রন ছেড়ে দিয়ে

নিয়নের পাশে নিষ্ক্রিয় অবস্থান নেব

বুলেট কিংবা ব্যালট হাতে দাঁড়িয়ে

আকাশসম চিৎকারে কেউ জানবে না কোনদিন,

তুমিহীনতায় আমার কত কষ্ট লাগে ।

তোমাকে নিছক ভয় দেখানোর জন্য বলছি না

অথবা এটা কোন আল্টিমেটামও নয়

সহিংস কোন আন্দোলনেও যাব না বলে রাখছি

যাপিত জীবনে কিছু মানুষ অধিকার পুষে রাখে

আমি পুষে রাখি কিছু প্রেম বুকের মধ্য ভাগে।

শুধু বলছি, তুমি এ জীবনে একবার এসো

নয়ত একবার হারাই যদি তবে

না উত্তরবঙ্গে না দক্ষিণবঙ্গে, না পুর্বে না পশ্চিমে,

হৃদয়ের হিমবাহ ধরে উদ্দেশ্যহীন হাঁটতে গিয়ে

হারিয়ে যাব পাবেনা আমায় আর তোমার দরোজায়।

*ভালোবাসা* *প্রিয়* *নীলাদ্রি* *হারানো* *তোমাকে* *চাই*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 আপনার প্রিয় ৫ টি বাংলা ব্যান্ড গান এর নাম বলুন ।

উত্তর দাও (২ টি উত্তর আছে )

.
*ব্যান্ড* *গান* *প্রিয়*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

ভালোবাসা যেন কোন এক উদ্দেশ্যহীন গন্তব্য

হঠাৎ জীবনে আসে

রঙহীন স্বপ্নকে রঙিন বানায়।

যে ছেলেটা বড্ডো অগোছালো

সে হুট করে সংসারী হয়ে যায়

চঞ্চলা কিশোরী হয়ে উঠে নারী।

যে তরুণ আড্ডায় জীবনের মানে খুজে পেতো

হঠাৎ তার কাছে ঘর প্রিয় হয়ে উঠে

সিগারেট ছেড়ে ধরে প্রেয়সীর হাত।

যে মেয়েটাকে সবাই বলতো দজ্জাল দারোগা

স্বভাবে, চোখের ভাষায় সে হয়ে যায় শান্ত হরিণীর মতো

রাগ শব্দটা তার কাছে পৃথিবীর সপ্তাশ্চর্য মনে হয়।

দু'কথা বেশি বলেছিলো বলে যে ছেলেটা চরম আক্রোশে

মেরে ভেঙ্গে দিয়েছিলো রফিকের হাত;

প্রেয়সীর হাজার কথা শুনেও সে থাকে -

ভেজা বেড়ালের মতো চুপচাপ।

বাবা দামী জামা কিনে না দিলেই

যে মেয়েটা হট্টগোল বাধাতো;

সে মাসের পর মাস এক জামাতেই কাটিয়ে দেয়

যেন এভাবেই সে অভ্যস্ত অনন্ত কাল।

.

ভালোবাসা হুট করে আসে; জেকে বসে মনে

নারী বিদ্বেষী ছেলেটা গার্লস কলেজের গেটে দাড়িয়ে থাকে

চিরকুমারী সংঘের সভাপতিকে দেখা যায় যুবকের সাথে-

পাশাপাশি বসা এক রিকশায়।

ভালোবাসা আসে কাল বৈশাখীর মতোই হঠাৎ

কেন ভালো লেগেছিলো? কেন ভালো লাগে?

প্রশ্নগুলো হয়ে যায় অর্থহীন;

অতি সাধারণ ছেলেটা হয়ে উঠে রাজপুত্র

শ্যামলা মেয়েটা চাঁদ।

.

ভালোবাসা হুট করে আসা এক বর্গী যেন

হঠাৎ সমস্ত অস্তিত্ব দখল করে নেয়

স্বৈরাশাসকের মতো চালায় শাসন।

তবু এ পরাধীনতাকে সেচ্ছায় মেনে নেওয়া

দিন শেষে বলা; ভালোবাসা মানে-

"তোমাকেই সাথে নিয়ে আছি আমি বেশ।"

*কবিতা* *আবেগ* *প্রিয়* *ছেলেটা* *ভালোবাসা* *রঙিন*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

প্রিয়তমেষু ,
আঘাতে অবহেলায় উপেক্ষায় কখনো প্রতিঘাত করা জরুরী হয়ে পড়ে।
রক্ত মাংশে গড়া আমিও।
এটা জানা উচিত যেমন হৃদয় উজার করে ভালোবাসতে জানি
তেমনই অবহেলায় অপমানে প্রচন্ড অভিমানে দূরেও সরে যেতে জানি।
নিজেকে গুটিয়ে নিয়ে ২৪x ৭ তোমাকেই ভাবব,
অথচ তুমি জানবেও না বুঝবেও না,
কখনো টের ও পাবে না।
চাইলেও হাত বাড়িয়ে আমায় ছুঁতে পারবে না-
দেখতেও পারবে না এই হিপোপোটেমাসকে।
চাইলেও পারবে না.........
হয়তো কোন একদিন হঠাত করে তোমার চোখের সামনে
ডায়েরীর এলোমেলো পাতা গুলো আছড়ে পড়বে।
অবাক হয়ে পড়বে তুমি,
কিন্তু ততদিনে দূরত্ব আলোকবরষ থেকেও অনেক বেশি হবে......
ভালো থেকো।

*আবেগ* *ভালোবাসা* *প্রিয়* *দূর*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: স্বাধীন হবার পর প্রতিদিন ধর্ষিত হয়, বলে বিদ্রুপ করলে যাকে; সে আমার বাংলাদেশ।

*বাংলাদেশ* *ধর্ষন* *বাস্তবতা* *প্রিয়*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

সিনেমাঃ হ্যাকশ রিজ
পরিচালকঃ মেল গিবসন
আইএমডিবি রেটিং - ৮.৩/১০ ( ১০০২১৭)
অস্কার নমিনেশনঃ বেস্ট পিকচার, বেস্ট ডিরেক্টর, বেস্ট এক্টর, বেস্ট ফিল্ম এডিটিং, বেস্ট সাউন্ড এডিটিং, বেস্ট সাউন্ড মিক্সিং।

অ্যামেরিকান পয়েন্ট অফ ভিউ থেকে নির্মিত দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ নিয়ে মুভিগুলো একদম একমুখী আর বিরক্তির উদ্বেগ ঘটায় ( একান্ত ব্যক্তিগত মতামত )। কিন্তু ডেসমন্ড ডসের বীরত্ব গাঁথা জানা থাকায় অ্যামেরিকান পয়েন্ট অফ ভিউ থেকে নির্মিত হ্যাকস রিজ আগ্রহে কোন ভাঁটা ফেলতে পারে নি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ নিয়ে নির্মিত শিল্ডলার্স লিস্ট, সেভিং প্রাইভেট রায়ান, দ্যা পিয়ানিস্ট, দ্যা ইংলিশ পেসেন্ট, দ্যা বুক থিফ, দ্যা ফ্লাওয়ারস অফ ওয়ার ( অনেকেই হয়ত এই মুভিটাকে তালিকায় রাখবেন না, কিন্তু আমার কাছে এই মুভিটা অন্যতম সেরা ) এর মত মাস্টার পিস সিনেমার কাছাকছি কি যেতে পারবে? হ্যাকশ রিজ দেখার পরে অবশ্য নির্দ্বিধায় এই মাস্টারপিস মুভি তালিকায় নামটা উঠিয়েই দেয়া যায়।

যুদ্ধ মানেই ধ্বংস, নৃশংস, নির্দয়! এই নৃশংসতার মাঝে একটু খানি মানবতাই অনেক কিছু। কিন্তু এই মানবতা যদি যুদ্ধের ধ্বংসলীলার চেয়েও বড় হয়ে যায়, তখন তাঁকে কি বলা যায়? যুদ্ধের নৃশংসতার মাঝে ভালোবাসা আর মানবতার জয়গানেরই জয়জয়কার হ্যাকশ রিজ মুভিতে।

 

 


সম্মুখ সমরের মূল মন্ত্র কি? হয় মারো নয়ত মরো! এর মাঝে মনে হয় না আর কোন পথ খোলা থাকে যুদ্ধ জয়ের। সম্মুখ সমরে দলের একজনের ভুলের কারণে পুরো ইউনিট এর সদস্যদের উপর বিপদ নেমে আসতে পারে। এমন কঠিন বাস্তবতার মাঝে যদি কেউ বলেন আমি যুদ্ধের ময়দানে উপস্থিত থাকব কিন্তু মরনাস্ত্র স্পর্শ করব না, তাহলে কিরকম হবে? হ্যাকশ রিজ মুভির মূল চরিত্র ডেসমন্ড ডসের ইচ্ছাটাই ছিল এরকম। ' পৃথিবীর সবচেয়ে নিকৃষ্ট পাপ হচ্ছে মানুষ হত্যা করা' ছোট বেলায় মায়ের কাছ থেকে পাওয়া এই শিক্ষাকে নিজের বিশ্বাসে পরিণত করেছিলেন ডস। আমৃত্যু সেই বিশ্বাসে অটল ছিলেন ডস। এই বিশ্বাসের মূল্য রাখার জন্য তাঁকে লড়াই করতে হয়েছে পৃথিবীর সাথেই। যার মধ্যে বাদ ছিল না তাঁর নিজের সৈন্যদলও! ডেসমন্ড ডসের চাওয়াটা ছিল সামান্যই - "With the world so set on tearing itself apart, it don't seem like such a bad thing to me to want to put a little bit of it back together."

নিজের বিশ্বাসের মর্যাদা রাখতে শত্রু পক্ষের চেয়েও কঠিন ছিল নিজ পক্ষের মানুষদের সাথে লড়াই করা। রাতের আধারে নিজ সৈন্য দলের আঘাতে আহত হওয়া। কাপুরুষ বিশেষণে বিশেষায়িত হওয়া। এতটুকুতেই শেষ নয়! কোর্ট মার্শালের সম্মুখীনও হতে হয় তাঁকে! সুযোগ অবশ্য ছিল স্বেচ্ছায় সেনা বাহিনী ত্যাগ করা কিংবা অস্ত্র হাতে তুলে নেয়া। দেশমাতৃকার প্রয়োজনে নিজেকে নিয়োজিত করায় দৃঢ় প্রত্যয়ী ডস সেনা বাহিনী ত্যাগ কিংবা অস্ত্র হাতে নেয়া দুটিকেই অস্বীকার করেন। "I've done everything they asked me,except this one thing,and I'm being treated like a criminal just 'cause I won't kill." কোর্ট মার্শাল এর ভয় এমনকি প্রেয়সীর অনুরোধেও নিজের বিশ্বাস থেকে বিন্দু মাত্র সরে আসেন নি তিনি। প্রেয়সীর অনুরোধের উত্তরে ডস বলেন, I don't know how I'm going to live with myself if I don't stay true to what I believe.

অবশেষে কোর্ট মার্শাল থেকে মুক্তি পেলেন তিনি। কিন্তু মূল যুদ্ধটা শুরু এখান থেকেই। গিবসন মুভির এই অংশটা এমন ভাবে উপস্থাপন করেছেন যেন দর্শক আর পর্দার বাইরে থেকে উপভোগ করছে না! আমার মনে হয় প্রতিটি দর্শক উপস্থিত দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ময়দানে। জাপানিজ সৈন্যদের প্রতিরোধের মুখে যখন এক এরপর এক অ্যামেরিকান সৈন্য আহত কিংবা নিহত হচ্ছিল তখন পিছু হটতে বাধ্য হয় অ্যামেরিকান সৈন্য দল। কিন্তু একজন যুদ্ধের ময়দানে রয়ে গেলেন! যাকে কাপুরুষ হিসাবে গণ্য করা হয়েছিল। সেই কাপুরুষ ডস পিছু হটলেন না। রয়ে গেলেন যুদ্ধাহত সৈন্যদের পাশে। আহতদের সেবা করছেন শত্রু পক্ষের দখলকৃত এলাকাতেই।

হ্যাকশ রিজ মুভির সবচেয়ে শক্তিশালী অংশ আমার মনে হয় যুদ্ধের অংশটুকু। এতটা বিশ্বাসযোগ্য ভাবে রূপালী পর্দায় উপস্থাপন করেছেন গিবসন, যার কারণেই দর্শক এতটা একাত্ম হতে পেরেছে মুভিটার সঙ্গে। চারিদিকে মৃত্যুর রঙ্গ নৃত্য দেখে ঈশ্বরের নিকট ডস এর আকুতি - "What is it you want of me?I don't understand.I can't hear you." তখনই আহত এক সৈনিকের মেডিক এর সাহজ্য প্রার্থনা! এই দৃশ্য চোখে লেগে থাকবে অনেক দিন। মৃত্যুকে পরোয়া না করে আহত সৈনিকদের দড়ি দিয়ে বেঁধে এক এক করে নিরাপদে নামিয়ে আনা! আর ঈশ্বরের নিকট প্রার্থনা - গড আর একটা প্রাণ বাঁচাতে দাও! ডস যখন বলছিল - Please Lord Help me Get One More!Help Me Get One More! আমার মতো অনেকেই হয়ত তখন ঈশ্বরের নিকট প্রার্থনা করছিলেন আর একটি প্রাণ বাঁচানোর! ডেসমন্ড ডসের সেবা কি শুধুমাত্র নিজ সৈন্যদলের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল? না, এই মহান মানুষটার সেবার কোন সীমাবদ্ধতা ছিল না। জাপানিজ আহত সৈনিকদেরও সেবা করেছিলেন ডস।

হ্যাকশ রিজ মুভির অন্যতম শক্তিশালী একটি দিক এর সংলাপ। কিছু কিছু সংলাপ হৃদয়ে গেঁথে থাকবে অনেক অনেক দিন। যুদ্ধের ভয়াবহতা বুঝাতে ব্যবহৃত সংলাপ, In peace, sons bury their fathers. In war, fathers bury their sons. অথবা 'Imagine how painful it is to have a dad leave, and a flag come back.' ডেসমন্ড ডসের সাথে ক্যাপ্টেন এর সংলাপ - Most of these men don't believe the same way you do, but they believe so much in how much you believe.

 ভিযুদ্ধে হয়ত কেউ জয়ী হয় না, একদল শুধু পরাজিত হয়। কিন্তু ডেসমন্ড ডস জয়ী হয়েছিলেন! সম্পূর্ণ একক প্রচেষ্টায় ৭৫ জনকে বাঁচিয়েছিলেন মৃত্যুর হাত থেকে। যুদ্ধ শুধুই নিতে পারে, দেয়ার ক্ষমতা হয়ত যুদ্ধের নেই। “War leaves memories that even victory cannot erase.”

*মুভিরিভিউ* *যুদ্ধ্ব* *হলিউড* *প্রিয়* *মুভিখোর*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: অসাধারণ একটা ইসলামিক নাশীদ ।। আশা করছি সবার ভালো লাগবে ।। আমি সত্যি এতো গানের ভীড়ে এই নাশীদ এর ছোয়ায় হারিয়ে গিয়েছি ।। ভালোবাসা নামের এই নাশীদ গেয়েছেন ইকবাল ভাই ।। ইংরেজী, আরাবী এবং বাংলায় গাওয়া নাশীদ ।। https://www.youtube.com/watch?v=Ab0P7YqDKAg&t=2s

*ইসলামিক* *নাশীদ* *প্রিয়*

আলোহীন ল্যাম্পপোস্ট: একটি বেশব্লগ লিখেছে

যদি তুমি আমার আগেই জাগো, আর জেগেই দেখো
কাঁদছি আমি শুয়ে ঘুমের ঘোরে, তবে আলতো করে
একটি চুমু দিও, হাত বুলিয়ে দিও আমার চুলে।
কান্না থামার একটু ছুঁতো দিও, হোকনা মনের ভুলে।

যদি তুমি আমার আগেই জাগো, আর জেগেই দেখো
আমার মুখে হাসি। হাসছি আমি তোমায় ভালবেসে,
বিভোর হয়ে মধুর স্বপন মাঝে। তবে দোহাই তোমার,
বাস্তবেও ঘটিয়ে দিও সখা, সেই স্বপ্নটাকে আমার।

যদি তুমি আমার আগেই জাগো, আর জেগেই দেখো
কাঁপছি আমি শীতে। তবে আমায় তুমি ওম দিয়ো
তোমার শরীরটাকে বানিয়ে দিয়ে নরম তুলোর লেপ।
ভাঁজে ভাঁজে বুলিয়ে দিও, তোমার উষ্ণতার প্রলেপ।

যদি তুমি আমার আগেই জাগো, আর জেগেই দেখো
আমি পাশে শুয়ে। আস্তে করে কাছে টেনে নিয়ে,
প্রিয় তুমি বলতে থেকো, আমায় ভালবাসো কত,
গদ্য দিয়ে, পদ্য দিয়ে, আরো ভাষা জানো যত।

যদি তুমি আমার আগেই জাগো, আর জেগেই দেখো
তোমার পাশেই আমি। হেথায় আমায় একেলা রেখে,
সখা তুমি যেওনাকো অন্য কোথা, অন্য কোনখানে,
তোমায় যদি দেখতে না পাই, শঙ্কা ছড়ায় প্রাণে।

যদি তুমি আমার আগেই জাগো, আর জেগেই যদি
এই কথাটি আমার মুখে শুনতে তুমি চাও, তোমায়
'প্রাণের চেয়েও ভালোবাসি', তবে জাগিয়ে দিও আমায়।
সখা তুমি জানো ভালই, আমায় কিভাবে জাগাতে হয়!


মূলঃ Lora Colon
অনুবাদ: খায়রুল আহসান

কবি পরিচিতিঃ Lora Colon এর জন্ম ২৬ সেপ্টেম্বর ১৯৪৪, তার প্রকৃত নাম Lorraine Colon। কবিতায় তিনি Lora Colon সংক্ষিপ্ত নামটি ব্যবহার করে থাকেন। তিনি মার্কিণ যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরীতে বসবাস করেন। তিনি জীবন ঘনিষ্ঠ মিষ্টি প্রেমের কবিতা লিখে থাকেন, তবে তার বেশীরভাগ কবিতায় বিরহ বেদনার সুর প্রকটভাবে মূর্তমান।

মূল কবিতাটি নিম্নে উদ্ধৃত হলোঃ

If You Awaken Before Me


If you awaken before me
And I'm crying in my sleep,
Kiss me gently.... stroke my hair,
Give me reason not to weep

If you awaken before me
And I'm smiling happily,
I'm loving you in my dreams....
Make my dreams reality

If you awaken before me
And I'm shivering with cold,
Let your body be my quilt,
Let all your warmth unfold

If you awaken before me,
Gently, darling, pull me close,
Tell me how much you love me,
In poetry..... in prose

If you awaken before me,
Never leave me here alone;
I panic when I don't see you,
And your whereabouts, unknown

If you awaken before me
And you need to hear me say:
I love you more than life itself....
Awaken me..... you know the way!

Lora Colon


(লেখাটি ইতোপূর্বে অন্যত্র প্রকাশিত হয়েছিলো)

*কবিতা* *প্রিয়*
*প্রিয়*

ঈশান রাব্বি: ভালবাসার নীল আকাশে শুধুই কান্না আহাজারি তোমার স্মৃতি নিয়ে আমার বেঁচে থাকা জানি তুমি সুখেই আছ, আমায় ভুলে (কান্না)

*কান্নারজল* *প্রিয়* *কান্নাহাসি* *ফালতুপোস্ট*

মোঃ হাবিবুর রহমান (হাবীব): অবশেষে বেশতো'তে নিজের প্রোফাইল পিকচার দিতে পারলাম । (খুকখুকহাসি) (খুকখুকহাসি) (খুকখুকহাসি) - অনেক অনেক ধন্যবাদ, *প্রিয়* স্যারকে (মোঃ ফারুক হোসেন, *আইটি* *কর্ণার*)।

*বেশতো* *আইটি* *প্রিয়* *শিক্ষক* *আমি* *প্রোফাইল* *পিকচার* *নতুন* *উপকার* *সেরা* *প্রিয়* *আইটি*

শুভাশীষ: একটি নতুন প্রশ্ন করেছে

 নিজের কোন জিনিসটা আপনার বেশী প্রিয়?

উত্তর দাও (৭৭ টি উত্তর আছে )

.
*জীবনেরভাবনা* *প্রিয়*

সাদাত সাদ: একটি বেশটুন পোস্ট করেছে

আমার ভালবাসা
যদি তোমায় আমি চাঁদ বলি ভুল হবে আমার তুমি চাঁদের চেয়েও সুন্দর। যদি তোমায় আমি ফুল বলি ভুল হবে আমার, তুমি ফুলের চেয়েও সুন্দর
*চাঁদ* *প্রিয়* *জীবন*

ঈশান রাব্বি: আমি থাকে কিভাবে বোঝাব সে কিছুতেই বোঝতে চাইনা আমাকে। তবুও তারে ভালবাসি বাসব চিরকাল

*প্রিয়*
ছবি

মেঘ: ফটো পোস্ট করেছে

বেশতো সাইট টিতে কোনো কন্টেন্ট-এর জন্য বেশতো কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

কনটেন্ট -এর পুরো দায় যে ব্যক্তি কন্টেন্ট লিখেছে তার।

...বিস্তারিত

QA

★ ঘুরে আসুন প্রশ্নোত্তরের দুনিয়ায় ★